ঢাকা, রবিবার, ২১ অক্টোবর, ২০১৮ ১:৩৩:২৫

জরায়ু প্রতিস্থাপনের পর সন্তানের জন্ম

জরায়ু প্রতিস্থাপনের পর সন্তানের জন্ম

ভারতে এক নারীর জরায়ু প্রতিস্থাপনের পর সন্তানের জন্ম দিয়েছেন মীনাক্ষী বালান নামের এক নারী। তার  বয়স ২৮ বছর। বৃহস্পতিবার  ভারতের পুনের একটি বেসরকারি হাসপাতালে কন্যা সন্তানের জন্ম দেন তিনি। এই নারীর চিকিৎসক দাবি করেছেন, ভারতের ইতিহাসে এটাই প্রথম ঘটনা। চিকিৎসক নীতা ভার্তি গণমাধ্যমকে বলেন, মীনাক্ষী বালান নামের এই নারী ২০১৭ সালের মে মাসে জরায়ু প্রতিস্থাপন করান । তার মা মেয়েকে জরায়ু দান করেছিলেন। গর্ভপাত হওয়ার পর মীনাক্ষীর জরায়ু অকার্যকর হয়ে পরে। জরায়ু প্রতিস্থাপনের পর ইন-ভিট্রো ফার্টিলাইজেশন (আইভিএফ) গর্ভে সন্তান ধারণ করেন মীনাক্ষী বালান। পুনের গ্যালাক্সি কেয়ার হাসপাতালে সন্তান জন্ম দেন মীনাক্ষী । তার জরায়ু প্রতিস্থাপন করা হয় । চিকিৎসক ভার্তি বলেন, জরায়ু প্রতিস্থাপনের পর সন্তানের জন্মে নেওয়ার ঘটনা সুইডেনে নয়টি, যুক্তরাষ্ট্রে দুইটি এবং এখন ভারতে ১২ তম। সূত্র: এনডিটিভি কেআই/  
শঙ্কার মধ্যেই ভোট চলছে আফগানিস্তানে

ভয়, আতঙ্ক এবং শঙ্কার মধ্য দিয়ে আফগানিস্তানে চলছে সংসদীয় নির্বাচন। শনিবার স্থানীয় সময় সকাল ৭টার দিকে ভোট গ্রহণ শুরু হয়েছে।   এ ভোটকে কেন্দ্র করে আফগানিস্তারের সরকারি কর্মকর্তারা নিরাপত্তার জোরধার করেছে।  এর অংশ হিসেবে ভোট কেন্দ্রগুলোকে ঘিরে দেশটির নিরাপত্তা বাহিনীর প্রায় ৫৪ হাজার সদস্যকে মোতায়েন করা হয়েছে।  এবারের নির্বাচনে আড়াই হাজারের বেশি প্রার্থী লড়াই করছেন, যাদের মধ্যে নারী প্রার্থীও রয়েছে। সংসদীয় আসন রয়েছে আড়াইশটি। এ সংসদীয় নির্বাচনে প্রায় ৯০ লাখ ভোটার তাদের মতামত জানাবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। এই সংসদীয় নির্বাচন আগামী বছরের এপ্রিলে হতে যাওয়া দেশটির প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে প্রভাব ফেলবে। তাই এই নির্বাচনকে বেশ গুরুত্ব দিয়েই দেখছেন পর্যবেক্ষকরা। এদিকে সশস্ত্র গোষ্ঠী তালেবানরা এই সংসদীয় নির্বাচনকে‘জাল’ সংসদ নির্বাচন হিসেবে আখ্যায়িত করে তা বয়কট করতে জনগণের প্রতি আহ্বানও জানিয়েছেন। তাদের এই নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে আফগান জনগণ এই নির্বাচনে কতটুকা সাড়া দেবেন সেটাই এখন দেখার বিষয়। তথ্যসূত্র: বিবিসি ও আল জাজিরা এমএইচ/

ইরানের পরমাণু চুক্তিতে সমর্থন এশিয়া ও ইউরোপের শীর্ষ নেতাদের

ইরানের সঙ্গে স্বাক্ষরিত ছয় জাতিগোষ্ঠীর পরমাণু সমঝোতার প্রতি সমর্থন জানিয়ে এটির পূর্ণাঙ্গ বাস্তবায়নের আহ্বান জানিয়েছেন এশিয়া ও ইউরোপের শীর্ষ নেতারা। শুক্রবার এশিয়া-ইউরোপ মিটিং বা আসেমের শীর্ষ সম্মেলন প্যারিস থেকে এক বিবৃতিতে এ সমর্থন জানিয়েছেন তারা। এসময় পরমাণু সমঝোতা একটি উপকারী ও কার্যকর চুক্তি যা বাস্তবায়ন করলে সুফল পাওয়া যাবে বলে মনে করেন শীর্ষ নেতারা। সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে ইউরোপীয় ইউনিয়ন বা ইইউ’র পররাষ্ট্রনীতি বিষয়ক প্রধান কর্মকর্তা ফেডেরিকা মোগেরিনি বলেন, এই সম্মেলনে এশিয়ার দেশগুলো পরমাণু সমঝোতা রক্ষা করার ক্ষেত্রে ইউরোপীয় দেশগুলোর সঙ্গে ঐক্যমত প্রকাশ করেছে। মার্কিন নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও ইরানের সঙ্গে অর্থনৈতিক লেনদেন চালিয়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে একটি বিশেষ চ্যানেল চালু করার কথা উল্লেখ করে মোগেরিনি বলেন, আগামী কয়েক সপ্তাহের মধ্যে এই চ্যানেল চালু করা যাবে বলে তিনি ব্যাপকভাবে আশাবাদী। ইইউ সম্প্রতি ঘোষণা করেছে, ইরানের সঙ্গে ব্যবসা করার ক্ষেত্রে ইউরোপীয় কোম্পানিগুলো যাতে কোনো প্রতিবন্ধকতার শিকার না হয় সেজন্য তেহরানের সঙ্গে আর্থিক লেনদেন নির্বিঘ্নে রাখার জন্য তারা এসপিভি নামের একটি বিশেষ অর্থনৈতিক ব্যবস্থা চালু করবে। এর আগে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প গত মে মাসে ইরানের পরমাণু সমঝোতা থেকে তার দেশকে বের করে নেন এবং তেহরানের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপের ঘোষণা দেন। কিন্তু ইউরোপীয় দেশগুলোর পাশাপাশি চীন ও রাশিয়া ট্রাম্পের এই পদক্ষেপের বিরোধিতা করে পরমাণু সমঝোতার পূর্ণ বাস্তবায়নের প্রতিশ্রুতি দিয়েছে।   তথ্যসূত্র: পার্সটুডে   এমএইচ/

অবশেষে খাশোগিকে হত্যার কথা স্বীকার করল সৌদি আরব

শেষ পর্যন্ত আনুষ্ঠানিকভাবে দেশটির সরকার-বিরোধী সাংবাদিক জামাল খাশোগিকে হত্যা করার কথা স্বীকার করেছে রাজতান্ত্রিক সৌদি সরকার। শুক্রবার রাতে দেশটির রাষ্ট্র নিয়ন্ত্রিত টেলিভিশন ‘প্রাথমিক তদন্তের’ বরাত দিয়ে জানিয়েছে, ইস্তাম্বুলের সৌদি কনস্যুলেটে ‘এক সংঘর্ষে’ খাশোগি নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় জড়িত থাকার দায়ে সৌদি আরবের উপ গোয়েন্দা প্রধান আহমাদ আল-আসিরি এবং যুবরাজ মোহাম্মাদ বিন সালমানের সিনিয়র সহকারী সৌদ আল-কাহতানিকে বরখাস্ত করা হয়েছে। খাশোগি হত্যার দায়ে বরখাস্ত হওয়া সৌদ আল-কাহতানি সৌদি রাজপ্রাসাদের একজন প্রভাবশালী সদস্য এবং যুবরাজ মোহাম্মাদ বিন সালমানের সিনিয়র উপদেষ্টা। এ ছাড়া, মেজর জেনারেল আহমাদ আল-আসিরি ইয়েমেনের ওপর সৌদি আগ্রাসনের ব্যাপারে রাজতান্ত্রিক দেশটির শীর্ষ মুখপাত্রের দায়িত্ব পালন করছিলেন। সৌদি রাজা সালমান তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এরদোগানের সঙ্গে টেলিফোনে কথা বলার কিছুক্ষণ পর রাষ্ট্রীয় টিভির নিউজ বুলেটিনে এ ঘোষণা দেওয়া হয়। সৌদি আরবের সরকারি কৌঁসুলির বরাত দিয়ে রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে প্রচারিত বিবৃতিতে আরো বলা হয়েছে, ইস্তাম্বুলের সৌদি কনস্যুলেটে খাশোগির সঙ্গে কয়েক ব্যক্তির ‘সংঘর্ষ’ হয় এবং এর জের ধরে তার মৃত্যু হয়েছে। এদিকে খাশোগি হত্যাকাণ্ডের তদন্তের অংশ হিসেবে ১৮ সৌদি নাগরিককে আটক করা হয়েছে। সৌদি রাজা সালমান দেশটির গোয়েন্দা বিভাগকে ঢেলে সাজানোর জন্য খাশোগি হত্যার মূল হোতা যুবরাজ সালমানকে প্রধান করে একটি মন্ত্রিপরিষদীয় কমিটি গঠনের নির্দেশ দিয়েছেন। উল্লেখ্য, গত ২ অক্টোবর সৌদি কনস্যুলেটে প্রবেশ করে গুম হয়ে যাওয়ার পর থেকে সৌদি রাজা সালমান, যুবরাজ মোহাম্মাদ বিন সালমানসহ দেশটির সরকার দাবি করে আসছিল, খাশোগি তার কাজ শেষ করে কনস্যুলেট থেকে বেরিয়ে গেছেন। রাজা এবং যুবরাজ খাশোগিকে হত্যা বা এ হত্যাকাণ্ডে নিজেদের জড়িত থাকার বিষয়টি অস্বীকার করে আসছিলেন। সূত্র : পার্সটুডে এমএইচ/  

মালয়েশিয়ার প্রাক্তন উপ-প্রধানমন্ত্রী গ্রেফতার

মালয়েশিয়ার প্রাক্তন উপ-প্রধানমন্ত্রী আহমেদ জাহিদ হামিদিকে গতকাল বৃহস্পতিবার গ্রেফতার করা হয়েছে। আজ শুক্রবার তাকে আদালতে হাজির করা হয়। তার বিরুদ্ধে ক্ষমতার অপব্যবহার, দুর্নীতি ও লাখ লাখ মার্কিন ডলার বিদেশে পাচারের অভিযোগ এনেছে দেশটির সরকার। চলতি বছরের মে মাসের জাতীয় নির্বাচনে জাহিদের দল ইউনাইটেড মালেস ন্যাশনাল অর্গানাইজেশন দেশটির বর্তমান প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদের নেতৃত্বাধীন জোটের কাছে পরাজিত হয়। দলটির তৎকালীন প্রধান ও প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাক এরপরই নেতৃত্ব থেকে সরে দাঁড়ান। এরপরই জাহিদকে দলীয় প্রধানের দায়িত্ব দেওয়া হয়। কিন্তু গতকাল বৃহস্পতিবার তাকে আটকের পর দুর্নীতি দমন কমিশন ক্ষমতার অপব্যবহারের অভিযোগে আট দফা, অপরাধমূলক বিশ্বাসভঙ্গে ১০ দফা এবং অর্থপাচারের অভিযোগে ১০ দফা অভিযোগ আনে। আজ শুক্রবার সকালে জাহিদকে আদালতে হাজির করা হয়েছে। কিন্তু রাজনৈতিক উদ্দেশ্য প্রণোদিত হয়ে জাহিদের বিরুদ্ধে এসব অভিযোগ আনা হয়েছে বলে দাবি ইউনাইটেড মালেস ন্যাশনাল অর্গানাইজেশনের সমর্থকদের। উল্লেখ্য, এর আগে দেশটির প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাক ও তার স্ত্রীর বিরুদ্ধেও দুর্নীতির অভিযোগ এনেছে দুর্নীতি দমন কমিশন। নাজিব ও তার স্ত্রী বর্তমানে এসব মামলায় জামিনে রয়েছেন। একে//

‘মি-টু’ কাণ্ড: সেঞ্চুরি পেরোল আকবরের উকিলের সংখ্যা

ঘড়ির কাঁটায় দুপুর ২ টা। পাটিয়ালা কোর্টে অতিরিক্ত মুখ্য মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট সমর বিশালের এজলাসে ঠাসা ভিড় সাংবাদিকদের। হাল আমলে এখানেই সুনন্দা পুস্করের মৃত্যু, ন্যাশনাল হেরাল্ড মামলা, দিল্লির মুখ্যসচিবের হেনস্থার মামলা চলেছে। আকবরের নাম ডাকা হচ্ছে। কিন্তু তার দেখা নেই! একদল সাংবাদিক সকাল থেকেই সদ্যপ্রাক্তন বিদেশ প্রতিমন্ত্রীর বাড়ির সামনে অপেক্ষায়। মন্ত্রিপদ ছাড়লেও এখনও আছেন তিন মূর্তি লেনের সরকারি বাংলোয়। সাংবাদিকদের ভিড় দেখে বাংলোর নিরাপত্তাকর্মীরা কৌতূহলী, ‘ইয়ে ‘মিটু’ ক্যায়া হ্যায়?’ মিনিট পাঁচেক পরে আকবর ছাড়াই হুড়মুড়িয়ে ডজন খানেক আইনজীবী ঢুকলেন এজলাসে। নেতৃত্বে গীতা লুথরা। যিনি যৌন হেনস্থায় অভিযুক্ত আর এক সাংবাদিক তরুণ তেজপালের উকিল ছিলেন। গীতার সঙ্গে কৌঁসুলি সন্দীপ কুমার। অথচ আকবরের ৯৭ জন উকিলের তালিকায় এদের নাম ছিল না! সব মিলিয়ে আকবরের আইনজীবীর সংখ্যা সেঞ্চুরি পেরিয়ে গেল! আদালতে গীতা বলেন, তার মক্কেল রাজ্যসভার সাংসদ। প্রধানমন্ত্রী তাকে মন্ত্রী করেছেন, যদিও সম্প্রতি ইস্তফা দিয়েছেন। পাশাপাশি একজন প্রথিতযশা সাংবাদিক, অনেক বই লিখেছেন। বিবাহিত, দুই সন্তান আছেন। কিন্তু প্রিয়া রামানি তার বিরুদ্ধে কুড়ি বছর আগের ঘটনা তুলে মানহানিকর মন্তব্য করে টুইট করেন। সেটি ১ হাজার ২০০ লাইক, ২০০টি রিটুইট হয়েছে। ফলে ৪০ বছর ধরে অর্জিত সুনাম ও সম্মান নষ্ট হয়েছে। এই আর্জি শুনে মামলা গ্রহণ করেছে আদালত। পরশুই আকবরকে হাজির করে তার বিবৃতি শুনতে চেয়েছিল আদালত। কিন্তু আইনজীবীরাই ৩১ অক্টোবর পর্যন্ত সময় চেয়ে নেন। আকবর নিজের পক্ষে ছ’জন সাক্ষীর নাম জানিয়েছেন আদালতকে। যাদের মধ্যে জয়িতা বসু, হবিবুর রহমান, তপন চাকী রয়েছেন। এরই মধ্যে এডিটর্স গিল্ড গতকাল বৃহস্পতিবার অভিযোগকারী নারীদের বিরুদ্ধে মানহানির ফৌজদারি মামলা প্রত্যাহারের জন্য আকবেরর কাছে আর্জি জানিয়েছে। মামলা না উঠলে নারীদের সব রকম আইনি সাহায্য দেওয়ার আশ্বাস দিয়েছে গিল্ড। নারী সাংবাদিকদের প্রশংসা করে গিল্ডের বক্তব্য, তাদের বাহাদুরির জন্যই মন্ত্রিসভা ছাড়তে হয়েছে আকবরকে। জাতীয় নারী কমিশনও কর্মক্ষেত্রে যৌন হেনস্থার অভিযোগ পাঠানোর আবেদন করে। কেন্দ্রীয় নারী ও শিশু উন্নয়ন মন্ত্রী মেনকা গান্ধী গতকাল রাজনৈতিক দলে যৌন হেনস্থার অভিযোগ খতিয়ে দেখতে একটি কমিটি গঠনের প্রস্তাব দিয়েছেন। আরও পড়ুন... আকবরের পদত্যাগে যা বললেন অভিযোগকারী ওই নারী ‘মি-টু’ ঝড়ে উড়ে গেল আকবরের মন্ত্রিত্ব সূত্র: আনন্দবাজার একে//

সৌদি সম্মেলন বয়কটের সিদ্ধান্ত যুক্তরাষ্ট্র-ব্রিটেনের

সৌদি আরবের রাজধানী রিয়াদে আগামী সপ্তাহে অনুষ্ঠেয় বিনিয়োগ বিষয়ক সম্মেলন বয়কটের সিদ্ধান্ত নিয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও ব্রিটিশ সরকার। তুরস্কের ইস্তাম্বুলস্থ সৌদি দূতাবাসে দেশটির সরকার বিরোধী সাংবাদিক জামাল খাশোগি হত্যাকাণ্ডের আশঙ্কা প্রবল হওয়ার পর এ সিদ্ধান্ত নিল ওয়াশিংটন ও লন্ডন। গতকাল বৃহস্পতিবার ব্রিটেন ও যুক্তরাষ্ট্র ঘোষণা করেছে, মার্কিন অর্থমন্ত্রী স্টিভ নিউচিন ও ব্রিটিশ বাণিজ্যমন্ত্রী লিয়াম ফক্স রিয়াদ সম্মেলনে যোগ দিচ্ছেন না। জামাল খাশোগি নিখোঁজ হওয়ার ঘটনায় এই প্রথম যুক্তরাষ্ট্র ও ব্রিটেন সৌদি আরবের বিরুদ্ধে কার্যকর পদক্ষেপ নিল। খাশোগি গত ২ অক্টোবর ইস্তাম্বুলস্থ সৌদি কনস্যুলেটে প্রবেশ করার পর আর বের হননি। সৌদি কনস্যুলেট থেকে খাশোগি হত্যাকাণ্ডের সম্ভাব্য আলামত সংগ্রহ করে নিয়ে যাচ্ছেন তুর্কি গোয়েন্দা কর্মকর্তারা। তুরস্কের কর্মকর্তারা উপযুক্ত দলিল-প্রমাণ পেশ করে জানিয়েছেন, খাশোগিকে ওই কনস্যুলেটের ভেতর নির্যাতন করে হত্যা করার পর তার লাশ কেটে টুকরা টুকরা করা হয়েছে। সৌদি আরব থেকে বিশেষ বিমানে করে আসা ১৫ সদস্যের একটি নিরাপত্তা দল এ কাজ করেছে। কিন্তু রিয়াদ শুরু থেকেই খাশোগি সংক্রান্ত এসব তথ্য বেমালুম অস্বীকার করে এসেছে। তথ্যসূত্র: পার্সটুডে এমএইচ/একে/

‘সে বিষাক্ত, কখনোই বিশ্বমঞ্চে নেতা হয়ে উঠতে পারবে না’

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সিনেটর লিন্ডসে গ্রাহাম বলেছেন, ‘মার্কিন সিনেটে আমি ছিলাম তাদের (সৌদি আরব) সবচেয়ে বড় সমর্থক। কিন্তু এই লোকটা (যুবরাজ) সব তছনছ করে দিয়েছে। সে-ই খাসোগিকে তুরস্কের কনস্যুলেটের ভেতর হত্যা করিয়েছে।’   সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানকে বিষাক্ত বলে আখ্যা দিয়ে তিনি আরও বলেন, ‘খাসোগি হত্যার নেপথ্যে সৌদির হাত থাকার বিষয় প্রমাণিত হলে তাদেরকে কঠোর সাজা ভোগ করতে হবে।’ গ্রাহাম বলেন, যুবরাজ জানেন না এমন কোনো ঘটনা সৌদি আরবে ঘটে না। বুধবার ফক্স নিউজের একটি অনুষ্ঠানে ট্রাম্পের ঘনিষ্ঠ বলে পরিচিত রিপাবলিকান সিনেটর লিন্ডসে গ্রাহাম এ কথা বলেন। তিনি বলেন, ‘খাসোগিকে হত্যার সরাসরি নির্দেশ দিয়েছেন সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান।’ তাকে ‘দুর্বৃত্ত ক্রাউন প্রিন্স’ বলেও আখ্যা দেন গ্রাহাম। গ্রাহাম বলেন, ‘আমার কাছে এ যুবরাজকে বিষাক্ত মনে হয়। সে কখনোই বিশ্বমঞ্চে নেতা হয়ে উঠতে পারবে না।’ রাজপরিবারের পাঁচ রাজপুত্রকে গুম  ব্রিটিশ গণমাধ্যম দ্য ইন্ডিপেনডেন্ট জানায়, জামাল খাসোগির ‘নিখোঁজ’ নিয়ে রাজবিরোধী কথা বলায় রাজপরিবারের পাঁচ রাজপুত্রকে গুম করেছে সৌদি আরব। জার্মানিতে স্বেচ্ছা নির্বাসনে থাকা সৌদি যুবরাজ খালেদ বিন ফারহান আল-সৌদ নতুন এ অভিযোগ তুলেছেন। ওয়াশিংটন পোস্টের খবর, সৌদি আরবে রাজপরিবারে বিরুদ্ধে সমালোচনা করলেই গুম, হত্য-অপরহণ, জেল অনিবার্য। খালেদ বিন ফারহান বলেন, এ পাঁচ রাজপুত্র হলেন আধুনিক সৌদি আরবের প্রতিষ্ঠাতা বাদশাহ আবদুল-আজিজের নাতি। তারা গত সপ্তাহে সৌদি কর্তৃপক্ষের সঙ্গে এক বৈঠকে খাসোগির নিখোঁজের বিষয়ে কথা বলেছিল। তিনি বলেন, তাদেরকে তাৎক্ষণিক আটক করা হয় এবং এখন তাদের অবস্থান সম্পর্কে কেউ কিছুই জানে না। যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের সমালোচনাকারীদের মুখ বন্ধ করতে নেয়া পদক্ষেপগুলোরই অংশ এসব। ৪১ বছর বয়সী এ রাজপুত্র বলেন, ২ অক্টোবর খাসোগির সঙ্গে যা ঘটেছে, ঠিক এর ১০ দিন আগে আমার সঙ্গেও তাই ঘটতে পারত। আমার অর্থনৈতিক সংকটের বিষয়টি শুনে সৌদি কর্তৃপক্ষ আমাকে সাহায্য করতে চেয়েছিল। তিনি বলেন, আমার পরিবারকে বলা হয় তারা যেন আমাকে মিসরের কায়রোতে অবস্থিত সৌদি দূতাবাসে ডেকে পাঠায়। আমাকে একটা বড় অঙ্কের চেক এবং সম্পূর্ণ নিরাপত্তা দেয়ার প্রতিশ্রুতি দেয়া হয়। কিন্তু আমি তাদের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করি। তিনি আরও বলেন, এখন সৌদির অনেক যুবরাজ কারাবন্দি। মাত্র পাঁচদিন আগে তাদের একটি দল বাদশাহ সালমানের সঙ্গে দেখা করে জানায়, তারা আল-সৌদ পরিবারের ভবিষ্যৎ নিয়ে ভীত। তারা খাসোগির বিষয়টিও উত্থাপন করে। এসব বিষয়ে জানতে ব্রিটিশ গণমাধ্যমটি সৌদি দূতাবাসের সঙ্গে যোগাযোগ করে কোনো জবাব পায়নি। খ্যাতনামা সৌদি সাংবাদিক জামাল খাসোগির অন্তর্ধানে বেকায়দায় পড়ে গেছে সৌদি আরব। ইস্তাম্বুলের সৌদি কনস্যুলেটে তাকে হত্যার বিষয়টি ছায়া ফেলেছে দেশটির বহুল প্রতীক্ষিত ‘দাভোস ইন ডেজার্ট’ সম্মেলনে। আগামী ২৩ অক্টোবর রিয়াদে তিন দিনব্যাপী এ সম্মেলন শুরু হওয়ার কথা রয়েছে। প্রথমদিকে বিশ্বের নামকরা প্রতিষ্ঠানগুলো এ নিয়ে আগ্রহ দেখালেও খাসোগি হত্যাকাণ্ডের পর তাতে ছেদ পড়েছে। এসি   

আগুনে জিহ্বা রেখে সত্য-মিথ্যার পরীক্ষা!

এখনো পৃথিবী জুড়ে বিভিন্ন জাতি-গোত্রের মাঝে নানা অদ্ভুত প্রথা প্রচলিত রয়েছে। যা কখনও কখনও অবিশ্বাস্য মনে হয়। আর এই প্রথার কারণে অনেক সময় অনেকেই জীবন হারান। তবুও পুরনো দিনের সেই সব প্রথা পালন বন্ধ হয়নি অনেক গোত্রে। মিশরে তেমনি কিছু গোত্র রয়েছে যেখানে আপনি মিথ্যা বলছেন কিনা তা প্রমাণ করতে লোহার আগুনে জিহ্বা রেখে আপনাকে অগ্নি পরীক্ষা দিতে হয়। মিসরের বেদুইন সমাজে অসামাজিক কাজ অথবা সত্য-মিথ্যা বিচারের জন্য অভিযুক্তের এই পরীক্ষা নেওয়া হয় বলে জানা গেছে। সেই নিয়ম অনুযায়ী লোহার তৈরি হাতা, চামচ বা অনুরূপ কোনো পাত্র আগুনে গরম করা হয়। টকটকে লাল করার পর সেই গরম পাত্র তিনবার ছোঁয়ানো হয় অভিযুক্তের জিহ্বা। যদি জিহ্বা পুড়ে যায় তাহলে অভিযুক্তকে দোষী সাব্যস্ত করা হয়। অর্থাৎ অভিযুক্তের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ সত্যি। অন্যথায় সে নির্দোষ। মিশরের জুদেন, নেগেভ ও সিনাই গোত্রে প্রচলিত এই বিচার প্রক্রিয়ার নাম ‘বিশা’। এসএইচ/

সহবাসে রাজি না হওয়াতে মুম্বাইয়ে মডেল খুন

মুম্বাইয়ে উঠতি মডেল মানসী দীক্ষিতের খুনের ঘটনায় হইচই পড়ে যায়।সহপাঠী এক বন্ধু মোজাম্মেল সঈদ সোমবারের এই খুনের ঘটনায় জড়িত বলে পুলিশ জানায়। সে নিজের দোষও জেরায় স্বীকার করেছে বলে দাবি করা হয়। জানা গিয়েছে, শুধু দোষ স্বীকার করাই নয়, কেন মানসীকে সে খুন করেছে, সেটাও মোজাম্মেল জানিয়েছে। পুলিশের বিবৃতি অনুযায়ী, মানসী সোমবার মোজাম্মেলের বাড়িতে যায়। সেখানে তাকে সহবাস করতে বলে মোজাম্মেল। তাতে মানসী রাজি না হওয়ায় রাগের মাথায় চেয়ার তুলে তার মাথায় আঘাত করে মোজাম্মেল। এরপরে দেহ স্যুটকেসে বন্দি করে ক্যাব বুকিং করে সে বাড়ি থেকে বেরিয়ে যায়। পথে মালাডের শুনশান রাস্তায় দেহ ফেলে চম্পট দেয়। পরে সেই ক্যাবচালক স্যুটকেস দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দিলে মুজাম্মেলকে বাড়ি থেকে আটক করা হয়। মানসী রাজস্থানের বাসিন্দা ছিলেন। কর্মসূত্রে মুম্বাইয়ে থাকছিলেন। মুজাম্মেলও হায়দরাবাদের বাসিন্দা। তবে থাকত মুম্বাইয়ে। সে জেরায় জানিয়েছে, সোমবার মানসী তার বাড়িতে আসেন। তবে সে সহবাসের প্রস্তাব দিলে তাতে মানসী রাজি হননি। তাতে রেগে গিয়ে মোজাম্মেল মানসীর মাথায় আঘাত করে। সংজ্ঞাহীন মানসীকে দেখে পরে মোজাম্মেল ভয় পেয়ে যায়। কারণ তখন তার মা বাড়ি চলে আসতে পারত। ফলে দেহ স্যুটকেসে ভরে সে বিমানবন্দরে যেতে রাস্তার পাশে ফেলে আসে। পুলিশ এই মুহূর্তে আরও প্রমাণ জোগাড় করে চলেছে। পুলিশের দাবি, যা প্রমাণ জোগাড় হয়েছে, ও জোগাড়ের চেষ্টা চলছে তাতে মুজাম্মেলের আইনের হাত থেকে মুক্তি পাওয়া কঠিন হয়ে পড়বে। শুধু জবানবন্দি নেওয়াই নয়, সত্য প্রমাণ প্রায় পুলিশ জোগাড় করেই ফেলেছে। আরকে//

© ২০১৮ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি