ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ১৮ জুলাই ২০১৯

অদ্ভূত শাস্তি

রাস্তায় হামগুড়ি দিল চীনের নারী কর্মীরা

একুশে টেলিভিশন

 প্রকাশিত: ১১:০৯ ১৮ জানুয়ারি ২০১৯   আপডেট: ১৩:৪৪ ১৮ জানুয়ারি ২০১৯

ব্যস্ত রাস্তা দিয়ে চলছে গাড়ি। তার পাশেই হামাগুড়ি দিচ্ছেন কালো কোট পরা বেশ কয়েক জন নারী। একদম সামনে একটা বড় পতাকা হাতে হাঁটছেন এক জন পুরুষ। পতাকায় লেখা বেশ কয়েক জনের নাম।

পিছনে ওই হামাগুড়ির দৃশ্যের ভিডিও তুলে রাখছেন আরও দু’জন পুরুষ। পথচারীরা থমকে দাড়াচ্ছেন। কেউ কেউ ভিডিও তুলে রাখছেন।

সম্প্রতি পূর্ব চীনের এক শহরে দেখা গিয়েছে এমনই অদ্ভুত দৃশ্য। একটি অনলাইন খবরের সংস্থা বিষয়টি ফাঁস করার পরেই জানা গিয়েছে এর নেপথ্যের আসল কারণ।

টার্গেট পূরণ করতে না পারায় এক চীনা প্রসাধন সংস্থা এমন ভাবেই শাস্তি দিয়েছে সেটির অধীনস্থ কর্মচারীদের। সংস্থার এক পুরুষ কর্মী শাস্তি পাওয়া নারীদের নামের তালিকা নিয়ে সামনে হাঁটছিলেন।

পিছনে গোটা ঘটনার ভিডিও তুলছিলেন ওই সংস্থারই আরও দুই পুরুষ কর্মী। কর্তৃপক্ষের নির্দেশেই তারা এমনটা করছিলেন বলে জানা গিয়েছে।

গত কয়েক দিনে এই আজব শাস্তি নিয়ে চীনের সোশ্যাল মিডিয়ায় নিন্দার ঝড় উঠেছে। প্রসাধন সংস্থার এই অপমানসূচক ব্যবহারের বিরুদ্ধে তো বটেই, যে নারীরা হামাগুড়ি দিয়েছেন, তাদের সমালোচনাতেও মুখ খুলেছেন অনেকে।

কেউ কেউ লিখেছেন, ‘অর্থের জন্য মানুষ নিজের মান-সম্মান বিসর্জন দিয়ে এতটাও নীচে নামতে পারে?’ আবার কেউ লিখেছেন, ‘এখনও কেন চাকরি করছেন ওই সংস্থায়, যারা মানুষকে তার ন্যায্য সম্মানটুকু দিতে পারে না?’ নিন্দার মুখে পড়ে আপাতত বন্ধ রাখা হয়েছে সংস্থাটিকে।

চীনের আইন অনুযায়ী, কোনও সংস্থাই তার কর্মীদের অপমানসূচক শাস্তি দিতে পারে না। কিন্তু অভিযোগ, বেশির ভাগ সংস্থাই সেই নিয়ম মানে না। গত মাসেই কর্মীদের কাজে অসন্তুষ্ট এক সেলুন মালিক এমনই শাস্তি দিয়েছিলেন। ভাইরাল ভিডিও-তে দেখা যায়, কর্মীরা নিজের গালে নিজেরাই একশো বার করে চড় মারছেন।

তথ্যসূত্র: আনন্দবাজার

এমএইচ/

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি