ঢাকা, শুক্রবার   ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, || আশ্বিন ৯ ১৪২৮

আমাদের সেই ‘লস্ট প্যারাডাইস’

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১৯:০০, ২৬ আগস্ট ২০২১ | আপডেট: ১৯:০৬, ২৬ আগস্ট ২০২১

একসময়ে দাঁড়িয়াবান্ধা খেলা গ্রাম বাংলায় অনেক জনপ্রিয় ছিল

একসময়ে দাঁড়িয়াবান্ধা খেলা গ্রাম বাংলায় অনেক জনপ্রিয় ছিল

আমরাই সেই শেষ জেনারেশন যাঁরা জীবনের স্বর্গ দেখেছি ও হারিয়েছি! কোনোও জেনারেশনই আর তা দেখতে পাবে না। 

আমরাই সেই জেনারেশন যারা গরুর গাড়ি থেকে সুপার সনিক কনকর্ড জেট দেখেছি। পোস্টকার্ড, খাম, ইনল্যান্ড লেটার থেকে শুরু করে আজকের হোয়াটস্যাপ চ্যাটিং, ফেসবুক, ই-মেইল পর্যন্তও করছি। অসম্ভব মনে হওয়া অনেক জিনিসই সম্ভব হতে দেখেছি। 

আমরা সেই জেনারেশন, যারা টেলিগ্রাম এসেছে শুনলেই ঘরগুষ্টির মুখ শুকিয়ে যেতে দেখেছি…

আমরাই সেই জেনারেশন যারা মাটিতে বসে ভাত খেয়েছি আর প্লেটে ঢেলে চা খেয়েছি সুরুৎ শব্দে, পরে জেনেছি ওটা বদ-অভ্যাস। 

আমরাই সেই জেনারেশন যারা ছোটবেলায় বন্ধুদের সাথে লুকোচুরি, বাঘবন্দি, ডাঙ্গুলি, দাঁড়িয়াবাধা, গোল্লাছুট, মার্বেল খেলেছি, বাবলার আঠায় বাঁশপাতা কাগজের ঘুড়ি বানিয়ে আকাশে উড়িয়েছি। 

আমরাই সেই  জেনারেশন যারা হ্যারিকেন আর কূপির আলোতে পড়াশুনা করেছি, বেত থেকে পাখার ডাঁটির চাপকানি খেয়েছি আর চাদরে উপুড় হয়ে লুকিয়ে লুকিয়ে  অ্যাডভেঞ্চার সিরিজ পড়েছি!

আমরাই সেই জেনারেশন যারা ফ্যান, এসি, হিটার, ফ্রীজ, গ্যাস, মাইক্রো-ওভেনের অস্থাবর সুখ ছাড়াই ছোটবেলা কাটিয়েছি।

আমরাই সেই জেনারেশন যারা ঈগল পেন থেকে বমি করা সুলেখা কালি হাতে মেখে মাথায় মুছে ‘বাবরের যুদ্ধবৃত্তান্ত’ লিখেছি, বড়দের পকেটে বড় নিবের উইংসাঙ পেন দেখেছি আর নতুন বই-খাতার একটা আলাদা গন্ধ আর আনন্দ উপভোগ করেছি।

আমরাই সেই জেনারেশন যারা বিনা টিফিনে স্কুলে গেছি, ইস্কুলে টিচারের হাতে মার খেয়ে, বাড়ি এসে নালিশ করাতে সেকেন্ড-রাউন্ড বেদম ফ্রি-ষ্টাইল ওয়ান-ওয়ে মার সহ্য করেছি।

আমরাই সেই  জেনারেশন যারা বড়দের সন্মান করেছি এবং করেও যাচ্ছি।

আমরাই সেই জেনারেশন  যারা জোৎস্না রাতে ছাদে ট্রানজিস্টরে বিবিসি’র খবর, অনুরোধের আসর উপভোগ করেছি। 


সাইকেলের পরিত্যাক্ত টায়াল চালানো ছিল অন্যরকম একটা ব্যাপার

আমরাই সেই জেনারেশন  যারা টেলিভিশনে খেলা দেখার জন্য ছাদে উঠে এ্যন্টেনা এডজাস্ট করে স্যিগনাল ধরার চেষ্টা করেছি। তিন লাঠির এন্টেনা, টিভি স্ক্রিনে পার্মানেন্ট ঝিলমিলানি, তাতে কোনও প্রব্লেমই হোত না, ওটা জীবনের অঙ্গ ধরাই ছিল। গণ্ডগোল পাকাতো ঐ লোডশেডিং।

আমরাই সেই জেনারেশন যারা আত্মীয় স্বজন বাড়িতে আসার জন্য অপেক্ষা করেছি। ইচ্ছে করে বৃষ্টি ভিজে ইস্কুল থেকে বাড়ি ঢুকেছি। পাশের জঙ্গলে শিয়াল ডাকার আগেই বাড়ি ঢুকেছি। 

আমরা সেই জেনারেশন যারা পূজো বা ঈদের সময় শুধু একটা নুতন জামার জন্য অপারগ বাবার  দিকে চেয়ে থেকেছি।

আমরা সেই প্রজন্ম যারা রাস্তাঘাটে স্কুলের স্যারকে দেখামাত্র রাস্তাতেই নির্দ্বিধায় প্রণাম/সালাম করেছি । 

আমরাই সেই লাষ্ট জেনারেশন এখনও বন্ধু খুঁজি। জীবনের চলার স্রোতে আমরা হারিয়েছি জীবনের স্বর্গ, লস্ট প্যারাডাইস।

সূত্র: পঞ্চাশোর্ধ বয়স্ক নেটিজেনদের ফেসবুক গ্রুপ থেকে পাওয়া।
 


Ekushey Television Ltd.

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি