ঢাকা, শুক্রবার   ০৫ মার্চ ২০২১, || ফাল্গুন ২০ ১৪২৭

ধামাচাপা পড়ে যাচ্ছে সাগর-রুনী হত্যা মামলা (ভিডিও)

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১৩:২৫, ১১ ফেব্রুয়ারি ২০২১ | আপডেট: ২০:৩৫, ১১ ফেব্রুয়ারি ২০২১

আট পার হয়ে নয় বছর। কিন্তু এখনও শেষ হয়নি সাংবাদিক সাগর-রুনী দম্পত্তির হত্যা মামলার তদন্ত। সাংবাদিক সাগর সারোয়ারের মায়ের দাবি, মুজিববর্ষে যেনো বহুল আলোচিত এই জোড়া খুনের বিচার শেষ হয়। আর মামলার বাদী মনে করছেন, কোন অগ্রগতি না হওয়ার কারণে ধামাচাপা পড়ে যাচ্ছে গুরুত্বপূর্ণ হত্যা মামলাটি।

২০১২ সালের ১১ ফেব্রুয়ারি রাতের কোন একসময় রাজাবাজারের ভাড়া ফ্ল্যাটে খুন হন মাছরাঙ্গা টেলিভিশনের তখনকার বার্তা সম্পাদক সাগর সারোয়ার এবং তার স্ত্রী এটিএন বাংলার জোষ্ঠ প্রতিবেদক মেহেরুন রুনী।

এরপর শেরে বাংলানগর থানা থেকে মামলার তদন্তের দায়িত্ব পায় ডিবি। পরে তারা ব্যর্থ হলে হাইকোর্টের নির্দেশনায় মামলা যায় র‌্যাবে। কিন্তু ৭৬ বার সময় নিলেও এখনো মামলার তদন্ত প্রতিবেদন দিতে পারেনি তারা।

পুত্র শোকে কাতর মা এখনো যাননি সন্তান আর পুত্র বধুর কবর দেখতে। মামলার সুষ্ঠ তদন্ত হবে না, এমন শংকা কাটিয়ে প্রধানমন্ত্রীর কাছে সন্তান হত্যার বিচার চাইলেন।

নিহত সাগর সারোয়ারের মা সালেহা মনির বলেন, কেন হচ্ছেন এরকম, এর মধ্যে রহস্য কী? আমি এটুকুই জানতে চাই, আর কিছুই না। বিচার কি হবে না হবে তা জানি না, আমি এটুকুই জানতে চাই এটি কোথায় বাধাগ্রস্ত, কে বাঁধা দিচ্ছে। মুজিব বর্ষ উপলক্ষে এটা যেন দ্রুত শেষ হয় এই দাবি প্রধানমন্ত্রীর কাছে।

মামলার বাদী ও রুনীর ছোট ভাই মামলার তদন্তে অগ্রগতিতে কোন আশার আলো দেখছেন না।

মামলার বাদী নওশের রোমোন বলেন, তদন্তকারী সংস্থা এবং এখন যারা তদন্তের দায়িত্বে তারা কিছু জানে বলে মনে হয় না। শুরুর দিকে যা হয়েছে তা ছাড়া কোনপ্রকার নাড়াচাড়া করছে বলে আমার মনে হয় না।

এদিকে মামলার তদন্তে ধীর গতিতে ক্ষোভ জানিয়েছেন পাবলিক প্রসিকিউটর আব্দুল্লাহ আবু।

পাবলিক প্রসিকিউটর আব্দুল্লাহ আবু বলেন, দীর্ঘদিন হয়ে গেল, অবশ্যই এটা তদন্ত করে রিপোর্ট দেওয়া উচিত। যদি একদম কিছুই না পাওয়ায় যায় তার বিরুদ্ধে সেটা বলুক। যদি তদন্ত করে কিছু পাওয়া যায় সেটার রিপোর্ট দেয়া হোক। এভাবে ঝুলে থাকাটা ঠিক নয়।

দ্রুত মামলার তদন্ত প্রতিবেদন দিতে তদন্তকারী সংস্থার প্রতি আহবান জানান তিনি।
ভিডিও :

এএইচ/ এসএ/
 


Ekushey Television Ltd.

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি