ঢাকা, মঙ্গলবার   ২০ আগস্ট ২০১৯, || ভাদ্র ৫ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

চিপসের কৌটায় বিষধর শঙ্খচূড়

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ০৯:৩০ ২৮ জুলাই ২০১৭ | আপডেট: ২১:০৩ ২৯ জুলাই ২০১৭

কিং কোবরা বা শঙ্খচূড়কে বলা হয়ে থাকে পৃথিবীর সবচেয়ে বিষধর সাপ। সেই শঙ্খচূড়কেই কিনা পাওয়া গেছে চিপসের কৌটায়। যেটিকে পাচার করা হচ্ছিল। অভিযোগে যুক্তরাষ্ট্রে একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। খবর বিবিসির।


যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকর্তারা বলছেন, তিনটি ভয়ঙ্কর বিষধর শঙ্খচূড়কে চিপসের কৌটায় ভরে পাঠানো হচ্ছিল ক্যালিফোর্নিয়া। সেখানে যে ব্যক্তির ঠিকানায় সাপগুলো পাঠানো হচ্ছিল সেই রডরিগো ফ্রাঙ্কোকে লস অ্যাঞ্জেলেস থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে।তার বিরুদ্ধে চোরাইপথে সাপ আমদানির অভিযোগ আনা হয়েছে।


যুক্তরাষ্ট্রের শুল্ক কর্মকর্তারা মার্চ মাসে হংকং থেকে ফ্রাঙ্কোর পাঠানো একটি প্যাকেট পরীক্ষা করে দেখতে গিয়ে প্রায় দুই ফুট লম্বা সাপগুলো আবিষ্কার করেন। ওই একই চালানে ছিল তিনটি দুষ্প্রাপ্য প্রজাতির অ্যালবিনো চীনা কচ্ছপও।

কর্মকর্তারা সাপগুলো নিরাপত্তার স্বার্থে বাজেয়াপ্ত করেছেন, তবে কচ্ছপগুলো ফ্রাঙ্কোর ক্যালিফোর্নিয়ার বাসায় পৌঁছে দিয়েছেন। তারা ফ্রাঙ্কোর বাসা তল্লাশি করে সেখানে শিশুদেও শোয়ার ঘরে একটি পানির ট্যাঙ্কে জ্যান্ত একটি বিশেষ প্রজাতির কুমিরের বাচ্চা, বিভিন্ন দুষ্প্রাপ্য ও বিশেষ প্রজাতির কচ্ছপ পেয়েছেন। সরকারি কৌঁসুলিরা বলছেন, এগুলো সবই আমেরিকার আইনে সুরক্ষিত প্রজাতির প্রাণী।

অভিযোগে বলা হয়েছে, ফ্রাঙ্কো এশিয়ায় এক ব্যক্তির সঙ্গে মোবাইল ফোনে হংকং থেকে যুক্তরাষ্ট্রে কচ্ছপ চালান দেয়ার ব্যাপারে টেক্সট বার্তা পাঠান। সেই ক্ষুদে বার্তার সূত্র ধরে আমেরিকার শুল্ক কর্মকর্তারা মার্চ মাসে এই বিষাক্ত সাপগুলো আবিষ্কার করেন। তল্লাশির সময় পাওয়া ওই টেক্সট বার্তাগুলোয় ফ্রাঙ্কো এ কথাও বলেছেন, তিনি অতীতেও জ্যান্ত গোখরা প্রজাতির সাপ আনিয়েছেন এবং এর মধ্যে পাঁচটি সাপ তিনি ভার্জিনিয়ায় তার আত্মীয়দেও দেয়ার পরিকল্পনা করেছিলেন।

//এআর

 

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি