ঢাকা, মঙ্গলবার   ১২ নভেম্বর ২০১৯, || কার্তিক ২৮ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

সন্তানকে দিন এই ৪ হেলদি স্ন্যাক্স

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১০:৫৭ ২৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯

বাচ্চাদের স্বাস্থ্য নিয়ে অনেক মা-বাবা চিন্তিত থাকেন। আবার বাচ্চার স্বাস্থ্য কেন বাড়ছে না, এ নিয়ে খেদও প্রকাশ করেন কোনো কোনো সময়। কিন্তু বাচ্চাকে স্বাস্থ্যকর খাবার না দিয়ে আমরা তার হাতে তুলে দেই চিপস ও চকলেট বা ক্যান্ডি জাতীয় খাবারগুলো। এই অভ্যাসগুলো থাকলে, কেন আপনার বাচ্চার স্বাস্থ্য বাড়বে? পুষ্টিকর যতটুকুই খাওয়ান না কেন, এগুলো খেলে সেই পুষ্টিগুণও তেমন একটা কাজে আসে না। মূলত এগুলো বাচ্চাদের ক্ষতিই করে!

তাই চিপস, মিষ্টি, চকোলেট বা ক্যান্ডির পরিবর্তে বাড়ির ছোট্ট শিশুটিকে খেতে দিন এই চার হেলদি স্ন্যাক্স, যা সুস্বাদু এবং পুষ্টিগুণ সমৃদ্ধ।

১. মিক্সড ফল

মওসুমি ফল খাওয়ার অভ্যেস গড়ে তুলুন আপনার সন্তানের মধ্যে। পরিবেশনের সময়ে একটু সাজিয়ে গুছিয়ে দিলে দেখবেন ওদের আগ্রহও বাড়ছে। চাইলে দু’তিন রকম ভিন্ন স্বাদের ফল মিক্সড করে দিন। এতে স্বাদের ক্ষেত্রেও পরিবর্তন আসবে। বাচ্চারও পছন্দ হবে।

২. বাড়িতেই আইসক্রিম বানান

বাজার চলতি আইসক্রিমে অতিরিক্ত চিনি এবং আর্টিফিশিয়াল রং থাকে। তাই বাড়িতেই বানিয়ে নিন দুধ ও সামান্য চিনি দিয়ে আইসক্রিম। সঙ্গে মিলিয়ে দিন মওসুমি ফল। পুষ্টি ও স্বাদ দুটোই বেড়ে যাবে। শিশুরা এটি খেলে দোকানেরটার জন্য আর বায়না ধরবে না।

৩. ড্রাই ফ্রুট লাড্ডু

ড্রাই ফ্রুট গ্রেট করে তার সঙ্গে সুগার ফ্রি পিনাট বাটার আর সামান্য মধু মিশিয়ে ছোট ছোট বলের আকারে গড়ে নিন। ২-৩ ঘণ্টা ফ্রিজে রেখে পরিবেশন করুন। একবার বানিয়ে এক সপ্তাহ ফ্রিজে স্টোর করে রাখতে পারবেন। তা থেকেই একটি দুটি করে প্রতিদিন বাচ্চাকে দিতে দিন। পুষ্টিও পাবে এবং দেখে আনন্দও পাবে।

৪. কলা বা গাজরের কেক

বাজার থেকে কিনে আনা ফ্রুট কেক নয়। আপনার খুদের জন্যে বাড়িতেই বানিয়ে ফেলুন হেলদি কেক। ময়দার পরিবর্তে ব্যবহার করুন আটা এবং সঙ্গে মিশিয়ে দিতে পারেন গ্রেটেড গাজর বা কলা।

এএইচ/

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি