ঢাকা, রবিবার, ২১ অক্টোবর, ২০১৮ ১:৩৯:০৭

গোলাম সারওয়ারের মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক

গোলাম সারওয়ারের মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক

বিশিষ্ট সাংবাদিক ও দৈনিক সমকাল সম্পাদক গোলাম সারওয়ারের মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।  আজ এক শোক বার্তায় প্রধানমন্ত্রী সাংবাদিকতার ক্ষেত্রে গোলাম সারওয়ারের অসামান্য অবদানের কথা গভীর শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করেন। তিনি বলেন, তার মৃত্যুতে সাংবাদিকতা জগতের অপূরণীয় ক্ষতি হলো। শেখ হাসিনা বলেন, দেশের সব প্রগতিশীল আন্দোলনে গোলাম সারওয়ার অংশগ্রহণ করেন। দেশে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা সমুন্নত রাখতে তিনি সব সময় সোচ্চার ছিলেন। তিনি বলেন, গোলাম সারওয়ার সাংবাদিকদের ন্যায় সঙ্গত অধিকার আদায় এবং দাবি বাস্তবায়নের সকল আন্দোলনেও জড়িত ছিলেন। প্রয়াতের বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করেন এবং তার শোক-সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান প্রধানমন্ত্রী। গোলাম সারওয়ার আজ সন্ধ্যায় সিঙ্গাপুরে একটি হাসপাতালে বার্ধক্যজনিত জটিলতায় মারা যান।   এমএইচ/ এসএইচ/
৩২ ধারা থেকে গুপ্তচরবৃত্তির বিষয়টি বাতিল হয়েছে  

ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেছেন, আর্থিক লেনদেনকারী প্রতিষ্ঠানগুলোকে সাইবার অপরাধ থেকে বাঁচাতে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন নতুন করে তৈরি করা হচ্ছে। আইনটি অনুসন্ধানী সাংবাদিকতায় কোনো বাধা হবে না। কেননা আইনে সাংবাদিকদের জন্য ৩২ ধারায় গুপ্তচরবৃত্তির যে বিষয়টি ছিল সেটি বাতিল করা হয়েছে। পরবর্তী সংসদ অধিবেশনে আইনটি পাস হবে। শনিবার বিকেলে মেহেরপুরের মুজিবনগর অডিটরিয়ামে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন। মন্ত্রী আইসিপি ফর ই খুলনা বিভাগের অ্যাম্বাসেডর সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে যোগ দেন।   অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক খাইরুল হাসান। খুলনা বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষিকারা এ সন্মেলনে যোগ দেন। গত ২৯ জানুয়ারি ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের খসড়া চূড়ান্ত অনুমোদন দেয় মন্ত্রিসভা। তবে আইনটির ৩২ ধারা নিয়ে সাংবাদিক মহলে জোরালো আপত্তি ওঠে। কারণ এতে বলা হয়েছে, কোনো ব্যক্তি বেআইনিভাবে প্রবেশের মাধ্যমে কোনো সরকারি, আধা-সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত বা বিধিবদ্ধ কোনো সংস্থার অতিগোপনীয় বা গোপনীয় তথ্য-উপাত্ত কম্পিউটার, ডিজিটাল যন্ত্র, কম্পিউটার নেটওয়ার্ক, ডিজিটাল নেটওয়ার্ক বা অন্য কোনো ইলেকট্রনিক মাধ্যমে ধারণ, প্রেরণ বা সংরক্ষণ করেন বা করতে সহায়তা করেন, তাহলে সেই কাজ হবে কম্পিউটার বা ডিজিটাল গুপ্তচরবৃত্তির অপরাধ।  অপরাধের জন্য সর্বোচ্চ ১৪ বছরের কারাদণ্ড বা সর্বোচ্চ ২৫লাখ টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ড হবে। কেউ যদি এই অপরাধ দ্বিতীয়বার বা বারবার করেন, তাহলে তাঁকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড বা সর্বোচ্চ ১ কোটি টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ড ভোগ করতে হবে। কেআই/এসি    

শেরপুরে সাংবাদিকদের পিআইবি’র ৩ দিনের বুনিয়াদী প্রশিক্ষণ শুরু

বাংলাদেশ প্রেস ইনস্টিটিউট ‘পিআইবি’র আয়োজনে শেরপুর জেলায় কর্মরত সাংবাদিকদের নিয়ে ৩ দিনের বুনিয়াদী প্রশক্ষিণ কোর্স উদ্বোধন করা হয়েছে। রোববার সকালে শেরপুরের জেলা কালেক্টরেট ভবনের ‘তুলশীমালা ট্রেনিং কাম কম্পিউটার ল্যাব’ হল রুমে এ প্রশিক্ষণের উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক ড. মল্লিক আনোয়ার হোসেন। শেরপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি এ্যাডভোকেট রফিকুল ইসলাম আধারের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সদর সার্কেল মো. আমিনুর ইসলাম, পিআইবি’র প্রশিক্ষণ বিভাগের ট্রেইনার পারভীন এস রাব্বী, প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক সাবিহা জামান শাপলা, সাবেক সাধারণ সম্পাদক কাকন রেজা প্রমূখ। এছাড়া তিন দিনব্যাপী এ প্রশিক্ষণে বিভিন্ন সেশনে বক্তব্য রাখবেন পিআইবি ট্রেনার পারভীন এস রাব্বী, বাংলাভিশনের সিনিয়র নিউজ এডিটর রুহুল আমীন রুশদ, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের চেয়ারম্যান ড. প্রদীপ কুমার পান্ডে। গণমাধ্যমে কর্মরত সাংবাদিকদের দক্ষতা বৃদ্ধিতে সহায়ক ভুমিকা পালন করা এবং মান সম্পন্ন, নির্ভুল ও বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশনে গুরুত্বপূর্ণ আবদান রাখতে এ প্রশিক্ষণের আয়োজন করা হয়। প্রশিক্ষণে জেলার বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ায় কর্মরত ৩৫ জন সাংবাদিক এতে অংশ নেয়। কেআই/এসি

© ২০১৮ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি