ঢাকা, মঙ্গলবার   ২৯ নভেম্বর ২০২২

আজ ‘বিশ্ব পুরুষ দিবস’

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ০৮:৫২, ১৯ নভেম্বর ২০২২ | আপডেট: ০৯:০২, ১৯ নভেম্বর ২০২২

‘হেল্পিং মেন অ্যান্ড বয়েজ’- এ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে আজ ১৯ নভেম্বর, পালিত হচ্ছে ‘বিশ্ব পুরুষ দিবস’। পুরুষদের মধ্যে লিঙ্গভিত্তিক সমতা, বালক ও পুরুষের সুস্বাস্থ্য নিশ্চিত করা এবং পুরুষের ইতিবাচক ভাবমূর্তি তুলে ধরতে দিবসটি উদযাপিত হয়।

সারা বিশ্বের মতো নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে বাংলাদেশেও দিবসটি পালিত হবে। 

১৯৯৪ সালে পুরুষ দিবস পালনের প্রথম প্রস্তাব করা হয়। তবে এর ইতিহাস বেশ পুরনো। ১৯২২ সাল থেকে সোভিয়েত ইউনিয়নে পালন করা হতো রেড আর্মি অ্যান্ড নেভি ডে। মূলত পুরুষের বীরত্ব আর ত্যাগের প্রতি সম্মান জানিয়ে দিনটি পালন করা হতো। ২০০২ সালে দিবসটির নামকরণ করা হয় ‘ডিফেন্ডার অব দ্য ফাদারল্যান্ড ডে’। রাশিয়া, ইউক্রেনসহ তখনকার সময়ে সোভিয়েত ইউনিয়নভুক্ত দেশগুলোতে দিবসটি পালন করা হতো।

কথিত আছে, ১৯২৩ সালে আন্তর্জাতিক নারী দিবসের মতো আন্তর্জাতিক পুরুষ দিবস পালনের দাবি তোলা হয়েছিল। সেই সময় পুরুষরা ২৩ ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক পুরুষ দিবস পালনের জন্য নির্দিষ্ট করেছিল। নব্বই দশকের শুরুতে যুক্তরাষ্ট্র, অস্ট্রেলিয়া ও মাল্টায় কয়েকটি প্রতিষ্ঠান ফেব্রুয়ারিতে পুরুষ দিবস পালনের জন্য বেশ কয়েকটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। যদিও অনুষ্ঠানগুলো খুব একটা প্রচার পায়নি। মানুষের অংশগ্রহণও ছিল কম।

ষাটের দশক থেকেই পুরুষ দিবস পালনের জন্য লেখালেখি চলছে। ১৯৬৮ সালে আমেরিকান সাংবাদিক জন পি হ্যারিস নিজের লেখায় দিবসটি পালনের গুরুত্ব তুলে ধরেন।

১৯৯৯ সালের ১৯ নভেম্বর ত্রিনিদাদ ও টোবাগোতে প্রথম আন্তর্জাতিক পুরুষ দিবস উদযাপিত হয়েছিল। ড. জেরোম তিলক সিং পুরুষের অবদানের স্বীকৃতির দানের জন্য এ উদ্যোগ নিয়েছিলেন। এজন্য তার বাবার জন্মদিনে প্রথম বিশ্ব পুরুষ দিবস উদযাপিত হয়। ধীরে ধীরে এভাবেই ১৯ নভেম্বর বিশ্বজুড়ে পুরুষ দিবস হিসেবে উদযাপন করা হয়।

এ উপলক্ষে বিভিন্ন কর্মসূচি হাতে নিয়েছে এইড ফর মেন ফাউন্ডেশন। শনিবার সকাল ৮টায় বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির সামনে জড়ো হয়ে বেলুন উড়িয়ে দিবসের শুভ উদ্বোধন করা হবে। তারপর বর্ণাঢ্য সাইকেল শোভাযাত্রা উদ্বোধন করবেন সাবেক জাতীয় ফুটবলার কায়সার হামিদ। শোভাযাত্রাটি শহরের বিভিন্ন পথ অতিক্রম করে পুনরায় শিল্পকলা এবং জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে আসার পর মানববন্ধন ও সংক্ষিপ্ত পথশোভা হবে। এর মাধ্যমে শেষ হবে বিশ্ব পুরুষ দিবস উদযাপন।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকবেন সাংবাদিক, বুদ্ধিজীবী, আইনজীবী ও সমাজের বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ। এদিন দুপুর ১টায় সভাপতির বক্তব্যের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘোষণা করা হবে।

এসএ/


Ekushey Television Ltd.

© ২০২২ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি