ঢাকা, বুধবার   ২১ আগস্ট ২০১৯, || ভাদ্র ৬ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

রমজান ভাগ্যের আমূল পরিবর্তন ঘটায়

প্রকাশিত : ১১:৩০ ২৯ মে ২০১৯

রমজানের প্রশিক্ষণের মাধ্যমে যে ফসল রোপণ করলেন, সারাবছর এ থেকে ফলন তুলতে থাকবেন। আমলের যে ভিত রচনা করলেন বছরের পর বছর তা আরো সুদৃঢ় হবে। আপনি রূপান্তরিত হবেন এক অনন্য মানুষে। এ মাসে আপনার ভেতর যে গুণের বহিঃপ্রকাশ ঘটেছে তা থেকে শুধু আলো বেড় হতেই থাকবে। রমজানের এই সাধনা ও শিক্ষা ভাগ্যের আমূল পরিবর্তন ঘটায়।

রমজানে সহানুভূতি ও সহমর্মিতা যে ভাবে কাজ করেছে, এটি অব্যাহত থাকলে পরিবার, সমাজ এবং রাষ্ট্র উপকৃত হবে। আমরা চলে যাব এক অনন্য উচ্চতায়। একদিন সেরা জাতিতে পরিণত হবো। এটাই ইসলামের মূল শিক্ষা।

আমাদের ভেতর এখনও ইসলাম বিরোধী চিত্র দেখা যায়, সেটি হলো ব্যবসায়ীরা রমজান মাসে লাভের পরিমাণ বাড়িয়ে দেন। অন্য এগার মাসে যে লাভ করেন এক রমজান মাসেই তারচেয়ে বেশি করেন। এই মোহ হলো শয়তানের ধোঁকা। ন্যুনতম সহনশীল ও সহানুভূতি থাকলে কেউ এ ধরনের আচরণ করতে পারে না। অন্যান্য মুসলিম দেশ এ চিত্রের বিপরীত। এক্ষেত্রে আমাদের বিবেক জাগ্রত করতে হবে। না হলে রোজার অর্জন বিফলে যাবে।

এসব কর্মকাণ্ডের জন্য লজ্জিত এবং অনুতপ্ত হয়ে আল্লাহর কাছে ক্ষমা চাই। দোষ-ত্রুটি পরিত্যাগ করে সৎ গুণাবলি অর্জনের চেষ্টা করতে থাকি। নাজাত লাভের জন্য আল্লাহর কাছে সমর্পিত হই।

দান, ফিতরা এবং যাকাতের মাধ্যমে রোজাদার পায় আল্লাহ থেকে পুরস্কার। এ মাসে দান-সদগাহ যা কিছুই করেন তাতে রয়েছে অধিক পূণ্য। এ থেকে আপনি পাপমুক্ত হতে পারেন। এমনকি জাহান্নাম থেকে নাজাতও পেতে পারেন।

এএইচ/

 

 

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি