ঢাকা, রবিবার, ২৪ জুন, ২০১৮ ১১:৩০:৩৮

কাতারে সুজানগর আইডিয়াল মাদ্রাসা কমিটির ইফতার মাহফিল 

কাতারে সুজানগর আইডিয়াল মাদ্রাসা কমিটির ইফতার মাহফিল 

কাতারে সুজানগর আইডিয়াল মাদ্রাসা কমিটির আলোচনা সভা, দোয়া ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার দেশটির রাজধানী দোহার বিন ওমরান সিজান হোটেলে এ ইফতার মাহফিলের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন কাতারের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মোহাম্মদ আলী। এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন মোহাম্মদ কবির, রইছ উদ্দিন, আব্বাস উদ্দিন প্রমুখ। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন জামাল উদ্দিন তফাদার। হাফিজ লিয়াকত আলীর সঞ্চালনায় বক্তারা বলেন, মানুষের জন্য জ্ঞান অর্জন ও তার সঠিক ব্যবহার আবশ্যক। দিন দিন শিক্ষার হার বৃদ্ধি পাচ্ছে কিন্তু নৈতিকতা তুলনামূলক হ্রাস পাচ্ছে। মাদ্রাসা প্রতিষ্ঠানগুলো দ্বীনি জ্ঞানকে সঠিকভাবে ব্যবহার করতে কাজ করে যাচ্ছে। দ্বীনি শিক্ষার জন্য মাদ্রাসা শিক্ষার কোন বিকল্প নেই। মাদ্রাসার বিভিন্ন কাজে অবদান রাখায় কয়েক জনকে সম্মাননা ক্রেস্ট ও সনদ প্রদান করা হয়। এছাড়া ইফতারের পূর্ব মুহূর্তে দেশ, জাতি ও মুসলিম উম্মাহের সুখ-শান্তি কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হয়। মোনাজাত পরিচালনা কররেন মাওলানা মাজহার উদ্দিন। উল্লেখ্য, সিলেটের মৌলভিবাজার জেলার বড়লেখায় সুজানগরে এই মাদ্রাসাটি অবস্থিত। কেআই/এসি      
ইতালিতে সড়ক দুর্ঘটনায় বাংলাদেশি নিহত  

ইতালিতে সড়ক দুর্ঘটনায় একজন বাংলাদেশী ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন। নিহত ব্যক্তির নাম ওয়ালীউল্লাহ(৩৫)। রোববার ইতালির ব্রেসিয়া এলাকায় হাইওয়েতে ওই দুর্ঘটনা ঘটে।    নিহত ওয়ালীউল্লাহ ব্রেসিয়া স্টেশনসংলগ্ন এলাকায় ব্যবসা করতেন। ওয়ালীউল্লাহ প্রাইভেটকার নিয়ে ইতালির এক শহর থেকে আরেক শহরে (ভেরোনার) যাওয়ার পথে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে হাইওয়ের রেলিংয়ের সঙ্গে সংঘর্ষ ঘঠে। সংগর্ষে গাড়িটি উল্টে দুমড়েমুচড়ে গেলে ঘটনাস্থলেই তিনি প্রাণ হারান। নিহতের মরদেহ স্থানীয় হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে। তদন্ত শেষ হলে লাশ বাংলাদেশে পাঠানো হবে বলে জানিয়েছে পুলিশ।  নিহত ওই বাংলাদেশি ব্যবসায়ীর বাড়ি পিরোজপুর জেলার কাউখালীতে। তার স্ত্রী ও পরিবারের অন্যান্য সদস্য দেশে বসবাস করছেন। এদিকে মৃত্যুর খবর জানতে না পেরে তার ভগ্নিপতি ব্রেসিয়ার অধিবাসী জালাল লিখিতভাবে পুলিশকে অবহিত করেছিলেন। ওয়ালীউল্লাহর অকাল মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন ইতালির ব্রেসিয়ায় বৃহত্তর কুমিল্লা সমাজের সভাপতি অ্যাডভোকেট নুরুল হকসহ বাংলাদেশিরা। এমএইচ/এসি         

বৈধতার বেড়াজালে বন্দি কয়েক লাখ বাংলাদেশি

বৈধতার বেড়াজালে বন্দি কয়েক লাখ বাংলাদেশি। যতই রিহিয়ারিংয়ের শেষ সময় ঘনিয়ে আসছে ততটাই দুঃশ্চিন্তায় পড়ছে মালয়েশিয়ায় অবস্থানকারী প্রবাসী বাংলাদেশিরা।  জানা গেছে, এক শ্রেণির অসাধু নিয়োগ কর্তাদের কারণে অনেকে চুক্তি অনুযায়ী টাকা জমা দেওয়ার পরও ইমিগ্রেশনে ফিংগার বা মেডিকেল করতে পারছে না। তেমনই মালয়েশিয়ায় বৈধকরণ প্রক্রিয়ার সকল কাজ সম্পন্ন করেও ভিসাসহ পাসপোর্ট হাতে পাচ্ছেন না অসংখ্য প্রবাসী বাংলাদেশি।  ভিসা কর পরিশোধের এক বছর পার হলেও নিয়োগকর্তাদের দুর্নীতি ও টালবাহানার কারণে প্রবাসীদের এই ভোগান্তি চরমে। এমতাবস্থায় তারা আদৌ কি বৈধ হতে পারবে কি না তা নিয়ে দেখা দিয়েছে নানা রকম দুঃশ্চিন্তা।  এ জন্য তারা মালয়েশিয়ায় অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাসের হস্তক্ষেপ কামনা করছেন।   জানা গেছে, মালয়েশিয়ায় কর্মরত অবৈধ বিদেশি কর্মীদের বৈধকরণ প্রকল্পে শেষ পর্যন্ত ৭ লাখ ৭৪ হাজার ৯৪২ জন অবৈধ অধিবাসী বৈধকরণ প্রক্রিয়ায় নিবন্ধিত হয়েছেন। এই নিবন্ধিত অধিবাসীদের মধ্যে কতজন বাংলাদেশি আছে তার সঠিক কোনো তথ্য জানা না গেলেও বেশিরভাগই বাংলাদেশি বলে ধারণা করা হচ্ছে। এদিকে, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তান শ্রি মহিউদ্দিন ইয়াসিন সাফ জানিয়ে দিয়েছেন ৩০ জুনের পর আর কোনোভাবেই রিহায়ারিং কর্মসূচির সময় বাড়ানো হবে না। এবং বিদেশি কর্মী নিয়োগসহ সব ধরণের সেবা পেতে মালয়েশিয়া অভিবাসন বিভাগের সঙ্গে সরাসরি যোগাযোগ করতে হবে। এছাড়া ৩০ জুনের পর অবৈধ অভিবাসীদের আটকের জন্য বিশেষ অভিযান শুরু করবে বলেও জানান তিনি।    ২০১৬ সালের ১৬ ফেব্রুয়ারি থেকে এই ‘রিহায়ারিং কর্মসূচি’ পরিচালনা করছে দেশটির সরকার। উৎপাদন, নির্মাণখাত, বাগান, কৃষিসেবাসহ কিছু নির্দিষ্ট ক্ষেত্রে শ্রমিকের চাহিদার প্রয়োজন মেটাতে অবৈধদের জন্য বৈধতার কর্মসূচির ঘোষণা করে মালয়েশিয়া সরকার। ইমিগ্রেশন বিভাগের পরিচালিত কর্মসূচির জন্য সরকার কর্তৃক নিযুক্ত তিনটি এজেন্ট মাই ইজি, ইমান ও বুক্তিমেগাকে এই দায়িত্ব দেওয়া হয়।  ২৪ মে পর্যন্ত মোট ৭ লাখ ৪৪ হাজার ৯৪২ জন অবৈধ বিদেশি কর্মী এবং ৮৩ হাজার ৯১ জন নিয়োগকর্তা এই কর্মসূচির অধীনে নিবন্ধিত হয়েছেন বলে জানান মহিউদ্দিন। এ সময় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আরও বলেন, স্বেচ্ছায় আত্মসমর্পণ কর্মসূচি অথবা ৩ প্লাস ১ প্রোগ্রাম হিসেবে পরিচিত ৩০ অক্টোবর পর্যন্ত অব্যাহত থাকবে, যে সমস্ত অবৈধ অভিবাসী রিহায়ারিং প্রোগ্রামের মাধ্যমে বৈধ হতে পারবে না তাদের স্বেচ্ছায় দেশে ফিরে যেতে হবে। দেশে আইনের শাসন নিশ্চিত করতে মালয়েশিয়ান সরকার কোন আপোষ করবে না। অবৈধ বিদেশি শ্রমিকদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেবেন। কেআই/ এসএইচ/               

নিউইয়র্কে বাংলাদেশি প্রথম নারী কনসাল জেনারেল

যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে বাংলাদেশ কনস্যুলেট জেনারেলে প্রথম নারী কনসাল জেনারেল হিসেবে যোগদান করলেন সাদিয়া ফয়জুন্নেসা। শুক্রবার ১৫তম কন্সাল জেনারেল হিসেবে তিনি শামীম আহসানের স্থলাভিষিক্ত হলেন। শামীম আহসান হাইকমিশনার হিসেবে নাইজেরিয়ায় চলে গেছেন গত মাসে। কূটনীতিক সাদিয়া ফয়জুন্নেসা ১৯৯৯ সালের ২৫ জানুয়ারি বাংলাদেশ ফরেন সার্ভিসে যোগ দেন। তিনি ১৮তম বিসিএস (পররাষ্ট্র) ক্যাডারের একজন সদস্য। বর্তমান দায়িত্বে যোগ দেওয়ার আগে তিনি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মহাপরিচালক (জাতিসংঘ) হিসেবে কর্মরত ছিলেন। তার আগে ২০১৩-২০১৬ সাল পর্যন্ত তিনি নিউ ইয়র্কে জাতিসংঘে বাংলাদেশ মিশনে উপ-স্থায়ী প্রতিনিধির দায়িত্ব পালন করেন। জার্মানির বার্লিনের বাংলাদেশ দূতাবাসে কনস্যুলার ও কল্যাণ বিভাগের প্রধান হিসেবে জার্মানি, অস্ট্রিয়া ও চেক রিপালিক-এ বসবাসরত প্রবাসী বাংলাদেশিদের সেবাধর্মী ও স্বার্থরক্ষা সংশ্লিষ্ট নানাবিধ বিষয়ে ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করার অভিজ্ঞতা সম্পন্ন একজন নারী কূটনীতিক সাদিয়া। থাইল্যান্ডের ব্যাংককে অবস্থিত ‘এসকাপ’ সদর দপ্তরে বাংলাদেশের উপ-স্থায়ী প্রতিনিধি ও কাউন্সিলর হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেছেন সাদিয়া। এছাড়া পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রশাসন, ইউরোপ, জাতিসংঘ ও বহুপাক্ষিক অর্থনীতি বিষয়ক উইংয়ে বিভিন্ন সময়ে দায়িত্ব পালনের অভিজ্ঞতা রয়েছে এই কূটনীতিকের। সাদিয়া বাংলাদেশ বেতার ও বাংলাদেশ টেলিভিশনের ‘ক’ শ্রেণিভুক্ত একজন উপস্থাপক। বাঙালী সাহিত্য ও সংস্কৃতি প্রসারে তার ব্যাপক আগ্রহ রয়েছে।  সাদিয়া বলেন, বাংলাদেশের ইতিহাস-ঐতিহ্যকে সমুন্নত রেখে আমি প্রবাসীদের সঙ্গে কাজ করে যাবো। বাংলাদেশের সার্বিক উন্নয়নে প্রবাসীদের মতামত-পরামর্শ সাদরে গ্রহণ করবো। প্রসঙ্গত, নিউইয়র্ক কনস্যুলেটের অধীনে রয়েছে কানেকটিকাট, নিউ হ্যামশায়ার, নিউ জার্সি, নিউ ইয়র্ক, মেইন, ম্যাসেচুসেটস, রোড আইল্যান্ড ও ভারমন্ট অঙ্গরাজ্য। একে//

মেয়ের অসম্মতিতে বিয়ে: সাজা পাচ্ছেন বাংলাদেশি মা-বাবা

মেয়ের অসম্মতিতে বিয়ে দেওয়ার চেষ্টার অভিযোগে যুক্তরাজ্যের আদালতে দোষী সাব্যস্ত হয়েছেন এক বাংলাদেশি দম্পতি। শুধু তাই নয়, মেয়ের করা মামলায় ওই দম্পতির কয়েক বছরের সাজাও হতে পারে বলে ইঙ্গিত দিয়েছেন আদালত। গত মঙ্গলবার তিন সপ্তাহের শুনানি শেষে আদালত রায়ের দিন ধার্য করেন। আগামী ১৮ জুন রায় ঘোষণা করা হবে। এর আগে এই ধরণের এক মামলায় পাকিস্তানী বংশোদ্ভূত এক তরুণীর মাকে সাড়ে চার বছরের কারাদণ্ড দেয় ব্রিটিশ আদালত। বিবিসি অনলাইনের খবরে বলা হয়, ২০১৬ সালে ১৯ বছর বয়সী মেয়েকে এই দম্পতি বাংলাদেশে নিয়ে এসে আপন চাচাতো ভাইয়ের সঙ্গে জোরপূর্বক বিয়ে দিতে চেয়েছিলেন। রাজি না হওয়ায় মেয়েকে হুমকি-ধমকি দেওয়ার পাশাপাশি মারধরও করেন তারা। এরপর একপর্যায়ে মেয়েটি যুক্তরাজ্যে থাকা তার ছেলে বন্ধুর মোবাইলে মেসেজ পাঠিয়ে তার বর্তমান অবস্থান ও বিষয়টি জানাতে সক্ষম হয়। অন্যদিকে বাংলাদেশে অবস্থিত ব্রিটিশ হাইকমিশনে যোগাযোগ করে মেয়েটি। মেয়েটির বয়ফ্রেন্ডও ইয়র্কশায়ার পুলিশকে ঘটনাটি অবহিত করেন। এরপর ব্রিটিশ হাইকমিশনের উদ্যোগে মেয়েটিকে বাংলাদেশ থেকে উদ্ধার করে তারা। আদালতের নিষেধাজ্ঞার কারণে মেয়ে ও অভিযুক্ত বাবা-মার নাম পরিচয় প্রকাশ করা হয়নি বলে বিবিসির খবরে বলা হয়। ২০১৪ সালের জুনে যুক্তরাজ্যে জোর করে বিয়ে দেওয়ার বিরুদ্ধে আইন কার্যকর করা হয়। আর মাত্র এক সপ্তাহ আগে পাকিস্তানি বংশোদ্ভূত এক মাকে তার মেয়েকে জোর করে বিয়ে দেওয়ার অভিযোগে সাড়ে চার বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। জোর করে সন্তানকে বিয়ে দেওয়ার অভিযোগে কোনো বাবা-মায়ের শাস্তি পাওয়ার ঘটনা এটিই ছিল প্রথম। সূত্র: বিবিসিএমজে/

মালয়েশিয়ায় শ্রমিক বন্ধু শাহ আলম হাওলাদার   

‘মানুষ মানুষের জন্য, জীবন জীবনের জন্য, একটু সহানুভূতি কি মানুষ পেতে পারে না ও বন্ধু...’। মানবিকতাকে জাগিয়ে তুলতেই যেন কালজয়ী গানটি গেয়েছিলেন উপমহাদেশের কিংবদন্তী ভূপেন হাজারিকা।    প্রিয় মাতৃভূমি ছেড়ে হাজার মাইল দূরে যে বাংলাদেশিদের বসবাস, দূর থেকে দেখলে মনে হবে প্রবাসিরা যা করছে সবই বুঝি তার নিজের ও পরিবারের জন্য। অধিকাংশের বেলায় হয়ত তা সত্য, তবে কারো কারো বেলায় নয়। দূর প্রবাসে থেকেও অসহায় প্রবাসিদের সাহায্যে কিছু একটা করার তাগিদ নিয়ে ছুটে চলেন মালয়েশিয়ার এক প্রান্ত থেকে আরেক প্রান্তে। তেমনই একজন মালয়েশিয়া প্রবাসি বাংলাদেশি শাহ আলম হাওলাদার। অসহায় শ্রমিকের সাহায্যার্থে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন।    জানা গেছে, শরীয়তপুর জেলার ভেদরগঞ্জ উপজেলার মহিষার গ্রামের আব্দুল জলিল হাওলাদারের একমাত্র ছেলে। জীবিকার তাগিদে ২৫ বছর আগে মালয়েশিয়া পাড়ি জমান। জীবনে চলার পথে অনেক প্রতিবন্ধকতা দূর করে আজ তিনি সকলের পরিচিত মুখ। অসহায় প্রবাসি শ্রমিকদের আস্থার অপর নাম শ্রমিক নেতা শাহ আলম হাওলাদার।    মালয়েশিয়ায় শ্রমিক লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি হিসেবে রাজনৈতিক পরিচিতি থাকলেও প্রবাসী বাংলাদেশিদের মাঝে তিনি শ্রমিক নেতা শাহ আলম হাওলাদার হিসেবে বেশি পরিচিত। বন্ধুত্বপূর্ণ অমায়িক আচরণ। কোনো হামবড়া ভাব নেই।  খুব সরাসরি কথা বলেন আর জ্ঞানের গভীরতা অনেক।  শ্রমিকদের পাসপোর্ট সমস্যা থেকে শুরু করে অসহায় শ্রমিক, গুরুত্বর অসুস্থ্, দুর্ঘটনায় আহত,নিহত শ্রমিকের লাশ দেশে পাঠাতে বা যেকোনো সমস্যার কথা শুনলেই তিনি সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেন। আর এ জন্য মালয়েশিয়ায় অবস্থিত বাংলাদেশ হাই-কমিশন তাকে সর্বাত্মক সহযোগিতার পাশাপাশি দলীয় নেতৃবৃন্দ সহযোগিতা করে থাকেন।  তিনি বলেন, মানুষের জন্য মানুষের ভালোবাসা, স্নেহমায়া মমতা। সেটা হোক পাশের বাড়ির কিংবা হাজার মাইল দুরের কোনো অপরিচিত ব্যক্তির। তাদের যদি আমরা কিছুটা হলেও সাহায্য করতে পারি, তবেই আমরা পারস্পরিক সহযোগিতার একটা সংস্কৃতি তৈরি করতে পারব। যেখানে থাকবে পরস্পরের প্রতি শ্রদ্ধা-ভালবাসা-সম্মান। আর আমার সামান্য সহযোগিতায় যদি মানুষের উপকার আসে তাহলেই আমার স্বার্থকতা।    এই প্রতিবেদকের সঙ্গে কথা বলার এক পর্যায়ে জানা যায়, শুরুটা সেই ১৯৯৫ সাল থেকে। যখন মালয়েশিয়ার মাটিতে আওয়ামী লীগের রাজনীতি বলতে কিছু নেই ঠিক তখনই গঠন করা হয় ‘বঙ্গবন্ধু পরিষদ’।  বীর মুক্তিযোদ্ধা গোলাম আহাদ জামালের নেতৃত্বে হাতেগোনা কয়েকজনের উদ্যোগে এই সংগঠনটি গড়ে তোলা হয় প্রবাসি বাংলাদেশি শ্রমিকদের সাহায্যার্থে। তার মধ্যে তিনি একজন। দায়িত্ব পান প্রচার এবং প্রকাশনা সম্পাদকের। এরপর ধীরে ধীরে এখানে আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, শ্রমিক লীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ ও ছাত্রলীগের জন্ম।  শাহ আলম হাওলাদারের ইচ্ছা ছিল প্রবাসি বাংলাদেশি শ্রমিকদের সাহায্যার্থে কাজ করার। এ জন্য তিনি শ্রমিক লীগে যোগদান করেন । রাজনীতির হাতে খড়ি ছাত্র জীবন থেকেই শুরু । এরপর শুধুই পথ চলা, প্রথমে মহিষার ইউনিয়নের জয়েন্ট সেক্রেটারি, ৯০ দশকে বৃহত্তর সিলেট জেলা দোকান কর্মচারি শ্রমিক লীগের জয়েন্ট সেক্রেটারি, ১৯৯৫ সালে মালয়েশিয়াতে বঙ্গবন্ধু পরিষদের প্রচার এবং প্রকাশনা সম্পাদক, ২০১৫ সালে মালয়েশিয়াতে শ্রমিক লীগের আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা করা হলে তিনি যুগ্ম আহ্বায়কের পদ লাভ করেন।  এরপর ২০১৬ সালে শ্রমিক লীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করা হলে তিনি সিনিয়র সহ-সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পান।  মূলত মরহুম বীর মুক্তিযোদ্ধা গোলাম আহাদ জামালের অনুপ্রেরণায় তিনি আত্মমানবতার সেবায় নিজেকে বিলিয়ে দিয়েছেন।    এসি     

কাতারে বৃহত্তর ফটিকছড়ি সমিতি’র দ্বি-বার্ষিক সম্মেলন 

কাতারে বসবাসরত চট্টগ্রামের ফটিকছড়ি উপজেলার কাতার প্রবাসীদের কল্যাণে গঠিত বৃহত্তর ফটিকছড়ি সমিতি`র দ্বি-বার্ষিক সম্মেলন ২০১৮ অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার দোহার নাজমা রমনা রেস্তোরাঁয় দ্বি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।    জিয়া উদ্দিন জিয়াকে সভাপতি মো. আসরাফুল ইসলামকে সাধারণ সম্পাদক ও ইসমাইল মনছুরকে সাংগঠনিক সম্পাদক করে আংশিক কমিটি ঘোষণা করা হয়। অনুষ্ঠানের আহ্বায়ক মাওলানা তোহা সিদ্দিকির সভাপতিত্বে অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন শ্রম বিষয়ক সম্পাদক আব্দুল মান্নান।     প্রধান অতিথি ছিলেন মুক্তিযোদ্ধা ওমর ফারুক চৌধুরী, বিশেষ অতিথি ছিলেন সমিতির উপদেষ্টা তারেক বাবুল। এতে বক্তব্য রাখেন কাজী হাসান বিল্লাহ, মো. জসিম উদ্দিন, কাজী ফোরকান রেজা, নাজমুল হক চৌধুরী, বাবুল মেম্বার, মহিউদ্দিন আহমেদ,আব্দুস সবুর, সওকত হোসেন টিপু প্রমুখ। কেআই/এসি    

মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশ প্রেসক্লাবের উদ্যোগে ইফতার মাহফিল   

‘বাংলাদেশ প্রেসক্লাব অব মালয়েশিয়ার’ উদ্যোগে গতকাল (শুক্রবার) সন্ধ্যায় ইফতার মাহফিল সম্পন্ন হয়েছে।   শুক্রবার মালয়েশিয়ায় কর্মরত সাংবাদিকদের অংশগ্রহণে সেলায়াং পাছার বারুতে এই আয়োজন করা হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ প্রেসক্লাব অব মালয়েশিয়ার উপদেষ্টা ব্যবসায়ী কামরুজ্জামান কামাল। ইফতার মাহফিলে প্রধান আলোচক ছিলেন, পিএইচডি গবেষক আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় মালয়েশিয়ার মাওলানা মিজানুর রহমান আজহারি।       মিজানুর রহমান আজহারি বলেন, রহমত, মাগফিরাত ও নাজাতে মানুষের জীবন গঠন ও পরিচালনার একমাত্র প্রশিক্ষণের মাস হলো পবিত্র রমজান মাস। এ মাসে প্রশিক্ষণ গ্রহণের মাধ্যম হলো রোজা। আর তাকওয়া অর্জনের প্রধান মাধ্যমও রোজা। অপরাধমুক্ত সুশৃঙ্খল ও সুন্দর জীবন-যাপন এবং সুন্দর সমাজ বিনির্মাণে রমজানে কুরআনের শিক্ষা গ্রহণ করতে হবে। মানব জীবনকে সুন্দর,পরিপাটি ও শান্তিময় করার দিক-নির্দেশনা জানার পাশাপাশি মানতে হবে কুরআনের সকল করণীয় বিধি-বিধান। আল্লাহ তা’আলা মুসলিম উম্মাহকে রমজানে তাকওয়া অর্জনের তাওফিক, সুশৃঙ্খল জীবন গঠনে কুরআনের বিধান বাস্তবায়নে রমজানের নিয়ম-কানুনকে আদর্শ হিসেবে গ্রহণ করার তাওফিক দান করুন।  বাংলাদেশ প্রেসক্লাব অব মালয়েশিয়ার সভাপতি মনির বিন আমজাদ সভাপতিত্বে ও যুগ্ন সাধারন সম্পাদক জহিরুল ইসলাম হিরনের প্রাণবন্ত উপস্থাপনায় প্রেসক্লাবের ইফতার মাহফিলে উপস্থিত ছিলেন, কমিউনিটি নেতা মকবুল হোসেন মুকুল, মো. মোশাররাফ হোসেন, মনিরুজ্জামান মনির, ড.আরিফ, রাশেদ বাদল, দাতু আক্তার, মাহতাব খন্দকার, শফিক চৌধুরী, নাজমুল ইসলাম বাবুল, শাহ আলম হাওলাদার, শাখাওয়াত হক জোসেফ, সেলিম আহমদ, জালাল উদ্দিন সেলিম, আতিক, হানিফ,আবু ,তারেক, আব্দুল্লাহ, এরশাদ, ইউছুফ, জাহিদ, রতন, আলতাব হোসেনসহ সর্বস্থরেরর কমিউনিটি নেতৃবৃন্দ ও প্রবাসীরা উপস্থিত ছিলেন। এ ছাড়া প্রেসক্লাব নেতৃবৃন্দের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, সিনিয়র সহ-সভাপতি আহমাদুল কবির, সাধারন সম্পাদক বশির আহমেদ ফারুক, সহ-সভাপতি খন্দকার মস্তাক রয়েল, শেখ আরিফুজ্জামান, শাহাদাত হোসেন, আব্দুল কাদের, শাহীন, গোলাম রববানী রাজা, আলাউদ্দিন সিদ্দিকী প্রমূখ। কেআই/এসি    

লন্ডনের টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিলের স্পিকার হলেন আয়াছ মিয়া  

লন্ডনের টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিলের মূল স্পিকার হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত লেবার পার্টির জনপ্রিয় নেতা কাউন্সিলর আয়াছ মিয়া। স্পিকারের দায়িত্ব পাওয়ার সাথে সাথে টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিলের ফাস্ট সিটিজেন হিসেবে সর্বত্র সন্মানিত হবেন।  গত ২৩শে মে বুধবার স্থানীয় সময় বিকাল সাড়ে ৬টায় মালব্যারী পেলেইসের টাউন হলে ফুল কাউন্সিল মিটিংয়ে এই নির্বাচন প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়। আয়াছ মিয়ার স্পিকারের দায়িত্ব গ্রহনের সময় এমপি রুশনারা আলী ও এমপি জিম ফিজপেট্রিক, মেয়র জন বিগস ও জিএলএ মেম্বার উমেশ দেশাই সহ কমিউনিটির সর্বস্থরের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।  স্পিকারের দায়িত্ব পাওয়ার পর এক প্রতিক্রিয়ায় তিনি বলেন, লন্ডনে বাংলাদেশী কমিউনিটিকে আরো এগিয়ে নিতে এবং তাদের অর্জনগুলিকে সর্বত্র তুলে ধরতে সার্বিক চেষ্টা চালিয়ে যাবেন। তিনি নির্বাহী মেয়র জন বিগসসহ সকল বাসিন্দাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন। বিশেষ করে তাকে যারা জনপ্রতিনিধি নির্বাচিত করেছেন তাদের প্রতি তিনি বিশেষ কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। তিনি বলেন, স্পিকার হিসেবে তার দায়িত্ব হবে বারার ফাস্ট সিটিজেন হিসেবে টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিলকে প্রমোট করা, কাউন্সিলের একজন দূত হিসেবে অন্যান্য কাউন্সিলে প্রতিনিধিত্ব করা। তিনি জনগণ ও কাউন্সিলকে ঐক্যবদ্ধ করে কাউন্সিলের অর্জনগুলিকে তুলে ধরবেন বলে তিনি জানান। ভবিষ্যত প্রজন্মের জন্য কাজ করার পাশাপাশি জনকল্যানকর কাজে আরো বেশি গুরুত্ব দিবেন বলে জানান। স্পিকার আয়াছ মিয়া আগের মেয়াদে কাউন্সিলর নির্বাচিত হয়ে এনভায়রনমেন্ট ও ওয়েস্ট ম্যানেজমেন্ট ডিপার্টমেন্টে কেবিনেট মেম্বার হিসেবে দক্ষতার স্বাক্ষর রাখেন। কাউন্সিলের তিনি ডেপুটি স্পীকারের দ্বায়িত্বেও ছিলেন। সিভিক মেয়রের সম মর্যাদায় অভিষিক্ত স্পিকার কাউন্সিলার মো: আয়াছ মিয়ার বাড়ি সিলেট জেলার বিশ্বনাথ উপজেলার দশঘর ইউনিয়নের ধরারাই (মোল্লা বাড়ি) গ্রামে। তার পিতার নাম মোহাম্মদ আবুল হোসেন। তিনি লেবার পার্টির রাজনীতিতে তিনি যুক্ত হয়ে বিশেষ দক্ষতা ও যোগ্যতার পরিচয় দিয়ে একসময় জনপ্রতিনিধি নির্বাচিত হন। লন্ডনে একাউন্টিং বিষয়ে উচ্চতর ডিগ্রী অর্জন করে বর্তমানে তিনি এ এম একাউন্ট্যান্টস এর মালিক ও প্রিন্সিপাল একাউন্ট্যান্ট। এসি    

১৫ মাসে সৌদিতে চাকরিচ্যুত ৮ লাখ বিদেশি

গত ১৫ মাসে সৌদি আরবে চাকরি হারিযেছেন ৭ লাখ ৮৫ হাজার বিদেশি শ্রমিক। দেশটির সামাজিক নিরাপত্তা বিষয়ক রাষ্ট্রীয় সংস্থা জেনারেল অর্গানাইজেশন  ফর সোশ্যাল ইন্সুরেন্সের করা এক জরিপে এই তথ্য উঠে এসেছে। সংস্থাটি জানায়, চলতি বছর প্রথম তিন মাসেই বিদেশি শ্রমিকের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৭৭ লাখ ১০ হাজারে। ২০১৬ সালে পুরো এক বছরে যা ছিল ৮৪ লাখ ৯৫ হাজার। তবে চলতি বছর বেড়েছে সৌদি শ্রমিকের সংখ্যা। প্রথম তিন মাসে এই সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৭ লাখ ৬০ হাজার। ২০১৬ সালে ছিল ১৬ রাখ ৮০ হাজার।মধ্যপ্রাচ্যের সংবাদ পর্যবেক্ষণের ব্রিটিশ ওয়েবসাইট মিডল ইস্ট মনিটর জানায়, স্থানীয়দের কাজের সুযোগ বৃদ্ধি করতে সৌদি আরবের সিদ্ধান্তের প্রতিফলনই ঘটেছে এই পরিসংখ্যানে। গত দুই বছরে চাকরি হারিয়েছেন অনেক বিদেশি শ্রমিক।সৌদি সরকার বেশ কয়েকটি খাতে দেশি কর্মী নিয়োগের বিষয়টি জোর দিচ্ছে। কারণ সেখানে বেকারত্বের হার বেড়ে দাঁড়িয়েছিল ১২.৮ শতাংশ। রিটেইল সেক্টরে শুধু সৌদি নাগরিকদের কাজ করার অধিকারও নিশ্চিত করেছে তারা। আগামী ১১ সেপ্টেম্বর থেকে এই সিদ্ধান্ত কার্যকর হবে।গত বছর কর্মক্ষেত্রে দেশীয় শ্রমিকদের বেশি পরিমাণে নিয়োগের ব্যবস্থা করতে বিদেশি শ্রমিকদের ওপর কঠোর বিধি-নিষেধ আরোপের পরিকল্পনা নেয় সৌদি আরব। দেশটির সরকার নতুন কিছু অভিবাসী আইন প্রণয়নের লক্ষ্যে এমন পদক্ষেপ নেওয়ার কথা বলে যার ফলে সে দেশে প্রায় ৫০ লাখ অভিবাসীর এক বিরাট অংশকে বহিষ্কার করা হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছিল।।/ এআর /

© ২০১৮ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি