ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ২৬ নভেম্বর ২০২০, || অগ্রাহায়ণ ১২ ১৪২৭

Ekushey Television Ltd.

ব্রাজিলে প্রাণহানি বাড়লেও সুস্থ অধিকাংশ রোগী

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ০৮:৪০ ২২ অক্টোবর ২০২০

ব্রাজিলে প্রতিদিনই দীর্ঘ হচ্ছে মৃতের সারি। গত একদিনেও যাতে যুক্ত হয়েছে ৫৭১টি প্রাণ। একই সঙ্গে আক্রান্ত বাড়লেও স্বস্তি দিচ্ছে সুস্থতা। দেশটিতে এখন পর্যন্ত ৫৩ লাখের বেশি মানুষ করোনার শিকার হলেও স্বাভাবিক জীবনে ফিরেছেন অধিকাংশই। তবে ভাল নেই এ অঞ্চলের আর্জেন্টিনা, কলম্বিয়া ও পেরুর মতো দেশগুলোও। 

ব্রাজিলের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে জরিপ সংস্থা ওয়ার্ল্ডোমিটারের নিয়মিত পরিসংখ্যানে বলা হয়েছে, দেশটিতে গত ২৪ ঘণ্টায় ২৫ হাজার ৮৩২ জন মানুষের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ৫৩ লাখ ৬৪৯ জনে দাঁড়িয়েছে। নতুন করে প্রাণ হারিয়েছেন ৫৭১ জন। এতে করে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১ লাখ ৫৫ হাজার ৪৫৯ জনে ঠেকেছে।

অপরদিকে সুস্থতা লাভ করেছেন আরও প্রায় ৩৫ হাজার ভুক্তভোগী। এতে করে বেঁচে ফেরার সংখ্যা ৪৭ লাখ ৫৬ হাজার ৪৮৯ জনে পৌঁছেছে।

চলতি বছরের ২৬ ফেব্রুয়ারি দেশটির সাও পাওলো শহরে ৬১ বছর বয়সী ইতালি ফেরত এক জনের শরীরে ভাইরাসটি প্রথম শনাক্ত হয়। এরপর থেকেই অবস্থা ক্রমেই সংকটাপন্ন হতে থাকে। যেখানে আক্রান্ত ও প্রাণহানির তালিকায় অনেক চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মী রয়েছেন। 

তবে শুধু ব্রাজিলই নয়, করোনার ভয়াবহতা ছড়িয়ে পড়েছে গোটা লাতিন আমেরিকার অন্যান্য দেশগুলোতেও। যেখানে পূর্বের তুলনায় ভাইরাসটির দাপট অনেকটা বেড়েছে। এমন অবস্থায় করোনাকে বাগে আনতে দেশগুলোর সরকার মানুষকে ঘরে রাখতে চেষ্টা করছেন। কিন্তু অর্থনীতির চাকা সচল থাকা নিয়ে রয়েছে যত দুশ্চিন্তা। ফলে সংকটাবস্থার মধ্য দিয়ে ব্রাজিল, পেরু, চিলি, ইকুয়েডর ও আর্জেন্টিনার মতো দেশগুলোতে অনেক কিছুই চালু রয়েছে। 

এর মধ্যে ব্রাজিলে সবচেয়ে ভয়াবহ অবস্থা। যা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে ছাড়িয়ে যেতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। দেশটিতে আক্রান্তদের চিকিৎসা দিতে গিয়ে বেশ বিপাকে পড়তে হচ্ছে চিকিৎসা কেন্দ্রগুলোকে। অপরদিকে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা দ্বিতীয় দফায় করোনা আরও ভয়াবহ রূপ নিতে পারে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছে। 

যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য ও ইউরোপে ধ্বংসযজ্ঞ চালানোর পর ব্রাজিল ভাইরাসটির প্রধানকেন্দ্রে পরিণত হয়। একই সঙ্গে এ অঞ্চলের অন্যান্য দেশগুলোতে দ্রুত বিস্তার লাভ করায় কলম্বিয়া, পেরু ও আর্জেন্টিনার মতো দেশগুলোর প্রত্যেকটিতে আক্রান্ত ৮ লাখ ছাড়িয়ে গেছে।

এর মধ্যে আর্জেন্টিনায় সংক্রমিতের সংখ্যা ১০ লাখ ৩৭ হাজার ৩২৫ জনে দাঁড়িয়েছে। মৃত্যু হয়েছে ২৭ হাজার ৫১৯ জনের। 

কলম্বিয়ায় শনাক্ত প্রায় ৯ লাখ ৮২ হাজার। এর মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ২৯ হাজার ৪৬৪ জনের। 

পেরুতে আক্রান্ত ৮ লাখ ৭৭ হাজার অতিক্রম করেছে। যেখানে মৃতের সংখ্যা ৩৩ হাজার ৯৩৭ জনে ঠেকেছে।

এছাড়া চিলিতে সংক্রমিত ৪ লাখ ৯৫ হাজার ৬৩৭ জন মানুষ। এর মধ্যে ১৩ হাজার ৭১৯ জনের প্রাণ কেড়েছে করোনা। 
এআই/এসএ/


New Bangla Dubbing TV Series Mu
New Bangla Dubbing TV Series Mu

© ২০২০ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি