ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ০৫ ডিসেম্বর ২০১৯, || অগ্রাহায়ণ ২২ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

রাঙ্গা হারাতে পারেন মহাসচিব পদ (ভিডিও)

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ২৩:২৭ ১২ নভেম্বর ২০১৯ | আপডেট: ২৩:৫২ ১২ নভেম্বর ২০১৯

জাতীয় সংসদের বিরোধী দলীয় চিফ হুইপ ও জাতীয় পার্টির মহাসচিব মসিউর রহমান রাঙ্গার নূর হোসেনকে নিয়ে মন্তব্যের জেরে জাতীয় সংসদে ক্ষোভ প্রকাশ করে তাকে বহিষ্কারের দাবি জানিয়েছেন সংসদ সদস্যরা। নিজ দল জাতীয় পার্টি থেকেও তীব্র সমালোচনার মুখে পড়েছেন রাঙ্গা। ইতিমধ্যে তাকে রংপুরে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করা হয়েছে। তার মহাসচিব পদও হারাতে পারেন।

এদিকে মঙ্গলবার পয়েন্ট অব অর্ডারে দাঁড়িয়ে নূর হোসেনকে নিয়ে রাঙ্গার কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য করার বিষয়টি সংসদে তুলেন আওয়ামী লীগের দলীয় সংসদ সদস্য তাহজীব আলম সিদ্দিকী। 

এ সময় সংসদে আমির হোসেন আমু বলেন, তার এ বক্তব্য শাক দিয়ে মাছ ঢাকার চেষ্টা। এরশাদ সাহেবের কুকীর্তি ঢাকার জন্য একথা বলেছেন। এখন বিধি অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হোক। তাকেও ক্ষমা চাইতে হবে। রাঙ্গা অর্বাচীন চিফ হুইপ। নিঃশর্তভাবে তার বক্তব্য প্রত্যাহার করতে হবে, ক্ষমা চাইতে হবে।

তোফায়েল আহমেদ বলেন, রাঙ্গা তুচ্ছ তাচ্ছিল্য করে বক্তব্য দিয়েছেন। তার বক্তব্য বাংলার মানুষের হৃদয়ে ব্যথা দিয়েছে। তার বক্তব্য জাতি ঘৃণা করেছে। এটা কুৎসিত বক্তৃতা। একজন সুস্থ মানুষ হলে, স্বাভাবিক থাকলে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর সম্পর্কে এমন সমালোচনা করতো না। তার জাতির কাছে ক্ষমা চাওয়া উচিত।

তিনি আরও বলেন, মত পথের ভিন্নতা থাকে। আমরা স্বৈরাচারবিরোধী দিবস হিসেবে পালন করি, তারা অন্যভাবে করে। জোট থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন রাঙ্গা। যদি জোট না থাকতো নির্বাচিত হতো কি না সন্দেহ আছে।

সাবেক গণফোরাম নেতা সুলতান মনসুর বলেন, রাঙ্গা সাহেব সংসদকে অবমাননা করেছেন। স্বৈরাচারের পতন না হলে রাঙ্গা সংসদ সদস্য হতে পারতেন না। এ বক্তব্যের মাধ্যমে প্রমাণ হয়েছে- স্বৈরাচারের পতন হলে তাদের চরিত্র, স্বৈরাচারের প্রেতাত্মা যে পরিবর্তন হয়নি। রাঙ্গার গণবিরোধী, সুবিধাবাদী চরিত্রও স্পষ্ট হয়েছে। রাঙ্গার অবশ্যই সংসদে ক্ষমা চাইতে হবে।

শেখ ফজলুল করিম সেলিম বলেন, কোনো সুস্থ লোক এ ধরনের কথা বলতে পারে না। কোনো বিবেকবান লোক এটা বলতে পারে না। জাতীয় পার্টির পক্ষ থেকেও ব্যাখ্যা দাবি করেন তিনি।

জাতীয় পার্টির (জাপা) প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজী ফিরোজ রশীদ বলেছেন, রাঙ্গার বক্তব্য জাতীয় পার্টির বক্তব্য নয়। এটা কোনো রাজনৈতিক বক্তব্য হতে পারে না। এটা রাঙ্গার নিজস্ব বক্তব্য হতে পারে। ওই বক্তব্যের জন্য জাতীয় পার্টি লজ্জিত, আমরা দুঃখিত এবং আমরা এর জন্য অপমাণিত বোধ করছি। এই বক্তব্য আমরা ঘৃণাভরে প্রত্যাখ্যান করছি। এটা তার ব্যক্তিগত, দল তার দায়িত্ব নেব না।

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে সংসদের এক অনির্ধারিত আলোচনায় উঠে আসে এসব কথা। এ সময় সংসদ নেতা ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান এবং বিরোধী দলের উপনেতা সংসদে উপস্থিত ছিলেন। রাঙ্গা এ অধিবেশনে অনুপস্থিত ছিলেন।

এসি

 

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি