ঢাকা, বুধবার   ১৬ অক্টোবর ২০১৯, || কার্তিক ১ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

কাজের চাপে ক্লান্তি নেমে আসলে যা করবেন

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ০৮:৫৫ ৫ অক্টোবর ২০১৯

অফিসে অনেক সময় কাজ বেড়ে যায় আবার পারিবারিক কোন উৎসব লাগলে তখন তো অনেক কাজের দায়িত্ব নিতে হয়। এই হঠাৎ বেশি কাজের চাপ পড়লে তা সামলাতে গিয়ে অনেক সময়ে ক্লান্তি এসে যায়। এ সময়টায় পেটের সমস্যা, মাথা ধরা, গায়ে, হাত-পায়ে ব্যথা অস্বাভাবিক নয়। কিন্তু স্ট্রেস কাটিয়ে পরের দিনের জন্য আবার ফুরফুরে হয়ে উঠতেই হবে। তার জন্য রিল্যাক্সেশন জরুরি।

কিন্তু শরীর জুড়ে যে ক্লান্তি নেমে আসে, তা তাড়াবেন কী করে? এবার তা জেনে নিন-

* বাড়ি ফিরে হালকা গরম পানিতে পা ডুবিয়ে আধাঘণ্টা বসে থাকুন। চাইলে পানির মধ্যে বাথ সল্ট বা এসেনশিয়াল অয়েলও দিতে পারেন। পা ডুবিয়ে রাখার সময়ে হার্বাল টি, গ্রিন টি খেলে তরতাজা লাগবে। কেউ চাইলে ঠাণ্ডা জুসও নিতে পারেন। দেখবেন, সব স্ট্রেস নিমেষে উধাও। 

* যদি এ সময় সর্দি-কাশি হয়ে যাকে, সে ক্ষেত্রেও গরম পানিতে পা ডুবিয়ে রাখলে ভাল লাগবে। ভেপার নিলেও আরাম পাওয়া যাবে। 

* এ সময়টাতে এক্সারসাইজ করতে কার ভাল লাগে! কিন্তু সকালে উঠে ফ্রি হ্যান্ড করে নিলে অনেকটা ঝরঝরে লাগবে।

* পরিশ্রান্ত হয়ে বাড়ি ফিরে একটু নিজের মতো একা থাকুন। মেডিটেশন করতে পারেন। নয়তো স্রেফ বিছানায় শুয়ে পড়ুন। হালকা গান চালিয়ে দিন। একটু পরে দেখবেন শরীরের সব পেশি শিথিল হয়ে এসেছে। এভাবে আধাঘণ্টা শুয়ে থাকলে তরতাজা লাগবে। 

* ঘাড়ে পিঠে যন্ত্রণা হওয়া স্বাভাবিক। হালকা ব্যায়াম করলে আরাম পাবেন। মেরুদণ্ড সোজা করে বসে ঘাড় উপরে-নীচে করুন। কাঁধের উপরে হাতের বুড়ো আঙুল রেখে হাত দুটো ক্লকওয়াইজ, অ্যান্টি ক্লকওয়াইজ ঘোরান। একটু স্ট্রেচ করুন। এতে ঘাড়, কাঁধ, কোমরের আরাম হবে। পা দুটো সামনের দিকে ছড়িয়ে বসুন। এবার হাত দিয়ে পায়ের আঙুল ধরার চেষ্টা করুন। এ ভাবে ৩০ সেকেন্ড থাকুন। আরাম পাবেন। 

* রাতে ঘুমোনোর সময়ে পায়ের তলায় বালিশ দিয়ে রাখুন। পা উঁচু থাকলে মাসলগুলো রিল্যাক্সড হবে।

* অতিরিক্ত খাওয়া-দাওয়া কিন্তু ক্লান্তি ডেকে আনে। কম বয়সিদের অতটা সমস্যা না হলেও, মধ্যবয়সি এবং বয়স্কদের একটু বিবেচনা করেই খেতে হবে। কারও হজমের সমস্যা থাকলে সকালে খালি পেটে হজমের একটি ওষুধ খেয়ে নিতে পারেন।

* হাইজিনের ব্যাপারে একটু সতর্ক থাকা উচিত। স্যানিটাইজার মাস্ট। রাখতে পারেন ওয়েট টিসুও।

* সব কিছুর মধ্যে জরুরি হল ঘুম। পর্যাপ্ত ঘুম না হলে শরীর বিদ্রোহ করবেই। তাই ঘুমের ব্যাপারে কোন ছাড় নয়। পর্যাপ্ত ঘুমিয়ে নিবেন, পরের দিনের কাজে শক্তি পাবেন।

এএইচ/

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি