ঢাকা, শুক্রবার   ১৩ ডিসেম্বর ২০১৯, || অগ্রাহায়ণ ২৯ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

উষ্ণ গরম পানি খাওয়ায় ৭ উপকার

প্রকাশিত : ১০:০২ ৯ জুলাই ২০১৯

পানির অপর নাম জীবন। তাই পানি ছাড়া চলতে পারে না কেউ। অনেকের অভ্যাস বেশি বেশি করে পানি পান। এই পানি যদি উষ্ণ গরম হয় তবে দেহের জন্য কী উপকার না ক্ষতির? জানেন কী? তবে আজ জানবেন এই হালকা গরম পানি দেহের জন্য আশ্চর্যজনকভাবে সাতটি উপকারে আসে।

দীর্ঘদিন ধরে হজমের সমস্যায় ভুগছেন? হাজার চেষ্টার পরও ওজন কমছে না? কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা? এমনই অনেক স্বাস্থ্য সমস্যার সহজ সমাধান হল কয়েক গ্লাস উষ্ণ গরম পানি। প্রতিদিন কয়েক গ্লাস হালকা গরম পানি নিয়মিত খেতে পারলে একাধিক স্বাস্থ্য সমস্যা থেকে সহজেই মুক্তি পাওয়া সম্ভব।

এবার জেনে নেই উষ্ণ গরম পানি দেহের কি কি উপকারে আসে :

১. আমরা অনেকেই খেতে বসে পানি খাই। এতে খাবারের সঙ্গে পাচক রস সঠিক ভাবে মিশতে পারে না। ফলে হজমের নানা সমস্যা দেখা দেয়। খাবার খাওয়ার ৩০ মিনিট আগে বা পরে যদি এক গ্লাস উষ্ণ গরম পানি খাওয়া যায় তাহলে অ্যাসিডিটি, বদহজমের মতো একাধিক সমস্যা থেকে সহজেই মুক্তি পাওয়া সম্ভব। এই পানি খাবার দ্রুত হজমেও সাহায্য করে।

২. দীর্ঘদিন ধরে কোষ্ঠকাঠিন্যে ভুগছেন? সকালে ঘুম থেকে উঠে খালি পেটে এক গ্লাস হালকা গরম পানি খেতে পারলে পেট সহজেই পরিষ্কার হয়ে যাবে। ফলে কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা থেকে দ্রুত মুক্তি পাওয়া যাবে।

৩. সাধারণ তাপমাত্রার পানির চেয়ে উষ্ণ গরম পানি খেতে পারলে শরীরের ভেতরের তাপমাত্রাটা সামান্য হলেও বৃদ্ধি পায় এবং ঘাম হয় বেশি। অতিরিক্ত ঘাম হওয়ার ফলে শরীরে জমে থাকা অপ্রয়োজনীয় উপাদান ঘামের সঙ্গে বাইরে বেরিয়ে যায়। এতে শরীর দ্রুত ডিটক্স অথবা ব্যথামুক্ত হয়ে যায়।

৪. দ্রুত মেদ ঝরাতে উষ্ণ গরম পানি অত্যন্ত কার্যকর। এই পানি খেলে শরীরের মেটাবলিক রেট বাড়ে এবং সহজেই অনেকটা ক্যালোরি পোড়ে। হালকা গরম পানি খিদে বোধ কমিয়ে ওজন কমাতেও সাহায্য করে। প্রতিদিন সকালে খালি পেটে এই পানির সঙ্গে পাতিলেবুর রস মিশিয়ে খেতে পারলে মেদ ঝরবে দ্রুত।

৫. প্রতিদিন সকালে খালি পেটে এই হালকা গরম পানি খেলে যেমন শরীরের আভ্যন্তরীণ তাপমাত্রা বাড়ে তেমনি এই তাপমাত্রা শরীরের শিরা, ধমনীতে রক্তচলাচলের গতিও স্বাভাবিকভাবে বৃদ্ধি করে। রক্ত চলাচল ঠিক থাকলে হৃদরোগ সংক্রান্ত যাবতীয় রোগের উপশম ঘটে।

৬. দীর্ঘদিন ধরে বাতের ব্যথায় ভুগছেন? এই ব্যথা থেকে মুক্তি পেতে খান এক গ্লাস উষ্ণ গরম পানি। ফলে শরীরের সক্ত সঞ্চালন বাড়বে, শরীরে জমে থাকা অপ্রয়োজনীয় উপাদান ঘামের সঙ্গে বাইরে বেরিয়ে যাবে। ফলে ব্যথা বোধও ক্রমশ কমে আসবে। এর সঙ্গে সঙ্গে ব্রণ-ফুসকুড়ির সমস্যা থেকেও সহজেই দূরে থাকা যাবে।

৭. পুষ্টিবিদরা বলেন, পেট পরিষ্কার থাকলে শরীরের অনেক রোগ আমাদের ধারে কাছেও ঘেঁষতে পারে না। পেট পরিষ্কার থাকলে ত্বকও থাকে ঝকঝকে, উজ্জ্বল। প্রতিদিন সকালে খাবার খাওয়ার ৩০ মিনিট আগে বা পরে যদি এক গ্লাস হালকা গরম পানি খাওয়া যায় তবে ত্বকে জমাট বাধা তেল, ধুলোবালি থেকে সহজেই মুক্তি পাওয়া যাবে।

এএইচ/

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি