ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ২১ নভেম্বর ২০১৯, || অগ্রাহায়ণ ৭ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

রপচর্চায় অত্যন্ত কার্যকর নিম

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১০:৩৮ ২৩ অক্টোবর ২০১৯

নিমের পাতা, ফুল ফল, গাছ, ছাল সবই আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য অত্যন্ত উপকারী। তাই আয়ুর্বেদী চিকিৎসায় হাজার বছর ধরে ব্যবহার হয়ে আসছে নিম। পাকস্থলী ও ত্বকের নানা রোগের ক্ষেত্রে অত্যন্ত কার্যকরভাবে কাজ করে নিম। এর ভেষজ গুণের জন্য পাশ্চাত্য দেশগুলোও আজকাল নিমের প্রতি ঝুঁকে পড়েছে। 

এই নিম শুধু যে ভেষজ ও আয়ুবেদী ওষুধে ব্যবহার হচ্ছে তাই নয়, এখন নিমের প্রসাধনী তৈরি হচ্ছে। যা পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া ছাড়াই সৌন্দর্যচর্চায় ব্যবহার করা হয়। নিমের প্রসাধনীর মধ্যে রয়েছে তেল, সাবান, ট্যালকম পাউডার, শ্যাম্পু, লোশন, ক্রিম, টুথপেস্ট ইত্যাদি।

এবার জেনে নিন রূপচর্চায় নিমের ব্যবহার সম্পর্কে-

স্কিন টোনার : নিমপাতা স্কিন টোনার হিসেবে ব্যবহার করা যায়। প্রতি রাতে তুলার নরম বল নিমপাতা সিদ্ধ পানিতে ভিজিয়ে মুখে লাগাতে পারেন। এতে ব্রণ, ক্ষতচিহ্ন ও মুখের কালো দাগ দূর হবে। একইভাবে চুলে ব্যবহার করলে খুশকি ও অতিরিক্ত চুল পড়া বন্ধ হবে।

ফেসপ্যাক : ১০টি নিমপাতা ও একটি ছোট কমলার খোসা ছাড়িয়ে অল্প পানিতে সিদ্ধ করে নিন। এই উপকরণগুলো মৃসণ করে পেস্ট তৈরি করুন। এর সঙ্গে অল্প মধু ও দুধ মিশিয়ে নিন। এই ফেসপ্যাকটি সপ্তাহে তিনদিন লাগালে ত্বকের ব্রণ, কালো দাগ, ক্ষতের গর্ত দূর হবে। মনে রাখবেন মধু ও নিম উন্নতমানের ময়েশ্চারাইজার হিসেবে কাজ করে।

কন্ডিশনার : নিমপাতা সেদ্ধ করে ও মধু দিয়ে পেস্ট পেস্ট তৈরি করে চুলে লাগান। এটি ভালো কন্ডিশনার হিসেবে কাজ করবে। এর গুণে মাথার খুশকিও দূর হবে দ্রুত।

এছাড়া নিমের দু’তিন ফোটা তেলের সঙ্গে পানি মিশিয়ে মুখে লাগালে ব্ল্যাকহেডস থেকে পরিত্রাণ পাবেন এবং এর ফিরে আসাও প্রতিরোধ করে। নিমের তেল নিয়মিত মাথায় মাখলে উকুন থেকে সহজেই রেহাই পাওয়া যায়।

এএইচ/

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি