ঢাকা, রবিবার   ১৬ মে ২০২১, || জ্যৈষ্ঠ ১ ১৪২৮

এক থোকায় ৩৮ লাউ, অবাক কৃষি বিভাগ

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি 

প্রকাশিত : ১৫:২৮, ২৯ এপ্রিল ২০২১

কুড়িগ্রামের ভূরুঙ্গামারীতে এক কৃষকের জাঙলায় একই থোকায় (গিটে) ৩৮ লাউ ধরেছে। বিষয়টি অবাক করে দিয়েছে এলাকাবাসীসহ উপজেলা কৃষি বিভাগকেও। তাই এরকম ফলনের ছবি ও তথ্য কৃষি গবেষণা ইন্সটিটিউটে পাঠানো হয় বলে জানান উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আসাদুজ্জামান।

ভূরুঙ্গামারী উপজেলার বলদিয়া ইউনিয়নের পূর্ব কেদার গ্রামের কৃষক আব্দুস সালামের বাড়ির পেছনে লাগানো লাউগাছের একটি গিটে (থোকায়) ছোট বড় মিলে ৩৮টি লাউ ধরে। এই দৃশ্য দেখার জন্য উৎসুক জনতার ঢল নামে। 

কৃষক আব্দুস সালামের স্ত্রী জয়নব বেগম বলেন, আমি নিজে এ লাউ গাছ লাগাই। ধীরে ধীরে গাছ বড় ও পরিণত হলে প্রথম দফায় অর্ধশত লাউ ধরে। সেই লাউ আমরা নিজেরাও খেয়েছি এবং বিক্রিও করেছি। পরে একটি থোকায় (গিটে) অসংখ্য ফুল আসে। সেই ফুল থেকে লাউ বেরিয়ে আসতে থাকে। এখন থোকার মতো করে লাউ ঝুলছে। এতগুলো লাউ ধরবে আমরা ভাবতেও পারিনি।

এলাকাবাসীরা জানান, লোকমুখে শোনার পর লাউগুলো দেখতে ওই বাড়িতে বহু মানুষের আনাগোনা বেড়ে যায়। অনেকেই গুণে দেখেন, একটি গিটে ছোটবড় ৩৮টি লাউ ধরেছে। যার ২৫টি লাউ তুলনামূলক একটু বড়।

এ ব্যাপারে ভূরুঙ্গামারী উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো. আসাদুজ্জামান জানান, আমি নিজে স্পটে গিয়ে ওই লাউগুলো দেখেছি। প্রথম দিকে ৪০টি লাউ ছিল। এখন লাউ আছে ৩৫টি। ৪টি লাউ বড় এগুলোর ওজন ৫শ’ থেকে ৭শ’ গ্রাম হবে। ছোটগুলোর ওজন ৫০ গ্রাম থেকে শুরু করে ২শ’ গ্রাম পর্যন্ত হবে। 

তিনি আরও বলেন, এখনও ঝোপার ভেতর থেকে ছোট ছোট লাউ বের হচ্ছে। অস্বাভাবিক এই ফলনের বিষয়ে বৈজ্ঞানিক গবেষণার জন্য ছবি তুলে জেলা কৃষি সম্প্রসারণ দপ্তর ও বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইন্সটিটিউটে পাঠানো হয়। জিনগত সমস্যা বা অনিয়মিত ফল ধারণে এরূপ হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে অধিদপ্তর জানিয়েছে।

এ ব্যাপারে কুড়িগ্রাম জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মঞ্জুরুল ইসলাম জানান, মূলত: জিনগত সমস্যার কারণে এরূপ হয়ে থাকতে পারে।
এএইচ/ এসএ/
 


Ekushey Television Ltd.

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি