ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৪ ডিসেম্বর, ২০১৭ ৪:৫৫:৩৩

জেএসসির ফল ৩০ ডিসেম্বর

জেএসসির ফল ৩০ ডিসেম্বর

জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট-জেএসসি পরীক্ষার ফল আগামী ডিসেম্বর প্রকাশিত হতে যাচ্ছে। ওইদিনই মাদ্রাসা শিক্ষার্থীদের জেডিসি পরীক্ষার ফলও প্রকাশ করা হবে। মঙ্গলবার সচিবালয়ে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ।রীতি অনুযায়ী, শিক্ষামন্ত্রী বিভিন্ন বোর্ডের চেয়ারম্যানদের সঙ্গে নিয়ে ৩০ ডিসেম্বর সকালে জেএসসি-জেডিসি পরীক্ষার ফলের অনুলিপি প্রধানমন্ত্রীর হাতে তুলে ধরবেন। পরে সচিবালয়ের সংবাদ সম্মেলন করে ফলের বিস্তারিত জানানো হবে। শিক্ষামন্ত্রীর সংবাদ সম্মেলনের পর থেকে শিক্ষার্থীরা ফল জানতে পারবেন। শিক্ষা মন্ত্রনালয়ের ওয়েবসাইট ও মুঠোফোনে ক্ষুদেবার্তা পাঠিয়েও পরীক্ষার ফল জানা যাবে।
ঢাবি অধিভুক্ত সাত কলেজের ১ম বর্ষের ক্লাস শুরু ১৪ জানুয়ারি

আগামী ১৪ জানুয়ারি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অধিভুক্ত সাত সরকারি কলেজের ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক (সম্মান) ১ম বর্ষের ক্লাস শুরু হবে বলে জানিয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান। আজ মঙ্গলবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আবদুল মতিন চৌধুরী ভার্চুয়াল কক্ষে এক সংবাদ সস্মেলনে তিনি এ তথ্য জানান। তিনি বলেন, শিক্ষার্থীদের আগামী ১৪ জানুয়ারির মধ্যে স্ব স্ব কলেজের নিয়ম অনুযায়ী ভর্তি কার্যক্রম সম্পন্ন করতে হবে। ভর্তির সকল বিষয় www.7college.du.ac.bd ওয়েবসাইটে জানানো হবে । এ সময় তিনি ঢাবির অধিভুক্ত সাত সরকারি কলেজের ১ম বর্ষের ফলাফল প্রকাশ করেন। কলা ও সামাজিক বিজ্ঞান, বাণিজ্য এবং বিজ্ঞান অনুষদসহ তিন ইউনিটে ৩২ হাজার আসনের বিপরীতে এবার ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেন ৭০ হাজার শিক্ষার্থী। এর মধ্যে উত্তীর্ণ হয়েছেন ৪৪ হাজার জন। কলা ও সামজিক বিজ্ঞান ইউনিট থেকে পরীক্ষা অংশগ্রহণ করেছে ১১ হাজার ৯১জন। পাস করেছে ৭ হাজার ৬৬৮ জন। পাসের হার ৬৯ দশমিক ১৪ শতাংশ। বাণিজ্য বিভাগ থেকে পরীক্ষায় অংশ নেন ২ হাজার ৯১৮জন। পাস করেছেন ১ হাজার ৭১৬ জন। পাশের হার ৫৮ দশমিক ৮১ শতাংশ। বিজ্ঞান বিভাগে অংশ নেন ৫ হাজার ৫৯৪ জন। পাস করছেন ৪ হাজার ৩২১ জন। পাসের হার ৭৭ দশমিক ২৪। ভর্তি পরীক্ষার ফলাফল www.7college.du.ac.bd এই ওয়েবসাইট থেকে জানা যাবে।   টিআর/এমআর

ঢাবি অধিভূক্ত ৭ কলেজের ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশ

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অধিভুক্ত সাত সরকারি কলেজের ১ম বর্ষ স্নাতক (সম্মান) ও পাস কোর্সের ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশিত হয়েছে । আজ  মঙ্গলবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আবদুল মতিন চৌধুরী ভার্চুয়াল কক্ষে এক সংবাদ সস্মেলনে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান বেলা ১১টা ৪৫ মিনিটে আনুষ্ঠানিকভাব এ ফল ঘোষণা করেন। প্রকাশিত ফল http://7college.du.ac.bd/  এই ওয়েবসাইটে পাওয়া যাবে। উল্লেখ্য, গত ১ ডিসেম্বর কলা ও সামাজিক বিজ্ঞান ইউনিট, ৮ ডিসেম্বর বিজ্ঞান ইউনিট এবং ৯ ডিসেম্বর ২০১৭ বাণিজ্য ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। এর আগে গত ১৬ অক্টোবর থেকে ১৪ নভেম্বর পর্যন্ত অনলাইনে ভর্তির আবেদন প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়।   টিআর/এমআর

মাধ্যমিক স্তরে আর বিভাগ থাকছে না

মাধ্যমিক শিক্ষার মানোন্নয়নে শিক্ষা মন্ত্রণালয় গঠিত কমিটির বিশিষ্ট শিক্ষাবিদরা বেশ কিছ প্রস্তাব দিয়েছেন। মূলত নতুন শিক্ষা পদ্ধতি চালুর আলোকে প্রস্তাবগুলো দেওয়া হয়েছে। প্রস্তাবগুলোর মধ্যে অন্যতম হলো মাধ্যমিক স্তরের পড়ালেখায় আর বিভাগ না রাখার প্রস্তাব। নতুন শিক্ষা পদ্ধতি চালু করা হবে। ফলে এখন থেকে আর নবম শ্রেণিতে থাকবে না বিজ্ঞান, মানবিক ও ব্যবসায় শাখার আলাদা বিভাগ। ষষ্ঠ থেকে দশম শ্রেণি পর্যন্ত বিষয় নির্বাচন করতে পারবে শিক্ষার্থীরা। ইচ্ছামতো বিষয় নির্বাচনের মাধ্যমে দশম শ্রেণি পর্যন্ত পড়ালেখা করবে। এইচএসসি স্তরে গিয়ে বিষয় নির্বাচন করে পড়তে হবে। সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, জেএসসি ও এসএসসিতে পরীক্ষার বিষয় কমানোরও প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। প্রস্তাব বাস্তবায়ন করতে ইতোমধ্যে কাজ শুরু করেছে মন্ত্রণালয়। মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব (মাধ্যমিক-১) চৌধুরী মুফাত আহমেদ গনমাধ্যমকে বলেন, শিক্ষাক্রম পর্যালোচনা কমিটির সুপারিশগুলো নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয়েছে। শিক্ষাবিদরা ইতিবাচক মত দিয়েছেন। অভিভাবক ও শিক্ষার্থীদের মতামত নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। শিক্ষাবিদদের সুপারিশ বাস্তবায়ন হলে অনেকগুলো বিষয়ে পাবলিক পরীক্ষা কমবে। শিক্ষার্থীরা মানসিক চাপ থেকে মুক্ত হবে। প্রসঙ্গত, মাধ্যমিক শিক্ষার মানোন্নয়নে শিক্ষা মন্ত্রণালয়কে পরামর্শ দিতে বিশিষ্ট শিক্ষাবিদদের নিয়ে একটি কমিটি গঠন করা হয় গত বছর। কমিটির সদস্যদের নিয়ে গত বছর ২৫ ও ২৬ নভেম্বর কক্সবাজারে দুই দিনের আবাসিক কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়। এতে শিক্ষাবিদরা বেশ কিছু সুপারিশ করেন। সুপারিশ বাস্তবায়নে কয়েকটি সাব-কমিটিও গঠন করা হয়। সুপারিশ বাস্তবায়নের অগ্রগতি নিয়ে গত ৩০ নভেম্বর মন্ত্রণালয়ে একটি বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।   /এমআর

রাজধানীর ৯৭ শিক্ষকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার সুপারিশ দুদকের

কোচিং বাণিজ্যের সঙ্গে জড়িত থেকে অনৈতিকভাবে অর্থ উপার্জনের অভিযোগে রাজধানীর নামিদামি  আট শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ৯৭ জন শিক্ষকের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশ করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন(দুদক)। এসব প্রতিষ্ঠানের প্রধান, পরিচালনা পর্ষদ এবং মন্ত্রিপরিষদ সচিবকে এই সুপারিশ জানিয়ে আলাদা চিঠি পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন কমিশনের উপ-পরিচালক প্রণব কুমার ভট্টাচার্য্য। রোববার মন্ত্রিপরিষদ সচিব বরাবরে দুদক সচিব মো. শামসুল আরেফিনের পাঠানো চিঠিতে বলা হয়, এমপিওভুক্ত চারটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ৭২ জন শিক্ষক এবং সরকারি চারটি বিদ্যালয়ের ২৫ জন শিক্ষক কোচিং বাণিজ্যে যুক্ত বলে  প্রমাণ পেয়েছে দুদক। অভিযুক্তরা হলেন, আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজের ৩৬ জন, মতিঝিল মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজের ২৪ জন, মতিঝিল সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়ের ১২ জন, উত্তরা মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজের ৫ জন, রাজউক মতিঝিল সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ৪ জন, ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের ৭ জন, গভর্নমেন্ট ল্যাবরেটরি হাই স্কুলের ৮ জন শিক্ষক এবং খিলগাঁও সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের ১ জন। দুর্নীতি দমন কমিশন চিঠিতে বলা হয়েছে, কোচিং বাণিজ্য বন্ধ করতে হলে এই শিক্ষকদের এক বিদ্যালয় থেকে অন্য বিদ্যালয়ে, এক শাখা থেকে অন্য শাখায়, দিবা শিফট থেকে প্রভাতী শিফটে বা প্রভাতী শিফট হতে দিবা শিফটে নির্দিষ্ট সময় পর পর বদলি করা যেতে পারে। ওই শিক্ষকদের বিরুদ্ধে ‘কোচিং বাণিজ্য বন্ধ নীতিমালা-২০১২’ অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়ার সুপারিশ করেছে দুদক। এছাড়াও কোচিং বাণিজ্য বন্ধে সরকারকে আইন প্রণয়নের উদ্যোগ নিতে বলা হয়েছে। গত ফেব্রুয়ারি থেকে দুদক ঢাকার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তি বাণিজ্য, কোচিং বাণিজ্য ও নিয়োগ বাণিজ্যের নামে কোটি কোটি টাকা আত্মসাতের একটি অভিযোগ নিয়ে তদন্ত শুরু করে। সরকারি নীতিমালা অনুযায়ী এক কর্মস্থলে শিক্ষকদের তিন বছর হলেই তাদের বদলি করার নির্দেশনা রয়েছে। কিন্তু রাজনৈতিক চাপ, তদবির ও অনৈতিক আর্থিক লেনদেনের মাধ্যমে অনেকের বদলি আটকে থাকার মতো বিষয়গুলো উঠে আসে দুদকের তদন্তে। একে// এআর    

স্বপ্নযাত্রীর ছোঁয়ায় হাসল ৫০ প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থী

আনোয়ারায় প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীদের মাঝে শিক্ষা সামগ্রী বিতরণ করেছে সামাজিক স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন স্বপ্নযাত্রী ফাউন্ডেশন। শনিবার আনোয়ারা উপজেলার একটি কমিউনিটি সেন্টারে স্বপ্নযাত্রী ফাউন্ডেশন একটি অনুষ্ঠান আয়োজন করেন। এতে প্রতিষ্ঠানটি এ উপজেলায় ৫০ প্রতিবন্ধী ছাত্র-ছাত্রীর মাঝে স্কুলড্রেস, ব্যাগ ও অন্যান্য শিক্ষাসামগ্রী বিতরণ করেন।  স্বপ্নযাত্রী ফাউন্ডেশনের সভাপতি কামাল হোসেনের সভাপতিত্বে , নীল জামশেদ ও কাজী ইমনের যৌথ উপস্থাপনায় ব্যতিক্রমী এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- আনোয়ারা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা গৌতম বাড়ৈ। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন ফাউন্ডেশনের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ সাজ্জাদ। এছাড়াও অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন আনোয়ারা উপজেলা সহকারী কমিশনার(ভূমি) আবদুল মোমেন, আনোয়ারা বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ রেদুয়ানুল হক, সংশপ্তকের কো-অর্ডিনেটর উৎপল বড়ুয়া, আনোয়ারা প্রেসক্লাবের সভাপতি আনোয়ারুল হক প্রমুখ। এম/এসএইচ

ঢাকা স্কুল অব ইকনোমিকসের অধ্যাপকের নিবন্ধ পেলো শ্রেষ্ঠ পুরস্কার

অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্নে অনুষ্ঠিত ওয়ার্ল্ড বিজনেস ইনস্টিটিউটের দুই দিনব্যাপী কনফারেন্সে ঢাকা স্কুল অব ইকনোমিকসের অধ্যাপকের নিবন্ধ পেলো শেষ্ঠ পুরস্কার। উদ্যোক্তা উন্নয়ন ও অর্থনীতি প্রবন্ধের জন্য অধ্যাপক ড. মুহম্মদ মাহবুব আলী শ্রেষ্ঠ পুরস্কার অর্জন করেন। অধ্যাপক আলী উচ্চ শিক্ষার মান উন্নয়নে যে চাবিকাঠিগুলো রয়েছে তা বিবেচনায় এনে বাংলাদেশে উদ্যোক্তা অর্থনীতি শিক্ষা কার্যক্রমের ওপর তার গবেষণা পদ্ধতি তুলে ধরেন।  তিনি সেন্ট্রাল কুইনসনেন্স বিশ্ববিদ্যালয় রক হেমপটান এবং ভিক্টোরিয়া বিশ্ববিদ্যালয় মেলবোর্পে অনুষ্ঠানে অংশ নেন। অধ্যাপক আলী মালেয়শিয়াস্থ ইন-হাউজ মাল্টিমিডিয়া কলেজ শিক্ষকদের উদ্দেশ্যে ‍যুগোপযোগী শিক্ষার মানদণ্ড এবং কর্মমুখী শিক্ষা গবেষণা এবং নিরক্ষণ পদ্ধতির ওপর একটি প্রশিক্ষণ সভায় প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন। বিজ্ঞপ্তি। এসএইচ/

৩ দফা দাবিতে মহাসমাবেশ শুরু বিসিএস শিক্ষা ক্যাডারদের

তিন দফা দাবিতে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে আজ শুক্রবার মহাসমাবেশ করছে ক্যাডারের মর্যাদা রক্ষায় বিসিএস সাধারণ শিক্ষা ক্যাডার কর্মকর্তাদের সংগঠন  ‘বিসিএস সাধারণ শিক্ষা ক্যাডার মর্যাদা রক্ষা কমিটি’। সকাল ১০ থেকে শুরু হওয়া এ সমাবেশ চলবে দুপুর ১২টা পর্যন্ত। পরে দুপুর ১টায় সংগঠনটির সভাপতি পরবর্তি কর্মসূচি ঘোষণা করবেন। এ সমাবেশে ইতিমধ্যে সারা দেশ থেকে প্রায় দুই হাজার বিসিএস সাধারণ শিক্ষা ক্যাডার কর্মকর্তারা অংশ নিয়েছেন। সমাবেশে সভাপতিত্ব করছেন সংগঠনটির সভাপতি অধ্যাপক সেলিমুল্লাহ খন্দকার। উপস্থিত আছেন বিসিএস সাধারণ শিক্ষা ক্যাডার কর্মকর্তাদের সংগঠন  ‘বিসিএস সাধারণ শিক্ষা ক্যাডার মর্যাদা রক্ষা কমিটি মহাসচিব মো. সায়েদুল খবির চৌধুরী, প্রচার সচিব মোহাম্মদ কামাল উদ্দিন প্রমুখ।তাদের দাবিগুলো হলো শিক্ষা ক্যাডার আত্তীকরণ বন্ধে নতুন কোনো কলেজ জাতীয়করণ আদেশের আগেই ২০০০ বিধি সহ ক্যাডারে আত্তীকরণ সংক্রান্ত সকল বিধি বাতিল করে প্রধানমন্ত্রীর অনুশাসন, জাতীয় শিক্ষানীতি ২০১০ এবং বিসিএস নিয়োগ বিধি ১৯৮১ এর কোনো ধরনের ব্যত্যয় না ঘটিয়ে জাতীয়করণের তালিকাভুক্ত কলেজ শিক্ষকদের ক্যাডার বহির্ভুত রেখে তাদের নিয়োগ, পদায়ন ও পদোন্নতি সংক্রান্ত আলাদা বিধিমালা প্রণয়ন করা, “জাতীয় শিক্ষানীতি’ ২০১০” জাতীয় সংসদে অনুমোদনের পর বিধিমালা প্রণয়ন ছাড়াই যে সকল কলেজ জাতীয়করণ করা হয়েছে সেসকল কলেজের শিক্ষকদেরকেও ক্যাডার বহির্ভূত রাখা, এবং “জাতীয়করণের পর সংশ্লিষ্ট কলেজ শিক্ষকদের নিজ প্রতিষ্ঠানেই রাখা, অন্যত্র বদলী হতে পারবেন না” মর্মে প্রধানমন্ত্রীর অনুশাসন প্রদান করার পরও সদ্য জাতীয়করণকৃত কলেজের যে সকল শিক্ষককে বদলী করা হয়েছে তাদের বদলী আদেশ বাতিল করা।আর     

আজ থেকে শুরু প্রাথমিক ও ইবতেদায়ি পরীক্ষা

আজ থেকে শুরু হচ্ছে প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী ও ইবতেদায়ি পরীক্ষা। ২৬ নভেম্বর পর্যন্ত পরীক্ষা চলবে। প্রথম দিন অনুষ্ঠিত হচ্ছে ইংরেজি বিষয়ের পরীক্ষা। ৩০ লাখ ৯৬ হাজার ৭৫ জন শিক্ষার্থী এ বছর প্রাথমিক ও ইবতেদায়ি শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছে । এর মধ্যে প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনীতে ২৮ লাখ চার হাজার ৫০৯ এবং ইবতেদায়িতে দুই লাখ ৯১ হাজার ৫৬৬ জন। গত বছর অংশ নিয়েছিল ৩২ লাখ ৩০ হাজার ২৮৮ জন। এ হিসেবে এবার পরীক্ষার্থী কমেছে এক লাখ ৩৪ হাজার ২১৩ জন। দেশের ভেতরে সাত হাজার ২৬৭টি এবং দেশের বাইরে ১২টি কেন্দ্রে এই পরীক্ষার্থীরা অংশ নেবে। প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় সূ্ত্রে জানা গেছে, প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষায় অংশ নেওয়া পরীক্ষার্থীদের মধ্যে ছাত্র ১২ লাখ ৯৯ হাজার ৯৮৫ জন এবং ছাত্রী ১৫ লাখ চার হাজার ৫২৪ জন। এবার ছাত্রীর সংখ্যা ছাত্রের চেয়ে দুই লাখ চার হাজার ৫৩৯ জন বেশি। এছাড়া, ইবতেদায়ির পরীক্ষার্থীরদের মধ্যে ছাত্র এক লাখ ৫৩ হাজার ১৫২ এবং ছাত্রী এক লাখ ৩৮ হাজার ৪১৪ জন। এ পরীক্ষাতেও পরীক্ষার্থী কমেছে আট হাজার ১৪৯ জন।  

প্রাথমিক ও ইবতেদায়ি পরীক্ষা শুরু রোববার

প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী ও ইবতেদায়ি পরীক্ষা শুরু হচ্ছে রোববার (১৯ নভেম্বর)। চলবে ২৬ নভেম্বর পর্যন্ত। প্রথম দিন অনুষ্ঠিত হবে ইংরেজি বিষয়ের পরীক্ষা। এ বছর প্রাথমিক ও ইবতেদায়ি শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছে ৩০ লাখ ৯৬ হাজার ৭৫ জন। এর মধ্যে প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনীতে ২৮ লাখ চার হাজার ৫০৯ এবং ইবতেদায়িতে দুই লাখ ৯১ হাজার ৫৬৬ জন।গত বছর অংশ নিয়েছিল ৩২ লাখ ৩০ হাজার ২৮৮ জন। এ হিসেবে এবার পরীক্ষার্থী কমেছে এক লাখ ৩৪ হাজার ২১৩ জন। দেশের ভেতরে সাত হাজার ২৬৭টি এবং দেশের বাইরে ১২টি কেন্দ্রে এই পরীক্ষার্থীরা অংশ নেবে।প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় সূ্ত্রে জানা গেছে, প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষায় অংশ নেওয়া পরীক্ষার্থীদের মধ্যে ছাত্র ১২ লাখ ৯৯ হাজার ৯৮৫ জন এবং ছাত্রী ১৫ লাখ চার হাজার ৫২৪ জন। এবার ছাত্রীর সংখ্যা ছাত্রের চেয়ে দুই লাখ চার হাজার ৫৩৯ জন বেশি। এছাড়া, ইবতেদায়ির পরীক্ষার্থীরদের মধ্যে ছাত্র এক লাখ ৫৩ হাজার ১৫২ এবং ছাত্রী এক লাখ ৩৮ হাজার ৪১৪ জন। এ পরীক্ষাতেও পরীক্ষার্থী কমেছে আট হাজার ১৪৯ জন।বুধবার দুপুরে সচিবালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান ফিজার জানান, প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় দুই হাজার ৯৫৩ জন এবং ইবতেদায়িতে ৩৭৯ জন বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন পরীক্ষার্থী রয়েছে। তারা নির্দিষ্ট সময়ের চেয়ে ২০ মিনিট বেশি পাবে।প্রশ্নপত্র ফাঁস ঠেকানোর বিষয়ে মন্ত্রী আরও বলেন, ‘আইনশৃঙ্খলা বাহিনীসহ বিভিন্ন সংস্থা প্রশ্নপত্র ফাঁস ঠেকাতে মনিটরিং করবে। পরীক্ষাকেন্দ্রে মোবাইল ফোনসহ সব ধরনের ডিভাইস নিষিদ্ধ করা হয়েছে। প্রতিটি জেলায় প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তাদের সমন্বয়ে পরীক্ষা কার্যক্রম পরিদর্শনে ভিজিলেন্স টিম গঠন করা হয়েছে। এছাড়া, আইনশৃঙ্খলা রক্ষা এবং সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনার জন্য জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার, উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও উপজেলা শিক্ষা অফিসাররা নিয়োজিত থাকবেন।’ এসএইচ/

লেকহেড স্কুল রোববার পর্যন্ত বন্ধের নির্দেশ

জঙ্গি কার্য্ক্রমে মদদ দেওয়ার অভিযোগে বন্ধ থাকা রাজধানীর লেকহেড স্কুল খুলে দিতে হাইকোর্টের দেওয়া রায় আগামী রোববার পর্যন্ত স্থগিত করেছে সুপ্রিম কোর্টের চেম্বার আদালত। বুধবার রাষ্ট্রপক্ষের এক আবেদনের প্রেক্ষিতে চেম্বার বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হাসান এ আদেশ দেন। একই সাথে আবেদনটি পূর্ণ শুনানির জন্য আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে পাঠানো হয়েছে বলে জানান অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। মাহবুবে আলম বলেন, চেম্বার বিচারপতি মাহমুদ হাসান শুনানি শেষে হাইকোর্টের রায়টি আগামি রোববার পর্য্ন্ত স্থগিত রাখার নির্দেশ দেন। জানা যায়, বুধবার হাইকোর্টের বিচারপতি সৈয়দ মুহম্মদ দস্তগীর হোসেন ও মো. আতাউর রহমান খানের সমন্বয়ে গঠিত একটি বেঞ্চ স্কুলটি ২৪ ঘণ্টার মধ্যে খুলে দেওয়ার আদেশ দেন। এর আগে জঙ্গি পৃষ্ঠপূষকতার অভিযোগে স্কুলটি বন্ধ করে দেয় সরকার। পরে স্কুলের মালিক ও ১২ অভিভাবকের করা রিট আবেদনের প্রেক্ষিতে হাইকোর্টের বেঞ্চ এই আদেশ দেন। এমজে/

জেএসসির প্রশ্নপত্রও ফেসবুকে!

পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস! যেকোন পাবলিক পরীক্ষায় এটা যেন নিয়ম হয়ে যাচ্ছে! ঘোরতর অপরাধ হলেও চলছে তা দেদারছে। প্রশ্নপত্র ফাঁসের এ ধারাবাহিকতায় এবার বাদ পড়লো না জেএসসি পরীক্ষার প্রশ্নপত্রও। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে পরীক্ষার আগেই ছড়িয়ে পড়ছে প্রশ্নপত্র। চলমান জেএসসি পরীক্ষার ইংরেজি দ্বিতীয় পত্রের পর ইসলাম ও নৈতিক শিক্ষার প্রশ্নপত্রও ফেসবুকে পাওয়া গেছে; যার সঙ্গে পরীক্ষার প্রশ্নপত্রের পুরোপুরি মিল পাওয়া গেছে। গত সোমবার (৬ নভেম্বর) অনুষ্ঠিত হয় ইংরেজি দ্বিতীয় পত্রের পরীক্ষা। ওই পরীক্ষা শুরুর ৫৫ মিনিট আগে প্রশ্নপত্র পাওয়া যায় একটি ফেসবুক মেসেঞ্জার গ্রুপে। পরীক্ষার প্রশ্নপত্রের সঙ্গে তা হুবহু মিলে যাওয়ার পর সোমবার সন্ধ্যায় একটি গণমাধ্যমের পক্ষ থেকে তা জানানো হয় ঢাকা বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক তপন কুমার সরকারকে। ফেসবুক একাউন্টের আইডি লিঙ্কটিসহ প্রশ্নের জন্য অর্থ চেয়ে দেওয়া মোবাইল ব্যাংকিং একাউন্ট নম্বর জানিয়ে তাকে ই মেইল করা হয়। তখন তিনি গণমাধ্যমটিকে বলেছিলেন, পুলিশের সহায়তা নিয়ে বিষয়টি দেখে অপরাধীকে শনাক্ত করা হবে। কিন্তু এরমধ্যেই মঙ্গলবার পরীক্ষা শুরুর আধা ঘণ্টা আগে একই মেসেঞ্জার গ্রুপে ইসলাম ও নৈতিক শিক্ষার প্রশ্নও চলে আসে, যাও মিলে যায়। এরপর যোগাযোগ করা হলে তপন কুমার বলেন, আপনাদের (গণমাধ্যম) কাছ থেকে অভিযোগ পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই তা বিটিআরসি (বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনকে) জানানো হয়েছে। তারা বিষয়টি দেখছে, (অপরাধীকে) ধরার চেষ্টা করছে। তবে মঙ্গলবার সন্ধ্যার পরও ফেইসবুক মেসেঞ্জার গ্রুপটি সক্রিয় দেখা যায়। তাতে বুধবার অনুষ্ঠেয় তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিষয়ের প্রশ্নপত্র ফাঁসের ঘোষণাও দেওয়া হচ্ছিল। তবে পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক তপন কুমার বলেন, আমি এটাকে প্রশ্ন ফাঁস বলতে পারি না, আমাদের কাছে তো এখনও কোনো প্রমাণ নেই। ফাঁসের কোনো নমুনা তো দেখছি না। আরকে// এআর

© ২০১৭ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি