ঢাকা, শনিবার   ০১ অক্টোবর ২০২২

হৃদরোগ প্রতিরোধে সপ্তাহে ৪দিন ব্যায়াম

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ২০:২২, ২২ মে ২০১৮

হৃদরোগ সাধারণত বয়স্ক ব্যক্তিদের জন্যই ঝুঁকিপূর্ণ। ৬০ বছর হলেই এই রোগের প্রবণতা দেখা যায়। এটি মূলত ধমনী, শিরা, হৃৎপিন্ড সম্পর্কিত রোগ। হৃদরোগের জন্য অনেক কারণ দায়ী হতে পারে। তবে নিয়মিত হাঁটা বা শারীরিক পরিশ্রমের মাধ্যমে হৃদরোগের ঝুঁকি অনেকটা হ্রাস করা যেতে পারে।

এই বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রে নতুন এক গবেষণা বলেছে, হৃদরোগ প্রতিরোধে সপ্তাহে অন্তত চারদিন শরীরচর্চার বা ব্যায়ামের প্রয়োজন। এতে হৃদপিণ্ড নতুন করে সতেজ হয়ে উঠবে।

নতুন এই গবেষণায় দেখা গেছে, যদি সপ্তাহে দুই থেকে তিনদিন শরীরচর্চায করা হয় তবে সবগুলো ধমনীকে সতেজ রাখা সম্ভব হচ্ছেনা। এর প্রয়োজন অন্তত চারদিন। পাঁচদিন করতে পারলে সবচেয়ে ভালো কাজ দেবে।

গবেষকরা বলেছেন, উপযুক্ত বয়সে প্রয়োজনীয় মাত্রায় শরীরচর্চা করলে হৃদপিণ্ড, ধমনী এবং শিরা-উপশিরা নতুন করে সতেজ হয়ে উঠে এবং হৃদরোগের ঝুঁকি কমায়।

এছাড়া দেখা গেছে, সপ্তাহে দুই থেকে তিনদিন (৩০ মিনিট করে) শরীরচর্চা করলে মাঝামাঝি আকৃতির যেসব ধমনী মাথায় ও ঘাড়ে রক্ত সরবরাহ করে, সেগুলো সতেজ থাকে।

কিন্তু সপ্তাহে চার থেকে পাঁচদিন শরীরচর্চা করলে মাঝারি ধমনীগুলোর সঙ্গে প্রধান যে ধমনীগুলো বুকে এবং পেটে রক্ত সরবরাহ করে, সেগুলোও সতেজ থাকে।

যুক্তরাষ্ট্রের ডালাসে ইনস্টিটিউট অব এক্সারসাইজ অ্যান্ড এনভায়রনমেন্টাল মেডিসিনের ড বেঞ্জামিন লেভিন এই গবেষণায় নেতৃত্ব দিয়ে তিনি বলেন, ‘আমরা এখন বুঝতে পারছি উপযুক্ত শরীরচর্চা করে হৃদপিণ্ড এবং রক্তবাহী নালীর দুরবস্থাকে বদলে ফেলা সম্ভব।’

সূত্র : বিবিসি বাংলা

কেএনইউ/টিকে


Ekushey Television Ltd.

© ২০২২ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি