ঢাকা, বুধবার   ১১ ডিসেম্বর ২০১৯, || অগ্রাহায়ণ ২৭ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

ঘুমের ঘোরে অসাধারণ ছবি আঁকেন যে শিল্পী!

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১২:২৫ ৯ নভেম্বর ২০১৯

ঘুমের ঘোরে হেঁটে চলা, কথা বলা বা চিত্কার করার কথা হয়তো অনেকেই শুনেছেন। এবার এই ঘুমের ঘোরে একেবারে চোখ বুজে অসাধারণ ছবি এঁকে সারা দুনিয়ায় তাক লাগিয়ে দিয়েছেন এক শিল্পী। এভাবে একটি নয়, শতে শতে ছবি আঁকেন এই শিল্পী। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সংগ্রহেও আছে এই শিল্পীর আঁকা ছবি। অবাক করা এই শিল্পীর নাম লী হ্যাডউইন।

৪৪ বছর বয়সী হ্যাডউইনের জন্ম ইংল্যান্ডের ওয়েলসে। জানা যায়, চার বছর বয়স থেকেই রং তুলি হাতে ঘুমের মধ্যে ছবি আঁকতে শুরু করেন
হ্যাডউইন। তার পরিবারের লোকজনও বিষয়টি জানতেন।  হ্যাডউইন যখন কিশোর, তখন একদিন ঘুম থেকে উঠে তিনি দেখতে পান তাঁর পাশে একটি কাগজে হলিউড অভিনেত্রী মেরিলিন মনরোর ছবি আঁকা। এর স্কেচ ও নিখুঁত স্ট্রোক দেখে মুগ্ধ হয়ে যান হ্যাডউইন নিজেই। পরে বুঝতে পারলেন ছবিটি ঘুমের মধ্যে তিনিই এঁকেছেন।

এই ঘটনা জানার পর হ্যাডউইনকে নিয়ে নানা পরীক্ষা-নিরীক্ষা চালিয়েছেন বিশ্বের মনোবিজ্ঞানীরা। শেষমেশ হ্যাডউইনের বিষয়টি তাঁরাও মেনে নিয়েছেন। মনোবিজ্ঞানী এবং চিকিৎসকদের মতে, ছোটবেলার কোন ঘটনা থেকে তৈরি হওয়া ভয় বা আঘাতের ফলে একরকম মানসিক জটিলতার সৃষ্টি হতে পারে। ইংল্যান্ডের ওয়েলসের কার্ডিফ ইউনিভার্সিটির অধ্যাপক পেনি লুইস জানান, ঘুমন্ত অবস্থায় মস্তিষ্কের যৌক্তিক অংশটি নিষ্ক্রিয় থাকলেও লিম্বিক সিস্টেম সক্রিয় থাকে। তাই ঘুমন্ত অবস্থায় হ্যাডউইনের মস্তিষ্কের লিম্বিক সিস্টেম অন্যদের তুলনায় অনেক বেশি সক্রিয় থাকে। আর এ জন্যই ঘুমন্ত অবস্থায় এমন অসাধারণ ছবি আঁকতে পারেন হ্যাডউইন। 

এ পর্যন্ত ছয়শ’রও বেশি ছবি এঁকেছেন হ্যাডউইন। ইউরোপের একাধিক প্রদর্শনীতে চড়া দামে বিক্রিও হয়েছে তাঁর আঁকা ছবিগুলো। এর মধ্যে
কোনটি প্রায় তিন থেকে চার হাজার ইউরোয় বিক্রি হয়েছে। আমাদের টাকায় প্রায় সাড়ে চার লাখ।

চিত্রশিল্পী হিসাবে হ্যাডউইনের সুনাম ইউরোপের সর্বত্র ছড়িয়ে পড়ে। যার ফলে হ্যাডউইনকে নিয়ে ‘স্লিপওয়াকার সিক্রেটস অব দ্য নাইট’ নামে একটি তথ্যচিত্র প্রদর্শিতও হয়েছে। তবে লী হ্যাডউইনের এভাবে ছবি আঁকার বিষয়টি বিশ্বের নামীদামী চিকিত্সক ও মনোবিজ্ঞানীদের এখনও  বিস্মিত করে চলছে।

এএইচ/

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি