ঢাকা, সোমবার   ০৯ ডিসেম্বর ২০১৯, || অগ্রাহায়ণ ২৫ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

জলপ্রপাত নয় এ যেনো নরকের খাদ

বাচ্চাকে বাঁচাতে গিয়ে ছয় হাতির মৃত্যু (ভিডিও)

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১৩:৪৮ ৬ অক্টোবর ২০১৯ | আপডেট: ১৩:৪৮ ৬ অক্টোবর ২০১৯

থাইল্যান্ডের ‘নরকের খাদ’ নামে কুখ্যাত একটি জলপ্রপাতে পড়ে মৃত্যু হয়েছে ছয়টি হাতির। জানা যায় একটি শাবককে বাঁচাতে গিয়ে একে একে ছয়টি হাতি প্রাণ দিয়েছে। যদিও আহত অবস্থায় দুটি হাতিকে উদ্ধার করেছে কর্তৃপক্ষ। মধ্য থাইল্যান্ডের খাও ইয়াই ন্যাশনাল পার্কে এ ঘটনাটি ঘটেছে।

পার্কের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, হাতির দলে থাকা তিন বছরের একটি শাবক পা পিছলে এই জলপ্রপাতে পড়ে যায়। এর পর সেটিকে বাঁচাতে গিয়ে অন্য পাঁচটি হাতির মৃত্যু হয়েছে। আর দুটি হাতিকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে।

এই খরস্রোতা জলপ্রপাতটি থাইলান্ডে ‘হেউ নরক’ (নরক খাদ) নামে পরিচিত। এর আগেও এখানে এ ধরনের ঘটনা ঘটেছে। ১৯৯২ সালে এভাবে পড়ে গিয়ে আট হাতির একটি দলের মৃত্যু ঘটেছিল। তখন থেকেই এই জলপ্রপাতটি সবার নজরে আসে।

থাইল্যান্ডের ডিপার্টমেন্ট অব ন্যাশনাল পার্ক, ওয়াইল্ডলাইফ অ্যান্ড প্লান্ট কনজারভেশন বিভাগ জানিয়েছে, শনিবার স্থানীয় সময় তিনটায় এক দল হাতি ওই নরক খাদ ঘেঁষা রাস্তা আটকে রাখার ফলে কর্মকর্তাদের দৃষ্টি যায় সে দিকে। পরে পার্ক কর্মীদের তিন ঘণ্টা প্রচেষ্টা চালিয়ে জলপ্রপাতের নিচে একটি শাবকটির মৃতদেহ পায়। এরই আশপাশে পাওয়া যায় আরও পাঁচ হাতির মৃতদেহ। আহত অবস্থায় পাওয়া যায় দুটি হাতিকে।

থাইল্যান্ডের ওয়াইল্ডলাইফ ফ্রেন্ডস ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা এডউইন উইক জানিয়েছেন, আহত হাতি দুটির বেঁচে থাকাটা কঠিন হবে। হাতিরা সাধারণত নিজেদের নিরাপত্তা ও খাদ্যের সন্ধানে দল বেঁধে চলাফেরা করে। এর কারণে হয়তো এরকম ঘটনা ঘটতে পারে।

মনে করা হচ্ছে থাইল্যান্ডে ৭ হাজারের মতো হাতি রয়েছে। আর ১৯৯২ সালের পর একত্রে ছয় হাতির মৃত্যু ঘটনা থাইল্যান্ড জুড়ে শোকের আবহ তৈরি করেছে।

 

এএইচ/

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি