ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ২১ নভেম্বর ২০১৯, || অগ্রাহায়ণ ৭ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

বিনা খরচে ভাতাসহ প্রশিক্ষণ পাবেন ১৬০ নারী

প্রকাশিত : ১৫:৩১ ১৬ নভেম্বর ২০১৭ | আপডেট: ১০:১৫ ২৯ নভেম্বর ২০১৭

দরিদ্র ও পারিবারিক নানা অনটনে গ্রামের অনেক মেয়েদের অল্প বয়সে বিয়ে দেওয়া হয়। জীবন-জীবিকার তাগিদে তারা ঠিকমতো লেখাপড়া করতে পারেন না। তাই অনেক সময় নামতে হয় কঠোর পরিশ্রমের কাজে। কিন্তু নিজের কাজে দক্ষ না হাওয়ার কারণে তেমন পারিশ্রমিক পান না। ফলে অভাব-অনকট নিয়ে দিন পার করতে হয় তাদের।

এসব নারীদের বিভিন্ন বিষয় প্রশিক্ষণের সুযোগ করে দিচ্ছে ‘শহীদ শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব মহিলা প্রশিক্ষণ একাডেমি’। এসব প্রশিক্ষণের মাধ্যমে দক্ষ মানবসম্পদ রুপে গড়ে তোলা হচ্ছে। এই প্রশিক্ষণ একবারেই ফ্রি। সফল প্রশিক্ষণার্থীদেরকে ভাতা দেওয়া হয়। সহায়তা করা হয় চাকরির ক্ষেত্রেও।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, এখানে প্রতি তিন মাস পর পর ১৬০ জন নারীকে বিনা খরচে (থাকা-খাওয়াসহ) প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়। ২০০১ সাল থেকে ২০১৭ সাল পর্যন্ত ১০ হাজার ৮৮০ জন নারীকে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে। এর অধিকাংশ-ই বিভিন্ন বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মজীবী। এখন থেকে যারা প্রশিক্ষণ নিয়েছেন, তারা বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে চাকরিও করছেন। আগামী জানুয়ারিতে ৫টি বিষয় নতুন প্রশিক্ষণের সুযোগ পাচ্ছেন ১৬০ জন নারী। সেজন্য ডিসেম্বরের প্রথম সপ্তাহ থেকে ট্রেড কোর্সে আবেদন গ্রহণ শুরু করা হবে।

শহীদ শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব মহিলা প্রশিক্ষণ একাডেমিতে যেসব কোর্সে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয় সেগুলো হচ্ছে-১. কম্পিউটার অফিস অ্যাপ্লিকেশন, ২. ড্রেস মেকিং অ্যান্ড টেইলারিং, ৩. ইন্ডাস্ট্রিয়াল সুইং মেশিন অপারেটর, ৪. বিউটিফিকেশন, ৫. মোবাইল ফোন সার্ভিসিং ও ইন্টারনেট।

এই ট্রেড কোর্সগুলোতে প্রশিক্ষণ নিতে চাইলে প্রার্থীকে এসএসসি পাস হতে হবে। বয়স হতে হবে ১৮ থেকে ৩৫ বছরের মধ্যে। শুধু কম্পিউটার অফিস অ্যাপ্লিকেশন ট্রেডের প্রার্থীদের ক্ষেত্রে ন্যূনতম এইচএসসি পাস হতে হবে। আর অন্যগুলোর জন্য এসএসসি পাশ হলেই চলবে।

এসব ট্রেড কোর্সে ভর্তি হতে হলে আবেদনপত্র ও প্রয়োজনীয় কাগজপত্র academyzirani@yahoo.com এই ই-মেইলে ডিসেম্বরের মধ্যে আবেদন পাঠাতে হবে। আর ভর্তি পরীক্ষা হবে আগামী জানুয়ারির প্রথম সপ্তাহে।

এ প্রশিক্ষণ নিতে হলে প্রয়োজনীয় কাগজপত্রের সত্যায়িত ফটোকপি একাডেমির ঠিকানায় ভর্তির দিন সকাল ৮টার মধ্যে সরাসরি একাডেমিতে জমা দিতে হবে। আবেদনপত্রে প্রার্থীদের ট্রেড উল্লেখপূর্বক নিজের নাম, বাবার নাম, মায়ের নাম, বর্তমান ঠিকানা, স্থায়ী ঠিকানা, শিক্ষাগত যোগ্যতা, বৈবাহিক অবস্থা, ধর্ম, জন্মতারিখ, অভিভাবকের মোবাইল ফোন নম্বর ইত্যাদি উল্লেখ করে নির্ধারিত ই-মেইল ঠিকানায় পাঠাতে হবে। আবেদনপত্রের সঙ্গে শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদ, জন্মনিবন্ধনের সনদ, আবেদনকারীর তিন কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি এবং অভিভাবকের (যিনি হোস্টেলে অবস্থানকালে দেখাশোনা করবেন) পাসপোর্ট সাইজের দুই কপি ছবি সত্যায়িত করে জমা দিতে হবে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে দায়িত্বরত কর্মককর্তা সালমা আক্তার বলেন, মহিলা ও শিশুবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অধীনে মহিলাবিষয়ক অধিদফতর পরিচালিত এবং বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ড কর্তৃক অনুমোদিত এ প্রশিক্ষণ একাডেমি শুধু মহিলাদের পাঁচটি ট্রেড কোর্সে মোট ১৬০ জন নারীকে বিনা খরচে (থাকা-খাওয়াসহ) তিন মাস মেয়াদি প্রশিক্ষণ দেবে। তাই যারা হাতে-কলমে কাজ শিখে স্বাবলম্বী হতে চান, তারা এ সুযোগটি নিতে পারেন। এছাড়া প্রত্যেক প্রশিক্ষণার্থীকে মাসিক ৩০০ টাকা করে ভাতা হিসেবে দেওয়া হবে।

এখন থেকে প্রশিক্ষণ দেওয়ার পর আপনারা কোনো চাকরির ব্যবস্থা করে দেন কি না? এমন প্রশ্নের জবাবে সামলা আক্তার জানান, আমাদের কাছে বিভিন্ন সময় বিভিন্ন কোম্পানি চাকরি দেওয়ার জন্য লোক চায়। আমরা এখন থেকে যারা প্রশিক্ষণ নিয়েছে, তাদের সেখানে যোগাযোগ করতে বলি। প্রশিক্ষণ শেষে অধিকাংশ মহিলা ভাল বেতনে চাকরি করে। সবাই কোন না কোন কাজ করে স্বাবলম্বী হয়েছে। তিনি আরও জানান, প্রশিক্ষণ শেষে গ্রেডিং পদ্ধতিতে লিখিত, মৌখিক ও ব্যবহারিক পরীক্ষার মাধ্যমে উত্তীর্ণ প্রার্থীদের সনদ দেওয়া হবে। এই সনদটি প্রার্থীর চাকরি পেতে সহায়ক হবে।

গত বছর ২৭ তম ব্যাচে এই প্রশিক্ষণ একাডেমি থেকে বিউটিফিকেশন ট্রেড কোর্সে প্রশিক্ষণ নেন আসিয়া আক্তার। তিনি জানান, এখন থেকে আমি প্রশিক্ষণ নিয়ে রাজধানীর পল্টনে একটি বিউটি পার্লার খুলেছি। আগে একা একা কাজ শুরু করছিলাম । এখন আমার বিউটি পার্লারে তিনজন মেয়ে কাজ করে। সব মিলিয়ে ভাল আছি।

যোগাযোগ : শহীদ শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব মহিলা প্রশিক্ষণ একাডেমি, মহিলাবিষয়ক অধিদপ্তর, জিরানী, গাজীপুর। মোবাইল: ০১৭৯৯৩৩৬৯১৩, ০১৯২৩০৩৫০০৬।

 

/ডিডি/ এআর

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি