ঢাকা, বুধবার   ২৪ এপ্রিল ২০২৪

শিশুকে সঠিক তেল মাখাচ্ছেন? জানুন কোনটি নিরাপদ

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১৭:৫৫, ২১ মে ২০২২

ছোট্ট বাচ্চাদের তেল মালিশের রেওয়াজ সেই প্রাচীনকাল থেকেই চলে আসছে। গোসলের ঠিক আগে ছোট্ট সোনাকে রোদে শুইয়ে মাথা থেকে পা পর্যন্ত যত্ন নিয়ে তেল মালিশ করেন মা-দাদিরা। এখনও ঘরে ঘরে সেই রীতি প্রচলিত আছে। এই মালিশে থাকে আদর, ভালবাসার স্পর্শ।

কিন্তু শিশুর শরীরে মালিশের জন্য কোন কোন তেল উপকারি জানেন কি? চলুন জেনে আসা যাক..

> নারকেল তেল গরম এবং আর্দ্র আবহাওয়ায় ব্যবহারের জন্য উপযুক্ত। নারকেল তেল হালকা হওয়ার কারণে মালিশের সময় ত্বকে খুব সহজেই শোষিত হয়। এতে রয়েছে ভিটামিন-ই এবং পলিফেনলের মতো বায়োঅ্যাকটিভ যৌগ, যা ত্বকে পুষ্টি জোগায়। এছাড়াও, তেলটিতে অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল এবং অ্যান্টিফাঙ্গাল বৈশিষ্ট্য রয়েছে, যা একজিমা, ব়্যাশ, প্যাচি স্কিন, ডার্মাটাইটিস এবং ক্র্যাডল ক্যাপ নিরাময় করতে সহায়তা করে।

> গবেষণায় দেখা গেছে, তিলের তেল দিয়ে শিশুদের মালিশ করলে তাদের স্বাভাবিক বৃদ্ধি ভালো হয় এবং ভালো ঘুমও হয়। এছাড়া, তিলের তেল অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, অ্যান্টি-ইনফ্ল্যামেটরি, অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল এবং অ্যান্টিপাইরেটিক বৈশিষ্ট্য সমৃদ্ধ। এটি প্রদাহ এবং ব্যথা কমাতে সহায়তা করে।

> নবজাতকদের ম্যাসাজের জন্য অলিভ অয়েল ব্যবহারের পরামর্শ দেন অনেক ডাক্তার। এই তেল ত্বক হাইড্রেট রাখতে সহায়তা করে। তবে বাচ্চার ত্বক যদি অতিরিক্ত সংবেদনশীল হয়, তাহলে এই তেল ব্যবহারের আগে অবশ্যই একজন শিশুরোগ বিশেষজ্ঞ কিংবা চর্মরোগ বিশেষজ্ঞের সঙ্গে কথা বলে নেবেন।

> আমন্ড অয়েলে emollient এবং sclerosant বৈশিষ্ট্য বর্তমান, যা ত্বকের বর্ণ এবং স্কিন টোন উন্নত করতে সহায়তা করে। তাছাড়া এটি অতিবেগুনি রশ্মি থেকেও ত্বককে রক্ষা করতে পারে।

> গ্রেপসিড অয়েল হল এক ধরনের কোল্ড-প্রেসড অয়েল। এই তেল বাচ্চাদের মালিশের জন্য ব্যবহার করতেই পারেন।

> জোজোবা তেল একজিমায় আক্রান্ত শিশুদের জন্য সুপারিশ করা হয়। এটি ত্বকের সমস্যা নিরাময়ে সাহায্য করে। এতে ভিটামিন-ই আছে। তাই আপনার শিশুর ম্যাসাজের জন্য কোল্ড-প্রেসড জোজোবা তেল ব্যবহার করতেই পারেন।

সূত্র: বোল্ডস্কাই
এমএম/


Ekushey Television Ltd.


Nagad Limted


© ২০২৪ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি