ঢাকা, মঙ্গলবার   ১১ আগস্ট ২০২০, || শ্রাবণ ২৭ ১৪২৭

Ekushey Television Ltd.

করোনার টিকা তৈরিতে নীল রক্ত

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ২০:৫৮ ৯ জুলাই ২০২০ | আপডেট: ২১:৩৭ ৯ জুলাই ২০২০

অনেকটা ঘোড়ার খুরের মতো দেখতে এই প্রাণীটি জাতে নাকি কাঁকড়া। তাই এটিকে বলা হয় নাল কাঁকড়া। যদিও জীববিজ্ঞানীদের মতে, এটিকে কাঁকড়ার মতো দেখতে হলেও এটি আসলে একটি সামুদ্রিক কাঁকড়াবিছে। এই নাল কাঁকড়ার রক্তের রং হালকা নীল হয়ে থাকে।

নাল কাঁকড়া অক্সিজেন পরিবহন করে, কপার-যুক্ত এক রকম হিমোসায়ানিনের সাহায্যে। এই কপার-যুক্ত হিমোসায়ানিনের উপস্থিতির কারণে নাল কাঁকড়ার রক্তের রং নীল দেখায়। শ্বেত রক্তকণিকার পরিবর্তে এদের রক্তে রয়েছে ‘অ্যামিবোসাইট’ নামের বিশেষ কোষের উপস্থিতি লক্ষ্য করা যায় যা মাত্র ৪৫ মিনিটের মধ্যেই রক্তে উপস্থিত যে কোনও জীবাণুর মোকাবেলা করতে সক্ষম।
  
এই নীল রক্ত চিকিৎসা বিজ্ঞানে অত্যন্ত জরুরি একটি উপাদান। পরীক্ষাগারে বিভিন্ন ওষুধ, প্রতিষেধকের কার্যকারিতা পরখ করে দেখার ক্ষেত্রে ও নাল কাঁকড়ার নীল রক্ত অত্যন্ত জরুরি একটি উপাদান। ব্লুমবার্গ -এর তথ্য অনুযায়ী, এই নাল কাঁকড়ার ১ লিটার নীল রক্ত’র দাম বিশ্ব বাজারে প্রায় ১৬ হাজার মার্কিন ডলার (ভারতীয় মূদ্রায় যা প্রায় ১২ লক্ষ টাকা)। 
  
জীববিজ্ঞানীদের মতে, প্রায় ৪৪ কোটি বছর ধরে এই নাল কাঁকড়া পৃথিবীতে টিকে রয়েছে। সে জন্য অনেক বিজ্ঞানী এটিকে ‘জীবন্ত জীবাশ্ম’ বলে থাকেন। নাল কাঁকড়া শুধুমাত্র প্রজননকালে (জন্মের অন্তত ১০ বছর পর) সমুদ্রের পাড়ে চলে আসে। এই সময়ই এদের থেকে নীল রক্ত সংগ্রহ করে আবার এগুলিকে ছেড়ে দেন বিজ্ঞানীরা।
  
নাল কাঁকড়ার নীল রক্তের বিশেষ জীবাণুনাশক ক্ষমতাকে কাজে লাগিয়েই রীক্ষাগারে বিভিন্ন ওষুধ, প্রতিষেধকের কার্যকারিতা পরখ করে দেখা হয়। বর্তমানে করোনার প্রতিষেধক তৈরির ক্ষেত্রেও অত্যন্ত জরুরি এবং একটি অপরিহার্য উপাদান হয়ে উঠেছে নাল কাঁকড়ার নীল রক্ত!

এসইউএ/এসি

 


New Bangla Dubbing TV Series Mu
New Bangla Dubbing TV Series Mu

© ২০২০ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি