ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৩ অক্টোবর, ২০১৮ ২০:১৯:৫৫

রাজনীতি করার স্বাধীনতা সবার অাছে: প্রধানমন্ত্রী

রাজনীতি করার স্বাধীনতা সবার অাছে: প্রধানমন্ত্রী

দেশের বিচার বিভাগ স্বাধীন, গণমাধ্যম স্বাধীন, রাজনীতি করার অধিকার সবার অাছে বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, রাজীনীতি করার স্বাধীনতা সবার অাছে। সোমবার বিকেলে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় গণভবনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন। সম্প্রতি সৌদি আবর সফর নিয়ে তিনি এই সাংবাদিক সম্মেলন করেন। প্রধানমন্ত্রী এ সময় বলেন, তবে কারা জোট করল, কারা কারা এক হলো তা দেখার বিষয়। যারা নারী সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে কটূ মন্তব্য করে হেনস্থা করে তাদের জনগণ সমর্থন করবে না। প্রধানমন্ত্রী এ সময় আরও বলেন, ২০০৮ সালে অামরা যে যে নির্বাচনী অঙ্গীকার নিয়েছিলাম, তা অনেক করেছি। অার্থ সামাজিক উন্নয়নের যে পরিকল্পনা করেছিলা তা যেমন বাস্তবায়ন করতে হবে তেমনি ২১০০ সাল পর্যন্ত যে প্লান দিয়েছি তা বাস্তবায়ন করতে হবে। ২০২১ সালে স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়নবতী পালন করবো আমরা। তিনি আরও বলেন, জঙ্গিবাদ, মাদক থেকে মুক্ত করার যে প্ল্যান দিয়েছি তা বাস্তবায়ন করতে হবে। বাংলাদেশ এখন উন্নয়নের রোল মডেল। তবে বিশ্বের বুকে মাথা উঁচু করে দাঁড়াতে হবে। আআ/এসএইচ/  
২০১৯ সালে ২২ দিন সরকারি ছুটি!

আসছে নতুন বছর ২০১৯। এরই মধ্যে সরকারি ছুটির খসড়া প্রণয়ন করেছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। ২০১৯ সালের জন্য সরকারি কর্মীদের ২২ দিন ছুটির প্রস্তাব করা হয়েছে। এর বাইরে বিভিন্ন ধর্মীয় অনুষ্ঠান ও ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীগুলোর জন্য ঐচ্ছিক ছুটিও নির্ধারণ করা হয়েছে।সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, ২২ দিনের মধ্যে ১৪ দিন সাধারণ ছুটি এবং নির্বাহী আদেশে ৮ দিন। তবে সাধারণ ছুটির ১৪ দিনের মধ্যে তিন দিন পড়েছে সাপ্তাহিক ছুটির দিন শুক্র-শনিবার। জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সচিব ফয়েজ আহম্মদ জানান, ২০১৯ সালের সরকারি ছুটির তালিকা মন্ত্রিসভায় উপস্থাপনের জন্য প্রস্তুত করা হয়েছে। আজ সোমবার মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠক অনুষ্ঠিত হচ্ছে না। তাই এর পরবর্তী সভায় সরকারি ছুটির তালিকা অনুমোদন হতে পারে। এসএ/

নারায়ণগঞ্জে শ্রমিক-পুলিশ সংঘর্ষ, আহত অর্ধশত

নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জ এলকায় বকেয়া বেতনের দাবিতে আন্দোলনরত পোশাক শ্রমিকরা পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়িয়েছে। আজ সোমবার সকালে আদমজী ইপিজেডের ‘সোয়াদ ফ্যাশনস’বেকেয়া বেতনের দাবিতে রাস্তা অবরোধ করে। পুলিশ তাদের রাস্তা থেকে সরিয়ে দিতে গেলে এ সংঘর্ষের ঘটনায় ঘটে। এতে পুলিশসহ অর্ধশতাধিক মানুষ আহত হয়েছে। অবরোধের কারণে নারায়ণগঞ্জ-আদমজী-ডেমরা সড়কে ২ ঘন্টা ধরে যান চলাচল বন্ধ থাকে। এসময় বিক্ষুব্ধ শ্রমিকরা এক কভার্ড ভ্যান আগুনে পুড়িয়ে দেয়। এবিষয়ে নারায়ণগঞ্জ শিল্প পুলিশের সুপার জাহিদুর রহমান বলেন,বকেয়া বেতনের দাবিতে সকাল ৭টার দিকে সোয়াদ ফ্যাশনের শ্রমিকরা নারায়ণগঞ্জ-আদমজী-ডেমরা সড়ক অবরোধ করে। ঘণ্টাখানেক পর পুলিশ গিয়ে তাদের সড়ক থেকে সরিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করে। কিন্তু শ্রমিকরা রাস্তা না ছাড়ায় আরও এক ঘণ্টা পর পুলিশ লাঠিপেটা শুরু করে। শুরু হয় ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া,সংঘর্ষ। জাহিদুর রহমান বলেন, বিক্ষোভকারীরা এ সময় একটি কভার্ডভ্যানে আগুন ধরিয়ে দেয় এবং ১০/১২টি গাড়ি ভাংচুর করে। প্রায় এক ঘণ্টা ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া চলার পর পুলিশ টিয়ার শেল ছুড়ে এবং লাঠিপেটা করে শ্রমিকদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। পরে ঘটনাস্থল থেকে কয়েকজন শ্রমিককে আটক করা হয় জানিয়ে শিল্প পুলিশের সুপার বলেন, সংঘর্ষের ঘটনায় তিন পুলিশসহ অর্ধশত মানুষ আহত হয়েছেন। কারখানা কর্তৃপক্ষ আগামী ২০ নভেম্বর শ্রমিকদের বকেয়া পরিশোধের ঘোষণা দিয়েছে বলে জানান তিনি। টিআর/

‘অসুস্থ’এরশাদ সিএমএইচে ভর্তি

জাতীয় পার্টির (জাপা) চেয়ারম্যান ও সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ অসুস্থ হয়ে পড়েছেন বলে জানা গেছে। বর্তমানের তিনি রাজধানীর সিএমএইচ হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে। এরশাদের পরিবার সূত্র জানিয়েছে, রোববার (২২ অক্টোবর) দুপুরে গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় তাকে ভর্তি করা হয়। তার শরীরে হিমোগ্লোবিন কমে যাচ্ছে। তাকে রক্ত দেওয়া হচ্ছে। এদিকে জাতীয় নির্বাচনের আগ মুহূর্তে দলের চেয়ারম্যান অসুস্থ হয়ে পড়ায় শঙ্কায় পড়েছেন তৃণমূল ও কেন্দ্রীয় নেতারা।’ গতকাল রাত দেড়টার সময় পার্টির মহাসচিব রুহুল আমিন হাওলাদার অসুস্থ এরশাদের কাছ থেকে বাসায় ফেরেন। এরশাদের ছোট ভাই ও জাতীয় পার্টির কো চেয়ারম্যান জি এম কাদের বলেন, ‘ওনার চিকিৎসা চলছে। তিনি বার্ধক্যজনিত নানা রোগে ভুগছেন।’‘আমরা আশাবাদী তিনি সুস্থ হয়ে ফিরে আসবেন’ বলেন জি এম কাদের। এরশাদ আগে থেকেই বার্ধক্যজনিত নানা রোগে ভুগছেন। তিনি সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে রুটিন চেকআপ করতেন। তার দুটো ভাল্বেই ছিদ্র রয়েছে। ডাক্তাররা তাকে সম্পূর্ণ বিশ্রামে থাকতে বলেছেন। টিআর/

স্বাস্থ্য পরীক্ষার মূল্য তালিকা নির্ধারণে কমিটি গঠন

বেসরকারি হাসপাতাল ও ক্লিনিকে স্বাস্থ্য পরীক্ষার মূল্য তালিকা নির্ধারণ করতে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিবকে আহ্বায়ক করে ৫ সদস্যর কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটিতে স্বাস্থ্য অধিদফতরের হাসপাতাল ও ক্লিনিকের পরিচালক, বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যান্ড ডেন্টাল কাউন্সিলের রেজিস্ট্রার, বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের মহাসচিব ও বেসরকারি হাসপাতাল-ক্লিনিক মালিক সমিতির মহাসচিবকে রাখা হয়েছে। এ সংক্রান্ত অগ্রগতি প্রতিবেদন দাখিলের জন্য আগামী ৯ জানুয়ারি দিন ধার্য করেছেন আদালত। আদালতের আদেশের পরিপ্রেক্ষিতে এ কমিটি গঠন করে এ সংক্রান্ত প্রতিবেদন সোমবার হাইকোর্টের বিচারপতি জে বি এম হাসান ও বিচারপতি মো. খায়রুল আলমের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চে দাখিল করা হয়। এ প্রতিবেদনের ওপর শুনানিও করা হয়। আদালতে রিট আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন ড. বশির আহমেদ। অন্যদিকে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মোতাহার হোসেন সাজু। এর আগে সব বেসরকারি হাসপাতাল, ক্লিনিক, ল্যাবেরেটরি ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারে চিকিৎসা সংক্রান্ত সব পরীক্ষা ও সেবার মূল্য তালিকা উন্মুক্তভাবে প্রদর্শনের নির্দেশ দিয়েছিলো উচ্চ আদালত। এ আদেশ পাওয়ার ১৫ দিনের মধ্যে বাস্তবায়ন করতে স্বাস্থ্য সচিব, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক, বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যন্ড ডেন্টাল কাউন্সিলকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছিলো। এছাড়া আদেশ পাওয়ার ৬০ দিনের মধ্যে ১৯৮২ সালের দা মেডিকেল প্র্যাকটিস অ্যান্ড প্রাইভেট ক্লিনিকস অ্যান্ড ল্যাবরেটরিস (রেগুলেশন) অর্ডিন্যান্স অনুযায়ী একটি নীতিমালা তৈরি এবং তা বাস্তবায়নের জন্য একটি বিশেষজ্ঞ কমিটি গঠন করতে বলা হয়। সেই আদের্শের পরিপ্রেক্ষিতে ৫ সদ্যেসের এই কমিটি গঠন করা হলো। টিআর/  

চাকরিতে ‘পদ সংরক্ষণ’ করতে পারবে সরকার

সরকারি কর্মচারীদের দ্বারা ফৌজদাররি অপরাধ করলে তাদের গ্রেফতারের আগে সরকার বা নিয়োগকারী কর্তৃপক্ষের অনুমতি নেয়ার বিধান রেখে সংসদের বিল উত্থাপিত হয়েছে। এছাড়া সরকারি চাকরিতে জনবল নিয়োগ হবে মেধা ও উম্মুক্ত প্রতিযোগিতার ভিত্তিতে করা হবে। তবে সংবিধানের উদ্দেশ্য পূরণ করতে সরকার ‘পদ সংরক্ষণ’ সংক্রান্ত বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে পারবে। গতকাল রোববার স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে সংসদের প্রথম বৈঠকে সরকারি চাকরি আইন, ২০১৮ নামে বিলটি উত্থাপন করেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ইনমত আরা সাদেক। পরে বিলটি অধিকতর পরীক্ষা নিরীক্ষার জন্য সংশ্লিষ্ট সংসদীয় স্থায়ী কমিটিতে পাঠানো হয়। প্রস্তাবত আইনে সরকারি কর্মচারীদের দ্বারা ফৌজদাররি অপরাধ সংঘটনের দায়ে গ্রেফতারের ক্ষেত্রে সীমাবদ্ধতা আরোপ করা হয়েছে। বলা হয়েছে, কোন সরকারি কর্মচারীর দায়িত্ব পালনের সাথে সম্পর্কিত অভিযোগে দায়েরকৃত ফৌজদারি মামলায় আদালত কৃর্তক অভিযোগপত্র গৃহীত হওয়ার আগে তাকে গ্রেফতার করতে হলে সরকার বা নিয়োগকারী কর্তৃপক্ষের অনুমতি নিতে হবে। প্রস্তাবিত আইনে সরকারকে, সরকারি গেজেট আদেশ দ্বারা প্রজাতন্ত্রের যে কোন কর্ম বা কর্ম বিভাগ সৃজন, সংযুক্তকরণ, একীকরণ, বিলুপ্তিকরণসহ অন্য যে কোনভাবে পুর্ণগঠন করার ক্ষমতা দেয়া হয়েছে। বলা হয়েছে, জারিকৃত আদেশ দ্বারা নিয়োজিত সরকারি কর্মচারীর কর্মের শর্তাবলির তারতম্য বা রদ করা যাবে। এমনকি আদেশের ভূতাপেক্ষ কার্যকারিতা প্রদান করা যাবে। এছাড়া প্রজাতন্ত্রের কর্মে নিয়োজিতদের নিয়োগ ও কর্ম সম্পর্কিত যে কোন শর্ত নির্ধারণ করতে পারবে। একইসঙ্গে জাকরির দায় ও এখতিয়ার নির্ধারণ ও পরিবর্তন করতে এবং জনস্বার্থে আইনানুগ যে কোন কর্মে বা দায়িত্বে নিয়োজিত করতে পারবে। আইনের নিয়োগ, পদোন্নতি ও পদায়ন বিষয়ে বলা হয়েছে, এই আইনের আওতাভুক্ত কোন কর্ম বা কর্ম বিভাগে সরাসরি জনবল নিয়োগের ভিত্তি হবে মেধা ও উন্মুক্ত প্রতিযোগিতা। তবে সংবিধানের অনুচ্ছেদ ২৯(৩) এর উদ্দেশ্য পূরণ কল্পে পদ সংরক্ষণ সংক্রান্ত বিষয়ে সরকার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে পারবে। পদোন্নতরি ভিত্তি হবে, সততা, মেধা, দক্ষতা, জ্যেষ্ঠতা, প্রশিক্ষণ ও সন্তোষজনক চাকরি। সরকারি চাকরির শিক্ষানবিসকাল ও চাকরি স্থায়ীকরণ সম্পর্কিত বিষয় ও শর্তাধি বিধি দ্বারা নির্ধারিত হবে। এছাড়া আইনে কোন বিদেশী নাগরিককে প্রজাতন্ত্রের কর্মে নিয়োজিত করা যাবে না মর্মে বিধান রাখা হয়েছে। একইসঙ্গে বলা হয়েছে, আউট সোসির্ংয়ের মাধ্যমে সেবা গ্রহণকে কোন অর্থেই প্রজাতন্ত্রেও কর্মে নিয়োগ বলে গণ্য করা যাবে না। টিআর/

শপথ নিলেন বরিশালের মেয়র ও ৪০ কাউন্সিলর

বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের সদ্য নির্বাচিত মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ শপথ নিয়েছেন। একই সঙ্গে শপথ নিয়েছেন ৪০ কাউন্সিলর ও নারী কাউন্সিলররাও। আজ সোমবার সকালে গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে শপথ নেন বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের নবিনির্বাচিত মেয়র। আর স্থানীয় সরকার মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেনের কাছে শপথ নেন ৪০ কাউন্সিলর ও নারী কাউন্সিলর। অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শপথ নেওয়া জনপ্রতিনিধিদের উদ্দেশে বলেন, জনপ্রতিনিধিত্ব করতে হলে নিজের স্বার্থকে প্রাধান্য দিলে চলবে না। মানুষের সুখ-দু:খের ভাগী হতে হবে তাদের ভাগ্যেন্নয়নে আত্মনিয়োগ করতে হবে। প্রধানমন্ত্রী বলেন, গ্রামের মানুষ শহরের সুবিধা পাবে সেটিই আমাদের সরকারের লক্ষ্য। গ্রামের মানুষের দোঁড়গোড়ায় সব সুযোগ সুবিধা পৌছে দিতে জনপ্রতিনিধিদের কাজ করতে হবে। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। প্রসঙ্গত, সাদিক আবদুল্লাহ আওয়ামী লীগের মনোনয়ন নিয়ে বিএনপির মজিবর রহমান সরোয়ারকে লক্ষাধিক ভোটের ব্যবধানে পরাজিত করেন। সাদিক বরিশালের প্রভাবশালী আওয়ামী লীগ নেতা আবুল হাসনাত আবদুল্লাহরে ছেলে। / এআর /

জেনেভার উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ করলেন রাষ্ট্রপতি

রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ সুইজারল্যান্ডের জেনেভার উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ করেছেন। বিনিয়োগ ও নিরাপত্তা বিষয়ে দুইটি আন্তর্জাতিক সম্মেলনে যোগ দিতে তার এই সফর।২১ অক্টোবর, রবিবার দিবাগত রাত ১টা ৪০মিনিটে রাষ্ট্রপতিকে বহনকারী অ্যামিরেটস এয়ারলাইন্সের নিয়মিত ফ্লাইটটি রাজধানীর হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ছেড়ে যায়।সুইজারল্যান্ডের স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ৭টা ৫০মিনিটের দিকে ফ্লাইটটি জেনেভার কোয়েট্রিন বিমানবন্দরে পৌঁছানোর কথা রয়েছে। সফরকালে রাষ্ট্রপতি ২০তম ‘গ্লোবাল লিডারস ইনভেস্টমেন্ট সামিট’ ও ‘হোম ল্যান্ড অ্যান্ড গ্লোবাল সিকিউরিটি ফোরাম’-এর ২০তম বার্ষিক অধিবেশনে যোগ দেবেন।এবার ২২ থেকে ২৬ অক্টোবর আয়োজিত ওয়ার্ল্ড ইনভেস্টমেন্ট ফোরাম-২০১৮-এ যোগ দেওয়ার জন্য ১৬০ দেশের পাঁচ হাজারের বেশি অংশগ্রহণকারী জেনেভায় মিলিত হবেন।হোম ল্যান্ড অ্যান্ড গ্লোবাল সিকিউরিটি ফোরামের ২০তম বার্ষিক অধিবেশন অনুষ্ঠিত হবে ২৪ থেকে ২৭ অক্টোবর। পাঁচ দিনের জেনেভা সফর শেষে ২৭ অক্টোবর রাষ্ট্রপতির দেশে ফেরার কথা রয়েছে। সূত্র : ইউএনবি এসএ/  

আজ হচ্ছে না মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠক

আজ অনুষ্ঠিত হচ্ছে না মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠক। এদিকে এবার সচিবালয়ে সর্বশেষ মন্ত্রিসভা বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে ১৫ অক্টোবর। মন্ত্রিসভা বিভাগের ঊর্ধ্বতন এক কর্মকর্তা জানান, একে তো সরকারের প্রায় শেষ সময়। এখন সব রাজনৈতিক দলই নির্বাচনমূখী। সরকারী দলের অবস্থানও এর ব্যাতিক্রম নয়। তাছাড়া বর্তমান সরকারের আমলে মন্ত্রিসভায় নেয়া বিভিন্ন সিদ্ধান্তের অগ্রগতি হারও সন্তোষ জনক। ফলে সরকারের শেষ সময়ে আজ অনুষ্ঠিতব্য মন্ত্রিসভা বৈঠকে উপস্থাপনের মত জরুরী কোনো এজেণ্ডা নেই।সূত্র জানায়, মন্ত্রিসভা বৈঠকে সরকারের নীতি ও কর্মকৌশল উপস্থাপন করা হয়। তাছাড়া মন্ত্রিসভায় সব সময় দীর্ঘ মেয়াদী সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। ফলে তাৎক্ষণিকভাবে বাস্তবায়নযোগ্য সিদ্ধান্ত সাধারণত মন্ত্রিসভায় উপস্থাপন করা হয় না। এসএ/  

© ২০১৮ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি