ঢাকা, মঙ্গলবার   ২০ আগস্ট ২০১৯, || ভাদ্র ৫ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

কবি ও প্রেমিক এরশাদ

প্রকাশিত : ০৯:৫৯ ১৪ জুলাই ২০১৯ | আপডেট: ১১:৪৩ ১৪ জুলাই ২০১৯

‘আমার যৌবন আর বেশি দিন নেই। কয়েক বছর পর আমি মধ্যবয়স্ক হয়ে যাব। তাই যতোদিন পারি, এই ক্ষণস্থায়ী যৌবনকে উপভোগ করতে চাই।’ কথাগুলো যুক্তরাজ্যে গিয়ে বলেছিলেন ৮২ বছর বয়সের সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদ। তার এমন বক্তব্য থেকে বুঝা যায় কতটা ‘রোমান্টিক’ও ‘প্রেমিক পুরুষ’ ছিলেন তিনি।

তিনি একাধারে ছিলেন কবি ও প্রেমিক পুরুষ। তিনি তো একবার বলেই ফেলেছিলেন, ‘আমাকে অনেকে কবি বলেন না। আমিও বলব না আমি কবি। আমার লেখা পড়লে বুঝবেন আমার মনে কত ব্যথা, কত সুর, কত আনন্দ।’

তিনি কবিতা লেখার পাশাপাশি প্রেমে পড়েছেন একাধিক নারীর। যা বিভিন্ন সময় গণমাধ্যমে উঠে এসেছে। একবার প্রাক্তন ছাত্রলীগ ফাউন্ডেশনের সভাপতি নুরে-আলম সিদ্দিকী এরশাদ সম্পর্কে বলেন, ‘জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের প্রেমিকার সংখ্যা কত, তা হাতে গুনে শেষ করা অসম্ভব।’

তবে এর জন্য তিনি যেমন অনেক সমালোচিতও হয়েছেন। আবার এর কারণে অনেকের আগ্রহের জায়গাও তৈরি হয়েছে তার সম্পর্কে।

তার সাবেক স্ত্রী বিদিশা তার সম্পর্কে মন্তব্য করতে গিয়ে বলেন, ‘এরশাদের প্রেমে পড়াটা ভুল ছিল এমনটা কখনো মনে হয়নি। এরশাদের মতো কেউ তো আমাকে ভেজা রুমালে শিউলি ফুল দিয়ে ঘুম ভাঙাবে না। এমন প্রেমিক পৃথিবীতে নেই। আমি তো মনে করি, এরশাদ এখনো পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ প্রেমিক। সেটা নাটক হয়ে থাকলে নাটক। কিন্তু আমি তো এনজয় করেছি।’

অন্যদিকে একবার একটি সভায় প্রস্থানরত স্ত্রী রওশনের হাত ধরে থামিয়ে দিয়ে তিনি বলেন, ‘রওশন আমার আলোর মৌমাছি।’

তার বর্তমান স্ত্রী রওশান এরশাদকে নিয়ে তিনি একটা কবিতাও লিখেন। তা হলো,

‘নিঃসঙ্গ ধূসর বিশাল এক অন্ধকারে

আমি জেগে আছি

কোথায় উষার জ্যোতি

কতদূর আলোর মৌমাছি?

হুসেইন মুহাম্মদ অসংখ্য কবিতার বই লিখেছেন, তার উল্লেখযোগ্য কবিতার বই হলো, -প্রেমের কবিতা, হে আমার দেশ, বৈশাখের কবিতা, ঈদের কবিতা, এক দেশে সাত তারা, জীবন যখন যেমন প্রভৃতি।

এসএ/

 

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি