ঢাকা, সোমবার   ১৬ ডিসেম্বর ২০১৯, || পৌষ ৩ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

নিরাময় অযোগ্য রোগীদের বাড়িতে গিয়ে সেবা দেবে বিএসএমএমইউ

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ২২:৪৮ ২৮ আগস্ট ২০১৯

নিরাময় অযোগ্য ও শয্যাশায়ী রোগীদেরকে বাসায় গিয়ে চিকিৎসা দেওয়ার প্রকল্প শুরু করেছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ)। বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০ কিলোমিটার এলাকার মধ্যে এ ধরনের অসুস্থ রোগীদের সেবা নিতে প্যালিয়েটিভ মেডিসিন বহির্বিভাগের ৫১১ নং কক্ষে যোগাযোগ করতে বলা হয়েছে।

বুধবার (২৮ আগস্ট) নিরাময় অযোগ্য ও শয্যাশায়ী রোগীদের জন্য গৃহসেবার কার্যক্রমের (হোম কেয়ার প্রকল্প) উদ্বোধন করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়া। 

২০০৮ সাল থেকে সেন্টার ফর প্যালিয়েটিভ কেয়ার, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) নিরাময় অযোগ্য ও শয্যাশায়ী রোগীদের ভোগান্তির কথা চিন্তা করে, সপ্তাহে ৫ দিন ডাক্তার, নার্স, প্যালিয়েটিভ কেয়ার সহকারীর (পিসিএ) সম্মিলিত একটি প্রশিক্ষিত দল এই বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০ কিলোমিটারের মধ্যে রোগীর বাসায় গিয়ে সেবা দিয়ে আসছে। সম্পূর্ন বিনামূল্যে প্রদানকৃত এই সেবা জুলাই ২০১৯ পর্যন্ত, বিভিন্ন ধরনের সংগঠন ও মানুষের ব্যাক্তিগত উদ্যোগ পরিচালিত হয়ে আসছিল।

সম্প্রতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় এই গৃহসেবা প্রকল্পকে তাদের নিজস্ব কর্মকান্ডের আওতায় নেওয়ার নীতিগত সিদ্ধান্ত নিয়েছে, নিরাময় অযোগ্য রোগীদের দ্বারপ্রান্তে চিকিৎসা সেবা পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্যে বাংলাদেশে স্বাস্থ্যসেবার ইতিহাসে অত্র বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি যুগান্তকারী পদক্ষেপ। এরই ধারাবাহিকতায় আজ ২৮ আগষ্ট, ২০১৯ (বুধবার) বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়া এই গৃহসেবা প্রকল্পের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন।

অসুস্থ ব্যক্তি যদি কোন কারণে সেবা প্রতিষ্ঠানে না পৌঁছাতে পারেন তবে ‘সেবা- রোগীর কাছে যেয়ে পৌঁছাবে’ এই দর্শনটিই প্রকাশ পায় হোম কেয়ার সার্ভিস বা গৃহসেবার মাধ্যমে। জীবনের প্রান্তিক মূহুর্তে অনেক রোগী তার নিজ বাসায় আপন প্রিয়জনের মাঝে থাকার ইচ্ছা পোষণ করেন।

প্যালিয়েটিভ কেয়ার সেবা প্রয়োজন এমন অনেক রোগীই হাসপাতাল পর্যন্ত পৌঁছাতে পারেন না নানাবিধ কারণে। কখনো শয্যাশায়ি, কখনো হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার কেউ নেই, কখনো বা আর্থিক দুরাবস্থা। আবার কখনো হয়তো হাসপাতালের বিছানা দূস্প্রাপ্য। এছাড়া অনেক সময় হাসপাতালের চাইতে বাসায় সেবা প্রদান অনেক বেশী কাম্য হয়ে পড়ে। এদের ভেতর আবার অনেকেই সম্পূর্ণ শয্যাশায়ী, বড় একটি ঘা, তীব্র ব্যাথা অথবা শ্বাস কষ্ট নিয়ে বাসায় পড়ে আছে। বেশির ভাগই অর্ধচেতন অথবা অচেতন হয়ে শুধু মাত্র পরিবারের সীমিত অদক্ষ সেবা আর পরিচর্যার উপর নির্ভরশীল। নিরাময় অযোগ্য রোগীর চিকিৎসা সেবাকে কেন্দ্র করে এই সব জটিলতাকে যতটা সম্ভব সহজ করার মাধ্যমে রোগী ও তার পরিবারের জীবন যাত্রার গুনগত মান বৃদ্ধিতে প্যালিয়েটিভ গৃহসেবার গুরুত্ব অপরিসীম।

এই সেবার উদ্দেশ্য- রোগী ও তার পরিবারের সদস্যদের দৈনন্দিন কষ্টগুলোকে কমিয়ে আনা এবং জীবনের মান উন্নয়নে সহায়তা করা। একই সাথে হোমকেয়ার প্রদানের সময় পরিবারের সদস্যদেরকে সেবা এবং পরিচর্যার মৌলিক দক্ষতাগুলো হাতে কলমে শিখিয়ে দেয়ার চেষ্টা করা হয়।

জাতীয় শোকের এই আগষ্ট মাসে ঢাকা শহরের নিরাময় অযোগ্য ও শয্যাশায়ী রোগীদের জন্য বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের সশ্রদ্ধ নিবেদন এই “হোম কেয়ার প্রকল্প”।
 
নিরাময় অযোগ্য ও শয্যাশায়ী রোগীরা এই সেবা গ্রহনের জন্য প্যালিয়েটিভ মেডিসিন বর্হিবিভাগে (রুম- ৫১১, মেডিসিন বর্হিবিভাগ ভবন) যোগাযোগ করতে পারবেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপাচার্য জাতির পিতার আদর্শকে ধারণ করে সংশ্লিষ্ট শিক্ষক, চিকিৎসক, নার্সসহ অন্যদের দরদীমন নিয়ে রোগীদের সেবাদানের আহ্বান জানান। সেন্টার ফর প্যালিয়েটিভ কেয়ারের উদ্যোগে আয়োজিত উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য (গবেষণা ও উন্নয়ন) অধ্যাপক ডা. মো. শহীদুল্লাহ সিকদার, মেডিসিন অনুষদের ডিন অধ্যাপক ডা. মো. জিলন মিঞা সরকার, অধ্যাপক ডা. নিজাম উদ্দীন আহমেদ প্রমুখ। 

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি