ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ১৭ জুন ২০২১, || আষাঢ় ২ ১৪২৮

বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো বিশ্ব মেডিটেশন দিবস পালিত

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১৫:৫০, ২১ মে ২০২১

দেশে প্রথমবারের মত পালিত হলো বিশ্ব মেডিটেশন দিবস। এ বছর দিবসটির প্রতিপাদ্য ছিল ‘নিয়মিত মেডিটেশন, সুস্থ সফল সুখী জীবন’। সারা দেশে লাখো মানুষ এদিন বিভিন্ন স্থান থেকেও সকাল সাড়ে ৯টায়, ঠিক একই সময়ে, মেডিটেশনে নিমগ্ন হন। লাখো ধ্যানীর সমবেত নিমগ্নতার ভেতর দিয়েই মূলত দিবসটিকে উদযাপন করা হয়।

কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে দিবসটি পালিত হয়। এই উপলক্ষে কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে সচেতনতা মূলক ডকুমেন্টারি, বিশেষ মেডিটেশন প্রকাশ ও বিশেষ আলোচনার আয়োজন করা হয়। কোয়ান্টাম ইউটিউব চ্যানেলে দিনব্যাপী সরাসরি অনুষ্ঠিত হয় সচেতনমূলক নানা অনুষ্ঠান। আহ্বান জানানো হয়, একটি প্রতিযোগিতার। যেখানে অংশগ্রহণকারীরা মেডিটেশন বিষয়ক রচনা, ছবি, ফটো ও ভিডিও তৈরি করে ৫ জুনের মধ্যে পাঠাতে পারবেন। প্রতিযোগিতার জন্যে ঘোষণা করা হয় ৫৮টি পুরস্কার। প্রত্যেক বিজয়ী পাবেন ১০ হাজার টাকা মূল্যমানের বই। লিংক : www.quantummethod.org.bd

শুক্রবার সকাল ৭টায় জাতীয় প্রেসক্লাব চত্বরে দিবসটি উপলক্ষে বিশেষ আয়োজন করে কোয়ান্টাম। কোয়ান্টাম মিডিয়া সেলের আহ্বায়ক মোহাম্মদ মাহমুদুজ্জামানের সঞ্চালনায় মেডিটেশন সংক্রান্ত অনুভূতি বর্ণনা করেন জাতীয় প্রেসক্লাবের নির্বাহী কমিটির সদস্য ও কোয়ান্টাম গ্রাজুয়েট কাজী রওনাক হোসেন। এরপর মেডিটেশনের মাধ্যমে প্রশান্তিতে ডুবে যান উপস্থিত সবাই। এছাড়া কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশনের প্রতিটি শাখা ও সেলে ছিল বিশেষ আয়োজন।

গত কয়েক বছর ধরে পৃথিবী জুড়ে কিছু প্রতিষ্ঠান ও সংগঠনের উদ্যোগে ২১ মে বিশ্ব মেডিটেশন দিবস হিসেবে পালিত হয়ে আসছে। বিভিন্ন শ্রেণি-পেশা-বয়সের লাখো মানুষ এতে সক্রিয়ভাবে অংশ নিচ্ছেন। উজ্জীবিত হচ্ছেন নতুন শক্তি ও উদ্যমে। নতুন গতি অনুভব করেছেন স্বাস্থ্য ও মনে। মেডিটেশনের কার্যকারিতাও এখন বিশ্বব্যাপী স্বীকৃত। রোগ প্রতিরোধ, নিরাময়, আত্মনিয়ন্ত্রণ, আত্মশক্তির বিকাশ কিংবা আত্মিক প্রশান্তির জন্যে মেডিটেশন এখন সচেতন মানুষের নিত্যসঙ্গী। একাধিক গবেষণায় প্রমাণিত যে, নিয়মিত মেডিটেশন চর্চায় রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা (ইমিউনসিস্টেম) উদ্দীপ্ত হয় এবং মানসিক স্বাস্থ্য অটুট থাকে। করোনাকালেও বহু মানুষ যখন দিশেহারা হয়ে পড়েছিল, তখন মেডিটেশন ও সুস্থ জীবন চর্চায় যারা অভ্যস্ত; অটুট মনোবল ও প্রাণবন্ত সুস্থতা নিয়ে তারা নিজ কর্তব্য পালন করে গেছেন চমৎকারভাবে।

কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশনের পরিচালক সমন্বয় সুরাইয়া রহমান বলেন, কোয়ান্টাম বিশ্বাস করে, দেশের সকল পর্যায়ে মেডিটেশন চর্চা বিস্তৃত হলে এ দেশ রূপান্তরিত হবে সুস্থ সবল কর্মোদ্যমী সুশৃঙ্খল জনগোষ্ঠীতে। জাতি হিসেবে আমরা এগিয়ে যেতে পারব আরো বহু দূর। তাই, আসুন, নিয়মিত মেডিটেশনের মাধ্যমে প্রশান্তি, সুস্বাস্থ্য ও সজীবতায় আমাদের মনুষ্যত্বকে জাগিয়ে তুলি। মানবিকতাকে ছড়িয়ে দেই পরিবারে, সমাজে ও সারা দেশে।
সূত্র : বাসস
এসএ/
 


Ekushey Television Ltd.

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি