ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ১৪ নভেম্বর ২০১৯, || অগ্রাহায়ণ ১ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

এক দিনের জন্য ক্লাবে এসেছিলাম: মেনন

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১৭:২৫ ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯

ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন রাজধানীর ফকিরাপুলের ‘ইয়ংমেনস ক্লাব’ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের ফিতা কেটেছিলেন। তিনি এই ক্লাবের গভর্নিং বডির সভাপতি হলেও জানতেন না ক্লাবে কি চলছে! কয়েকদিন আগে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন‘র (র‌্যাব) অভিযানে এ ক্লাব থেকেই ক্যাসিনোর বিপুর পরিমান সরঞ্জামাদিসহ নগদ টাকা ও অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার করা হয়। যুবলীগ নেতা খালেদ (ক্যাসিনো খালেদ) গ্রেফতার হওয়ার পর এ তথ্য উঠে আসে মিডিয়ার প্রতিবেদনে।

স্বয়ং মেনন বলছেন, তিনি শুধু ২০১৬ সালে একটি দিনের জন্য এ ক্লাবে এসেছিলেন। তাও ফিতা কাটার জন্য এরপর আর আসেননি। 

তিনি এ ক্লাবের সভাপতি হয়েও কি জানতেন না এ ক্লাবে কি হতো এমন প্রশ্ন এখন সবার মুখে মুখে। 

তবে তিনি জানান, ওই ক্লাবে ২০১৭ সালে ক্যাসিনো শুরু হয়। ওই ক্লাবে কী হতো প্রশাসনই তা জানতো না, তাহলে তিনি জানবেন কী করে এমন প্রশ্ন রাখেন মেনন।

আজ বৃহস্পতিবার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে কেন্দ্রীয় ১৪ দলের সভায় সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন মেনন।

জানা যায়, ক্যাসিনো চালানোর অভিযোগে ইয়ংমেনস ক্লাবের সভাপতি ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়া পুলিশের হাতে গ্রেফতার হওয়ার পর রিমান্ডে আছেন। এ ক্লাব দিয়ে অভিযান শুরুর পর আরও একাধিক ক্লাবে অভিযানে বেরিয়ে আসছে ঢাকায় ক্যাসিনো সাম্রাজ্যের গোপন খবর।

চলমান এ অভিযানের বিষয়ে মোহাম্মদ নাসিম বলেন, কিছু দুর্বৃত্তের কারণে সরকারের অর্জন ম্লান হয়ে যাবে এটা আমরা মেনে নিতে পারি না। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যে অভিযান শুরু করেছেন ১৪ দল তার সঙ্গে আছে। তবে দুর্বৃত্তদের বিরুদ্ধে যে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে এর সুযোগ নিয়ে কোনো অশুভ শক্তি যাতে চক্রান্ত করতে না পারে সে ব্যাপারে সবাইকে সতর্ক থাকতে হবে। সবাইকে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে কোনো অশুভ শক্তি যেন গুটিকয়েক দুর্বৃত্তের জন্য কোনোভাবে সুযোগ নিতে না পারে। দুর্বৃত্তায়নের সঙ্গে যারা জড়িত তাদের সবার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হবে।

সভায় উপস্থিত জাসদ সভাপতি হাসানুল হক ইনু বলেন, আমরা বলছি কোনো দল দেখে, কোনো মুখ দেখে যেন ব্যবস্থা নেয়া না হয়। যারা অপরাধী তাদের বিরুদ্ধেই ব্যবস্থা নিতে হবে। প্রশাসন থেকে দুর্নীতির কালো বিড়াল ধ্বংস করতে হবে। রাজনৈতিক দল থেকে দুর্বৃত্তদের বের করে দিতে হবে।

ইয়াংম্যানস ক্লাবটিতে ক্যাসিনোর আদলে জুয়ার আসর চালানোর অভিযোগে অভিযান চালিয়ে বুধবার হাতেনাতে ১৪২ জনকে আটক করে র‌্যাব। এর পরদিন গণমাধ্যমকে ক্লাবটির চেয়ারম্যান রাশেদ খান মেনন এমপি বলেছিলেন, ক্যাসিনো সম্পর্কে কিছুই জানতাম না, ক্যাসিনো চলছে কিনা তা দেখভাল করা গভর্নিং বডির চেয়ারম্যানের দায়িত্বের মধ্যে পড়ে না। 

মেনন বলেন, এলাকার সংসদ সদস্য হিসেবে আমাকে ইয়ংমেনস ক্লাবের গভর্নিং বডির চেয়ারম্যান করা হয়েছিল। এলাকার কোথায় কী ঘটছে তার খবর রাখার দায়িত্ব সংসদ সদস্যের নয়, পুলিশের।

তিনি বলেন, আমি জানি ইয়াংম্যানসের ফুটবল টিম আছে। ক্রিকেট খেলে। আমাকে ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক সেখানে একদিন নিয়ে যায় এবং বলা হয়, আপনি ক্লাবের চেয়ারম্যান হবেন। আমি বলেছিলাম, ঠিক আছে। ব্যস ওইটুকুই। আমি এর পর আর কখনও সেখানে যাইনি।

ক্লাবের ভেতরে জুয়াখেলার বিষয়ে তিনি বলেন, সরকার আগে থেকেই এ বিষয়ে জানে। এছাড়া পুলিশ তো এটা ভালো করেই জানে। তারা এতদিন ব্যবস্থা নেয়নি কেন?

উল্লেখ্য, গত ১৮ সেপ্টেম্বর রাজধানীর গুলশান-২ এর খালেদের বাসা এবং ফকিরাপুল ইয়ংমেনস ক্লাবে একযোগে অভিযান শুরু করেন র‌্যাব সদস্যরা। কয়েক ঘণ্টার অভিযানে ওই ক্লাবে মদ আর জুয়ার বিপুল আয়োজন পাওয়া যায়। সেখান থেকে ২৪ লাখ টাকাও উদ্ধার করা হয়। আর গুলশানের বাসা থেকে খালেদকে গ্রেপ্তারের পর তার বাসায় ৫৮৫টি ইয়াবা, বিপুল পরিমাণ বিদেশি মুদ্রা এবং অবৈধ অস্ত্র পাওয়ার কথা জানায় র‌্যাব।

এমএস/এসি

 

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি