ঢাকা, রবিবার   ১৮ আগস্ট ২০১৯, || ভাদ্র ৩ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

রূপচর্চার যতসব আজব উপায়

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ০৯:৩১ ২০ জুলাই ২০১৯

সৌন্দর্যের জন্য নারীরা কতদূর যেতে পারেন? অনেকেই বলবেন- তা জানা সম্ভব নয়, কেননা এর কোন সীমানা নেই। সৌন্দর্য বাড়াবার জন্য হেনতেন এমন কিছু বাদ নেই যা সুন্দরীরা করেননি। তারপরও থেমে নেই।

নতুন নতুন উপায় বের করেই চলছেন। এমনও জিনিস ব্যবহার করা হচ্ছে তা শুনে আশ্চর্য হবেন! ভেড়ার প্ল্যাসেন্টা থেকে পাখির মল পর্যন্ত রূপচর্চার উপকরণ হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে। 

বিশ্বে প্রচলিত এ রকম কিছু আজব রূপচর্চার অনুসন্ধান আপনাদের জ্ঞাতার্থে প্রদান করা হলো :

শিপ প্ল্যাসেন্টা ফেশিয়াল

ত্বকে বয়সের ছাপ পড়েছে? নিজের বয়সের চেয়ে বেশি মনে হচ্ছে ত্বকের বয়স? সে রকম ক্ষেত্রে পাশ্চাত্যে বেশ প্রচলিত শিপ প্ল্যাসেন্টা ফেশিয়াল। কী হয় এতে? স্ত্রী ভেড়ার প্ল্যাসেন্টা বা গর্ভফুল থেকে স্টেমসেল নিয়ে মেশানো হয় সিরামে। সেটা দিয়ে করা হয় ফেশিয়াল। সিরামে থাকা অ্যামিনো অ্যাসিড আর পেপটিন সাহায্য করে হারিয়ে যাওয়া ত্বকের উজ্জ্বলতা ফিরিয়ে আনতে।

জীবন্ত শামুক 

রূপচর্চার উপকরণ এখন শামুক! শামুকের দেহ থেকে ক্ষরণ হওয়া চটচটে পদার্থ গুরুত্বপূর্ণ বায়োলজিক্যাল উপাদান। যা তৈলাক্ত ত্বক থেকে অ্যাকনে ও রিঙ্কল কমাতে সাহায্য করে। ফিরিয়ে আনে হারানো উজ্জ্বলতা। বিদেশে কোন কোন স্পা তো এমন সুযোগও দেয়, যেখানে ত্বকের উপর ঘুরে বেড়ায় জীবন্ত শামুক। তাদের দেহ থেকে ক্ষরণ হওয়া মিউকাসের প্রলেপ পড়ে ত্বকে।

পাখির মল

বার্ড পু ফেশিয়ালের আর এক নাম নাইটিঙ্গেল ফেশিয়াল। জাপানে উদ্ভুত এই ফেশিয়ালে পাখির মল, চালের গুঁড়া আর পানি মিশিয়ে মালিশ করা হয়। কিছু কিছু পাখির মলে বিশেষ এনজাইম বা উৎসেচক থাকে, যাতে ক্ষতিগ্রস্ত ত্বকও হয়ে ওঠে চকচকে।

বিয়ার ফেশিয়াল

চেক প্রজাতন্ত্রে বিয়ার ফেশিয়াল খুবই জনপ্রিয়। মধ্যযুগ থেকেই বিয়ার রূপচর্চার গুরুত্বপূর্ণ উপকরণ। এখন নতুন করে শুরু হয়েছে এর প্রয়োগ। বিয়ারের স্বাভাবিক উপাদান ঈস্ট সাহায্য করে ত্বক পরিষ্কার রাখতে এবং নির্জীব ত্বকে নতুন প্রাণ ফিরাতে।

ক্যাভিয়ার

বিশ্বের মহার্ঘ্যতম খাবার হলো ক্যাভিয়ার। অন্যদিকে ত্বকের বয়স ধরে রাখতেও এই উপাদান খুবই গুরুত্বপূর্ণ। ত্বকে কোলাজেনের পরিমাণ বাড়াতেও সাহায্য করে এই উপাদান।

ক্রায়োথেরাপি

ক্রায়োথেরাপিতে আবার বিশাল ফ্রিজে ঢুকিয়ে রাখা হয়। তিন মিনিট থাকতে হয় হিমশীতল তাপমাত্রায়। নর্ডিক ও পূর্ব ইউরোপীয় দেশগুলোতে এই থেরাপি খুবই জনপ্রিয়। এর ফলে হরমোন ক্ষরণ বৃদ্ধি পায়। খেলোয়াড়রা প্রায়ই এই থেরাপি নেন।

স্বর্ণ ফেশিয়াল

স্বর্ণ দিয়ে ফেশিয়াল! এখন ২৩ ক্যারাটের স্বর্ণ দিয়ে সুন্দরীরা ফেশিয়াল করছেন। স্বর্ণে থাকা অ্যান্টি অক্সিড্যান্ট ত্বক থেকে টক্সিন দূর করে। আবার ত্বক থেকে মুছে দেয় রোদে পোড়া দাগও।

লবণ পানির থেরাপি

ফ্লোটেশন থেরাপিতে আবার লবণ পানিতে ভাসিয়ে রাখা হয়। এর ফলে ত্বকের ডোপামাইন এবং এন্ড্রোফিনসের পরিমাণ বাড়ে।

অজগরের মালিশ

শরীরের উপরে খেলে বেড়াবে জীবন্ত অজগর! সেই মালিশেই নাকি দূর হবে দেহমনের যাবতীয় টেনশন। চরম আতঙ্কের সরীসৃপই এনে দেবে মুশকিল আসান ফেশিয়াল। তবে আপাতত এই ভয়ঙ্কর সুন্দর সাপের মালিশ পাওয়া যায় ইসরাইল, রাশিয়া, ফিলিপাইন আর আমেরিকায়।
লেখাটি আনন্দ বাজার অবলম্বনে।

এএইচ/
 

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি