ঢাকা, রবিবার   ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, || আশ্বিন ৭ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

ধানের ন্যায্য দামের দাবিতে ছাত্র ফ্রন্টের সমাবেশ

প্রকাশিত : ২০:১৭ ২৪ মে ২০১৯

নির্ধারিত মূল্যে সরাসরি কৃষকের কাছ থেকে ধান ক্রয় করে কৃষক বাঁচানো,পাটকল শ্রমিকদের বকেয়া বেতন পরিশোধসহ ৯ দফা মেনে নেওয়া, ঈদের আগে শ্রমিকদের বেতন-বোনাস নিশ্চিত করার দাবিতে সমাবেশ করেছে  সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্ট। সকাল ১১টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এ সমাবেশ ও বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়।

সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্টের কেন্দ্রীয় সভাপতি ইমরান হাবিব রুমনের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক নাসির উদ্দিন প্রিন্সের সঞ্চালনায় সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, কেন্দ্রীয় কমিটির অর্থ সম্পাদক রুখসানা আফরোজ আশা, স্কুলবিষয়ক সম্পাদক সজল বাড়ৈ, সুষ্মিতা মরিয়ম, ঢাকা নগরের সাধারণ সম্পাদক মুক্তা বাড়ৈ, রাজিব কান্তি রায় প্রমুখ।

সমাবেশে নেতৃবৃন্দ বলেন, দেশের মোট শ্রম শক্তির ৪১ ভাগ কৃষি খাতে নিয়োজিত জিডিপিতে কৃষির অবদান ১৪.৫% অথচ সেই কৃষক ফসলের ন্যায্যমূল্য থেকে বঞ্চিত। কৃষকরা দেশের ১৭ কোটি মানুষের আহার যোগায়। তারা দেশকে খাদ্যে স্বয়ং সম্পূর্ণ করেছে। এত বড় কাজের জন্য তাদের পুরষ্কার পাওয়ার কথা অথচ সেই কৃষক মনের দুঃখে ক্ষোভে ধান ক্ষেতে ও ধানের বস্তায় আগুন লাগিয়ে দিচ্ছে।

সরকার মণ প্রতি দানের দাম ১০৪০ টাকা নির্ধারণ করলেও বাজারে ধানের দাম ৫০০-৫৫০ টাকা মণ। কৃষি অধিদপ্তর বলছে এক কেজি ধান উৎপাদনে খৃষকের খরচ হয় ১৭ টাকা, বাজারে বর্তমানে দাম ১ কেজি ১৩ টাকা। প্রতি কেজিতে ৪ টাকা লোকসান দিচ্ছে কৃষক। ১ বিঘা জমিতে কৃষকরা ৬৫০০ টাকা পর্যন্ত লোকসান দিচ্ছে। সরকার ঋণখেলাপীদের, ব্যাংক মালিকদের, শিল্প মালিকদের ছাড় দিচ্ছে কিন্তু কৃষকদের লাভজনক দাম নিশ্চিত করতে সরকার কোন কার্যকর পদক্ষেপ নিচ্ছে না।

এছাড়া সরকারের ভুলনীতি পরিহার ও দুর্নীতি বন্ধ করে পাটকল-পাট চাষীদের রক্ষা ও ধর্মঘটি পাটকল শ্রমিকদের বকেয়া বেতনসহ ৯ দফা দাবি মেনে নেয়ার জন্য সরকারের প্রতি জোর দাবি জানান তারা। একই সাথে ঈদের আগেই সকল শ্রমিক কমচারীদের বেতন বোনাস নিশ্চিত করার দাবি জানানো হয়।

কেআই/

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি