ঢাকা, শুক্রবার   ২৪ জানুয়ারি ২০২০, || মাঘ ১১ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

গোসলের তোয়ালের যত্ন

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ২১:৩০ ২৮ জুলাই ২০১৭ | আপডেট: ২১:১৭ ৪ আগস্ট ২০১৭

গোসল সেরে আমরা তোয়ালে দিয়ে শরীর মুছে নিই। শরীর মোছার ব্যাপারে সবাই স্বাচ্ছন্দকামী হলেও নিয়মিত অনেকেই তোয়ালে পরিষ্কার করি না। অথচ আমরা অনেকেই জানি না বাথ টাওয়েল (গোসলের তোয়ালে) ব্যাকটেরিয়ার আশ্রয়স্থল হিসেবে কাজ করে। এটি পরিষ্কার রাখার জন্য সপ্তাহে একবার ধোয়া যথেষ্ট নয়।

আপনি তোয়ালে কেবল গোসল সেরে ব্যবহার করেন। তাই ভাবছেন এটি নোংরা নয়। ব্যাপারটা আসলে তা নয়।

 নিউ ইয়র্ক ইউনিভার্সিটি স্কুল অব মেডিসিনের প্যাথলজি ও মাইক্রোবায়োলজির অধ্যাপক ফিলিপ টিয়ের্নো বলেন, ‘যখন বলেন ব্যাকটেরিয়া ধুয়ে ফেলি, তখন আপনার কথা আংশিক সত্য। আপনি কিছু ব্যাকটেরিয়া ধুয়ে ফেলেন। কিন্তু অবশিষ্ট ব্যাকটেরিয়া শরীরে লেগে থাকে ও শরীর মোছার সময় এসব ব্যাকটেরিয়া টাওয়েলে চলে আসে।’

ব্যাকটেরিয়া টাওয়েলে এসে চুপচাপ বসে থাকে না। তারা বংশবিস্তার করতে থাকে। ইউনিভার্সিটি অব আরিজোনার মাইক্রোবায়োলজির অধ্যাপক চাক জেরবা বলেন, ‘দিনের পর দিন অপরিষ্কার তোয়ালে ব্যবহার করলে ব্যাকটেরিয়ার বিস্তার বাড়তে থাকে।’

ড. জেরবা পরিচালিত এক গবেষণায় দেখা যায় যে, নতুন কেনা তোয়ালের তুলনায় পুরোনো ব্যবহৃত তোয়ালেতে ১,০০০ গুণেরও বেশি কলিফর্ম ব্যাকটেরিয়া থাকে। ব্যাকটেরিয়া অন্ধকার ও স্যাঁতস্যাঁতে পরিবেশ ভালোবাসে। তাই বদ্ধ বাথরুমে ব্যাপকহারে ব্যাকটেরিয়া বৃদ্ধি পায়।

নোংরা তোয়ালে দিয়ে শরীর মুছলে ইনফেকশন হওয়ার ঝুঁকি থাকে। ড. জেরবার মতে, ‘গোসলে তোয়ালে ব্যবহারের সময় ত্বকে স্ক্র্যাচ হয়। ত্বকের অতি ক্ষুদ্র এসব স্ক্র্যাচ সাধারণত খালি চোখে দেখা যায় না। এসবই শরীরে ব্যাকটেরিয়া প্রবেশের পথ।’

ইনফেকশাস ডিজিজেস সোসাইটি অব আমেরিকার সংক্রামক রোগ বিশেষজ্ঞ এবং সাউথ নাসাউ কমিউনিটিজ হাসপাতালের এপিডেমিওলোজিস্ট ও মেডিসিন বিভাগের চেয়ারম্যান অ্যারন গ্ল্যাট বলেন, ‘সাধারণত বাথ টাওয়েল থেকে রোগ হয় না।’

ড. জেরবা বলেন, ‘আপনার নিজের জীবাণু আপনাকে অসুস্থ করবে না, কিন্তু তোয়ালে অন্যদের ব্যবহার করতে দিলে রোগ হওয়ার সম্ভাবনা থাকে।’

ড. জেরবা ও ড. টিয়ের্নো পরামর্শ দেন যে, অন্যদের তোয়ালে ব্যবহার করতে না দিলেও দুই বা তিনদিন পরপর গোসলের তোয়ালে ধোয়া উচিত। বেশি দেরি করে ধুলে অণুজীব তোয়ালেকে নোংরা করে ফেলবে।

ড. টিয়ের্নো বলেন, ‘দুই সপ্তাহ ধরে তোয়ালে ব্যবহার করলে আপনার অসুখ নাও হতে পারে। কিন্তু আসল ব্যাপার তা নয়। গোসলে পরিষ্কার হওয়ার পর আপনি কি নোংরা অন্তর্বাস পরেন?’ অন্তর্বাস ধোয়ার মতোই নিয়মিত টাওয়েলও ধুয়ে ফেলুন।

ড. টিয়ের্নো বলেন, ‘আপনার ত্বক যদি ব্রণ প্রবণ হয় তাহলে প্রতিবার টাওয়েল ব্যবহার করে ধোয়া উচিত। আপনি যখন ময়লা বা নোংরা টাওয়েল দিয়ে ব্রণের ওপর ঘষবেন তখন ত্বকে ব্যাকটেরিয়া চলে আসবে এবং ত্বকে ফুসকুড়ি বা দাগ সৃষ্টি করবে।’

ব্রণ থেকে মুক্তি পেতে কিংবা সংক্রামক রোগের হাত থেকে বাঁচতে টাওয়েলকে যথাসম্ভব ব্যাকটেরিয়ামুক্ত রাখতে হবে। শরীর মোছার পর টাওয়েল থেকে ব্যাকটেরিয়া কমাতে রোদে শুকাতে দিন। ভাঁজ না করে এটিকে ছড়িয়ে দিন। যত বেশি ছড়ানো হবে তত বেশি ভালোভাবে শুকাবে।

চারবার ব্যবহারের পর তোয়ালে ধুয়ে ফেলুন। এর চেয়েও কম ব্যবহারে ধোয়ার প্রয়োজন হতে পারে। পুরু কটনের টাওয়েল থেকে ব্যাকটেরিয়া সহজে যায় না। টাওয়েলকে ব্যাকটেরিয়া মুক্ত করা কঠিন। ভালো ফল পেতে গরম পানি দিয়ে ধুতে পারেন। তারপর টাওয়েল ভালোমতো শুকিয়ে নিন। সংক্রমক থেকে বাঁচতে হলে পরিষ্কার - পরিছন্ন থাকাই ভালো ।

কেআই/ডব্লিউএন

 

© ২০২০ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি