ঢাকা, শনিবার, ১৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ১১:৩০:৪৮

সরিয়ে নেওয়া হচ্ছে সোহরাওয়ার্দীর ১২শ’ রোগী

সরিয়ে নেওয়া হচ্ছে সোহরাওয়ার্দীর ১২শ’ রোগী

রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আগুন লাগার ঘটনায় সরিয়ে নেওয়া হচ্ছে হাসপাতালটিতে ভর্তি থাকা রোগীদের। আগুন নিয়ন্ত্রণে আসলেও হাসপাতালজুড়ে কালো ধোঁয়া ছড়িয়ে পড়ায় রোগীদের আশপাশের অন্য হাসপাতালে সরিয়ে নেওয়া হচ্ছে। বৃহস্পতিবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) বিকাল সাড়ে ৫ টার দিকে মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের নতুন ভবনের তৃতীয় তলায় এ আগুন লাগার ঘটনা ঘটে। এর পর রাত ৮ টা ২০ মিনিটে প্রায় তিন ঘণ্টা ফায়ার সার্ভিসের ১৬টি ইউনিট চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। আগুন লাগার এক ঘণ্টার পর থেকেই হাসপাতালটি থেকে রোগীদের সরিয়ে নেওয়ার কাজ শুরু করে দেয় স্বজন ও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। সময় বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে রোগীদের সরিয়ে নেওয়ার কাজ আরও বেগবান হয়। এই মুহূর্তে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ কোনো নতুন রোগী ভর্তি বা চিকিৎসা দেওয়া যাবে না বলে ঘোষণা করে। এর পরেই রোগীদের হাসপাতালটি থেকে সরিয়ে নেওয়ার কাজ শুরু হয়। এদিকে আগুন লাগার কারণে হাসপাতলটিতে চিকিৎসারত প্রায় ১২০০ রোগী বিপাকে পড়েন। কাউকে নেওয়া হচ্ছে স্ট্রেচারে করে, আবার অনেককেই নেওয়া হচ্ছে অ্যাম্বুলেন্সে করে। আহমেদ নামে এক রোগীর স্বজন বলেন, আগুন লাগার পর পরই রোগী নিয়ে বাহিরে চলে আসি। আমার রোগীর শ্বাসকষ্ট। ধোঁয়ার কারণে তার অবস্থা আরও খারাপ হয়ে গেছে। এখন অ্যাম্বুলেন্স আসলে ঢামেকে নিয়ে যাব। অন্যদিকে রোগীদের এই করুণ অবস্থা দেখে আশপাশের অনেক সাধারণ মানুষ এগিয়ে এসেছেন সাহায্য করার জন্য। তারা রাস্তায় অ্যাম্বুলেন্স চলাচল স্বাভাবিক রাখার জন্য পুলিশকে সাহায্য করছেন। তাছাড়া তারা রোগীদের অ্যাম্বুলেন্সেও তুলে দিচ্ছেন। সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসান বলেন, আগুন নিয়ন্ত্রণে এসেছে। আমরা সকল রকমের পদক্ষে গ্রহণ করছি। কোনো রোগীর যেন চিকিৎসা ব্যাহত না হয় মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে ব্যবস্থা গ্রহণ করছি। আরকে//
কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশনের স্বেচ্ছা রক্তদাতা সম্মাননা কাল

আবারো স্বেচ্ছা রক্তদাতাকে সম্মাননা দেবে কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশন। ১০ থেকে ৫০ বার পর্যন্ত স্বেচ্ছায় রক্তদান করে জনসেবা করায় তিন শতাধিক স্বেচ্ছা রক্তদাতা ব্যক্তিকে এই সম্মাননা প্রদান করা হবে। আগামীকাল শুক্রবার বিকাল সাড়ে ৪টায় রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাব মিলনায়তনে কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে এই সম্মাননা দেওয়া হবে। স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী জাহিদ মালেক এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন। সম্মাননা অনুষ্ঠানে ১০ বার রক্তদানের মাধ্যমে সিলভার ক্লাব, ২৫ বার রক্তদানের মাধ্যমে গোল্ডেন ক্লাব এবং ৫০ বার রক্তদানের মাধ্যমে প্লাটিনাম ক্লাবের সদস্যপদ লাভ করেছেন- এমন তিন শতাধিক স্বেচ্ছা রক্তদাতাকে সম্মাননা দেয়া হবে। সম্মাননা অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করবেন কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশনের স্বেচ্ছা রক্তদান কার্যক্রম এর প্রধান সমন্বয়ক মাদাম নাহার আল বোখারী। স্বাগত বক্তব্য রাখবেন কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশনের স্বেচ্ছা রক্তদান কার্যক্রম এর অনারারি পরিচালক অধ্যাপক ডা. এ বি এম ইউনুস। প্রসঙ্গত, ২০০০ সালে প্রতিষ্ঠার পর থেকে একযুগের যাত্রায় কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশন গড়েছে ৩ লাখ ১৩ হাজার স্বেচ্ছা রক্তদাতার সুসংগঠিত ডোনার পুল। যাদের মধ্যে অর্ধ লক্ষাধিকই নিয়মিত রক্তদাতা, তারা অঙ্গীকার করেছেন আজীবন রক্তদানে। জীবন বাঁচানোর জন্যে এ পর্যন্ত কোয়ান্টাম দিয়েছে সাড়ে ৯ লাখের বেশি ব্যাগ রক্ত ও রক্ত উপাদান। গত বছরে (২০১৭ সাল) কোয়ান্টাম দিয়েছে ৯৯ হাজার ২৭০ ব্যাগ রক্ত। দেশে মোট রক্তচাহিদার ৫ ভাগের ১ ভাগ এখন মেটাচ্ছে কোয়ান্টাম। এ বিষয়ে কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশনের সেচ্ছা রক্তদান কর্মসূচির কো-অর্ডিনেটর ড. মনিরুজ্জামন বলেন, আমাদের দেশে ভালো কাজের জন্য মানুষ সম্মাননা পায় না। ভালো কাজকে সম্মান জানানোর জন্য কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশন ২০০৩ সালে থেকে এ সম্মাননা দিয়ে আসছে। এটা মূলত ডোনারদের উৎসাহ দেওয়ার জন্য যাতে তারা ৬০ বছর পর্যন্ত সুস্থ-স্বাভাবিকভাবে রক্ত দিতে পারে। তিনি আরো বলেন, একজন ডোনারের দেওয়া যে রক্তটুকু আরেকটি জীবন বাঁচাচ্ছে, সেটি তার নিজের জন্যে অপ্রয়োজনীয়, বাড়তি। কারণ ৫০ কেজি ওজনের পূর্ণবয়স্ক একজন পুরুষের শরীরের ১৩০০ মিলিলিটার রক্তই বাড়তি, নারীদের ক্ষেত্রে এটা ৮০০ মিলিলিটার। আর রক্ত দিতে এলে একজন ডোনারের কাছ থেকে নেওয়া হয় মাত্র ৩৫০-৪০০ মিলিলিটার রক্ত, যা এই বাড়তি রক্তের অর্ধেকেরও কম। আর এ ক্ষয় পূরণ হয়ে যায়ও খুব দ্রুত। রক্ত দিলে উপকার মেলে১. মিলার-কিস্টোন ব্লাড সেন্টারের এক গবেষণায় দেখা যায়, যারা বছরে দুই বার রক্ত দেয়, অন্যদের তুলনায় তাদের ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি কম। বিশেষ করে ফুসফুস, লিভার, কোলন, পাকস্থলী ও গলার ক্যান্সারের ঝুঁকি নিয়মিত রক্তদাতাদের ক্ষেত্রে অনেক কম বলে দেখা গেছে। চার বছর ধরে ১২০০ লোকের ওপর এ গবেষণা চালানো হয়। ২. সিএনএন পরিচালিত এক গবেষণায় দেখা যায়, রক্তে যদি লৌহের পরিমাণ বেশি থাকে তাহলে রক্ত ঘন হয়, কোলেস্টেরল তৈরি হওয়ার হারও ক্রমান্বয়ে বাড়তে থাকে। ফলে এর বেশি মাত্রার উপস্থিতি হার্ট এবং সার্কুলেটরি সিস্টেমকে ক্ষতিগ্রস্ত করে। গবেষকদের ধারণা, রক্ত দিলে দাতার শরীরে উচ্চমাত্রার লোহার স্তর কমে যায়। ৩. জার্নাল অব দি আমেরিকান মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনে প্রকাশিত এই রিপোর্টটিতে বলা হয়, ৪৩ থেকে ৬১ বছর বয়সী ব্যক্তিরা ছয় মাসে অন্তত একবার রক্ত দিলে তাদের হৃদরোগ বা পক্ষাঘাতে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা অনেকটাই কমে যায়। ফিনল্যান্ডের ২৬৮২ জনের ওপর একটি গবেষণা চালিয়ে দেখা গেছে, যারা নিয়মিত রক্ত দেয় তাদের হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি ৮৮ শতাংশ কম এবং স্ট্রোকসহ অন্যান্য মারাত্মক হৃদরোগের ঝুঁকি ৩৩ ভাগ কম। ৪. রক্তদান করার সাথে সাথে আমাদের শরীরের মধ্যে অবস্থিত বোন ম্যারো নতুন কণিকা তৈরির জন্যে উদ্দীপ্ত হয়। দান করার মাত্র ৪৮ ঘণ্টার মধ্যেই দেহে রক্তের পরিমাণ স্বাভাবিক হয়ে যায়, আর লোহিত কণিকার ঘাটতি পূরণ হতে সময় লাগে চার থেকে আট সপ্তাহ। আর এই পুরো প্রক্রিয়া আসলে শরীরের সার্বিক সুস্থতা, প্রাণবন্ততা আর কর্মক্ষমতাকেই বাড়িয়ে দেয়। ৫. রক্ত দিতে এসে একজন রক্তদাতা তার সার্বিক সুস্থতাকে যাচাই করে নিতে পারেন। ফলে প্রতি চার মাসে এক বার করে বছরে তিন বার হয়ে যাচ্ছে তার ব্লাড প্রেশার, পালস লেভেল থেকে শুরু করে পাঁচটি রক্তরোগের স্ক্রিনিং যা তাকে আশ্বস্ত করে তার সুস্থতা সম্পর্কে। প্রতি পাইন্ট (এক গ্যালনের আট ভাগের এক ভাগ) রক্ত দিলে ৬৫০ ক্যালরি করে শক্তি খরচ হয়। অর্থাৎ ওজন কমানোর ক্ষেত্রেও এটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। আরকে//

বাড়ির নকশা অনুমোদনে ভোগান্তি কমাচ্ছে রাজউক

রাজউকসহ দেশের অনান্য উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের আওতায় থাকা এলাকায় বাড়ী নির্মাণে নকশা অনুমোদনে ভোগান্তি কমাতে ১৬ স্তরের পরিবর্তে মাত্র চার স্তরে নামানো হয়েছে। এছাড়া ভবনের প্ল্যান পাশ করাতে দেড়শ দিন থেকে কমিয়ে ৫৩ দিন করা হয়েছে। মন্ত্রণালয়ের যৌথসভা শেষে গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রী জানান, শ্রমিকদের নিরাপত্তার জন্য নির্মাণ প্রতিষ্ঠানের বীমাও বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। ঢাকা শহরের বাড়ী নির্মানের জন্য দিনের পর দিন বা বছরের পর বছর ঘুরতে হতো বিভিন্ন দপ্তরে। আর এ ভোগান্তি কমাতেই বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ, বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধি ও সংস্থার কর্মকর্তাদের নিয়ে গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রলয়ের সভা। নকশা অনুমোদনে আগে ১৬টি স্তরে সীমাহীন ভোগান্তির স্বীকার হতে হতো সাধারণ মানুষকে। এর মধ্যে পুলিশ, ডেসা, সিটি করপোরেশনসহ অনন্ত ১৬টি স্তরে অনাপত্তিপত্র। সভায় সিদ্ধান্ত হয়, এখন থেকে চারটি স্তরে অনুমতি নিতে হবে। সেগুলো হলো ১. ভূমি ব্যবহারের ছাড়পত্র, ২. ভবন বেশী উচু হলে বেসামরিক বিমান কর্তৃপক্ষ ৩. কেপিআই বা বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা ও বিশেষ নিরাপত্তা বাহিনীর অনাপত্তি লাগবে। আর ৪. দশ তলার বেশী উচু হলে ফায়ার সার্ভিসের অনাপত্তি পত্র দরকার পড়বে। পরে বৈঠকের সিদ্ধান্ত জানান মন্ত্রী। এ ছাড়া প্ল্যান পাসের ক্ষেত্রে দেড়শ’ দিনের পরিবতর্তে মাত্র ৫৩ দিন ধরা হয়েছে। সবকিছুই অটোমেশনে হবে বলেও জানান মন্ত্রী। শ্রমিকদের জন্য বাধ্যতামূলক বীমা এবং কাজের সময় শ্রমিকেরা প্রাণ হারালে ক্ষতিপূরণের সুযোগ পাবেন বলে জানান মন্ত্রী। ১ মে থেকে এ সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন শুরুর কথা রয়েছে। ভিডিও: https://youtu.be/Hc6nmSITbWA আরকে//

ঢাকায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ সন্দেহভাজন ডাকাত নিহত

রাজধানীর গোপীবাগ রেলগেইট এলাকায় পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ গুলিতে এক যুবক নিহত হয়েছেন। নিহতের নাম শান্ত। ২০ বছর বয়সী ওই যুবক একটি ডাকাত দলের সদস্য বলে জানিয়েছে পুলিশ।ঢাকা মহানগর পুলিশের ওয়ারী বিভাগের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার নুরুল আমিন বলেন, ‘সোমবার রাত ১২টার দিকে একদল ডাকাত গোপীবাগ রেলগেইট এলাকায় জড়ো হয়েছে খবর পেয়ে পুলিশ সেখানে যায়। পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছালে ডাকাতরা গুলি করে। পুলিশও তখন পাল্টা গুলি চালায়। এ সময় শান্ত গুলিবিদ্ধ হয়। শান্তকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হলে মঙ্গলবার সকালে চিকিৎধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।’তিনি আরও বলেন, ‘ঘটনাস্থল থেকে আরও দুজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এ অভিযানে দুজন পুলিশ সদস্যও আহত হয়েছেন।’এসএ/

ইডেনের সাবেক অধ্যক্ষ খুনের ঘটনায় মামলা

ঢাকার এলিফ্যান্ড রোডের নিজ বাসায় ইডেন মহিলা কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ মাহফুজা চৌধুরী পারভীন খুনের ঘটনায় নিউ মার্কেট থানায় মামলা হয়েছে। রোববার দিবাগত মধ্যরাতে নিহতের স্বামী ইসমত কাদির গামা বাদী হয়ে মামলাটি করেন। নিউমার্কেট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আতিকুর রহমান এতথ্য নিশ্চিত করা করেছে। তিনি বলেন,মামলায় বাসার দুই কাজের মেয়েকে আসামি করা হয়েছে। গতকাল রাতে রাজধানীর এলিফ্যান্ট রোডের এলাকায় নিজ বাসায় খুন হন মাহফুজা চৌধুরী পারভীন। তাকে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়েছে বলে ধারণা করছে পুলিশ। এ ঘটনায় ওই বাসার দুই গৃহকর্মীকে সন্দেহ করছে তারা। ঘটনার পর থেকে গৃহকর্মী দুইজন পলাতক রয়েছে। তাদের আটকের জন্য বিভিন্ন জায়গায় অভিযান চালাচ্ছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। ঢাকা মহানগর পুলিশের রমনা বিভাগের উপকমিশনার মারুফ হোসেন সরদার বলেন, এলিফ্যান্ট রোডের সুকন্যা টাওয়ারের বাসায় থাকতেন মাহফুজা চৌধুরী। সেখানেই খুন হন তিনি। তার বাসার দুই গৃহকর্মী পালিয়েছে। পুলিশ খুনি হিসেবে প্রাথমিকভাবে তাদেরই সন্দেহ করছে। তাদের ধরার জন্য গতরাতে বিভিন্ন জায়গায় অভিযান চালানো হয়েছে। আশা করছি, দ্রুত তাদের আটক করা সম্ভব হবে। মাহফুজা চৌধুরী ২০০৯ থেকে ২০১২ সাল পর্যন্ত ইডেন কলেজের অধ্যক্ষ ছিলেন। তার স্বামী গামা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান। সত্তরের দশকের প্রথম দিকে ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন গামা। ঢাকা কলেজের সামনের বহুতল ভবন ‘সুকন্যা টাওয়ারের’ ১৫ ও ১৬ তলায় দুটি ফ্ল্যাটে (ডুপ্লেক্স) দীর্ঘদিন থেকে থাকেন তারা। ওপরের অংশটিতে তারা থাকেন। আর নিচতলায় রান্নাঘর, গৃহকর্মীদের আবাস।এই দম্পতির দুই ছেলে। তাদের একজন সেনাবাহিনীর কর্মকর্তা এবং অপরজন ব্যাংকার। টিআর/

রাজধানীতে ট্রাকচাপায় নারী নিহত

রাজধানীর বাড্ডায় ট্রাকের চাপায় জিন্না (৫০) নামে এক নারীর মৃত্যু হয়েছে। বাড্ডা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রফিকুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। রোববার রাত ১১টার দিকে মধ্যবাড্ডার ইউলুপ ও ফুটওভার ব্রিজ এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত জিন্না গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়ার জাফর আলী স্ত্রী। তারা বাড্ডা এলাকায় বসবাস করছিলেন। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, নিহত জিন্না ছেলে তোফায়েলকে নিয়ে রাস্তা পার হওয়ার সময় একটি ট্রাকের চাপায় ঘটনাস্থলেই মারা যান। তবে এ সময় ছেলে তোফায়েল অক্ষত রয়েছেন। ওসি রফিকুল ইসলাম জানান, দুর্ঘটনার পরপরই ট্রাকটিকে জব্দ করা হয়েছে। তবে চালক পালিয়ে গেছে বলে জানান ওসি। একে//

রাজধানীতে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৩

রাজধানীতে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় তিনজন নিহত হয়েছেন। সোমবার দিবাগত রাত ও মঙ্গলবার ভোরে এ সব দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতদের মধ্যে এক নারীর পরিচয় জানা যায়নি। বাকি দুজন হলেন- নৈশ প্রহরী কবির হোসেন (৪৫), চা দোকানদার শাহীন (৪২)। পুলিশ সূত্রে জানা যায়, সোমবার রাতে বাড্ডাগামী দেওয়ান পরিবহনের একটি বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার ফুটপাতে উঠে একটি চায়ের দোকানে ধাক্কা দিলে চা দোকানদার শাহীন ও নৈশ প্রহরী কবিরের ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয়। ঘাতক বাসটি জব্দ করা হলেও চালক-হেলপার পালিয়ে গেছেন। এদিকে, মঙ্গলবার ভোর সাড়ে ৫টার দিকে রাজধানীর মালিবাগ-মৌচাক সড়কে দুর্ঘটনায় অজ্ঞাতপরিচয় এক নারী নিহত হয়েছেন। তার বয়স আনুমানিক ৪০ বছর। একে//

রাজধানীতে ট্রেনে কাটা পড়ে নিহত ২ 

রাজধানীতে ট্রনে কাটা পড়ে দুইজনের মৃত্যু হয়েছে। খিলক্ষেতে অজ্ঞাত এক নারী (৩০) ও দক্ষিনখানের কাউলা এলাকায় নীলকান্তি রায় (২২) নামে এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়।      শুক্রবার (১ ফ্রেরুয়ারি) সকালের দিকে পৃথক এ দুটি দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত দুজনের মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) মর্গে পাঠানো হয়েছে। নিহত নীলকান্তি দক্ষিণখান এলাকার কাউলায় বসবাস করতেন। তিনি একটি দোকানের কর্মচারী হিসেবে কাজ করতেন। এছাড়াও অপর নিহত অজ্ঞাত ওই নারীর নাম-পরিচয় শনাক্তের চেষ্টা চলছে বলেও জানিয়েছে ঢাকা রেলওয়ে থানা (কমলাপুর) পুলিশ। ঢাকা রেলওয়ে থানার (কমলাপুর) বিমানবন্দর রেলওয়ে স্টেশনের পুলিশ ফাঁড়ির উপ-পরিদর্শক (এসআই) নজরুল ইসলাম বলেন, খিলক্ষেত কুড়িল বিশ্বরোড সংলগ্ন রেললাইনে একটি ট্রেনের ধাক্কায় অজ্ঞাত ওই নারীর মৃত্যু হয়। নিহত ওই নারী প্রিন্টের একটি বোরকা পরা ছিলেন। তিনি আরও জানান, অপর এক দুর্ঘটনায় দক্ষিণখান কালউলা ও আশকোনার মধ্যবর্তী রেললাইনে কমলাপুর থেকে ছেড়ে যাওয়া একটি ট্রেনের ধাক্কায় নীলকান্তি রায় ওই ব্যক্তির মৃত্যু হয়। নিহতের সঙ্গে পাওয়া মোবাইল ফোন দিয়ে বিষয়টি তার পরিবারকে জানানো হয়। সংবাদ পেয়ে, তার ভাই বকুল রায় মৃতদেহ শনাক্ত করেন। এসি    

রাজধানীর উত্তরায় ৪ জঙ্গি গ্রেফতার

রাজধানীর উত্তরায় নিষিদ্ধঘোষিত জঙ্গি সংগঠন আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের চার সদস্যকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। শুক্রবার সকালে র‌্যাব সদরদপ্তর থেকে পাঠানো এক ক্ষুদে বার্তায় জানানো হয়, বৃহস্পতিবার রাত ২টার দিকে র‌্যাব-১ এর একটি দল উত্তরা এলাকায় অভিযান চালিয়ে ওই চারজনকে গ্রেফতার করে। তারা দেশের সম্মানিত ব্যক্তিবর্গ ও অনলাইন অ্যাক্টিভিস্টদের হত্যা চেষ্টা পরিকল্পনার সাথে যুক্ত এবং জঙ্গি সংগঠন আনসারুল্লাহ বাংলাটিমের সক্রিয় সদস্য। তবে তাৎক্ষণিকভাবে তাদের নাম-পরিচয় জানানো হয়নি। র‌্যাব সদরদপ্তর সূত্র জানায়, শুক্রবার রাজধানীর কারওয়ানবাজারে র‌্যাবের মিডিয়া সেন্টার সংবাদ সম্মেলন করে এ বিষয়ে বিস্তারিত জানানো হবে। আরকে//

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি