ঢাকা, রবিবার   ১৭ নভেম্বর ২০১৯, || অগ্রাহায়ণ ৪ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

ঈদ লাইফস্টাইল পর্ব-৪

বিশেষ কারুকাজের কারচুপি আর অ্যামব্রয়ডারি পোশাক নকশা কুটিরে

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ০২:০৭ ৬ জুন ২০১৮ | আপডেট: ১০:৩০ ৬ জুন ২০১৮

আর কদিন পরেই আসছে ঈদ উল ফিতর। ঈদে অন্তত নতুন পোশাক নিয়ে আগ্রহ থাকে সবার মাঝেই। বিশেষ করে নারীদের মধ্যে ঈদ কেনাকাটাও যেন এক ধরনের উৎসব। আর সেই উৎসবের শেষ মুহুর্তের কেনাকাটায় ভিন্ন মাত্রা যোগ করতে পারে নকশা কুটির। বিশেষ নকশার কারুকাজ সম্বলিত কারচুপি আর অ্যামব্রয়ডারি করা পোশাকের পসরা বসেছে নকশা কুটিরে।

ফেসবুক ভিত্তিক এই অনলাইন শপে কারচুপি, অ্যামব্রয়ডারি থ্রী-পিসের পাশাপাশি পাওয়া যায় কটনের পোশাকও। তবে তাদের মূল আকর্ষণ কারচুপি ও অ্যামব্রয়ডারির পোশাক। আছে হালের ফ্যাশন মিরর ড্রেস। আর এসব পোশাকের মৌলিক ডিজাইন ও কারুকাজের জন্য বিশেষ দক্ষ কারিগর আছে বলে জানায় প্রতিষ্ঠানটি।

নকশা কুটিরের ফেসবুক পেইজ থেকে জানা যায়, এখানে যেসব কারচুপির পোশাক পাওয়া যায় তার মূল্য দেড় হাজার টাকা থেকে শুরু হয়। এছাড়াও বিশেষ ডিজাইনের কারচুপির পোষাকগুলোর দাম পরবে দুই হাজার টাকা থেকে তিন হাজার টাকার মধ্যে।

আর অ্যামব্রয়ডারি ডিজাইনের থ্রী-পিসগুলোর দাম পরবে এক হাজার টাকা থেকে শুরু করে আড়াই হাজার টাকার মধ্যে।

নকশা কুটিরের কর্ণধার ও নারী উদ্যোক্তা উপমা সাহা বলেন, “কারচুপির কাজ করা পোশাক নারীদের কাছে বেশ প্রিয়। বিশেষ করে মিরপুর বেনারসী পল্লীর কারচুপি আর অ্যামব্রয়ডারি পোশাকের বেশ চাহিদা রয়েছে। এসব পোশাক বিভিন্ন ফ্যাশন হাউজে বেশ চড়া দামে বিক্রি করা হয়। একজন উদ্যোক্তা হিসেবে আমার লক্ষ্য ছিল কীভাবে এসব পোশাককে সবথেকে সহনশীল দামে গ্রাহকের হাতে পৌছানো যায়। সেই লক্ষ্য নিয়ে আমরা কাজ করে যাচ্চি”।

“আমাদের আরেকটি বিশেষ দিক হচ্ছে যে, ডিজাইন কপি পেস্ট করার বর্তমান স্রোতের সাথে আমরা গা ভাসিয়ে দেইনি। আমাদের প্রতিটি ডিজাইন ও কারুকাজ আমাদের মৌলিক কাজ। আমাদের পোশাকের এসব কারুকাজ এতটাই মৌলিক যে, আমরা গ্রাহকদের কাছ থেকে অর্ডার নেওয়ার পর সেগুলো তৈরি করি। আর সে কারণে পোষাকের ডেলিভারি করতে আমাদের চার থেকে সাত দিন সময় লাগে। সেই দিক থেকে বললে এক ধরনের ‘কাস্টম মেড ডিজাইন’ এর পোশাক পাওয়া যায় আমাদের নকশা কুটিরে। ফেসবুকে আমাদের ২৮ হাজারের ওপর অনুসারী আছে। এদের মধ্যে অন্তত অর্ধেক আছেন যারা আমাদের লয়্যাল কাস্টমার। যারা আমাদের ওপর আস্থা রাখেন।”-বলছিলেন উপমা সাহা।

নকশা কুটিরে বিক্রি হওয়া প্রতিটি থ্রী-পিস আনস্টিচ। আর সেকারণে পোশাক নিজের মতো করে বানিয়ে পারবেন এর ক্রেতারা। এসব পোশাক গ্রাহকদের বাসায় সরবরাহ করে নকশা কুটির। পোষাক হাতে পেয়ে যাচাই করে মূল্য পরিশোধের (ক্যাশ অন ডেলিভারি) সুযোগ আছে এখানে। সাধারণত অর্ডার করার চার থেকে সাত দিনের মধ্যে গ্রাহকের কাছে পৌছানো হয় পোষাকগুলো। তবে ঈদের মৌসুমে আরও দ্রুততম সময়ে পোষাক সরবরাহের চেষ্টা করা হচ্ছে বলে জানায় প্রতিষ্ঠানটি।

নকশা কুটিরের পোশাক সম্পর্কে আরও বিস্তারিত জানা যাবে তাদের ফেসবুক পেইজে। পেইজ লিংকঃ

https://www.facebook.com/Noakshakutir/

//এস এইচ এস//   

  

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি