ঢাকা, ২০১৯-০৫-২৫ ৯:১৪:৪১, শনিবার

Ekushey Television Ltd.

আজ বিশ্ব কলা দিবস

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ০১:০৪ পিএম, ১৮ এপ্রিল ২০১৯ বৃহস্পতিবার

আজ ১৮ এপ্রিল, বিশ্ব কলা দিবস। এই কলা অতি জনপ্রিয় একটি সুস্বাদু ও পুষ্টিকর ফল। এ ফলে প্রচুর পরিমাণে শর্করা, ভিটামিন এ বি সি এবং ক্যালসিয়াম, লৌহ ও পর্যাপ্ত খাদ্যশক্তি রয়েছে। অন্যান্য ফলের তুলনায় কলা দামে সস্তা এবং প্রায় সারা বছরই পাওয়া যায়। তাই ধনী গরিব নির্বিশেষে সব মানুষ সহজেই কলা খেতে পারেন। উৎপাদন, স্বাদ ও সুগন্ধের দিক থেকে শ্রেষ্ঠ হওয়ায় কলাকে বলা হয় ফলের রানী।

আমরা সাধারণত সবুজ, হলুদ রঙের ভাল কলা বাজার থেকে কিনি। সেগুলো বাড়িতে রাখলে অনেক সময়েই কয়েকদিন বাদে তা পেকে যায়। কালো কালো ছোপ পড়ে কলার উপর। কিন্তু সেগুলোতেই নাকি স্বাস্থ্যের দিক থেকে বেশি কাজের। এমনটি জানিয়েছেন গবেষক ও পুষ্টিবিদরা।

তারা জাানান- বাড়িতে পরে থাকা কলা পচা বলে ফেলে দেবেন না। বরং সেগুলো পারলে এমনি খান, না হলে দুধের শেক বানিয়ে খান। কারণ এতে পুষ্টি অনেক বেশি। তাই পচা ভেবে পাকা কলা ফেলে না দিয়ে, সেটাই খেলে শরীরের লাভ অনেকটাই বাড়বে।

দিনে অন্তত একটি কলা খাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন তারা। 

জেনে নিন কলার কি কি স্বাস্থ্যগুণ রয়েছে -

হৃদরোগে :
কলার মধ্যে থাকা পটাশিয়াম রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখে। ফলে রক্ত জমাট বাধার কোনও সুযোগ থাকে না। এছাড়াও কলা অন্য যে কোনও খাবারের পরিপূরক। এছাড়াও কলার মধ্য়ে থাকা ম্যাগনেসিয়াম স্ট্রোকের হাত থেকে বাঁচায়। তাই বলা হয় ব্রেকফাস্টে কলা অবশ্যই রাখুন।

হজমে সাহায্য করে :

কলার মধ্যে থাকা কার্বোহাইড্রেট ও সুগার হজমে সাহায্য করে। এছাড়াও প্রচুর পরিমাণে ফাইবার থাকে। তাই যাদের কোষ্ঠকাঠ্যিনের সমস্যা আছে তাদের বলা হয় কলা খেতে।

শক্তি বাড়ে :

কলা খেলে এনার্জি বাড়ে। এছাড়াও এর মধ্যে থাকা প্রয়োজনীয় খনিজ শরীরের উপকারে লাগে। রক্তের সুগার নিয়ন্ত্রণে রাখে। 

এসএ/

 



© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি