ঢাকা, সোমবার, ১৯ নভেম্বর, ২০১৮ ২৩:৫৩:২১

Ekushey Television Ltd.

দ্রুত বাংলা বলতে পারাটাই আমি কাজে লাগিয়েছি: শামীম

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১১:২৯ পিএম, ৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮ মঙ্গলবার | আপডেট: ০৭:১৮ পিএম, ৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮ বৃহস্পতিবার

বর্তমান সময়ের অন্যতম জনপ্রিয় টিভি অভিনেতা শামীম হাসান সরকার। বেশ কয়েক বছর ধরেই ছোট পর্দায় নিয়মিত কাজ করার পাশাপাশি কাজ করছেন একজন ইউটিউবার হিসেবেও। নাটকে অভিনয়ের পাশাপাশি জনপ্রিয়তা পেয়েছেন ইউটিউবে। জুটেছে ‘সফল ইউটিউবার’ এর তকমা। সম্প্রতি তার ইউটিউব চ্যানেল ‘ম্যাংগো স্কোয়াড’ এর সাবস্ক্রাইবার সংখ্যা ছাড়িয়েছে পাঁচ লাখের ওপরে। সম্প্রতি ইটিভি অনলাইনের সাথে একান্ত আলাপচারিতায় অংশ নেন শামীম হাসান সরকার। ইউটিউব এবং ছোট পর্দার ক্যারিয়ারসহ আলোচনা করেছেন নানান বিষয়ে। 

ইটিভি অনলাইনঃ  ম্যাংগো স্কোয়াড শুরু কিভাবে?

শামিম হাসানঃ আমার অভিনয়ের শুরু ২০০১ সালে ঝিনাইদহ ক্যাডেট কলেজে মঞ্চ নাটক দিয়ে। ২০০১ থেকে ২০০৭ ক্যাডেট কলেজে এবং ২০০৮ থেকে ২০১১ এমআইএসটিতে মঞ্চ নাটক করতাম। চ্যাম্পিয়ানও হয়েছি অনেকবার। অভিনয়টা বন্ধ হয়ে যায় চাকরি জীবনে এসে। ২০১২ সালে যখন গ্রাজুয়েশন কমপ্লিট করে একটা চাকুরিতে যোগ দেই তখন ছুটি নিলাম পড়ালেখার জন্য। ২০১৪-২০১৫ তে যখন মালয়েশিয়া যাই মাস্টার্স শেষ করার জন্য তখনই ম্যাংগো স্কোয়াড এর শুরু। নিজের ফ্যামিলি আর বন্ধুদের যখন মিস করতাম তখন নিজের ভাললাগা বা নিজেকে বিনোদিত করার জন্য ভিডিও বানাতাম। অক্টোবর ২০১৪ সালে ম্যাংগো স্কোয়াড শুরু। আমার প্রথম ধারনা ছিল ৬০০ মানুষ ভিডিও টা দেখলেই আমি খুশি। ৬০ টা ভিউ দিয়ে শুরু। এভাবে ১০ হাজার, ২০ হাজার, ২৫ হাজার , লাখ।

 

ইটিভি অনলাইনঃ ম্যাংগো স্কোয়াড এর মূল উদ্দেশ্য কি ছিল?

শামিম হাসানঃ ম্যাংগো  হল আমজনতা আর স্কোয়াড দল বা গোষ্ঠী। উদ্দেশ্য ছিল আমরা একটা টিম বিনোদনের মাধ্যমে সোস্যাল কোন বার্তা দিব। জ্ঞান এর কথা জ্ঞ্বানীভাবে দিলে দিলে মানুষ সেভাবে নিবে না।

 

ইটিভি অনলাইনঃ এই চ্যানেলটার জন্য আপনি অনুপ্রেরনা পান কোথা থেকে?

শামিম হাসানঃ ইউটিবার ব্যাপারটা কি আমি জানতামই না। আমার ধারণা ছিল আমার আগে যে ২ টা চ্যানেল প্রতিষ্ঠিত ছিল তারা নতুন কিছু করেছে। আমি বাংলায় দক্ষ। আমি দ্রুত বাংলা বলতে পারি এটাই আমি কাজে লাগিয়েছি। আমার কোন অনুপ্রেরণা নাই। তবে হানিফ সংকেত এর ইত্যাদির ফ্যান আমি। ছোটবেলা থেকেই ইত্যাদি দেখতাম। তার ছন্দ মিলানো কথাগুলো ভাল লাগত এটা অনুপ্রেরনা বলা যায়।

 

ইটিভি অনলাইনঃ ভিডিও কি শুধু বিনোদনের জন্য বানান নাকি শিক্ষণীয় কিছু আছে?

শামিম হাসানঃ শিক্ষনীয় ভিডিও বানানোর চেষ্টা করেছি। কিন্তু এখন আনন্দের জন্য বানাচ্ছি। এমন একটা ডিপ্রেশনের সময়ে হাল্কা সুস্থ্য বিনোদন দেওয়া যায় তাহলে তো ভাল হয়। যেমন আমাদের যে নতুন ভিডিও আসছে “অস্থির রেস্টুরেন্ট” ঐটাতেও তিনটা সিকুয়েন্সে সামাজিক বার্তা আছে। বিনোদন আর সোস্যাল মেসেজ এই দুইয়ের মিশ্রণ রেখেই ভিডিও বানাচ্ছি ।

 

ইটিভি অনলাইনঃ সামাজিক কাজে ইউটিউবারদের কি কোন দায়িত্ব আছে?

শামিম হাসানঃ অবশ্যই দায়িত্ব আছে। আমার যদি ৫ লাখ ১৫ হাজার ফ্যান থাকে অবশ্যই আমি দায়বদ্ধ তাদের কাছে আমি পজিটিভ মেসেজ দিচ্ছি না নেগেটিভ মেসেজ দিচ্ছি। আর সোস্যাল কোন ইস্যু আসলে আমার বিশ্বাস সব কন্টেন্ট ক্রিয়েটররা এটা নিয়ে কথা বলবে।

 

ইটিভি অনলাইনঃ ব্যক্তিগত জীবনে আপনার অনুপ্রেরণা কে?

শামিম হাসানঃ ব্যক্তিগত জীবনে আমার অনুপ্রেরণা আমার বাবা মা।

 

ইটিভি অনলাইনঃ ফ্যানদের কাছ থেকে সবচেয়ে বেশি কোন প্রশ্নটি শুনতে হয় আপনাকে?

শামিম হাসানঃ সবচেয়ে বেশি যে প্রশ্নটা শুনতে হয়- “ভিডিও কেন বানান না। আপনারা কেন রেগুলার না?” তারা আসলে প্রতি সপ্তাহে ভিডিও চায়।

 

ইটিভি অনলাইনঃ ব্যক্তিগত জীবনে শখ কি?

শামিম হাসানঃ আমি গান গাইতে পছন্দ করি এবং বন্ধুদের সাথে আড্ডা দিতে পছন্দ করি। আর অভিনয়টা তো আছেই ভালবাসা।

 

ইটিভি অনলাইনঃ ম্যাংগো স্কোয়াড এর ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা কি?

শামিম হাসানঃ এই চ্যানেলটা আরো বড় হবে। আর আমরা যাতে এই চ্যানেলটার মাধ্যমে বিভিন্ন সামাজিক কাজে অংশ নিতে পারি। যেমন প্রাকৃতিক দুর্যোগ বা বিভিন্ন চ্যারিটি তে সাহায্য করতে পারি। যত বড় হবে মানুষের কাছে গ্রহণযোগ্যতা তত বাড়বে।

 

ইটিভি অনলাইনঃ  ম্যাংগো স্কোয়াড এ কোন বয়সের ফ্যান বেশি?

শামিম হাসানঃ ২৪ থেকে ৩৫ বছর বয়সী ফ্যান বেশী। আমার পরিসংখ্যান তাই বলে। বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়তেছে, মাস্টার্স করতেছে কিংবা চাকুরি করতেছে এই শ্রেনীর মানুষই ম্যাংগো স্কোয়াড এর বেশিরভাগ ফ্যান।

 

ইটিভি অনলাইনঃ  একটু ভিন্ন প্রসঙ্গে আলাপ করি। আপনার কী মনে হয় যে, বর্তমানে ইউটিউবের কারনে টিভি চ্যানেলের দর্শক কমে যাচ্ছে?

শামিম হাসানঃ টেলিভিশন সবসময় টেলিভিশনই থাকবে। এটা ট্র্যাডিশনাল হিসেবেই থেকে যাবে। কিন্তু আমরা দিনশেষে ইউটিউবেই সবাই নাটক বা অন্যান্য ভিডিও গুলা দেখছি। আমরা যখন ফেসবুকে শেয়ার করি এই সময়ে নাটকটা এই চ্যানেলে দেখাবে তখন প্রায় ১০০টারও বেশি কমেন্ট থাকে ইউটিউব লিঙ্ক টা দিয়েন। টাই দিনশেষে ইউটিউব টাই স্ট্রাইক করছে।

 

ইটিভি অনলাইনঃ  আপনি কোথায় অভিনয় করতে বেশি উপভোগ করেন?

শামিম হাসানঃ দুইটারই দুরকম মজা আছে। তবে ম্যাংগো স্কোয়াড এ সবচেয়ে বেশী। স্কোয়াড লিডার হিসেবে যখন ক্যামেরার সামনে দাড়াই তখন সেই ৩ বছর আগের অনুভূতি টা চলে আসে। রাস্তা ঘাটে কিংবা ফেসবুকে যখন মানুষ আমাকে স্কোয়াড লিডার হিসেবে ডাকে, আমি অনেক গর্ববোধ করি। আর টিভি নাটকে অভিনয় করতেও আমার অনেক গর্ববোধ হয়। আমি এখনো মাঝে মাঝে বিশ্বাস করতে পারিনা যে আমি আমার কো-আর্টিস্ট তাদের পাশে অভিনয় করছি। এদের অনেকেরই ফ্যান আমি।

 

ইটিভি অনলাইনঃ অভিনয়ের পাশাপাশি আপনি রেস্টুরেন্ট ব্যবসার সাথেও জড়িত। এ সম্পর্কে কিছু বলুন।

শামিম হাসানঃ এটা শুরু হয়েছে আমার দুইজন ছোট ভাইকে নিয়ে। আমাদের উদ্দেশ্যটা ছিল সাধ্যের মধ্যে কিছু ভাল খাবার দেওয়া এবং এটা আমরা দিতে পেরেছি। এটা মূলত একটা কফিশপ। তবে তা শুধু ব্যবসা না। মানুষের সাথে কানেক্ট হওয়ার একটা স্থান হিসেবেও দেখছি।  

 

ইটিভি অনলাইনঃ ফ্যানদের জন্য কিছু বলতে চান?

শামিম হাসানঃ এটাই বলব, তাদের ভালবাসায় আমি এখানে। তাদেরকে অনেক ধন্যবাদ। আর বলব- আমার ভাল সময়ে যেমন ছিলেন তেমনি খারাপ সময়টাতেও থাকবেন। আর যে ধরনের অভিনয়ে দেখতে চান আমি করব। চাকরি বা ব্যবসা যাই করি অভিনয় টা চালিয়ে যাব।

//এস এইচ এস//

 

 

 



© ২০১৮ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি