ঢাকা, শুক্রবার, ২০ এপ্রিল, ২০১৮ ৩:১১:৩২

এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফল ৬ মে   

এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফল ৬ মে  

এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশের  করা হবে আগামী ৬ মে রোববার বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। আজ বুধবার সকালে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান তিনি। শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ওই দিন সকাল ১০টায় প্রধানমন্ত্রীর কাছে ফলের অনুলিপি তুলে দেওয়া হবে। এরপর দুপুরে সচিবালয়ে সংবাদ সম্মেলনে বিস্তারিত ফল প্রকাশ করবো।
প্রাথমিকেও তথ্য প্রযুক্তি বিষয় অন্তর্ভুক্ত হবে

সরকার আগামী দুই বছরের মধ্যে প্রাথমিক শিক্ষাক্রমে তথ্য প্রযুক্তি শিক্ষা অন্তর্ভুক্ত করতে যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন ডাক, টেলি যোগাযোগ ও তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার। মঙ্গলবার বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল এবং ইয়ং বাংলা, সিআরআই আয়োজিত জাতীয় শিশু কিশোর প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতার প্রশিক্ষক প্রশিক্ষণ কর্মশালার দ্বিতীয় দিনে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি একথা বলেন। সারাদেশে বাছাইকৃত ১৮০টি শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাবকে ট্রেনিং প্রদান এবং প্রতিযোগিতার কেন্দ্র হিসেবে নির্বাচিত করা হয়েছে। এসব ল্যাবের একজন করে আইসিটি শিক্ষক ও ইয়াং বাংলা কর্তৃক প্রদত্ত ল্যাব কোর্ডিনেটরকে প্রশিক্ষক হিসেবে প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে। মন্ত্রী শিশুদের স্ক্র্যাচের মাধ্যমে প্রোগ্রামিং শিখানোর ক্ষেত্রে ব্যাপক উৎসাহ প্রদান করেন এবং স্কুলের আইসিটি শিক্ষক এবং ল্যাব কোঅর্ডিনেটর এবং স্কুলের শিশুরা যাতে ভাল ভাবে প্রোগ্রামিং করতে পারে সেই ব্যাপারে গুরুত্বারোপ করেন। তিনি বলেন, ২০০৮ সালে ইন্টারনেট ব্যাবহারকারীর সংখ্যা ছিল আট লাখ। ২০১৮ সালে দশ বছরের ব্যাবধানে এ সংখ্যা সাড়ে আট কোটিতে উন্নীত হয়েছে । মোস্তাফা জব্বার বলেন, ২০০৯ সালে চার কোটি ৪৬ লাখ লোক মোবাইলে যুক্ত হয়েছিল। ২০১৮ সালে সেই সংখ্যা বেড়ে ১৫ কোটিতে উন্নীত হয়েছে। ’৭২ সালে মাথা পিছু আয় ছিল ৭০ ডলার, ২০০৮ সালে ছিল ৮৫০ কোটি ডলার, ২০১৮ সালে মাথা পিছু আয় বেড়ে ১,৭০০ ডলার হয়েছে। বর্তমানে শিক্ষার হার শতকরা ৭২ ভাগে উন্নীত হয়েছে।বাসস আর/টিকে

প্রধান শিক্ষক ছাড়াই চলছে সন্দীপের ৫৫টি প্রাথমিক স্কুল

প্রধান শিক্ষক ছাড়াই চলছে সন্দ্বীপ উপজেলার এক-তৃতীয়াংশ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কার্যক্রম। তাই ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকের উপর ভর করেই কোন রকমে জোড়াতালি দিয়ে চলছে বিদ্যালয়গুলোর শিক্ষা ও প্রশাসনিক কার্যক্রম। শুধু প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলো-ই নয়, উপজেলার প্রাথমিক শিক্ষা অফিসও চলছে ভারপ্রাপ্ত শিক্ষা অফিসার দিয়ে। এ যেন ভারপ্রাপ্তের ভারে ভারী হয়ে ওঠেছে সন্দীপের শিক্ষা কার্যক্রম। উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা যায়, উপজেলায় মোট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সংখ্যা ১৫০টি। এরমধ্যে ৫৫টি বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নেই। এসব প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষকগণ অবসরে যাওয়ার কারণে প্রধান শিক্ষকের পদ শূন্য হয়। দীর্ঘদিন ধরে এসব পদে নিয়োগ না হওয়ায় সহকারী শিক্ষকদের মধ্য থেকে প্রাথমিকভাবে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। এর ফলে বিদ্যালয়গুলোতে দেখা দিয়েছে শিক্ষক সংকট। অন্যদিকে প্রধান শিক্ষকের অভাবে বিদ্যালয়গুলোতে সৃষ্টি হচ্ছে প্রশাসনিক সমস্যা। উপজেলায় শ্রেষ্ঠ প্রাথমিক বিদ্যালয়ের স্বীকৃতিপ্রাপ্ত মগধরা হাজেরা ইসলাম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পরিচালনা পরিষদের সভাপতি সফিকুল ইসলাম ভূঁইয়া গণমাধ্যমকে বলেন, হাজেরা ইসলাম প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রী সংখ্যা প্রায় ৬০০। কিন্তু দীর্ঘদিন ধরে প্রধান শিক্ষক না থাকায় বিদ্যালয়ের কার্যক্রম পরিচালনায় অসুবিধায় পড়তে হচ্ছে। উপজেলার বিভিন্ন বিদ্যালয় ঘুরে দেখা গেছে, বেশিরভাগ বিদ্যালয়ে শিক্ষকের পদ ৫ জন। কিন্তু প্রধান শিক্ষক না থাকায় প্রশাসনিক ও অন্যান্য কাজে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষককে বেশিরভাগ সময় ব্যস্ত থাকতে হচ্ছে। ফলে বাকী তিনজন শিক্ষক দিয়ে বিদ্যালয়ের পাঠদানে অসুবিধা হচ্ছে। উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসের চিত্রও একই রকম। ১৩ পদের বিপরীতে কর্মরত আছেন মাত্র ৪ কর্মকর্তা। শিক্ষা অফিসারের পদ একবছর ধরে শূন্য। সহকারী শিক্ষা অফিসার পদে ৭ জনের মধ্যে রয়েছেন মাত্র ২ জন। উচ্চমান সহকারী রয়েছেন ১ জন। কম্পিউটার অপারেটরে ১ জন ও এমএলএসএস পদে ১ জনের পদ শূন্য রয়েছে। হিসাব রক্ষক পদে ২ জনের মধ্যে রয়েছেন ১ জন। তাই স্বল্প জনবল দিয়ে পুরো উপজেলার এতগুলো বিদ্যালয়ের দেখভাল করতে হিমশিম খেতে হচ্ছে। উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার (ভারপ্রাপ্ত) মো. মাঈন উদ্দিন বলেন, ‘উপজেলার ৫৫টি বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক না থাকায় বিদ্যালয়গুলোতে কিছুটা সমস্যা হচ্ছে। অভিভাবক ও শিক্ষানুরাগীদের ধারণা, দ্রুত যদি এসব বিদ্যালয়গুলোতে প্রধান শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া না হয়, তবে শিশুরা লেখাপড়ায় পিছিয়ে পড়বে’। কেআই/

৩০% মুক্তিযোদ্ধা কোটায় নিয়োগের বিস্তারিত জানাতে নোটিশ   

বিভিন্ন মন্ত্রনালয়ে ৩০ শতাংশ মুক্তিযোদ্ধা কোটায় নিয়োগ নিশ্চিতকরণ এবং নিয়োগ পাওয়াদের বিস্তারিত জানতে চেয়ে নোটিশ জারি করেছে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়। গতকাল সোমবার জারি করা এই নোটিশ ইতোমধ্যে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষদের দেওয়া হয়েছে। নোটিশের জবাব দিতে বলা হয়েছে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় (পিএমও), জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় এবং মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রনালয়কে।  নোটিশে বলা হয় যে, ২০১১ সালের ১৬ জানুয়ারি ২৬ নং স্মারকে একটি নির্দেশনা প্রকাশ করে। তাতে বলা হয় যে, সরকারি দপ্তর, স্বায়ত্বশাসিত/আধা স্বায়াত্তশাসিত প্রতিষ্ঠান এবং বিভিন্ন করপোরেশনের চাকরিতে সরাসরি নিয়োগের ক্ষেত্রে মুক্তিযোদ্ধা এবং উপযুক্ত প্রার্থী পাওয়া না গেলে মুক্তিযোদ্ধা/মুক্তিযোদ্ধাদের পুত্র-কন্যা এবং পুত্র-কন্যা পাওয়া না গেলে পুত্র-কন্যার পুত্র-কন্যার অনুকূলে ৩০ শতাংশ কোটা বলবত হবে।  এছাড়াও গত বছরের ১৭ জুন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয় এক পরিপত্রে জানায় যে, মুক্তিযোদ্ধা কোটায় যে কোন নিয়োগের তালিকা সংযুক্ত ছকে নিয়োগকারী কর্তৃপক্ষ পিএমও, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় এবং মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রনালয়ে প্রেরণ করবেন। কিন্তু কয়েকটি মন্ত্রণালয় ছাড়া বাকিরা এই তালিকা উপরোক্ত দপ্তরে পাঠায়নি। আর সেগুলো জানতে চেয়েই প্রজ্ঞাপন জারি করেছে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়।  সংশ্লিষ্ট সকল মন্ত্রনালয়কে অতি দ্রুত পিএমও, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় এবং মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রনালয়ে এ বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য পাঠাতে বলেছে মন্ত্রণালয়। //এস এইচ এস//এসি   

পরীক্ষা নীতিমালা ভঙ্গ করায় ঢাকার ৭ কলেজকে শোকজ

ঢাকার ৭টি কলেজকে শোকজ নোটিশ পাঠিয়েছে শিক্ষা বোর্ড। উচ্চ মাধ্যমিক সার্টিফিকেট (এইচএসসি) ও সমমান পরীক্ষার নীতিমালা অনুসরণ না করায় রাজধানীর সাত কলেজকে এই শোকজ নোটিশ দেওয়া হয়। মঙ্গলবার ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যানের স্বাক্ষরিত আলাদাভাবে দুটি শোকজ জারি করা হয়েছে। শোকজের উত্তর দিতে ছয় কলেজ কর্তৃপক্ষকে সাত কার্যদিবস ও একটি কলেজকে তিন কর্মদিবস সময় জুড়ে দেয়া হয়েছে। জানা গেছে, এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষা পরিচালনা নীতিমালা-২০১৮ লঙ্ঘন করেছে রাজধানীর সাত কলেজ কর্তৃপক্ষ। তাদের মধ্যে কেন্দ্র সচিব ঢাকা ট্রেজারি থেকে প্রশ্নপত্র গ্রহণের সময় কালো গ্লাসযুক্ত গাড়ি ব্যবহার করায় মিরপুর কলেজ, শহীদ রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজ, কদমতলা পূর্ব বাসাবো স্কুল অ্যান্ড কলেজ, মোহাম্মদপুর প্রিপারেটরি স্কুল অ্যান্ড কলেজ এবং বিসিআইসি কলেজ কর্তৃপক্ষকে শোকজ করা হয়েছে। এছাড়াও ট্রেজারি থেকে প্রশ্ন গ্রহণের সময় কেন্দ্র সচিবের সঙ্গে ক্যামেরাযুক্ত মোবাইল সঙ্গে রাখায় ঢাকার ফজলুল হক মহিলা কলেজ কর্তৃপক্ষকে শোকজ করা হয়েছে। শোকজের উত্তর দিতে তাদের আগামী সাত কার্যদিবস সময় দেয়া হয়েছে। অন্যদিকে, পরীক্ষা চলাকালীন ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা পরীক্ষা কেন্দ্রে স্মার্টফোন ব্যবহার করায় রাজধানীর সেন্ট্রাল উইমেন্স কলেজকে শোকজ করা হয়েছে। আগামী তিন কার্যদিবসের মধ্যে ঢাকা বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক বরাবর শোকজের উত্তর চাওয়া হয়েছে। এ বিষয়ে ঢাকা বোর্ডের চেয়ারম্যান মুহাম্মদ জিয়াউল হক জাগো বলেন, এইচএসসি পরীক্ষার দ্বিতীয় দিনে ঢাকার সাতটি কলেজের কিছু শিক্ষক পরীক্ষা পরিচালনা নীতিমালা ভঙ্গ করেছে। আমরা তাদের শোকজ করেছি। তাদের উত্তর পাওয়ার পর বিবেচনা করে পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এসি  

প্রাথমিক বৃত্তির ফল প্রকাশ কাল

প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষার বৃত্তির ফলাফল আগামীকাল মঙ্গলবার প্রকাশ করা হবে। এ ফল প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরের ওয়েবসাইটে www.dpe.gov.bd পাওয়া যাবে।প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আজ সোমবার এ তথ্য জানানো হয়।বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ঝরেপড়া রোধ, শ্রেণিকক্ষে শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি বৃদ্ধি, শিক্ষার্থীদের মেধার স্বীকৃতি স্বরূপ প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় ভালো ফলের ভিত্তিতে বৃত্তি দেওয়া হয়। আগে পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের বৃত্তি দেওয়ার জন্য পৃথক পরীক্ষা নেওয়া হতো। ২০১০ সাল থেকে প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের মধ্য থেকে উপজেলা বা ওয়ার্ডভিত্তিক এই বৃত্তি দেওয়া হচ্ছে। এবার বৃত্তি প্রাপ্ত শিক্ষার্থীর সংখ্যা বৃদ্ধির পাশাপাশি বৃত্তির অর্থের পরিমাণও বাড়ানো হয়েছে। প্রাথমিক পরীক্ষার বৃত্তির ফল প্রকাশ উপলক্ষে আগামীকাল বেলা ১১টার দিকে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়েছে। সংবাদ সম্মেলনে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান প্রাথমিক বৃত্তির ফলের বিভিন্ন তথ্য তুলে ধরবেন। প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ড. আবু হেনা মোস্তফা কামালসহ মন্ত্রণালয় ও অধিদপ্তরের উর্দ্ধতন কর্মকর্তাবৃন্দ এ সময় উপস্থিত থাকবেন।/ এআর /

এবার এইচএসসি পরীক্ষা দিচ্ছেন সেই সিয়াম

থেমে নেই শরীয়তপুরের নড়িয়ার সেই সিয়াম আহম্মেদ খান। মনে আছে কি, ২০১৭ সালে বাড়ি থেকে জোহরের নামাজ পড়তে যাওয়ার সময় পল্লী বিদ্যুতের ছিঁড়ে পড়া তারে জড়িয়ে গুরুতর আহত হয় সিয়াম। ঢাকা মেডিকেলে ভর্তি করলে সংক্রমণ দেখা দেওয়ায় চিকিৎসকরা অস্ত্রোপচার করে কবজির ওপর থেকে হাত দুটো কেটে ফেলেন। কিন্তু এতে দমে যায়নি সিয়াম। প্রতিবন্ধকতাকে জয় করে নড়িয়া সরকারি কলেজ থেকে এ বছর এইচএসসি পরীক্ষা দিচ্ছে সে। সে আশা করছে ফল ভালো করবে। তার পরিবারের সদস্যরাও জানালেন সিয়ামের সংগ্রামের কথা। অন্যের ঘাড়ে বোঝা হয়ে না থেকে স্বাভাবিক জীবন যাপনের জন্য শুরু করেছে পড়ালেখা। বড় হয়ে ইউএনও হতে চায় সিয়াম। দাঁড়াতে চায় প্রতিবন্ধীদের পাশে। এ জন্য সংগ্রাম করে যাচ্ছেন। সিয়াম আহাম্মেদ খানের মা জানান, অনেক কষ্ট করে ছেলেকে লেখাপড়া করাতে হচ্ছে। হাত অকেজো হওয়ার কারণে অনেক কষ্ট হয়। আমার ছেলেকে যেন সমাজে অবহেলা না করা হয় সেজন্য যতদূর পারব তাকে লেখাপড়া করাব। বাবা ফারুক আহাম্মেদ খান বলেন, আমি একজন গরিব মানুষ। তবুও ধার দেনা করে ওর চিকিৎসা করতে এই পর্যন্ত আট থেকে ১০ লাখ টাকা খরচ করেছি। এখন পথে বসেছি, আর পারছি না। এতো কষ্টের পরও ছেলেকে পড়ালেখা করাচ্ছি। হাইকোর্ট থেকে পল্লী বিদ্যুৎকে ৫০ লাখ টাকা দিতে বললেও এখনও কোনো টাকা পাইনি। নড়িয়া সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ আবদুল খালেক বলেন, সিয়ামের দুর্ঘটনার পর কলেজ ম্যানেজিং কমিটি, শিক্ষক, শিক্ষার্থীরা মিলে ওর চিকিৎসার জন্য ৫০ হাজার টাকা সহযোগিতা করা হয়েছে। নড়িয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার সানজিদা ইয়াসমিন বলেন, পড়ালেখার বিষয়ে সিয়াম ও নড়িয়া সরকারি কলেজের অধ্যক্ষের সঙ্গে কথা বলেছি। লেখার সহযোগিতার্থে সিয়ামকে একজন রাইটার দেওয়া হয়েছে। ওর পড়ালেখার জন্য ইতোমধ্যে জেলা প্রশাসকের সহযোগিতায় সমাজসেবা তহবিল থেকে ১০ হাজার টাকা দেওয়া হয়েছে। সব সময় সিয়ামকে আমরা সাহায্য সহযোগিতা করে যাব। এসএইচ/

এবার কোনও ধরনের প্রশ্নফাঁস হবে না: শিক্ষামন্ত্রী(ভিডিও)

শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেছেন, প্রশ্নফাঁসসহ পরীক্ষায় যাবতীয় অনিয়ম ঠেকাতে বর্তমান বাস্তবতায় মানুষের পক্ষে যা যা করা সম্ভব সবই করেছি। আশা করছি, এবার কোনও ধরনের প্রশ্নফাঁস হবে না। হলেও যে ফাঁস করবে তাকে চিহ্নিত করে তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে। আজ সোমবার রাজধানীর সিদ্ধেশ্বরী গার্লস কলেজে কেন্দ্রে এইচএসসি পরীক্ষা পরিদর্শন শেষে তিনি এসব কথা বলেন। মন্ত্রী বলেন, প্রশ্নফাঁস হওয়ার আশঙ্কা অনেক কমে এসেছে। ২৫ মিনিট আগে প্রতি কেন্দ্রে সেট কোড পাঠানো হয়েছে কেন্দ্র সচিবকে। সেই সেট কোড অনুযায়ী, প্রশ্নপত্র খুলে সেই সেটে পরীক্ষা নেওয়া হচ্ছে। প্রশ্নের প্যাকেটগুলো টেপ দিয়ে আটকানো ছিল। সেটা খুললেই বোঝা যাবে কোথাও খোলা হয়েছে। তিনি বলেন, আমরা আশা করছি শান্তিপূর্ণ পরিবেশে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। আগেই বলা হয়েছিল, ৩০ মিনিট আগে পরীক্ষার্থীদের কেন্দ্রে প্রবেশের কথা, সেভাবেই প্রবেশ করেছে। এই কেন্দ্রে মাত্র ১০ জন শিক্ষার্থী কয়েক মিনিট পরে পরীক্ষার হলে প্রবেশ করেছে। তাদের নাম, হল, ঠিকানা লিখে রাখা হয়েছে। যাদেরকে সন্দেহজনক মনে হলে তাদেরকে যাচাই-বাছাই করা হবে। এমসিকিউ প্রশ্ন বাতিল হবে কিনা- সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, প্রাথমিক পর্যায়ের আলোচনা ও কাজ শুরু হয়েছে। এখানে জনমতের ব্যাপার রয়েছে। আপনারা লেখেন, এমসিকিউ সঠিক নাকি বেঠিক তা বলেন তাহলে কাজ হবে। কোচিং সেন্টারগুলো খোলা থাকার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এখানে শুধু শিক্ষা মন্ত্রণালয় নয়, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ও আইসিটি মন্ত্রণালয়সহ সংশ্লিষ্ট সবাই কাজ করছে। সবাই খুব সচেষ্ট রয়েছে। তিনি আরও বলেন, আমাদের পরীক্ষার্থীর সংখ্যা এতে বেড়ে গেছে যে গ্রাম অঞ্চলে পরীক্ষার সিট নির্ধারণ করা হয়েছে। সব জায়গায় নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হয়েছে, যদিও সেটা অনেক কঠিন বিষয় ছিল। আশা করছি এ বছর প্রশ্ন ফাঁস হবে না। যদি প্রশ্ন ফাঁস হয় তাহলে যে প্রশ্ন ফাঁস করবে অথবা যে দায়ী থাকবে তার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এসএইচ/

নুরুন নেওয়াজ হাইস্কুলে বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত

ফেনী জেলার ছাগলনাইয়াস্থ উত্তর যশপুর গ্রামে অবস্থিত ঐতিহ্যবাহী বিদ্যাপীঠ নুরুন নেওয়াজ হাই স্কুল-এর বার্ষিক ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা ২০১৮-এর পুরস্কার বিতরনী অনুষ্ঠিত হয়েছে। রোববার (০১ এপ্রিল) সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত এই অনুষ্ঠান চলে। পরে বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়। অনুষ্ঠানের জনপ্রশাসন মন্ত্রনালয়ের মাননীয় সিনিয়র সচিব ডঃ মোঃ মোজাম্মেল হক খান প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া, চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার ও অতিরিক্ত সচিব মো. আবদুল মান্নান, বাংলাদেশ ইকোনমিক জোনস অথরিটির অতিরিক্ত সচিব ও নির্বাহী সদস্য (প্রশাসন ও অর্থ) মোঃ আইয়ুব, বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড-এর সদস্য (প্রশাসন) ও অতিরিক্ত সচিব জনাব ইয়াকুব আলী বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন।   প্রানবন্ত ও বর্ণাঢ্য এই অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা, চট্টগ্রাম চেম্বারের সিনিয়র সহ-সভাপতি ও এনসিসি ব্যাংকের চেয়ারম্যান মোঃ নুরুন নেওয়াজ সেলিম।   উৎসবমুখর পরিবেশে স্কুলের কোমলমতি ছাত্র-ছাত্রীরা চৌকস কুচকাওয়াজের মাধ্যমে অতিথিদের স্বাগত জানায়। প্রধান অতিথি তাঁর বক্তব্যে এই বিদ্যালয়ের সার্বিক কর্মকান্ডে অত্যন্ত সন্তোষ প্রকাশ করেন। ফেনী জেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলের এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠান দেশের অন্যান্য অঞ্চলের জন্য একটি অনুকরণীয় আদর্শ হয়ে থাকবে বলে তিনি তার মতামত ব্যাক্ত করেন। সবশেষে বিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীদের অংশগ্রহনে আয়োজিত এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে কর্মসূচীর সমাপ্তি ঘটে।  এসি 

প্রশ্নফাঁস রোধে কোচিং চিরতরে বন্ধ করতে হবে : দুদক চেয়ারম্যান

প্রশ্নফাঁস রোধে কোচিং বাণিজ্য চিরতরে বন্ধ করে দিতে হবে বলে জানিয়েছেন দুর্নীতি দমন কমিশনের চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ। আজ শনিবার রাজধানীর  ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে দুর্নীতি প্রতিরোধ সপ্তাহ উপলক্ষে ‘সততা সংঘের’ সমাবেশ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। ইকবাল মাহমুদ বলেন, “সম্প্রতি শিক্ষামন্ত্রী বলেছেন- বাংলাদেশের সব কোচিং সেন্টারগুলো অবৈধ। আমরা বলতে চাই সকল কোচিং সেন্টারগুলো শুধু অবৈধ নয় দুর্নীতির আখড়াও। সরকার, ছাত্র-শিক্ষক, অভিভাবক সকলকে আমরা অনুরোধ জানাই, আসুন এই অবৈধ এবং দুর্নীতিগ্রস্ত কোচিং সেন্টারগুলো বন্ধ করার উদ্যোগ গ্রহণ করি। প্রশ্নফাঁস ও কোচিং বাণিজ্য বন্ধে সম্মিলিত চেষ্টার কথা বলে ইকবাল মাহমুদ বলেন, “যে কোনো মূল্যে সম্মিলিতভাবে বাংলাদেশে প্রশ্নপত্র ফাঁস এবং কোচিং বাণিজ্য চিরতরে বন্ধ করতে হবে। আমাদের সন্তানরা সারাদিন কোচিং সেন্টারে-সেন্টারে ঘুরে বেড়াবে তা হতে পারে না।” তিনি শিক্ষকদের উদ্দেশ্যে বলেন, “আপনারাই জাতি গঠনের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অংশ। আপনাদের সুযোগ-সুবিধা, সামাজিক মর্যাদা, বেতন বৃদ্ধিসহ সকল প্রকার উন্নয়নে দুদক আপনাদের পাশে থাকবে। শ্রেণিকক্ষে এমন শিক্ষার ব্যবস্থা করুন, যাতে আমাদের সন্তানদের কোচিং সেন্টারে যেতে না হয়। হাই কোর্টের রায়ে কোচিং সেন্টার বেআইনি ঘোষণা করা হলেও এসব বন্ধে মন্ত্রণালয়ের কোনো ক্ষমতা নেই বলে সম্প্রতি অসহায়ত্ব প্রকাশ করেছেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা সামনে রেখে ২৯ মার্চ থেকে পরীক্ষা শেষ না হওয়া সারা দেশে সব কোচিং সেন্টার বন্ধ রাখবে সরকার। এবারের এইচএসসির তত্ত্বীয় পরীক্ষা চলবে ২ এপ্রিল থেকে ১৩ মে পর্যন্ত। আর ১৪ থেকে ২৩ মের মধ্যে হবে ব্যবহারিক পরীক্ষা। ইকবাল মাহমুদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে দুদক কমিশনার নাসিরউদ্দীন আহমেদ ও এএফএম আমিনুল ইসলাম, সচিব মো. শামসুল আরেফিন, মহাপরিচালক (প্রতিরোধ)মো. জাফর ইকবাল বক্তব্য দেন। / এআর /

© ২০১৮ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি