ঢাকা, সোমবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০১৮ ১২:৪১:২৯

ইউটিউবে প্রকাশ পেল সবার ‘প্রিয় এবি’ 

ইউটিউবে প্রকাশ পেল সবার ‘প্রিয় এবি’ 

বাংলাদেশের সংগীত জগতের কিংবদন্তি শিল্পী আইয়ুব বাচ্চুকে শ্রদ্ধা জানিয়ে নতুন একটি গান অন্তর্জালে প্রকাশিত হয়েছে। গানটির শিরোনাম ‘সবার প্রিয় এবি’।      তুমি আছো, তুমি থাকবে, থাকবে এলআরবি, সেই রুপালী গিটার ফেলে, অসময়ে কাঁদায় ছবি- এমন কথামালায় গানটি লিখেছেন আশিক বন্ধু। সিডি প্লাস থেকে প্রকাশিত গানটি গেয়েছেন মামুনুল ইসলাম। সুর সংগীত করেছেন সজীব দাস। গতকাল রাতে গানটি প্রকাশ পাওয়ার পর থেকে মাত্র একদিনে আইয়ুব বাচ্চুর ভক্তদের কাছে গানটি নিয়ে ব্যাপক সাড়া পাওয়া যাচ্ছে বলে জানা যায়। গানটি প্রসঙ্গে গীতিকার আশিক বন্ধু বলেন, আইয়ুব বাচ্চু শুধু শিল্পী নন, একজন অভিভাবকও। আমাদের মিউজিকের পথচলায় তার কাছ থেকে উৎসাহ, অনুপ্ররণা ও ভালবাসা পেয়েছি। খুব কাছ থেকে তাকে দেখেছি, তিনি অত্যন্ত বিনয়ী ও মানবিক গুণাবলী সম্প্ন্ন একজন দায়িত্বশীল মহান শিল্পী ছিলেন। মামুনুল খুব আবেগ দিয়ে এই গানটি গেয়েছেন। সুরকার সজীব দাস বলেন, আইয়ুব বাচ্চু সবসময় আমাদের গানে গানে থাকবেন, আমাদের শ্রদ্ধায় তিনি প্রাণের মাঝে থাকবেন। তার গান, কথা ও সুর আমরা সারাজীবন স্মরণ করে যাবো। এরই ধারাবাহিকতায় সবার প্রিয় ‘এবি’ শিরোনামের গানটি প্রকাশিত হয়েছে।   এসি    
বিএনপি থেকে পদত্যাগ করলেন সংগীতশিল্পী মনির খান   

বিএনপি থেকে পদত্যাগের ঘোষণা দিলেন সংগীতশিল্পী মনির খান। এখন থেকে সাংগঠনিক কোনো পদ-পদবী তিনি গ্রহণ করবেন না। আর কখনো রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত হবেন না।     রোববার সন্ধ্যায় জাতীয় প্রেস ক্লাবের কনফারেন্স লাউঞ্জে এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে পদত্যাগের ঘোষণা দেন তিনি। মনির খান এ সময় বলেন, আমি শহীদ জিয়ার আদর্শে অনুপ্রাণিত হয়ে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার আহ্বানে সাড়া দিয়ে জিয়া সাংস্কৃতিক সংগঠনের (জিসাস) মহাসচিব হিসেবে দলে যোগদান করি। পরবর্তীতে আমার সাংগঠনিক কর্মকাণ্ডে অনুপ্রাণিত হয়ে জাসাসের সাধারণ সম্পাদক ও বিএনপির সহ-সংস্কৃতি সম্পাদক নির্বাচন করা হয়। সংগীত কর্মকাণ্ডের পাশাপাশি আমি দেশ ও দেশের মানুষের কল্যাণে কাজ করার প্রত্যয় ব্যক্ত করে বেগম খালেদা জিয়া আমার নির্বাচনী এলাকায় কাজ করার নির্দেশনা দেন। আমি সবসময় এলাকার সর্বস্তরের নেতাকর্মী ও জনসাধারণের পাশে থেকে জনগণকে ঐক্যবদ্ধ করেছি। তিনি বলেন, আজ বিভিন্ন অজুহাতে আমার এলাকার জনগণকে এবং আমাকে জাতীয় নির্বাচন থেকে সরিয়ে দেয়া হলো। এমন অবস্থায় আমার নির্বাচনী এলাকার জনগণের প্রাণের দাবির সঙ্গে একাকার হয়ে বিএনপির সব সাংগঠনিক পদ পদবী থেকে ইস্তফা দিলাম। তিনি আরও বলেন, আমি এখন থেকে শুধু সংগীত চর্চা করবো। মাঝখানে যে কটা দিন, যে কটা বছর রাজনীতির সঙ্গে সংযুক্ত হবার পর কেটে গেছে, এটি আমার জীবনের অ্যাক্সিডেন্ট ছিল। আমার ভুল ছিল। এই ভুলের জন্য আমি বাংলাদেশের সব মানুষের কাছে ক্ষমা প্রার্থী। এসি     

হাসপাতালের বিছানায় একাকীত্বে কাঙ্গালিনী সুফিয়া 

যার কণ্ঠের গান মানুষের হৃদয়ের মর্ম বেদনা জাগ্রত করতো, যার গানের আকুতিতে ভরে থাকে শোষিত বঞ্চিত মানুষের কথা, সেই মরমী শিল্পী কাঙ্গালিনী সুফিয়া গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় হাসপাতালের বিছানায় মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছেন। তার পাশে নেই কেউ।        চিকিৎসক জানিয়েছেন, সুফিয়ার শারীরিক অবস্থা খুব একটা ভালো নেই। কিন্তু উন্নত চিকিৎসার জন্য পরিবারের সেই সামর্থ্য নেই।     গত সপ্তাহে অসুস্থাবস্থায় সাভারের এনাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে গুণী এই শিল্পীকে। রোববার কাঙ্গালিনী সুফিয়ার মেয়ে পুষ্প জানান, হাসপাতালের সিসিইউতে ভর্তি করা হয়েছে কাঙ্গালিনী সুফিয়াকে। তার শারীরিক অবস্থা অত্যন্ত নাজুক। নিবিড় পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে তাকে। ডা. রিয়াজ উদ্দিনের তত্ত্বাবধায়নে তিনি চিকিৎসাধীন রয়েছেন।   তার চিকিৎসার ব্যাপারে পুষ্প জানিয়েছেন, ‘আমার মা ভীষণ অসুস্থ। এ জন্য দেশবাসীর কাছে দোয়া চাচ্ছি। ডাক্তাররা বলেছেন, তার অবস্থা খুব একটা ভালো নয়। এদিকে আমাদের আর্থিক অবস্থাও খুব একটা ভালো নয়। আমার নিজের টাকা দিয়ে আমার মাকে চিকিৎসা করাচ্ছি। ভালো চিকিৎসা করানোর মতো সামর্থ্য আমাদের নেই।’  উল্লেখ্য, কাঙ্গালিনী সুফিয়া হৃদরোগ ও কিডনী এবং মূত্রনালিতে সমস্যায় ভুগছেন। প্রসঙ্গত, সুফিয়া গুরুতর অসুস্থ হওয়ার পর তার চিকিৎসা খরচ বহন করছেন তার মেয়ে পুষ্প। কিন্তু অসহায় এই শিল্পীর উন্নত চিকিৎসার জন্যে প্রয়োজন আর্থিক সামর্থ্য। কিন্তু এখনও পর্যন্ত তারা কোন প্রকার সহযোগিতার আশ্বাস পাননি। উল্লেখ্য, সুফিয়া অুসুস্থ শরীর নিয়ে কিছুদিন আগেও কুষ্টিয়ায় গান গেয়েছিলেন। সেখান থেকে আসার পর পরই তার শরীরের অবনতি ঘটে।   কেআই/এসি    

বিরতি কাটিয়ে ফিরলেন সুজানা 

জনপ্রিয় মডেল ও অভিনেত্রী সুজানা। বেশ কিছুদিন সুজানা অভিনয়ের বাইরে ছিলেন। সম্প্রতি তিনি বিরতি কাটিয়ে ফিরলেন অভিনয়ে। একটি মিউজিক ভিডিওতে মডেল হয়ে কাজ করছেন সুজানা।   সম্প্রতি কণ্ঠশিল্পী বালাম আসছেন নতুন গান নিয়ে। সেই গানের ভিডিওতেই দেখা যাবে সুজানাকে। কক্সবাজারে চলছে গানটির চিত্রায়ণ।   এই ভিডিওতে কাজ করা নিয়ে সুজানা বলেন, ‘মিউজিক ভিডিওতে কাজ করতে খুব ভালো লাগে। অল্প সময়ে অনেক আঙ্গিকে নিজেকে হাজির করার সুযোগ থাকে। এটাকে এনজয় করি আমি। এই ভিডিওতে সেটা আরও বেশি উপভোগ্য হচ্ছে। সুন্দর লোকেশন, ড্রেস আপ, মেকআপ সব মিলিয়ে কাজটি দুর্দান্ত লাগছে। ভিডিওটিতে অনেক চমক আছে।   বালাম ভাইয়ের গান বরাবরই আমার ভালো লাগে। তার গানের অনেক ভিডিও হয়েছে আমিও আলাদা করে বেশ কিছু ভিডিওতে কাজ করেছি। কিন্তু বালাম ভাইয়ের গানের সঙ্গে এই প্রথম।’ বালামের জন্য ‘হঠাৎ’ গানটি লিখেছেন তাহসান খান। সংগীত করেছে অ্যাপিরেস। বালাম, অদিত এবং ব্যারিস্টার চিশতী ইকবাল এই তিনজন মিলে ‘দ্য ইন্ডাস্ট্রি’ নামে একটি প্রোডাকশন হাউজ খুলেছেন। অদিতের তত্বাবধানে ‘হঠাৎ’ শিরোনামের গানের ভিডিও পরিচালনা করছেন পরাগ ও ভাস্কর। ২০১৯ সালে নতুন বছরের শুরুতে বালাম-সুজানা অভিনীত এই ভিডিওটি প্রকাশ হবে ‘দ্য ইন্ডাস্ট্রি’র ইউটিউব চ্যানেলে। কেআই/এসি     

আইডি হ্যাক করে অর্থ দাবি, থানায় কনকচাঁপা 

কণ্ঠশিল্পী রোমানা মোর্শেদ কনকচাঁপার ফেসবুক আইডি ও ফ্যান পেজ হ্যাক হয়েছে। হ্যাকাররা তার কাছে অর্থ দাবি করেছে বলে জানা গেছে। কনকচাঁপা আইডি উদ্ধারের জন্য পল্টন থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছেন।     কনকচাঁপার ফেসবুক প্রোফাইলে তাঁর নামের পাশে ‘দিস প্রোফাইল ইজ লকড’ দেখা যাচ্ছে। পল্টন থানার সাধারণ ডায়েরিতে তিনি উল্লেখ করেছেন, ২৯ নভেম্বর রাত আনুমানিক ৯টায় অজ্ঞাত ব্যক্তির দ্বারা তাঁর আইডিটি হ্যাক হয়। আইডি ফেরত দেওয়ার জন্য মেসেঞ্জারে অর্থ দাবি করেছে ওই হ্যাকার।    কনকচাঁপার আইডি হ্যাক হওয়া নিয়ে পল্টন থানার উপপরিদর্শক ও তদন্ত কর্মকর্তা শেখ মোহাম্মদ জসিম গণমাধ্যমকে বলেন, ‘আইডি হ্যাক হওয়া নিয়ে আমরা তাঁর অভিযোগ পেয়েছি, এখন তদন্ত চলছে। এখনো তেমন কোনো অগ্রগতি হয়নি।’ কণ্ঠশিল্পী রোমানা মোর্শেদ কনকচাঁপা একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সিরাজগঞ্জ-১ আসন থেকে বিএনপির প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করার কথা রয়েছে। এ জন্য তার প্রস্তুতি চলছে।      এসি    

প্রথমবার দ্বৈত গানে মাহতিম শাকিব

নতুন প্রজন্মের আলোচিত গায়ক মাহতিম শাকিব। প্রথমবার দ্বৈত গানে কণ্ঠ দিলেন তিনি। ‘কুয়াশা’ শিরোনামের গানটিতে তিনি কণ্ঠ মিলিয়েছেন সঙ্গীতশিল্পী কনার সঙ্গে।মুহাম্মদ মোস্তফা কামাল রাজ পরিচালিত ওয়েব সিরিজ ‘কুয়াশা’ জন্য গানটি তৈরি করা হয়েছে।গানটির কথা লিখেছেন জনি হক। সুর ও সঙ্গীতায়োজন করেছেন নাভেদ পারভেজ। ইতিমধ্যে গানটির রেকর্ডিংও শেষ হয়েছে।গানটি প্রসঙ্গে মাহতিম শাকিব বলেন, ‘এ পর্যন্ত যেসব গান গেয়েছি সবই একক। এবারই প্রথম ডুয়েট গাইলাম। কনা আপু আর আমার এই গান শ্রোতাদের ভালো লাগলে খুব খুশি হবো।’কনা বলেন, ‘মাহতিম শাকিবের গায়কী আমার ভালো লাগে। রেকর্ডিংয়ের আগে জানতাম না এটি ওর প্রথম ডুয়েট। সেই হিসেবে শ্রোতাদের জন্য এই গান অন্যরকম লাগবে বলে আমার বিশ্বাস।’উল্লেখ্য, রাজের ‘কুয়াশা’য় প্রথমবার একসঙ্গে অভিনয় করছেন নুসরাত ইমরোজ তিশা ও এবিএম সুমন। এছাড়াও আছেন শহীদুজ্জামান সেলিম। এটি অপরাধ জগতের গল্প নিয়ে তৈরি হচ্ছে।এসএ/

‘যুদ্ধ শিশু’ নিয়ে ইমরান খন্দকার  

নতুন মিউজিক ভিডিও নিয়ে আসছেন ইমরান খন্দকার। “যুদ্ধ শিশু” শিরোনামে মহান বিজয় দিবসকে সামনে রেখে গানটি নির্মাণ করা হয়েছে। গানটি লিখেছেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মাননীয় সচিব নাছিমা বেগম (এনডিসি), সুর করেছেন সুজন ও সংগীত আয়োজন করেছেন ফরহাদ।    দেশের অন্যতম রেকর্ড লেবেল আজব রেকর্ডস থেকে প্রকাশিত হবে “যুদ্ধ শিশু” শিরোনামের গানটি। নতুন গান প্রকাশ সম্পর্কে ইমরান খন্দকার বলেন, আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধকে কেন্দ্র করে রচিত এই গানটি গাইতে পেরে আমার খুব ভালো লাগছে। আশা করি শ্রোতাদের ও ভালো লাগবে। গানটি ভিডিও নির্মাণ করেছে আজব কারখানা এবং পরিচালনা করেছেন বর্ণ চক্রবর্তী। গানটি আজব রেকর্ডস এর ইউটিউব চ্যানেল এ দেখা যাবে। এছাড়াও শ্রোতারা শুনতে পারবেন জিপি মিউজিক, এবং বাংলালিংক ভাইব এ্যাপ এ। এসি    

গান-কথনে আইয়ুব বাচ্চুকে স্মরণ

পৃথিবীর সব বন্ধন ত্যাগ করে কিছু দিন আগে না ফেরার দেশে পাড়ি জমালেন কিংবদন্তী ব্যান্ডশিল্পী আইয়ুব বাচ্চু। তার সেই চলে যাওয়ার সংবাদে এখনও দেশের সঙ্গীতাঙ্গনে কাটেনি শোক। কিন্তু সেই শোককে শক্তিতে পরিণত করে সামনের দিকে এগিয়ে যাবে দেশের ব্যান্ড সঙ্গীত-এ শপথে আইয়ুব বাচ্চু স্মরণে অনুষ্ঠিত হলো ‘ফেয়ারওয়েল ট্রিবিউট টু আইয়ুব বাচ্চু’। রোববার সন্ধ্যায় শিল্পকলা একাডেমির সঙ্গীত, আবৃত্তি ও নৃত্যকলা মিলনায়তনে বামবা ও শিল্পকলা একাডেমির যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত হয় এ অনুষ্ঠান। স্মরণানুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর। ব্যান্ডসঙ্গীতশিল্পী মাকসুদের সঞ্চালনায় আইয়ুব বাচ্চুকে নিয়ে কথা বলেন সঙ্গীতশিল্পী রফিকুল আলম, বামবা’র সভাপতি ও মাইলস-এর হামিন আহমেদ, শাফিন আহমেদ, ফিডব্যাকের ফুয়াদ নাসের বাবু, মাইলস-এর মানাম আহমেদ, দলছুট-এর বাপ্পা মজুমদার প্রমুখ। দেশের ব্যান্ডদলগুলোর সংগঠন ‘বামবা’র আয়োজনে অনুষ্ঠিত এই আয়োজনে শুরুতেই ছিলো শ্রদ্ধাঞ্জলী-কথন। এতে আইয়ুব বাচ্চুকে নানাভাবে মূল্যায়ন করলেন তার দীর্ঘদিনের সহকর্মী, বন্ধু ও শিল্পী ও গানের মানুষেরা। আইয়ুব বাচ্চুর প্রতি শ্রদ্ধার্ঘ্য কথনে তারা বলেন, গিটারের ছয় তারের সুরে হৃদয় হরণ করেছিলেন এ দেশের অগণিত সঙ্গীতপিপাসুদের। সহকর্মীদের ভালো কাজের প্রশংসা করার পাশাপাশি ব্যান্ডসঙ্গীতের উন্নয়নে সদাব্যস্ত ছিলেন। ব্যান্ডসঙ্গীতের পাশাপাশি চলচ্চিত্র ও জিঙ্গেলেও নতুনত্ব এনেছিলেন তিনি। যত বড় মাপের শিল্পী ছিলেন তার চেয়ে বড় মাপের মানুষ ছিলেন আইয়ুব বাচ্চু। তার মৃত্যুতে এ দেশের সঙ্গীতের অপূরণীয় ক্ষতি হয়ে গেলো। তার সৃষ্টি কর্মের মধ্য দিয়েই তিনি এ দেশের সঙ্গীতাঙ্গনে চিরজাগরুক থাকবেন। দুই পর্বে বিভক্ত এই অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় পর্বে আইয়ুব বাচ্চু ও এলআরবি’র ১৫টি গান গেয়ে শোনা বিভিন্ন ব্যান্ড দলের সদস্যরা। গানগুলোর মধ্যে ছিলো- ‘এখন অনেক রাত’, ‘রাতের তারার মতো’, ‘চাঁদ মামা’, ‘ফেরারি মন’, ‘গতকাল রাতে’, ‘সুখেরই পৃথিবী’, ‘ঘুম ভাঙা শহরে’, ‘দিশেহারা’, ‘ময়না’, ‘রূপালী গিটার’, ‘হাসতে দেখো’, ‘বাংলাদেশ’, ‘নীল বেদনা’ ও ‘ঘুমন্ত শহরে’। সবশেষে সবগুলো কণ্ঠ এক হয়ে ‘চলো বদলে যাই’ গানটি গাওয়ার মধ্য দিয়ে শেষ হয় এ আয়োজন। একে//

দশ লাখ ছাড়িয়ে ধ্রুব মিউজিক স্টেশন

নতুন মাইলফলকে ‘ধ্রুব মিউজিক স্টেশন’(ডিএমএস)। মাত্র ২ বছরেই ১০ লাখ বা ১ মিলিয়ন সাবস্ক্রাইবারের মাইলফলক স্পর্শ করল দেশের অন্যতম শীর্ষ এই অডিও-ভিডিও প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান। ২০১৭ সালে যাত্রা শুরু করা এই প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানটি সম্প্রতি এই সাফল্যের মাইলফলক স্পর্শ করে।      দর্শক-শ্রোতার এই ভালোবাসায় উচ্ছ্বাসিত প্রতিষ্ঠানটির কর্নধার ও জনপ্রিয় সঙ্গীত শিল্পী ধ্রুব গুহ জানালেন- ‘সবার প্রিয় অডিও-ভিডিও প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান ‘ধ্রুব মিউজিক স্টেশন’ (ডিএমএস) এখন ১০ লাখ সাবস্ক্রাইবারের পরিবার। এটা আমাদের অহংকার নয়, এটা আমাদের অলংকার। আমরা দেবো গুনগত মান সম্পন্ন অডিও-ভিডিও। আমাদের পূর্বের ধারা অব্যাহত রেখেই। শুধু মুখে মুখে নয়, বাস্তবেই সুস্থ ধারার বাংলা গানকে টিকিয়ে রাখার সংগ্রামে বদ্ধপরিকর আমরা। অতীতের ন্যায় ভবিষ্যতেও আপনাদের সবার প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ সমর্থন, সহযোগিতা, ও ভালোবাসা চাচ্ছি। সুস্থ ধারার বাংলা গানের জয় হউক।’ উল্লেখ্য ‘ধ্রুব মিউজিক স্টেশন’ (ডিএমএস), প্রতি সপ্তাহেই একাধিক নতুন গান এবং নাটক, শর্টফিল্ম দর্শক- শ্রোতাদের উপহার দিয়ে যাচ্ছে।   ‘ধ্রুব মিউজিক স্টেশন’ ছাড়াও ইউটিউবে রয়েছে ধ্রুব মিউজিক কটেজ, ধ্রুব টিভি, ছবিমেলা চ্যানেলগুলো। এসি    

আসিফের ‘পাশের বাড়ির সাবিনা’ 

আসিফ আকবর যাকে বাংলা গানের যুবরাজ বলা হয়। গানের পাশাপাশি মিউজিক ভিডিও’র মডেল হয়ে তুমুল আলোচনার জন্ম দিয়েছেন। নিজের গানের মডেল হয়ে তিনিই হাজির হচ্ছেন দর্শকদের সামনে।     আসিফ এবার নতুন একটি গান নিয়ে হাজির হচ্ছেন। গানের শিরোনাম ‘পাশের বাড়ির সাবিনা’। গানটির কথা লিখেছেন এইচ এম রিপন আর সুর ও সঙ্গীত আয়োজন করেছেন অমিত চ্যাটার্জি। শুক্রবার গান-ভিডিওর একটি পোস্টার নিজের ফেসবুকে পোস্ট করেছেন আসিফ আকবর। সেখানে গোফওয়ালা এক আসিফের দেখা মিলেছে। ধারণা করা হচ্ছে এবার নতুন কোনও গল্প ও লুকে ভক্তদের চমকে দেবেন এই শিল্পী।    ভিডিওতে আসিফ আকবর ছাড়াও দেখা যাবে আসিফ ইমরোজ, আসফিয়া অহি, নাওমী খানকে। আর এই মিউজিক ভিডিওটি নির্মাণ করেছেন রোহান মাহমুদ। কোরিওগ্রাফিতে ছিলেন হাবীব। এ ব্যাপারে আসিফ আকবর বলেন, আমি একজন শিল্পী। অভিনয়টা আমার কাজ না। তবে এখন গানের পাশাপাশি ভিডিওতে পরিচালক-প্রযোজকরা আমাকে চান। এদিকে শ্রোতারাও পছন্দ করছেন। আমি চেষ্টা করি ভালো কিছু করার জন্য। তবে পুরো কৃতিত্বটা পরিচালক বা নির্মাতাকেই দিতে চাই। জানা গেছে, আগামীকাল শনিবার এসডিকে মিউজিক স্টেশনের ব্যানারে প্রকাশিত হবে গানটি ‘পাশের বাড়ির সাবিনা’র গান-ভিডিও। এসি       

জর্জ হ্যারিসনের মৃত্যুবার্ষিকী আজ

জর্জ হ্যারিসন। ‘বিটলস’ ব্যান্ডের খ্যাতিমান শিল্পী। শুধু তাই নয়, পৃথিবীর সেরা ১০০ জন গিটারিস্টের মধ্যে অন্যতম, যার অবস্থান ১১ নম্বরে। ১৯৪৩ সালের ২৫ ফেব্রুয়ারি জন্মগ্রহণ করেছিলেন জর্জ হ্যারিসন। ব্রিটেনের ওয়েভারট্রি অঞ্চলে তার বাড়ি। লিভারপুল অঞ্চলের বিখ্যাত জায়গা এটি। হ্যারিসনের এই পুরনো বাড়ি দেখতে প্রচুর পর্যটক ভিড় জমান সেখানে।বাবার এক বন্ধুর কাছে জর্জের প্রথম গিটারের হাতেখড়ি। ১৩ বছর বয়সে প্রথম গিটার হাতে পান তিনি। এখনো সেই গিটারটি আছে। হাইস্কুলে পড়ার সময়েই জর্জ ঠিক করে ফেলেন তিনি সংগীত নিয়েই থাকবেন। রক অ্যান্ড রোল-ই হবে তার জীবন। ১৯৫৬ সালে বন্ধু ম্যাকার্টনির সঙ্গে লেননের প্রথম ব্যান্ড ‘কোয়ারিমেন’-এ যোগ দেন তিনি।১৯৬০ সালে ‘কোয়ারিমেন’ই নাম বদলে হয়ে যায় ‘বিটলস’৷ ব্যান্ডের লিড গিটারিস্ট জর্জ হ্যারিসন। ম্যাকার্টনি আর লেনন গায়ক। জর্জও অবশ্য বেশ কয়েকটি গান গেয়েছেন বিটলসে।সারা পৃথিবীতেই শো করেছে বিটলস। বিটলসে থাকাকালীন জর্জ বেশ কিছু গানও লিখেছিলেন। কিন্তু তার অভিযোগ ছিল, তার লেখা অধিকাংশ সময়েই বাতিল করে দিতেন লেনন এবং ম্যাকার্টনি। তবুও তার লেখা সাড়া জাগিয়েছিল৷ভারতীয় সংস্কৃতি নিয়ে হ্যারিসনের ঝোঁক ছিল চিরকালই। ১৯৬৬ সালে বিটলস ভারতে আসে। মহাঋষি মহেশ যোগীর কাছে ধ্যান শিখতে যান সকলেই। ব্যান্ডের বাকি সদস্যরা দ্রুত আগ্রহ হারালেও হ্যারিসন বুঁদ হয়ে যান ধ্যানে। পরবর্তী জীবনে ‘হরে কৃষ্ণ’ আন্দোলনের অন্যতম পুরোধা ছিলেন হ্যারিসন।ব্যান্ডের ওপর রাগ করে ১৯৬৮ সালে প্রথম সোলো অ্যালবাম বের করেন জর্জ, ‘ওয়ান্ডারওয়াল মিউজিক’। বাংলাদেশের জন্মের ইতিহাসের সঙ্গে জড়িয়ে আছে জর্জ হ্যারিসনের নাম। ১৯৭১ সালে রবিশংকরের সঙ্গে জর্জ আয়োজন করেন ‘কনসার্ট ফর বাংলাদেশ’। পাকিস্তান সেনাবাহিনী মুক্তিকামী বাঙালিদের বিরুদ্ধে যে গণহত্যা চালাচ্ছিল তা বিশ্ববাসীকে জানাতে এবং ভারতে আশ্রয় নেওয়া শরণার্থীদের জন্য তহবিল সংগ্রহ করতে ওই কনসার্টের আয়োজন হয়েছিল। বব ডিলান, রিঙ্গো স্টার, রবিশংকর, এরিক ক্ল্যাপটন সকলেই অংশ নিয়েছিলেন ওই কনসার্টে।মাত্র ৫৮ বছর বয়সে ২০০১ সালের ২৯ নভেম্বর মৃত্যু হয় হ্যারিসনের। মৃত্যুর আট বছর পর হলিউড তাকে ‘স্টার অন দ্য ওয়াক অফ ফেম’ সম্মান দেয়। উল্লেখ্য, ১৯৯৭ সালে হ্যারিসনের গলায় ক্যান্সার ধরা পড়ে। তখন তাকে রেডিওথেরাপি দেওয়া হয়, যা সফল হিসেবে মনে করা হয়েছিল। ২০০১ সালে তার ফুসফুস থেকে ক্যান্সার টিউমার অপসারণ করা হয়। ২০০১ সালের ২৯ নভেম্বর হ্যারিসন ৫৮ বছর বয়সে মেটাস্টাটিক নন-স্মল সেল লাং ক্যান্সারে মারা যান। হলিউড ফরএভার সিমেট্রিতে তাকে দাহ করা হয়। এরপর তার দেহভস্ম ভারতের কাশীর কাছে গঙ্গা ও যমুনা নদীতে ছড়িয়ে দেওয়া হয়। পারিবারিক লোকেরা ভারতে হিন্দুরীতিতে তার শেষকৃত্য সম্পন্ন করেন। এসএ/

আসিফের গানে তানহা তাসনিয়া

বাংলা গানের যুবরাজ খ্যাত আসিফ আকবর নতুন গান নিয়ে আসলেন। আসিফ মানেই নতুন কিছু। আসিফ মানেই ভিন্ন কিছু। এরই ধারাবাহিকতায় এবারের তার নতুন গান ‘একটা গল্প ছিলো’’। কি গল্প ছিলো ? কার সাথেই বা এই গল্প? জানতে হলে একটু ঘুরে আসতে হবে ‘ডিজিটাল সল্যুশন’ এর ইউটিউব চ্যানেল ‘রসগোল্লা’ তে। এই চ্যানেলেই মুক্তি পেয়েছে যুবরাজের নতুন গান ‘একটা গল্প ছিলো’।    স্নেহাশীষ ঘোষের কথায় গানটির সুর করেছেন মুহাম্মদ মিলন আর সঙ্গীতায়োজনে ছিলেন এমএমপি রনি। সৌমিত্র ঘোষ ইমনের ভিডিও পরিচালনায় এতে আসিফ আকবরের সাথে মডেল হয়েছেন তানহা তাসনিয়া। গানটি প্রসঙ্গে আসিফ আকবর বলেন- এটি একটি রোমান্টিক ঘরনার গান। গানটির ভিডিওটিও দারুন হয়েছে। আমার শ্রোতা-দর্শকরা আমার কাছে যে ধরনের গান আশা করেন ‘একটা গল্প ছিলো’ ঠিক সে ধরণেরই গান। স্নেহাশীষ, মিলন আর রনি দারুণ কাজ করেছে। ‘ডিজিটাল সল্যুশন’ এর জন্য শুভ কামনা। আশা করছি আসিফিয়ানদের ভালো লাগবে। ‘ডিজিটাল সল্যুশন’ এর ব্যানারে গত ২৭ নভেম্বর মঙ্গলবার ‘একটা গল্প ছিলো’ গানটি প্রকাশিত হয় তাদের ইউটিউব চ্যানেল রসগোল্লা তে।   এসি    

বারী সিদ্দিকীর প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী আজ

প্রখ্যাত সংগীতশিল্পী ও বংশীবাদক বারী সিদ্দিকীর প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী আজ শনিবার (২৪ নভেম্বর)। গত বছরের এই দিনে দিবাগত রাত ২টায় রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে তিনি মারা যান। প্রখ্যাত এই সংগীতশিল্পী ১৯৫৪ সালের ১৫ নভেম্বর নেত্রকোনা জেলার এক সংগীতজ্ঞ পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। শৈশবে পরিবারের কাছে গান শেখায় হাতেখড়ি তার। মাত্র ১২ বছর বয়সেই নেত্রকোনার শিল্পী ওস্তাদ গোপাল দত্তের অধীনে আনুষ্ঠানিক প্রশিক্ষণ শুরু হয়। তিনি ওস্তাদ আমিনুর রহমান, দবির খান, পান্নালাল ঘোষসহ অসংখ্য গুণী শিল্পীর সরাসরি সান্নিধ্য লাভ করেন। ক্লাসিক্যাল মিউজিকের ওপরও পড়াশোনা করেন বারী সিদ্দিকী। দীর্ঘদিন সংগীতের সঙ্গে জড়িত থাকলেও সবার কাছে বারী সিদ্দিকী শিল্পী হিসেবে পরিচিতি পান ১৯৯৯ সালে। ওই বছর হুমায়ূন আহমেদের ‘শ্রাবণ মেঘের দিন’ ছবিটি মুক্তি পায়। এই ছবিতে তিনি ছয়টি গান গেয়ে রাতারাতি আলোচনায় আসেন। তার জনপ্রিয় হওয়া গানগুলোর মধ্যে রয়েছে ‘শুয়াচান পাখি আমি ডাকিতাছি তুমি ঘুমাইছ নাকি’, ‘পুবালি বাতাসে’, ‘আমার গায়ে যত দুঃখ সয়’, ‘ওলো ভাবিজান নাউ বাওয়া’, ‘মানুষ ধরো মানুষ ভজো’। এরপর তিনি চলচ্চিত্রে প্লেব্যাক করেছেন। তার গাওয়া গান নিয়ে বেরিয়েছে অডিও অ্যালবাম। এমএইচ/

© ২০১৮ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি