ঢাকা, বুধবার, ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ৩:৫০:১১

Ekushey Television Ltd.

বিশ্বকাপে মেসির বাজে পারফরমেন্সের ৫ কারণ

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ০১:২৮ পিএম, ২৫ জুন ২০১৮ সোমবার | আপডেট: ০১:৫৮ পিএম, ২৫ জুন ২০১৮ সোমবার

এই মুহূর্তে বিশ্বের সেরা ফুটবলার কে? পেলে-ম্যারাডোনার কাতারে কাকে বসানো যাবে? নিন্দুকেরাও এক বাক্যে বলে থাকেন লিওনেল মেসি। কিন্তু সেই মেসি-ই এখন বিশ্বের বাজে পারফর্মারদের একজন। বিশ্বকাপে আইসল্যান্ড ও ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে দেখা গেছে এক বিবর্ণ মেসিকে। অনেকই বলেছেন মেসির হলোটা কী? ক্লাব ফুটবল শাসন করা খেলোয়াড় হঠাৎই ছন্দ হারিয়ে ফেলেছেন। কেন এ বিপর্যয়? তার এ বিপর্যয়ের কারণ খুঁজে বেরিয়েছেন বিবিসির সাংবাদিকরা।

১. চোট: মেসিও চোটে পড়তে পারেন। এটা ভুলে গেলে চলবে না। যেই ফুটবলারটা এক মৌসুমে ৫৪টি ক্লাব ফুটবলের ম্যাচ খেলেছেন, খেলেছেন আন্তর্জাতকি ম্যাচ তিনিও তো চোটে পড়তে পারেন। গুরুতর না হলেও মেসিরও চোট রয়েছে বলে দাবি করেছে বিবিসির ক্রীড়া সাংবাদিকরা। সেই দাবির সমর্থন জানিয়েছে আর্জেন্টাইন পত্রিকা ক্লারিন। তাদের দাবি, ডান-পায়ের ঊরুর মাংসপেশিতে সামান্য চোট রয়েছে ছোট ম্যাজিসিয়ানের। যে কারণে দৌড়ানো ও গতি পরিবর্তন করতে কিছুটা সমস্যা হচ্ছে।

২. ক্লান্তি: ২০১৭-১৮ ইউরোপীয় মৌসুমে মেসি খেলেছেন ৫৪টি ম্যাচ। মাঠে ছিলেন মোট ৪৪৬৮ মিনিট। ম্যাচপিছু গড় ৮২.৭ মিনিট। অতিরিক্ত নির্ভরতার কারণে প্রায় সব ম্যাচের গোটা সময় ধরেই খেলানো হয়েছে তাকে। আর এতেই ক্লান্ত হয়ে পড়েছেন মেসি। ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে ম্যাচেই যেন মেসি বলছিল, ‘আমি আর পারছি না। এবার একটু বিশ্রাম চাই।’

৩. সতীর্থদের বাজে পারফরম্যান্স: সাম্পাওলি নিজেই স্বীকার করেছেন মেসিকে নিয়েই তার পরিকল্পনা। অন্যখেলোয়াড়রা তার পরিকল্পনার সঙ্গে খাই খাইয়ে নিতে ব্যর্থ হয়েছে। তাই এই বাজে পারফরম্যান্স। মূলত দলগতভাবেই খারাপ খেলছে আর্জেন্টিনা। বাছাইপর্ব থেকেই হতাশ করছেন তারা। সতীর্থদের কাছ থেকে বিশেষ সহযোগিতা পাচ্ছেন না মেসি। তাই হতাশ দেখাচ্ছে তাকে। বিশেষ করে ইনিয়েস্তা, কস্তাদের কাছ থেকে যে সহযোগিতা তিনি পান, তার সিঁকিটুকুনও মেলছে না।

৪. রোনাল্ডোর সঙ্গে তুলনা: প্রতিদ্বন্দ্বী ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো রয়েছেন আগুনে ফর্মে। বিশ্বকাপ শুরুর আগে থেকেই মেসির সঙ্গে চলছে তার তুলনা। একদিকে ডানা মেলে ধরছেন রোনাল্ডো। অন্যদিকে টুর্নামেন্টে টিকে থাকাই অনিশ্চিত আর্জেন্টিনার। সেটাও চাপে রাখছে ফুটবলের বরপুত্রকে।

৫. বিশ্বকাপ জয়ের স্বাদ:
তৃতীয়বারের মতো বিশ্বকাপ জয়ের স্বপ্ন নিয়ে রাশিয়ায় এসেছে আর্জেন্টিনা। ১৯৮৬ বিশ্বকাপে শেষবার জিতেছিলেন আলবিসেলেস্তেরা। ৩২ বছর কেটে গেলেও সোনার হরিণ আর ছোঁয়া হয়নি দলটির। ২০১০ বিশ্বকাপের অন্যতম সেরা খেলোয়াড় উরুগুয়ের ডিয়েগো ফোরলান মনে করেন, বিশ্বকাপ জয়ের প্রচণ্ড চাপের জন্যই দলটি ভালো পারফর্ম করতে পারছে না।

এমজে/



© ২০১৮ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি