ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ১৭:২৯:৫২

মিয়ানমারের সেনাদের রোহিঙ্গা গণহত্যা পূর্ব পরিকল্পিত: যুক্তরাষ্ট্র

মিয়ানমারের সেনাদের রোহিঙ্গা গণহত্যা পূর্ব পরিকল্পিত: যুক্তরাষ্ট্র

পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী মিয়ানমারের সেনারা রোহিঙ্গাদের ওপর গণহত্যাসহ অত্যাচার-নির্যাতন চালিয়েছে বলে অভিযোগ করেছে যুক্তরাষ্ট্র। যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক তদন্ত প্রতিবেদনের বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা রয়টার্স এ তথ্য দিয়েছে।
সীমান্তে ব্যাপক সংঘর্ষে ৭ পাক সেনা নিহত

জঙ্গি নিধনে উঠে পড়ে লেগেছে পাকিস্তান সেনাবাহিনী। পাকিস্তান-আফগানিস্তান সীমান্তে হঠাৎ করেই আক্রমণ চালায় পাকসেনারা। সেখানে একেবারে গোপন ঘাঁটিতে হানা দেয় সেনাবাহিনীর একটি বিশেষ দল। দু’পক্ষের সংঘর্ষে মৃত্যু হয়েছে সেনাবাহিনীর সাত সদস্যের। অপরদিকে নয় জঙ্গি নিহত হয়েছে। খাইবার-পাখতুনখাওয়া প্রদেশের উত্তর ওয়াজিরিস্তান জেলার ঘারলামাই এবং স্পেরা কুনার আলগাদ এলাকায় আক্রমণ চালায় পাক সেনারা।জঙ্গি-সেনাবাহিনীর মধ্যে সংঘর্ষে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে পুরো এলাকা। পাকিস্তান সেনাবাহিনী সূত্র জানিয়েছে, সীমান্ত এলাকায় গোপনে ঘাঁটি তৈরি করেছে জঙ্গিরা। আর সেখানে চলছে জঙ্গি কার্যকলাপও। সেই খবর গোপন সূত্রে এসে পৌঁছেছে পাকিস্তান সেনাবাহিনীর কাছে। পাকিস্তান-আফগানিস্তান সীমান্তে জঙ্গিদের ডেরায় অতর্কিত আক্রমণ চালিয়েছে সেনাবাহিনীর বিশেষ দলটি। প্রথমে সেখানে পৌঁছেই তল্লাশি শুরু হয়। কিন্তু গোপন এই ডেরায় সেনাবাহিনীর উপস্থিতি টের পেয়েই গুলি চালাতে শুরু করে জঙ্গিরা। পাল্টা জবাব দেয় নিরাপত্তাবাহিনীর সদস্যরাও। জঙ্গিদের গুলিতে নিরাপত্তাবাহিনীর সাতজন প্রাণ হারায়। আরকে//

যমজ চিকিৎসকের হাতে যমজ শিশু

নাথান ও ম্যাথু কেলার। যুক্তরাষ্ট্রের পেনসিলভানিয়ার একটি হাসপাতালে কর্মরত যমজ চিকিৎসক। তাদের হাতেই জন্ম নিয়েছে জোড়া যমজ শিশু। আরও মজার ব্যাপার হচ্ছে, ৩২ বছর আগে ওই হাসপাতালেই যমজ এই চিকিৎসকদের জন্ম। বর্তমানে চিকিৎসক হিসেবে সেখানেই কাজ করছেন তারা। গতকাল মঙ্গলবার ওয়েলস্প্যান গুড সামারিটান হাসপাতালে কর্মরত চিকিৎসকেরা এক নারীর সিজারিয়ান সেকশন পরিচালনা করেন। এদিকে, চিকিৎসক নাথান ও ম্যাথু দুজনের চেহারায় মিল আছে। তবে নতুন জন্ম নেওয়া যমজ শিশুদের একটি ছেলে ও একটি মেয়ে। শিশু দুটির নাম রাখা হয়েছে হাভিয়ার ও গুয়েন্দোলিন। চিকিৎসক নাথান বলেন, আমি তাঁকে অন্তঃসত্ত্বা অবস্থায় কয়েকবার দেখেছি। তার যমজ সন্তান ছিল। এ জন্য অস্ত্রোপচারের প্রয়োজন ছিল। আর তখনই জানতে পারি, আমাকে এ কাজে সহযোগিতা করবে ম্যাথু। চিকিৎসক ম্যাথু বলেন, একই হাসপাতালে ৩২ বছর আগে জন্মেছিলাম বলে এটা দারুণ অভিজ্ঞতা। আসলে যমজ হলো একটা বন্ধন। এই শিশু দুটি যখন বড় হবে, তখন তাদের মধ্যেও একই ধরনের বন্ধন অনুভব করবে। একে//

আশ্রিত রোহিঙ্গাদের ৫৫ শতাংশই শিশু

মিয়ানমার সেনাবাহিনীর নিধনযজ্ঞ থেকে বাঁচতে বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গাদের প্রায় ৫৫ শতাংশই শিশু বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এই শিশুদের সঠিকভাবে বেড়ে উঠার ক্ষেত্রে সরকারের নেওয়া পদক্ষেপের কথাও তুলে ধরেন তিনি। জাতিসংঘের সদর দফতরে স্থানীয় সময় সোমবার ইনভেস্টমেন্ট ফর এডুকেশন অব উইমেন অ্যান্ড গার্ল শীর্ষক এক আলোচনায় তিনি এই আহবান জানান। তিনি জানান, রোহিঙ্গা শিশুদের আনুষ্ঠানিক শিক্ষা নিশ্চিত করতে ইউনিসেফের সঙ্গে অংশীদারিত্বে ১১ হাজার শিক্ষাকেন্দ্র প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে। এই কেন্দ্রগুলোতে এক লাখ ৩০ হাজার রোহিঙ্গা শিশুকে মানসিক-সামাজিক সহায়তা এবং মৌলিক জীবনভিত্তিক শিক্ষা দেওয়া হচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা নতুন শিক্ষা কেন্দ্র খোলা এবং শিশুদের খেলনা বিতরণের কাজ অব্যাহত রেখেছি। আমাদের মনে রাখতে হবে সংঘাত থেকে পালিয়ে আসা শিশুরা ভয়ানক অবস্থায় রয়েছে। তাদের বিশেষ মনোযোগ প্রয়োজন। রোহিঙ্গারা কয়েক দশক ধরে মিয়ানমারে বৈষম্যমূলক নীতির শিকার হয়ে আসছে জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, শিক্ষা, স্বাস্থ্যসেবা ও চলাচলের স্বাধীনতা থেকে তারা বঞ্চিত। এমনকি তাদের নাগরিকত্বও কেড়ে নেয়া হয়েছে। শেখ হাসিনা বলেন, এই উদ্বাস্তু এবং বলপূর্বক বিতাড়িত মানুষের বিষয়টি সংবেদনশীল এবং স্পর্শকাতর। তারা হতাশ, নিপীড়িত। সহিংসতা ও অত্যাচারের ভয়ানক অভিজ্ঞতা তারা বহন করছে। এদের মধ্যে অনেকেই নিজের দেশে কয়েক দশক ধরে অত্যাচার ও বৈষম্যের শিকার হয়েছে। বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গা শিশুদের শিক্ষার সুযোগ নিশ্চিত করতে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় যে সহায়তা দিয়ে যাচ্ছে, সেজন্য ধন্যবাদ জানান শেখ হাসিনা। বিশ্বজুড়ে চলমান সহিংসতার নিন্দা জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, বিশ্বজুড়ে বহু মানুষ সহিংসতার মুখোমুখি হচ্ছে। সন্ত্রাসবাদ ও সহিংস চরমপন্থার কারণে অনেকেই নিজের দেশ থেকে উৎখাত হচ্ছে। সাড়ে ছয় কোটির বেশি মানুষ নিজের ভূমি থেকে বিতাড়িত হয়েছে এবং প্রতিদিন এই সংখ্যা বাড়ছে। এদের অধিকাংশই নারী ও শিশু। / এআর /

ভারতে ‘গণেশ’ বিসর্জন দিতে গিয়ে প্রাণ গেল ১৮ জনের

ভারতের মহারাষ্ট্র রাজ্যে গণেশ পূজা উৎসব শেষে প্রতিমা বিসর্জন দিতে গিয়ে পানিতে ডুবে ১৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। গত রোববার ছিল এ বিসর্জন উৎসবের চূড়ান্ত দিন। উৎসবের বিসর্জন শুরুর পর ওই প্রাণহানির ঘটনা ঘটে। গতকাল সোমবার বিকাল পর্যন্ত মুম্বাইয়ের ভান্ডপে একজন, পুনেতে চারজন, রতনগিরিতে তিনজন, জালনায় তিনজন, ভানদারায় দুইজন, সাতারায় দুইজন এবং নানদেদ, বুলধানা ও আহমেদনগরে একজন করে ডুবে মারা যায়। প্রসঙ্গত, গত ১৩ সেপ্টেম্বর এ উৎসব শুরু হয়। নিয়ম অনুযায়ী গণেশ ভক্তরা নেচেগেয়ে তাদের দেবতার মূর্তি আরব সাগর, সাগরের খাঁড়ি, বিভিন্ন নদী, হ্রদ, পুকুর, কুঁয়া, কৃত্রিম ট্যাংক ও অন্যান্য জলাশয়ে বিসর্জন দেয়। সূত্র: টাইমস অব ইন্ডিয়া একে//

সাগরে ৪৯ দিন যেভাবে বেঁচে ছিলেন এক তরুণ  

ইন্দোনেশিয়াতে গভীর সাগরে নোঙর করে কাঠের তৈরি ভেলায় বাতি জ্বালিয়ে রাতে মাছ ধরার চল রয়েছে বহুদিন ধরে। ইন্দোনেশিয়ায় এ ধরনের ভেলাকে বলা হয় রমপং। প্রতি সপ্তাহে ঐ ভেলায় প্রয়োজনীয় খাবার, পানি এবং জ্বালানি সরবরাহ করা হয়। একই সাথে ডাঙ্গায় নিয়ে যাওয়া হয় শিকার করা মাছ। রোদ-বৃষ্টি থেকে বাঁচার জন্য ভেলার ওপর ছাউনি দেওয়া একটি কুঁড়ে ঘর বানানো থাকে ঐ ভেলায়। জুলাই মাসের মাঝামাঝি তেমনি একটি রমপংয়ে মাছ ধরছিলো ইন্দোনেশিয়ার সুলাওসি দ্বীপের ১৯ বছরের তরুণ আলদি নোভেল আদিলাং।    কিন্তু ১৪ই জুলাই এক ঝড়ে তার ঐ ভেলার নোঙর ছিঁড়ে গেলে চরম বিপদে পড়ে যায় ঐ তরুণ। গভীর সাগরে নিয়ন্ত্রণহীনভাবে ভাসতে থাকে তার মাছ ধরার ঐ ভেলা। ভাসতে ভাসতে কয়েক হাজার কিলোমিটার দুরে চলে যায় আদিলাংয়ের ঐ ভেলা। ৪৯ দিন পর গুয়াম দ্বীপের কাছে পানামার একটি পণ্যবাহী জাহাজ তাকে উদ্ধার করে। কিভাবে বেঁচে ছিল আদিলাং?এই ৪৯ দিন আদিলাং কিভাবে বেঁচে ছিল - জাকার্তা পোষ্ট পত্রিকাকে তা বলেছেন ইন্দোনেশীয় কূটনীতিক ফাজার ফিরদৌস। ভেলার ওপর কুঁড়েঘরের কাঠ ভেঙে ভেঙে তা দিয়ে সাগরের মাছ ধরে সেদ্ধ করে খেয়েছে সে। জমা করা পানি ফুরিয়ে গেলে দিনে পর দিন সাগরের পানি খেয়েছে। "ভয়ে সিঁটকে থাকতো, প্রায় কান্নাকাটি করতো," জাকার্তা পোষ্ট পত্রিকাকে বলেছেন ইন্দোনেশীয় কূটনীতিক ফাজার ফিরদৌস। জাহাজ দেখলে সাহায্যের জন্য চিৎকার করতো কিন্তু লাভ হতোনা। "১০টিরও বেশি জাহাজ তার ভেলার কাছ দিয়ে চলে গেছে, কিন্তু কেউ থামেনি, কিম্বা তাকে দেখেনি।" পরে ৩১শে অগাস্ট এমভি আরপিগিও নামে পানামার পতাকাবাহী একটি জাহাজ গুয়াম দ্বীপের কাছে তাকে উদ্ধার করে। জাহাজের ক্যাপ্টেন গুয়ামের উপকূলরক্ষীদের সাথে যোগাযোগ করলে তারা আদিলাংকে জাপানে নিয়ে যেতে বলা হয়। ৬ই সেপ্টেম্বর তাকে জাপানে নেওয়া হলে, ইন্দোনেশিয়ার দূতাবাসের সহযোগিতায় দু`দিন পর দেশে ফিরে যায় আদিলাং। সূত্র: বিবিসি বাংলা এসি      

ভারতে প্রতিরক্ষা ক্ষেপণাস্ত্রের সফল পরীক্ষা  

ভারত পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্য উড়িষ্যা উপকূলের অদূরে একটি প্রতিরক্ষা ক্ষেপণাস্ত্রের সফল পরীক্ষা চালিয়েছে। সোমবার কর্মকর্তারা একথা জানান। খবর সিনহুয়া’র।    ইন্টিগ্রেটেড টেস্ট রেঞ্জ (আইটিআর) এর আবুল কালাম দ্বীপে রোববার রাতে ক্ষেপনাস্ত্রটির পরীক্ষা চালানো হয়।একজন কর্মকর্তা বলেন, ‘আমরা দ্বি-স্তর বিশিষ্ট ব্যালাস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা উন্নয়নে বড় ধরনের মাইলফলক অর্জন করেছি। পৃথ্বি প্রতিরক্ষা যান এর উদ্দেশ্য হল পৃথিবীর আহাওয়ার ৫০ কিলোমিটার উপরের এক্সো-এ্যাটমোসফিয়ার অঞ্চলের কোন লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত হানা।’ ভারতের ডিফেন্স রিসার্চ এন্ড ডেভেলপমেন্ট অর্গানাইজেশন (ডিআরডিও)এর উদ্ধৃতি দিয়ে খবরে বলা হয়, পিডিভি ইন্টারসেপ্টর ও টার্গেট মিসাইলের মধ্যে সফল সমন্বয় করা হয়েছে। এসি   

ইরানকে আয়নায় মুখ দেখতে বলল যুক্তরাষ্ট্র

ইরানে সামরিক কুচকাওয়াজে বন্দুকধারীদের হামলার ঘটনায় সরকারের নিপীড়নমূলক আচরণই কারণ বলে মন্তব্য করেছেন জাতিসংঘে নিযুক্ত যুক্তরাষ্ট্রের স্থায়ী প্রতিনিধি নিকি হ্যালি। আজ সোমবার বিবিসিতে প্রকাশিত এক প্রতিবেদন থেকে এ কথা জানা যায়। এসময় তিনি ইরানকে আয়নায় মুখ দেখার আহ্বান জানান।গত শনিবার ইরানের আহভাজ শহরে অনুষ্ঠিত কুচকাওয়াজে হামলা প্রসঙ্গে নিকি হ্যালি বলেন, ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি দীর্ঘকাল ধরে নিজ দেশের জনগণের ওপর নিপীড়ন চালিয়ে আসছেন। ওই হামলার পেছনে যুক্তরাষ্ট্রের সংশ্লিষ্টতা আছে দাবি করে হাসান রুহানি যুক্তরাষ্ট্রের তীব্র সমালোচনা করেন। তাঁর প্রতিক্রিয়ায় নিকি হ্যালি ইরানি প্রেসিডেন্টের উদ্দেশে এসব কথা বলেন। এদিকে, সরকারবিরোধী ‘আহভাজ ন্যাশনাল রেজিট্যান্স’ ও ইসলামিক স্টেট (আইএস)—দুটি জঙ্গি সংগঠনই পৃথকভাবে ওই হামলা চালানোর দাবি করেছে। যদিও এ ব্যাপারে কেউই কোনো প্রমাণ হাজির করেনি। শনিবারের ওই হামলায় চারজন বন্দুকধারী ইরানের রেভল্যুশনারি গার্ডসের কুচকাওয়াজে হামলা চালায়। এতে সামরিক-বেসামরিক ও শিশুসহ ২৫ জনের প্রাণহানি ঘটে। প্রেসিডেন্ট রুহানি যুক্তরাষ্ট্রের মদদপুষ্ট উপসাগরীয় দেশগুলো ওই হামলা চালিয়েছে বলে দাবি করেছেন। কিন্তু যুক্তরাষ্ট্র তা অস্বীকার করে বলে, তারা যেকোনো রকম সন্ত্রাসী হামলার নিন্দা জানায়। টিআর/

‘মিয়ানমারের সার্বভৌমত্বে হস্তক্ষেপ করার অধিকার কারো নেই’

মিয়ানমারের সেনাপ্রধান সিনিয়র জেনারেল মিন অং হ্লাইং বলেছেন, তার দেশের সার্বভৌমত্বে হস্তক্ষেপ করার অধিকার কোনো দেশ, সংস্থা বা গোষ্ঠীর নেই। মিয়ানমারে গণতন্ত্র বিকাশের পথ তৈরি করতে ‘সশস্ত্র সংঘাত থামিয়ে শান্তি প্রতিষ্ঠার’কাজ সেনাবাহিনী চালিয়ে যাবে এবং রাখাইনের ঘটনা নিয়ে ‘অগ্রহণযোগ্য কোনো দাবি’সেনাবাহিনী মেনে নেবে না বলেও সাফ জানিয়ে দিয়েছেন তিনি। জাতিসংঘ ফ্যাক্ট ফাইন্ডিং মিশন রোহিঙ্গা ‘গণহত্যার’জন্য মিয়ানমারের শীর্ষ সেনা কর্মকর্তাদের বিচারের সুপারিশ করার এক সপ্তাহের মাথায় দেশটির সেনা প্রধান এমন মন্তব্য করেন। মিয়ানমারের সেনাবাহিনী নিয়ন্ত্রিত পত্রিকা মায়াবতির এক প্রতিবেদনে বলা হয়, রোববার নে পি দোতে সেনাবাহিনীর এক অনুষ্ঠানে গণতন্ত্র, জাতিসংঘ ও রাখাইন প্রসঙ্গ নিয়ে কথা বলেন জেনারেল মিন অং হ্লাইং। তিনি বলেন, বিশ্বের একেক দেশের গণতন্ত্র চর্চার ধরন একেক রকম। একটি দেশ সেই ধরনের গণতন্ত্রের চর্চা করে, যা তার জন্য উপযুক্ত। সার্বভৌম রাষ্ট্র হিসেবে মিয়ানমারও স্বাধীন একটি পররাষ্ট্র নীতির চর্চা করে এবং আন্তর্জাতিক সম্পর্কের ক্ষেত্রে নিরপেক্ষ একটি অবস্থান বজায় রেখে চলে। টিআর/  

ভারতে নির্মাণাধীন ব্রিজ আচমকাই ভেঙে পড়ল

ভারতে দক্ষিণ ২৪ পরগণার কালনাগিনী খালের উপর স্টিমার ঘাটের কাছে নির্মাণাধীন একটি ব্রিজ আচমকাই ভেঙে পড়েছে। সোমবার সকালে এই ঘটনা ঘটে। স্থানীয়দের অভিযোগ, কয়েকদিন আগে ব্রিজটিতে ফাটল ধরা পড়ে। প্রশাসনকে এবিষয় অবহিত করার পরেও কোন ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি। তবে এই ঘটনায় এখনো পর্যন্ত হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি। ব্রিজটি ধসে পড়ায় লোকজনের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে।ঘটনাস্থলের উদ্দেশে রওনা দিয়েছেন প্রশাসনের কর্মকর্তারা। আর আগে পোস্তা এবং শিলিগুড়িতেও একই ভাবে নির্মাণাধীন ব্রিজ ভেঙে পড়েছিল। মৃত্যু হয়েছিল অনেকের। আর সম্প্রতি মাঝেরহাটে ব্রিজ ভেঙে পড়ায় তিনজনের মৃত্যু হয়। সূত্র: টাইমস অব ইন্ডিয়া  টিআর/

© ২০১৮ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি