ঢাকা, রবিবার, ২১ অক্টোবর, ২০১৮ ৭:৫৭:৩১

Ekushey Television Ltd.

নাশতায় ডিম খেলে পেটের মেদ কমে : গবেষণা

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১০:২৫ এএম, ৭ মে ২০১৮ সোমবার

ডিম খেলেই স্বাস্থ্য ভালো হয়, এটি প্রায় অনেকেরই জানা। কিন্তু গবেষণা অন্য কথা বলছে। গবেষণার মতে, ডিমে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ডি, যা পেটের মেদ গলাতে ভালই সাহায্য করে। বিশেষ করে ডিমের সাদা অংশটি পেটের মেদ কমাতে খুব উপকার করে। তাছাড়া ডিমের সাদা অংশটি অনেকটা সময় ধরে পেটে থাকে যার কারণে ক্ষুধা লাগে কম। আর ক্ষুধা কম লাগলে পেটে খাওয়া তেমন পরে না।

তাই রোজ সকালে নাশতায় খালি পেটে একটি করে ডিম খেলে সারাদিনের ক্ষুধা কমে যাবে। ঘন ঘন খাওয়ার প্রয়োজন হবে না। এতে পেটের মেদ বাড়ার কোন উপায় থাকবেন না। এছাড়াও শরীরে শক্তি বজায় রাখতে সাহায্য করবে।

ব্রিটিশ মেডিকেল জার্নালের প্রকাশিত এক সংবাদের ভিত্তিতে জানা যায়, সকাল ৮টার আগে যেমন ইচ্ছা তেমন করে খেলে হবে না। আধ চামচ অলিভ অয়েল দিয়ে ডিম রান্না করুন। এতে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন ডি, প্রোটিন ও বায়োটিন রয়েছে।

অনেকেরই মনে হতে পারে, ডিমের কুসুম খাবেন, নাকি খাবেন না। যাদের মনে এমন প্রশ্ন রয়েছে, তারা জেনে রাখুন, দুটো ডিমের কুসুম শরীরে কোনও ক্ষতি করবে না। অনায়াসেই খাওয়া যেতে পারে। তবে, কোলেস্টেরলের সমস্যা থাকলে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

ব্রিটিশ একটি গবেষণায় প্রমাণিত হয়েছে যে, সকালে হাই প্রোটিন খেলে অ্যাবডোমেনাল টিস্যু কমে যায়। এতে পেটের মেদ কমে৷ তবে রিপোর্ট বলছে ওজন বা শরীরের মেদ অনেক কারণেই বাড়তে পারে। এরমধ্যে হরমোনাল জটিলতাও অন্যতম। সেক্ষেত্রে মেদ কমাতে চিকিৎসকের পরামর্শই প্রথম প্রয়োজন। যারা হার্টের রোগী বা কোলেস্টোরেল সংক্রান্ত জটিলতায় ভুগছেন, তাদের জন্য ডিম একরকম নিষিদ্ধই বলা চলে। সেক্ষেত্রে প্রথমেই দরকার চিকিৎসক বা পুষ্টিবিদের পরামর্শ।

সূত্র : কলকাতা টুয়েন্টিফোর।

কেএনইউ/ এআর



© ২০১৮ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি