ঢাকা, রবিবার   ১৬ জানুয়ারি ২০২২, || মাঘ ২ ১৪২৮

স্ত্রীর ভয়ে ১০ বছর জঙ্গলে!

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১৩:২৩, ১৬ অক্টোবর ২০১৭

ম্যালকম অ্যাপলগেট, যুক্তরাজ্যের বাসিন্দা। বিয়ের আগে ভালোই চলছিল তার জীবন। কিন্তু বিপত্তিটা শুরু হয় বিয়ের পরেই। বিভিন্ন উপায়ে তার জীবনকে নাকি একেবারে অস্থির করে তোলে তার স্ত্রী। তাই স্ত্রীর সঙ্গ ত্যাগ করে পালিয়ে যান জঙ্গলে। জঙ্গলে কাটিয়ে দেন ১০ বছর। সম্প্রতি লন্ডনের ‘ইমাউস গ্রিনউইচ’ নামে একটি বাস্তুহীনদের আশ্রয়দাতা সংস্থাকে এভাবেই তার জীবনের গল্পটা জানিয়েছেন ষাটোর্ধ্ব এই বৃদ্ধ।

সবাই ভেবেছিলেন যে অ্যাপলগেট আর বেঁচে নেই। তবে সব আশঙ্কা মিথ্যা প্রমাণ করে এক দশক পরে বোনকে ফোন করেন তিনি। এত বছর পর ভাইয়ের কাছ থেকে ফোন পেয়ে চমকে যান বোন।

অ্যাপলগেটের গল্পটি তার মুখের ভাষাতেই তুলে ধরা হয়েছে ‘ইমাউস গ্রিনউইচ’র ওয়েবসাইটে। সেখানে অ্যাপলগেট বলেন, ‘বিয়ের পর আমার জীবন দিন দিন বিশৃঙ্খল হতে থাকে। আমি যতই কাজ করতাম, আমার স্ত্রী ততই রেগে যেত। আমি বেশিক্ষিণ বাড়ির বাইরে থাকি, এটি সে পছন্দ করত না। তার (তার স্ত্রী) এই কর্তৃত্বপনা দিন দিন বাড়ছিল। সে (তার স্ত্রী) চাইছিল, আমি যেন কাজ কমিয়ে দিই। বহু বছর তার সঙ্গে এক ছাদের নিচে কাটানোর পর সিদ্ধান্ত নিই, নিজের ভালোর জন্যই চলে যেতে হবে। এরপর কাউকে না জানিয়ে আমি সবকিছু গুছিয়ে বের হয়ে যাই। একেবারে ১০ বছরের জন্য হারিয়ে যাই।’

অ্যাপলগেট আরো বলেন, ‘পালানোর পর কিংসটনের কাছে একটি জঙ্গলে আস্তানা গাড়ি। ওই সময় স্থানীয় বৃদ্ধদের জন্য একটি কমিউনিটি সেন্টারের বাগানে কাজ করেছিলাম আমি।’

সেখানে দিনগুলো ভালোই কাটছিল বলে জানান তিনি।

কিন্তু ইমাউস গ্রিনউইচের কথা শোনার পর ভেবে দেখি, সেটিই আমার জন্য উপযুক্ত স্থান। সেখানে গিয়ে আমি একটি সাক্ষাৎকার দিই এবং থাকা শুরু করি।’

স্ত্রী ছাড়া বর্তমান জীবনে বেশ ভালো আছেন বলে জানান অ্যাপলগেট। বিভিন্ন দাতব্য সংস্থার জন্য অনুদান সংগ্রহ করে বেড়ান তিনি। শেষ পর্যন্ত বিয়ের আগের জীবন ফিরে পেয়েছেন তিনি বলে জানান তিনি।

 

এমআর/এআর

 

 


Ekushey Television Ltd.

© ২০২২ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি