ঢাকা, সোমবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০১৮ ১২:৩৭:৩৩

খালেদার ভাগ্য নির্ধারণ আজ

খালেদার ভাগ্য নির্ধারণ আজ

আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে পারবেন কিনা সে বিষয়ে আজ সোমবার সিদ্ধান্ত দেবেন হাইকোর্ট।বিএনপি প্রধান খালেদা জিয়া বগুড়া-৬ ও বগুড়া-৭ এবং ফেনী-১ আসনে মনোনয়নপত্র জমা দেন। কিন্তু দুর্নীতি মামলায় দণ্ডিত হওয়ায় সংশ্লিষ্ট রিটার্নিং কর্মকর্তারা তার মনোনয়নগুলো বাতিল করে দেন।ইসির এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে করা রিটের শুনানির জন্য আজ সোমবার দিন নির্ধারণ করেছেন হাইকোর্ট।এর আগে ৮ ডিসেম্বর নির্বাচন কমিশনে আপিল শুনানির পর সংখ্যাগরিষ্ঠের সিদ্ধান্তের ভিত্তিতে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার তিন আসনের সবকটির মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়।এসএ/  
সাতজনের বিরুদ্ধে লড়বেন মাশরাফি  

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সাতজন প্রার্থীর বিরুদ্ধে লড়বেন জাতীয় ক্রিকেট দলের ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। নড়াইল-২ (সদর ও লোহাগড়া) আসনে এবার আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করছেন মাশরাফি। এ আসনে জাতীয় পার্টি মহাজোটের বাইরে তাদের প্রার্থী ঘোষণা করেছে।  রোববার মনোনয়ন প্রত্যাহারের শেষদিন মাশরাফির আসন থেকে পাঁচজন মনোনয়ন প্রত্যাহার করে সরে দাঁড়িয়েছেন। তবে একাদশ সংসদ নির্বাচনে নড়াইলের দুটি আসন থেকে জাতীয় পার্টি মহাজোটের বাইরে পৃথক প্রার্থী দিয়েছে। এবার নড়াইলের দুটি আসন থেকে মোট ১২ জন নির্বাচন করছেন। এর মধ্যে নড়াইল-১ আসনে পাঁচজন এবং নড়াইল-২ আসনে সাতজন নির্বাচন করছেন। জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা রাজু আহম্মেদ বলেন, মনোনয়ন প্রত্যাহারের শেষ দিন রোববার নড়াইল-২ আসনে ওয়ার্কার্স পার্টির শেখ হাফিজুর রহমান প্রত্যাহার করেছেন। এছাড়া দুটি আসন থেকে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির চার প্রার্থী বাদ পড়েছেন। নড়াইল-২ আসনে নির্বাচনে লড়ছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মাশরাফি বিন মর্তুজা, ২০ দলীয় জোটের প্রার্থী এনপিপির চেয়ারম্যান এ জেড এম ড. ফরিদুজাজামান, জাতীয় পার্টির প্রার্থী ফায়েকুজ্জামান ফিরোজ, ইসলামী আন্দোলনের এসএম নাছির উদ্দিন, এনপিপির মনিরুল ইসলাম, ইসলামী ঐক্যজোটের প্রার্থী মাহাবুবুর রহমান ও স্বতন্ত্র প্রার্থী ফকির শওকত আলী। এসি   

পাঁচ আসনে মশাল, তিনটিতে নৌকা নিয়ে ভোট করবে জাসদ 

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে হাসানুল হক ইনুর নেতৃত্বাধীন জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জাসদ) তিনটি আসনে নৌকা ও পাঁচটি আসনে দলীয় প্রতীক মশাল নিয়ে ভোট করবে।   রোববার দুপুরে হাসানুল হক ইনু স্বাক্ষরিত তিনটি পৃথক চিঠি দলের সহ-দফতর সম্পাদক সাজ্জাদ হোসেন নির্বাচন কমিশনে জমা দিয়েছেন।         একটি চিঠিতে বলা হয়েছে, দশম সংসদের মতো একাদশ সংসদেও জাসদ জোটবদ্ধ হয়ে নির্বাচনে অংশ নিচ্ছে। এরই অংশ হিসেবে ১৪ দলীয় নির্বাচনি মহাজোট মনোনীত আওয়ামী লীগের জন্য সংরক্ষিত নৌকা প্রতীক নিয়ে তিনটি আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবে জাসদ। নৌকা প্রতীক নিয়ে জাসদের যেসব প্রার্থী ভোট করবেন, তারা হলেন—কুষ্টিয়া-২ আসানে হাসানুল হক ইনু, ফেনী-১ আসনে শিরীন আখতার ও বগুড়া-৪ আসনে একেএম রেজাউল করিম তানসেন।   অন্য চিঠিতে বলা হয়েছে, জাসদের যেসব প্রার্থী দলীয় প্রতীক মশাল নিয়ে যারা ভোট করবেন তারা হলেন—ব্রাহ্মণাবাড়িয়া-৫ আসনে অ্যাডভোকেট শাহ জিকরুল আহমেদ, গাইবান্ধা-৩ আসনের এসএম খাদেমুল ইসলাম খুদি, ময়মনসিংহ-৬ আসনে সৈয়দ শফিকুল ইসলাম মিন্টু, রংপুর-২ আসনে কুমারেশ চন্দ্র রায় ও বরিশাল-৬ আসনে মো. মোহসীন। নির্বাচন কমিশন সচিবকে লেখা পৃথক চিঠিতে এই বিষয়ে কার্যকর ব্যবস্থা নিতে অনুরোধ করা হয়। এসব চিঠির অনুলিপি সংশ্লিষ্ট রিটার্নিং অফিসারদের কাছেও পাঠানো হয়েছে। এসি    

বিএনপির গুলশান কার্যালয়ের সামনে মনোনয়ন বঞ্চিতদের বিক্ষোভ 

বিএনপির মনোনয়ন বঞ্চিতরা আজও বিক্ষোভ করছে। রবিবার সকাল থেকে বিএনপির গুলশান কার্যালয়ের সামনে মনোনয়নের জন্য সমর্থকরা বিক্ষোভ মিছিল করে।      শনিবার সারাদিন বিক্ষোভ করে মনোনয়ন বঞ্চিত চাঁদপুর-১ আসনের সাবেক শিক্ষাপ্রতিমন্ত্রী এহসানুল হক মিলনের সমর্থকরা। তারা এ দিন বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের কলাপসিবল গেটে তালা লাগিয়ে দেয়। এছাড়া গোপালগঞ্জ-১ আসনের মনোনয়ন প্রত্যাশী সেলিমুজ্জামান সেলিম, মানিকগঞ্জ-১ আসনে মনোনয়ন বঞ্চিত খোন্দকার দেলোয়ার হোসেনের ছেলে খন্দকার আব্দুল হামিদ ডাবলু, কুমিল্লা-৪ আসনের ইঞ্জিনিয়ার মঞ্জুরুল আহসানের সমর্থকরা গুলশান অফিসে বিক্ষোভ করেন। একপর্যায়ে ওই কার্যালয়ে বাইরে থেকে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে জানালার গ্লাসও ভেঙে ফেলেন বিক্ষুব্ধরা। আজও তারা বিক্ষোভ করছে। বিক্ষোভকারীদের অভিযোগ, টাকার বিনিময়ে মনোনয়ন বিক্রি হয়েছে। এ জন্য বিএনপির যোগ্য প্রার্থীরা মনোনয়ন বঞ্চিত হয়েছেন। তৃণমূলের সঙ্গে সম্পর্ক এমন প্রার্থীদের মনোনয়ন দেওয়া হয়নি। বিভিন্ন আসনে দুর্বল প্রার্থী দেওয়ায় সেসব আসনে বিএনপির পরাজয় নিশ্চিত বলেও মনে করছেন তারা। মুন্সীগঞ্জ-১ আসনে বিএনপির মনোনয়ন পেয়েছেন দলটির কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান শাহ মোয়াজ্জেম হোসেন। এই আসনে বিএনপির আরেক মনোনয়ন প্রত্যাশী জেলা বিএনপির সাবেক সহ-সভাপতি মো. আব্দুল্লাহ। রবিবার সকাল থেকে তার অনুসারী গুলশান কার্যালয়ের সামনে বিক্ষোভ করেছেন। এসি     

‘একমাত্র রাষ্ট্রপতিই খালেদা জিয়াকে ক্ষমা করতে পারেন’

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার দণ্ড রাষ্ট্রপতি ছাড়া অন্য কেউ ক্ষমা করতে পারবেন না বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। রোববার দুপুরে ফেনী পৌর প্রাঙ্গণে সদর উপজেলা আওয়ামী লীগ অফিসে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে তিনি এ কথা বলেন। সেতুমন্ত্রী বলেন, খালেদা জিয়ার নির্বাচন করার কোনও সুযোগ নেই। বাংলাদেশের প্রচলিত আইন অনুযায়ী দুই বছরের অধিক দণ্ডপ্রাপ্ত ব্যক্তি নির্বাচন করতে পারবেন না। কাদের বলেন, দেশে একটি সুন্দর নির্বাচনী পরিবেশ বিরাজ করছে। এ পরিবেশ নষ্ট হলে বিএনপির জন্যই হবে। বিএনপির মনোনয়নবঞ্চিতরা তাদের সেক্রেটারি জেনারেলের অফিসে গিয়ে দফায় দফায় হামলা চালাচ্ছেন। এ সময় ফেনী-২ আসনের এমপি জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন হাজারী, মহিলা সংসদ সদস্য জাহানারা বেগম সুরমা, ফেনী-১ আসনের এমপি শিরীন আখতার, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ফেনী সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবদুর রহমান বিকম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। একে//

প্রার্থিতা ফিরে পেতে হাই কোর্টে হাওলাদার

নির্বাচন কমিশনে আপিল করেও পটুয়াখালী-১ আসনের প্রার্থিতা ফিরে না পেয়ে হাই কোর্টে গেছেন জাতীয় পার্টির নেতা রুহুল আমিন হাওলাদার। নির্বাচন কমিশনের সিদ্ধান্ত চ্যালেঞ্জ করে রোববার হাই কোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় একটি রিট আবেদন জমা দিয়েছেন তিনি। হাওলাদারের আইনজীবী আশিক আল জলিল জানিয়েছেন, বিচারপতি তারিক-উল হাকিম ও বিচারপতি মো. সোহরাওয়ার্দীর হাই কোর্ট বেঞ্চে দুপুরের পর ওই আবেদনের ওপর শুননি হতে পারে। সাবেক অ্যাটর্নি জেনারেল এ এফ হাসান আরিফ রিটের পক্ষে শুনানি করতে পারেন বলে জানান আশিক। তিনি সাংবাদিকদের বলেন, বাংলাদেশ ব্যাংকের চিঠিতে হাওলাদারকে ‘ঋণ খেলাপি’ বলা হয়েছিল। সে কারণে পটুয়াখালীর রিটার্নিং কর্মকর্তা তার মনোনয়ন পত্র বাতিল করে। কিন্তু শাহজালাল ইসলামি ব্যাংক গত ৮ নভেম্বর রুহুল আমিন হাওলাদারের ঋণ পুনঃতফসিল করে স্টেটম্যান্ট দেয়। “কাউকে ঋণ খেলাপি ঘোষণা করার এখতিয়ার বাংলাদেশ ব্যাংকের না থাকার পরও শাহজালাল ইসলামি ব্যাংকের পুনঃতফসিলের স্টেটমেন্ট গ্রহণ না করে নির্বাচন কমিশন বাংলাদেশ ব্যাংকের চিঠির ভিত্তিতে মনোনয়ন পত্র বাতিল করেছে। এ বিষয়টি চ্যালেঞ্জ করেই রিট আবেদনটি করা হয়েছে।” মনোনয়নপত্র বাতিল হওয়া প্রার্থীদের আপিলের ওপর শুনানির দ্বিতীয় দিন শুক্রবার নির্বাচন কমিশন হাওলাদারের নামঞ্জুর করে। গত ২ ডিসেম্বর পটুয়াখালীর রিটার্নিং কর্মকর্তা হাওলাদারের মনোনয়নপত্র বাতিল করার পরদিনই তাকে জাতীয় পার্টির মহাসচিবের পদ থেকে সরিয়ে দেন দলের চেয়ারম্যান এইচ এম এরশাদ। তবে শনিবার জাতীয় পার্টির আরেক বিবৃতিতে জানানো হয়, হাওলাদারকে বিশেষ সহকারী নিয়োগ দিয়েছেন এরশাদ। পার্টি চেয়ারম্যানের অনুপস্থিতিতে তার সার্বিক সাংগঠনিক দায়িত্ব হাওলাদারই পালন করবেন। আরকে//

আজ ফের ২০ দলীয় জোটের চূড়ান্ত প্রার্থীদের নাম ঘোষণা

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপিসহ জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শরিকদের মধ্যে বেশ কয়েকটি আসনে ফের চূড়ান্ত প্রার্থীদের নাম ঘোষণা করা হচ্ছে। আজ রোববার সকালে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার রাজনৈতিক কার্যালয় থেকে চূড়ান্ত প্রার্থীদের নাম ঘোষণা করা হবে। দলীয় সূত্রে জানা গেছে, গতকাল শনিবার শরিকদের পাশাপাশি বিএনপির একাধিক নেতা ধানের শীষ প্রতীকে চূড়ান্ত মনোনয়ন পান। আজ রোববার সকাল ১০টা থেকে ফের আসনসহ সেসব প্রার্থীদের নাম ঘোষণা করা হবে। চূড়ান্ত মনোনয়ন পাওয়া বিএনপির প্রার্থীরা হলেন- পটুয়াখালী-২ আসনে শহিদুল আলম তালুকদার, ময়মনসিংহ-১ আসনে আলী আজগর, গাইবান্ধা-২ আসনে আব্দুল রশিদ সরকার, নারায়ণগঞ্জ-১ আসনে গাজী মনির, কুমিল্লা-৬ আসনে হাজি আমিনুর রশিদ ইয়াসিন, নেত্রকোনা-৫ আসনে আবু তাহের তালুকদার এবং জামালপুর-১ আসনে রশিদুজ্জামান মিল্লাত। গণফোরামের প্রার্থীরা হলেন, ঢাকা-৬ আসনে সুব্রত চৌধুরী, ঢাকা-৭ আসনে মোস্তফা মহসিন মন্টু, ময়মনসিংহ-৮ আসনে এ এইচ এম খালিকুজ্জামান, হবিগঞ্জ-২ আসনে রেজা কিবরিয়া, পাবনা-১ আসনে অধ্যাপক আবু সাইদ, কুড়িগ্রাম-৫ আসনে আমছা আমিন, মৌলভীবাজার-২ সুলতান মনসুর। জেএসডির চূড়ান্ত মনোনয়নপ্রাপ্তরা হলেন, লক্ষ্মীপুর-৪ আসনে আ স ম আব্দুর রব, কুমিল্লা-৪ আসনে আব্দুল মালেক রতন ও ঢাকা-১৮ আসনে শহিদুল উদ্দিন মাহমুদ স্বপন, শরিয়তপুর-১ আসনে নূরুল ইসলাম। কিশোরগঞ্জ-৩ আসনেও ধানের শীষ প্রতীকে জেএসডির প্রার্থী লড়বেন বলে জানানো হয়েছে। তবে তার নাম ঘোষণা করা হয়নি। মনোনয়ন পাওয়া এলডিপির প্রার্থীরা হলেন- চট্টগ্রাম-১৪ আসনে অলি আহমেদ, কুমিল্লা-৭ আসনে রেদুয়ান আহমেদ, লক্ষ্মীপুর-১ আসনে শাহাদত হোসেন সেলিম, চট্টগ্রাম-৭ আসনে নুরুল আলমও ময়মনসিংহ-১০ আসনে সৈয়দ মাহবুব মোর্শেদ। এছাড়া নাগরিক ঐক্যের প্রার্থীরা হলেন-বগুড়া-২ আসনে আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না, নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনে এস এম আকরাম, রংপুর-৫ আসনে মোফাখখারুল ইসলাম নবাব, রংপুর-১ আসনে শাহ মো. রহমতউল্লাহ ও বরিশাল-৪ আসনে কে এম নুরুর রহমান ধানের শীষ প্রতীকে নির্বাচন করবেন। তা ছাড়াও বিএনপি থেকে একটি আসন পেয়েছে ২০ দলীয় জোটের অন্যতম শরিক বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টি। চট্টগ্রাম-৫ আসন থেকে দলটির চেয়ারম্যান অবসরপ্রাপ্ত মেজর জেনারেল সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম ধানের শীষ প্রতীকে নির্বাচন করবেন। আরকে//

নির্বাচনে আওয়ামী লীগ জনগণের উপর আস্থা রাখছে: নাসিম

স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ বিপুল ভোটে জয়ী হবে। তার কারণ আওয়ামী লীগ দেশ ও জনগণের উন্নয়নের জন্যে কাজ করেছে। আর তাই জনগণের আস্থা রাখার মতো কাজ করেছে। শনিবার দুপুরে কাজিপুরের পরানপুরে এক পথসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেন, গত পাঁচ বছরে কাজিপুরের স্কুল-কলেজ, রাস্তাঘাট, ব্রিজ-কালভার্ট, পর্যটনকেন্দ্র, নদী শাসনের মতো গুরুত্বপূর্ণ প্রকল্পে পাঁচ হাজার কোটি টাকার উন্নয়ন করেছি। আগামী নির্বাচনে নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে আপনারা উন্নয়নের ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে সহায়তা করুন। সোনামুখী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি আজগর আলী মণ্ডলের সভাপতি অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শওকত হোসেন, সাধারণ সম্পাদক খলিলুর রহমান সিরাজী, সোনামুখী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আব্দুর রাজ্জাক, সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলাম মাস্টার, সোনামুখী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শাহজাহান আলী প্রমূখ। কেআই// আরকে

খালেদা জিয়ার গুলশান কার্যালয়ে মনোনয়ন বঞ্চিতদের হামলা-ভাংচুর

রাজধানীর গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার কার্যালয়ে ভাঙচুর চালিয়েছে দলটির মনোনয়নবঞ্চিত নেতাদের সমর্থকরা। এ সময় তারা ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে কার্যালয়ের কাঁচ ভাঙচুর করেন। শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৫টার পর এ হামলা ও ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে। এ সময় বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, খন্দকার মোশাররফ হোসেন ও নজরুল ইসলাম খানসহ দলের জ্যেষ্ঠ নেতারা কার্যালয়ে অবরুদ্ধ হয়ে পড়েন। জানা গেছে, শেরপুর-২ আসনের মনোনয়নবঞ্চিত ফাহিম চৌধুরী, গোপালগঞ্জ-১ আসনের সেলিমুজ্জামান, চাঁদপুর-১ আসনের আ ন ম এহসানুল হক মিলনের সমর্থকেরা এ হামলা চালায়। এর আগে শুক্রবার রাতেও মনোনয়নবঞ্চিতদের হট্টগোলে সরগরম হয়ে উঠে বিএনপি কার্যালয়। মধ্যরাত পর্যন্ত বিক্ষোভ করেন অনেকে। এদিকে শনিবার সকালে বিএনপি কার্যালয়ের সামনে বিক্ষোভ করেন মনোনয়নবঞ্চিত সাবেক শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী এহসানুল হক মিলনের কর্মী সমর্থকরা। এ সময় তারা বিভিন্ন স্লোগান দেন। এক পর্যায়ে তারা কার্যালয়ের মূল ফটকে তালা ঝুলিয়ে দেন। আরকে//

সন্দ্বীপের উন্নয়ন অব্যাহত রাখতে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে: মিতা

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে চট্টগ্রাম-৩ (সন্দ্বীপ) আসনে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী মাহফুজুর রহমান মিতার পক্ষে ‘সন্দ্বীপ নিয়ে ভাবনা’ শীর্ষক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সভায় সন্দ্বীপের উন্নয়ন অব্যাহত রাখতে দল-মত নির্বিশেষে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার আহ্বান জানান মাহফুজুর রহমান মিতা। শনিবার বিকেল ৪টায় ঢাকাস্থ সন্দ্বীপবাসীর উদ্যোগে রাজধানীর কাকরাইলে অবস্থিত ইনস্টিটিউট অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স অডিটোরিয়ামে এই মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন, চট্টগ্রাম-৩ (সন্দ্বীপ) আসনের সাংসদ মাহফুজুর রহমান মিতা। এতে সভাপতিত্ব করেন ঢাকাস্থ সন্দ্বীপবাসীর আহবায়ক মুক্তিযোদ্ধা আলী হায়দার চৌধুরী বাবলু। বিশেষ অতিথি ছিলেন, মুক্তিযোদ্ধা ও আওয়ামী লীগ নেতা হেদায়েতুল ইসলাম মিন্টু, সাবেক সচিব কবি  আসাদ মান্নান, প্রকৌশলী আব্দুল হান্নান খান, রুপালী লাইফ ইন্সিওরেন্স লিমিটেডের অতিরিক্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ আলমগীর, অনুষ্ঠান প্রস্তুতি কমিটির সদস্য সচিব শাহনাওয়াজ মাহমুদ লাভলু। প্রধান অতিথির বক্তব্যে মাহফুজুর রহমান মিতা বলেন, ‘মুক্তিযুদ্ধের সপক্ষের শক্তি জননেত্রি শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন আওয়ামী লীগ সরকার সারাদেশে ব্যাপক পরিমাণ উন্নয়ন সাধন করেছে। তারই ধারাবাহিকতায় দ্বীপ উপজেলা সন্দ্বীপে উন্নয়নের ছোঁয়া লেগেছে। সন্দ্বীপবাসীর দীর্ঘদিনের স্বপ্ন বিদ্যুৎ সুবিধা পেয়েছে। এছাড়া স্বাস্থ্য,শিক্ষা,যোগাযোগখাতে অভূতপূর্ব উন্নয়ন হয়েছে। আগামীতেও এই সরকার যদি ক্ষমতায় আসে সন্দ্বীপের মানুষের আর কোন দুর্ভোগ থাকবে না। নির্বাচনের পর আপনাদের মতামতের ভিত্তিতে সোনার সন্দ্বীপ গড়ে তোলা হবে। বক্তাদের দাবির প্রেক্ষিতে সাংসদ মিতা দৃঢ়তার সাথে বলেন,‘এবার নির্বাচিত হওয়ার পর সন্দ্বীপকে মাদকমুক্ত করা হবে।’তিনি বলেন, সন্দ্বীপে উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে আগামি ৩০ ডিসেম্বর নৌকায় ভোট দিয়ে জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালি করতে হবে। তাই আসুন সবাইকে নিজ জন্মস্থানের উন্নয়নের স্বার্থে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করুন।’ সরকারের বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ে কর্মরত সন্দ্বীপে জন্ম নেওয়া আমলাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বলেন, উন্নয়নের ক্ষেত্রে আমাকে সব কাজে সন্দ্বীপের আমলারা আমাকে ব্যাপক সাপোর্ট দিয়েছেন। এই জন্য আমি তাদের কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি।এই সাফল্য আমার একার নয়,এখানে তাদেরও অবদান রয়েছে।’ তিনি আরও বলেন, এবারের নির্বাচনে সবাই যদি দল মত নির্বিশেষে আমাকে ভোট দিয়ে জয়যুক্ত করেন তবে আগামিতে সন্দ্বীপবাসীর জন্য অভূতপূর্ব কল্যাণ সাধিত করতে পারবো। কাজী মঞ্জুরুল আলমের সঞ্চালনায় মতবিনিময় সভায় বক্তব্য রাখেন, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা আরিফ আলী, যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য আরিফুর রহমান, মনিরুল হুদা বাবন, রেজাউল করিম, চেরি ব্লুসমস ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের প্রিন্সিপাল ও চেয়ারম্যান ড. সালেহা কাদের, একুশে টেলিভিশনের প্ল্যানিং এডিটর সাইফ ইসলাম দিলাল, ধানমণ্ডি থানা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি শওকত হোসেন সেবক, ব্যাংকার কামাল পাশা, জাতীয় বক্ষব্যাধি হাসপাতালের পরিচালক ডা. সাহেদুর রহমান, মুক্তিযোদ্ধা হেদায়েতুল ইসলাম মিন্টু, বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক পরিচালক অধ্যাপিকা হান্নানা বেগম, আওয়ামীলীগ নেতা এডভোকেট আনোয়ারুল কবির। বক্তারা বলেন, আসন্ন ৩০ ডিসেম্বর অন্য কোন সময়ের মতো নয়। এটি ’৭০ এর নির্বাচনের চেয়ে কোন অংশে কম গুরুত্বপূর্ণ নয়। কারণ এই নির্বাচনের মাধ্যমে টিকে থাকার প্রশ্ন জড়িত। উন্নয়ন অবকাঠামোতে দেশকে বদলে দেওয়ার নির্বাচন। এই নির্বাচনের মধ্য দিয়ে আগুন সন্ত্রাসীদের রুখে দিতে হবে। সেই সাথে জননেত্রি শেখ হাসিনা হাতকে শক্তিশালী করে বাংলাদেশকে বিশ্ব দরবারে সম্মানিত করার আবারও সুযোগ করে দিতে হবে। কেআই// আরকে

© ২০১৮ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি