ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ১২ ডিসেম্বর ২০১৯, || অগ্রাহায়ণ ২৯ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

১৩ বছরেই এইচএসসি পাস

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১১:৫০ ২৬ জুলাই ২০১৭

১৩ বছর বয়সেই এইচএসসি পাস করেছে কুমিল্লার ‘বিস্ময়’ বালক রাতুল। জেলার চান্দিনা রেদোয়ান আহমেদ কলেজ থেকে রাতুল এবার এইচএসসি পরীক্ষা দেয়। এর আগে ২০০৯ সালে মাত্র ৫ বছর বয়সে পঞ্চম শ্রেণীর লেখাপড়া শেষ করে রাতুল।

রাতুল চান্দিনা উপজেলা সদরের হাসপাতাল রোডের ডা. মোর্সেদ আলম ও নাছরিন আলম দম্পতির বড় ছেলে। পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, রাতুলের জন্ম ২০০৪ সালের ২১ জানুয়ারি। ২০১১ সালে পার্শ্ববর্তী দাউদকান্দি উপজেলার গৌরীপুর ভয়েজার ইংলিশ মিডিয়াম নামের একটি স্কুলে পঞ্চম শ্রেণীতে ভর্তি হয়ে ওই বছর প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষায় পাস করে রাতুল। তখন ‘পাঁচ বছরের সবজান্তা রাতুল’ শিরোনামে গণমাধ্যমে সংবাদও প্রকাশিত হয়।

চান্দিনার কেরনখাল উচ্চ বিদ্যালয় থেকে জুনিয়র সার্টিফিকেট পরীক্ষায় পাস করে ২০১২ সালে। সেই ধারাবাহিকতায় ২০১৫ সালে ১১ বছর বয়সে একই স্কুল থেকে এসএসসি পরীক্ষায় জিপিএ- ৪.০৭ পেয়ে উত্তীর্ণ হয় রাতুল।

চান্দিনা রেদোয়ান আহমেদ কলেজ থেকে এবার এইচএসসি পরীক্ষায় অংশ নিয়ে জিপিএ-৪.০৭ পেয়ে উত্তীর্ণ হয় রাতুল। জিপিএ-৫ না পাওয়ায় হতাশ সে। নির্ধারিত পয়েন্ট না থাকায় মেডিকেলে ভর্তি অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে তার।

রাতুলের বাবা ডা. মোর্সেদ আলম গণমাধ্যমকে বলেন, ‘সরকার সব সময় বলে আসছে- লেখাপড়ার বয়স নেই। কিন্তু আমার ছেলেকে ৮ বছর বয়সে জন্ম সনদ ও সিভিল সার্জন কর্তৃক ডাক্তারি সনদ নিয়েও ওই বয়স দেখিয়ে অষ্টম শ্রেণীর রেজিস্ট্রেশন করাতে পারিনি। বাধ্য হয়ে তার নির্ধারিত বয়সের চেয়ে আরও চার বছর বাড়িয়ে রেজিস্ট্রেশন করতে হয়েছে।’

//এআর

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি