ঢাকা, রবিবার   ১৭ নভেম্বর ২০১৯, || অগ্রাহায়ণ ৪ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

হিল পরে ব্যথা! ঘরোয়া পদ্ধতিতে উপশমের ৭ উপায়

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ২৩:৪৫ ৭ আগস্ট ২০১৮

বড় বড় পার্টিতে যেতে হলে হাই হিলের আবশ্যক। কিন্তু হাই হিলে অনেকেরই পায়ে ব্যথা বা বিভিন্ন সমস্যা হয়। হিল ব্যথা পায়ের একটি সাধারণ সমস্যা। এই সাধারণ সমস্যা স্বাভাবিক কাজকর্মের ব্যহত ঘটায়। মাঝে মাঝে হিলের ব্যথা কোমর কিংবা পিঠ পর্যন্ত উঠতে পারে।

চিকিৎসকদের মতে হাই হিল পরলে প্রায়ই কিছু নির্দিষ্ট রোগের কারণ দেখা যায়। যেমন- গেটো ব্যথা, পায়ের গোড়ালি ব্যথা, আর্থ্রাইটিস (হাড়ের জয়েন্ট ব্যথা) ইত্যাদি যা খুব বেদনাদায়ক। যারা এই সমস্যার অধিভুক্ত তারা বুঝেন যে এই ব্যথা কতটা যন্ত্রণাময়। তবে যন্ত্রণা কমাতে কয়েকটি প্রাকৃতিক ঘরোয়া পদ্ধতিতে উপশমের উপায় রয়েছে। একুশে টেলিভিশন অনলাইনে এই উপায়গুলো দেওয়া হলো-

ইপসম লবণ :

ইপসম লবণ হিলের ব্যথা দ্রুত সারিয়ে তোলে। কারণ ইপসম লবণ ম্যাগনেসিয়াম সালফেট দিয়ে তৈরি যা ফোলা ভাব, যে কোন ব্যথা বা প্রদাহ কমাতে সাহায্য করে। ইপসম লবণ তিন টেবিল চামচ গরম পানিতে মিশিয়ে ওই পানিতে ২০ মিনিট পা ডুবিয়ে রাখুন।

হলুদ :

হলুদ হিলের ব্যথা সারাতে খুব ভালো কাজ করে। হলুদে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট রয়েছে যা ব্যথা কমাতে সাহায্য করে। এক কাপ দুধের সাথে এক চামচ হলুদ গুঁড়া ও মধু মিশিয়ে নিন। এটি প্রতিদিন দুই থেকে তিনবার খাবেন। এতে ব্যথার উপশম হবে।

আদা :

হাই হিলের ব্যথায় আদা খেলে খুব উপকার পাওয়া যায়। আদাতে অ্যান্টি-ইনফ্লামেটরি গুণ রয়েছে যা ব্যথা উপশমে সহায়তা করে। দিনে তিনবার আদা চা খেতে হবে। এছাড়া যে কোন খাবার খাওয়ার সময় আদা ব্যবহার করেন।

আপেলের রস :

আপেলের রস হিল ব্যথা নিরাময়ের জন্য অন্যতম। আপেলের রসের মধ্যেও রয়েছে অ্যান্টি অক্সিডেন্ট যা ব্যথা উপশমে বেশ কর্যকারি। একটি পাত্রে এক কাপ পানির সঙ্গে ১/৪ কাপ আপেলের রস মিশিয়ে গরম করুন। এখন একটি শুকনো কাপড় দিযে ধোয়ার ভাপ নিন এবং ব্যথার স্থানে ১৫-২০ মিনিট লাগিয়ে রাখুন।

গোলমরিচ :

গোলমরিচ হিল ব্যথার উপশমে বেশ উপকার করে। এক টেবিল চামচ গোলমরিচ পিশিয়ে নিন। এরপর ১/৪ কাপ হালকা গরম জলপাই তেলের মধ্যে মিক্সড করে ব্যথার স্থানে লাগিয়ে রাখুন। ১৫ মিনিট পর কুসুম গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

তিসি বীজের তেল :

হিলের ব্যথায় সাহায্য করবে তিসি বীজের তেল। এই তেলে রয়েছে ওমেগা-৩ ফ্যাটি এসিড যা ঘরোয়া পদ্ধতিতে ব্যথার চিকিৎসার অন্যতম উপায়। কুসুম গরম পানিতে তিসি বীজের তেল কয়েক ফোঁটা ঢেলে সেখানে শুকনো কাপড় ভিজিয়ে নিন। এটি এখন পায়ের গোড়ালিতে এক ঘণ্টা বেঁধে রাখুন। দেখবেন ব্যথা কমে যাবে।

ব্যায়াম :

ব্যথা কমাতে ব্যায়াম খুবই উপকার করে। খালি পায়ের কিছু ব্যায়াম রয়েছে যেগুলো প্রতিদিন করলে ব্যথা দূর হয়ে যাবে।

সূত্র : বোল্ডস্কাই।

/কেএনইউ/ এসএইচ/

 

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি