ঢাকা, রবিবার, ২১ অক্টোবর, ২০১৮ ১৬:৩১:৪৫

Ekushey Television Ltd.

প্রাণের রসদ মিলেছে মঙ্গলের মাটিতে

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১০:৫৪ এএম, ১২ জুন ২০১৮ মঙ্গলবার

মঙ্গল গ্রহের মাটিতে প্রাণের রসদ থাকার জোরালো প্রমাণ মিলেছে।নাসার পাঠানো মঙ্গলযান ‘কিউরিওসিটি রোভার’একগুচ্ছ জৈব-যৌগের খোঁজ পাওয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে এ দাবি করেছে নাসার বিজ্ঞানীরা। লালগ্রহের বায়ুস্তরে মিথেনের মাত্রা কখনো বাডবে, কখনো কমে বলে ধারণা করেছেন তারা।

মেরিল্যান্ডে নাসার ‘গডার্ড স্পেস ফ্লাইট সেন্টার’-এর অ্যাস্ট্রোবায়োলজিস্ট জেনিফার আইগেনব্রড বলেন, ওই জৈব-যৌগের তিনটি উৎস থাকতে পারে। এক, হতে পারে প্রাণ, আমরা যেটা জানিই না। দুই, মঙ্গলের মাটিতে উল্কাপাত হয়ে থাকতে পারে। যা থেকে ওই জৈব-যৌগের আমদানি ঘটেছে মঙ্গলের মাটিতে। এবং সর্বশেষ, কোনো ভৌগোলিক পদ্ধতিতে ওই বিশেষ পাথরটি (যাতে জৈব-যৌগটি মিলেছে) তৈরি হয়েছে।

আইগেনব্রড বলেন, প্রাণের সঞ্চারের জন্য যা যা প্রয়োজন, সবই রয়েছে লালগ্রহে; কিন্তু তাতে এটা বলা যায় না, মঙ্গলে প্রাণ ছিল।

মঙ্গলযানের পাঠানো তথ্য নিয়ে বেশ উত্তেজিত বিজ্ঞানীরা। নাসা জানিয়েছে- ৩৫০ কোটি বছরের পুরনো কাদাপাথর (প্রস্তরীভূত শিলা) খুঁড়ে মাত্র ৫ সেন্টিমিটার নীচে তিন ধরনের জৈব-যৌগের কণা খুঁজে পেয়েছে মঙ্গলযান।

কিউরিওসিটির পাঠানো দ্বিতীয় চমকপ্রদ তথ্যটি হলো- পৃথিবীর পড়শি গ্রহটিতেও বিশদ ঋতুচক্র রয়েছে। কোনো ঋতুতে বায়ুস্তরে মিথেনের মাত্রা বাড়ে, কখনো আবার কমে।    পৃথিবীর বায়ুমণ্ডলে উপস্থিত মিথেনের ৯৫ শতাংশ তৈরি হয় জৈবিক কার্যকলাপ থেকে।

সূত্র : আনন্দবাজার।

এমএইচ/



© ২০১৮ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি