ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২১ জুন, ২০১৮ ২০:২৩:২৭

বরিশালে ঈদের প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত

দক্ষীণ বঙ্গের বৃহৎ জেলা বরিশালে ঈদ-উল-ফিতরের প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছে। নগরীর বান্দরোড হেমায়েত উদ্দিন কেন্দ্রীয় ঈদগাহ ময়দানে শনিবার সকাল সাড়ে ৮টায় এ জামাত অনুষ্ঠিত হয়। ঈদের প্রধান এই জামাতে অংশ নেন সিটি মেয়র আহসান হাবিব কামাল এবং বিভাগীয়, জেলা ও মেট্রো পুলিশ এবং প্রশাসনের শীর্ষ কর্মকর্তাসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মী ও বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ। সকাল থেকেই ঈদগাহ ময়দানে ঈদুল ফিতরের নামাজ আদায়ের জন্য সব বয়সী মানুষের ঢল নামে। সারিবদ্ধভাবে মুসল্লিরা ঈদগাহে প্রবেশ করেন। এ সময় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের উপস্থিতি ছিল চোখে পড়ার মতো। প্রতিবছরের মতো এবারও ঈদের জামাত উপলক্ষে বাড়তি সতর্কতা নেই বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশ। নামাজ শেষে আওয়ামী লীগ-বিএনপিসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতা-কর্মী ও সাধারণ মুসল্লিরা পরস্পরের সঙ্গে আলিঙ্গনের মধ্য দিয়ে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করেন। এদিকে বরিশাল বিভাগের সর্ববৃহৎ ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হয় সদর উপজেলার চরমোনাই দরবার শরীফ মাঠে সকাল সাড়ে ৯টায়। পীর সাহেব চরমোনাই মুফতি সৈয়দ মু. রেজাউল করিম ঈদ জামাতে ইমামতি করেন। এখানে অন্তত ২০ হাজার মানুষ একত্রে ঈদের নামাজ আদায় করেন। বরিশাল বিভাগের দ্বিতীয় বৃহত্তম ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হয় পিরোজপুরের নেছারাবাদ ছারছিনা দরবার শরীফ মাঠে সকাল সাড়ে ৮টায়। এছাড়া ঝালকাঠীর কায়েদ সাহেব হুজুর প্রতিষ্ঠিত এনএস কামিল মাদরাসা ময়দানে সকাল সাড়ে ৮টায়, পটুয়াখালীর মীর্জাগঞ্জ হযরত ইয়ারউদ্দিন খলিফা (রা.) দরগাহ শরীফে সকাল সাড়ে ৮টায় এবং বরিশালের উজিরপুরের গুঠিয়ার দৃষ্টিনন্দন বায়তুল আমান জামে মসজিদ কমপ্লেক্স ও ঈদগাহ ময়দানে ৯টায় প্রধান প্রধান ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হয়। কেন্দ্রীয় কারাগার জামে মসজিদে সকাল ৮টায়, নূরিয়া হাই স্কুল ঈদগাহ ময়দানে সকাল ৮টায়, নথুল্লাবাদ কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল জামে মসজিদে সকাল ৮টায়, গোরস্থান রোড ঈদগাহ ময়দানে সকাল সাড়ে ৮টায়, ল’ কলেজ জামে মসজিদে সকাল সাড়ে ৮টায়, জিলা স্কুল মসজিদে সকাল সাড়ে ৮টায়, ওয়াপদা জামে মসজিদে সকাল সাড়ে ৮টায়, পাওয়ার হাউস জামে মসজিদে সকাল সাড়ে ৮টায় এবং পোর্ট রোড জামে মসজিদে সকাল ৯টায় ও ব্রাউন কম্পাউন্ড জামে মসজিদে সকাল ৯টায় ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়। এছাড়া নগরীর অন্যতম প্রধান ৩টি মসজিদ সদর রোডের বায়তুল মোকাররম জামে মসজিদে সকাল ৯টায় প্রথম ও ১০টায় দ্বিতীয়, চকবাজারের জামে এবাদুল্লাহ্ মসজিদে সকাল সাড়ে ৮টায় ও ১০টায় এবং কেন্দ্রীয় জামে কশাই মসজিদে সকাল সাড়ে ৮টায় ও ১০টায় ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হয়। আরকে//

বাধ্য হয়ে ঝুঁকিপূর্ণ পেশায় যাচ্ছে শিশুরা [ভিডিও]

পিরোজপুরের ছেলে রাফি। ১০ বছরের এই শিশু ধরেছে সংসারের হাল। বাধ্য হয়ে জড়িয়ে পড়েছে ঝুঁকিপূর্ণ পেশায়। বাংলাদেশে রাফির মতো শ্রমজীবী শিশুর সংখ্যা সাড়ে ৩৪ লাখ; আইএলও’র হিসেবে বিশ্বে প্রায় ১৬ কোটি ৮০ লাখ শিশু কোনও না কোনও শ্রমে জড়িত। বাবা মায়ের সুখের সংসারে জন্ম নিলেও পরে, বাবা অন্যত্র বিয়ে করায় সংসারের দায়িত্ব নিতে হয়েছে রাফিকে। পরিবারের একমাত্র উপার্জনক্ষম হিসেবে জীবনযুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়তে হয়েছে শিশু বয়সেই। শুধু একা রাফি নয়, তার মতো অসংখ্য শিশুকে জীবিকার তাগিদে প্রতিনিয়ত যুদ্ধ করতে হচ্ছে। আর এদের বেশিরভাগই যুক্ত হচ্ছে নানা ঝুঁকিপূর্ণ পেশায়। শিশুর জীবন ও পরিবেশ আনন্দ মুখর করতে সরকারের পাশাপাশি সবার আন্তরিক হওয়া প্রয়োজন বলে মনে করেন পিরোজপুর জেলার শিশু বিষয়ক কর্মকর্তা মোহাম্মদ মোজাম্মেল হোসেন। শিশুদের সঠিকভাবে বেড়ে উঠতে ও ঝুঁকিপূর্ণ শ্রম এড়াতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেবে সরকার এমনই প্রত্যাশা সবার। একে//

বরিশালে বইতে শুরু করেছে নির্বাচনী হাওয়া (ভিডিও)

নির্বাচনী হাওয়া বইতে শুরু করেছে বরিশাল সিটি করপোরেশন এলাকায়। দলের মনোনয়ন পেতে তোড়জোড় চলছে প্রার্থীদের মধ্যে। প্রার্থী বাছাই নিয়ে দলের মধ্যেও হচ্ছে আলোচনা। আর শান্তিপূর্ণ নির্বাচন অনুষ্ঠানে প্রস্তুতির কথা জানালেন জেলা নির্বাচন কর্মকর্তারা। চতুর্থবারের মতো অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে বরিশাল সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন। নির্বাচন কমিশন তারিখ ঘোষণার পর থেকেই গুঞ্জন চলছে প্রার্থী নিয়ে। তবে, এবারই প্রথম দলীয় প্রতীকে নির্বাচন হবে। ভোটের জন্য নিজেদের প্রস্তুতির কথা জানিয়েছে মহানগর আওয়ামী লীগ। বর্তমান মেয়র ছাড়াও বিএনপিতে একাধিক প্রার্থীর নাম শোনা যাচ্ছে। তবে, কৌশলগত কারণে এখনই মুখ খুলতে নারাজ দলের নেতারা। সুষ্ঠু পরিবেশে সঠিক সময়ে নির্বাচন হবে বলে আশা নাগরিক সমাজের প্রতিনিধিদের। আর ভোটার তালিকা হালনাগাদ, কেন্দ্র নির্ধারণসহ নির্বাচনের জন্য সার্বিক প্রস্তুতির কথা জানিয়েছেন জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা। এবার নগরীতে ভোটার সংখ্যা ২ লাখ ৪১ হাজার ৯৫৯ জন যা গতবারের তুলনায় ৩০ হাজার ৭০২ জন বেশি।

পিরোজপুরে নদী দখলের মহোৎসব (ভিডিও)

পিরোজপুর স্বরূপকাঠির সন্ধ্যা নদী এবং তার শাখা নদীর বুকজুড়ে দখলের মহোৎসব। জনপ্রতিনিধিদের সহায়তায় নদীর পাশাপাশি স্থানীয়দের জমিও দখল হচ্ছে বলে অভিযোগ রয়েছে। তবে দখলকারিদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দিয়েছে জেলা প্রশাসন। সন্ধ্যা নদীর কোলঘেঁষা স্বরূপকাঠি মূলত বিসিক শিল্প এলাকা। উপজেলার জগৎপট্টি, ইন্দেরহাট, মিয়ারহাট, বরচাকাঠি, জগন্নাথকাঠি বন্দরসহ বেশ কিছু এলাকা জুড়ে অবাধে নদী দখল করে গড়ে উঠেছে ডক ইয়ার্ড, বহুতল ভবন, বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানসহ অসংখ্য দোকানপাট। অভিযোগের তীর ছালেহিয়া ডক ইয়ার্ডের মালিক গফ্ফার মৃধার দিকে। ২০১৫ সালে পরিবেশ অধিদপ্তর ৫ লাখ টাকা জরিমানা ও নিষেধাজ্ঞা জারি করলেও এসবের তোয়াক্কা করেননি গফ্ফার মৃধা। প্রতিবাদ করতে এলে তাদের বসতভিটেও দখলদারদের পেটে যাচ্ছে বলে অভিযোগ রয়েছে। মামলা দিয়ে করা হচ্ছে হয়রানি। স্থানীয়দের অভিযোগ, এসব অন্যায়কে প্রশ্রয় দিচ্ছেন স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরাই। তবে অভিযোগ অস্বীকার করেন স্বরূপকাঠির পৌরমেয়র গোলাম ফারুক। দখলকারীদের তালিকা করে ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দিয়েছে উপজেলা প্রশাসন। সন্ধ্যা নদী দখলমুক্ত করে ফিরিয়ে দেয়া হোক ঐতিহ্য, এমনটাই দাবি স্থানীয়দের।

পিরোজপুরে ডায়রিয়ার হানা

পিরোজপুরে ডায়রিয়ার প্রকোপ দেখা দিয়েছে। হাসপাতালে বেড়েছে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা। এ পর্যন্ত কোনও মৃত্যুর ঘটনা না ঘটলেও ডায়রিয়া রোগীর সংখ্যা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। পিরোজপুর জেলা সদর হাসপাতাল। ডায়রিয়া ওয়ার্ডে বেড মাত্র ৭টি, অথচ গত ১৫ দিনে সেবা নিয়েছেন ২৯৬ জন রোগী। বর্তমানে এই ওয়ার্ডে ভর্তি ৪৫ রোগী। আসন সংকটে রোগীদের ঠাঁই হচ্ছে হাসপাতালের বারান্দায়। হাসপাতাল থেকে স্যালাইন বা কোনও ওষুধ সরবরাহ না করার অভিযোগও উঠেছে। কর্তব্যরত চিকিৎসক জানিয়েছেন, মাত্রাতিরিক্ত রোগী ভর্তি হওয়ায় দেখা দিয়েছে স্যালাইন সংকট। ডায়রিয়ার ব্যাপারে এলাকাবাসীকে সচেতন থাকার পরামর্শ দিয়েছেন স্বাস্থ্য সংশ্লিষ্টরা। একে//

পিরোজপুরে ডায়রিয়ার প্রকোপ (ভিডিও)

পিরোজপুরে ডায়রিয়ার প্রকোপ দেখা দিয়েছে। হাসপাতালে বেড়েছে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা। এ পর্যন্ত কোনো মৃত্যুর ঘটনা না ঘটলেও ডায়রিয়া রোগীর সংখ্যা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। পিরোজপুর জেলা সদর হাসপাতাল। ডায়রিয়া ওয়ার্ডে বেড মাত্র ৭টি, অথচ গত ১৫ দিনে সেবা নিয়েছেন ২৯৬ জন রোগী। বর্তমানে এই ওয়ার্ডে ভর্তি ৪৫ রোগী। আসন সংকটে রোগীদের ঠাঁই হচ্ছে হাসপাতালের বারান্দায়। হাসপাতাল থেকে স্যালাইন বা কোন ওষুধ সরবরাহ না করার অভিযোগও উঠেছে। কর্তব্যরত চিকিৎসক জানিয়েছেন, মাত্রাতিরিক্ত রোগী ভর্তি হওয়ায় দেখা দিয়েছে স্যালাইন সংকট। ডায়রিয়ার ব্যাপারে এলাকাবাসীকে সচেতন থাকার পরামর্শ দিয়েছেন স্বাস্থ্য সংশ্লিষ্টরা।  

দ্বীপজেলা ভোলায় পর্যটনের অপার সম্ভাবনা (ভিডিও)

দ্বীপজেলা ভোলায় চর কুক্রী-মুকরী, কালকিনি সমুদ্র সৈকত সহ রয়েছে অনেক পর্যটন স্থান। প্রকৃতির সান্নিধ্য পেতে প্রতিদিন দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে পর্যটকরা আসেন এখানে। কিন্তু, আবাসন ও যাতায়তের সু-ব্যবস্থা না থাকায় বিড়ম্বনার শিকার হতে হয় তাদের। পরিকল্পিত উদ্যোগ নিলে চর কুকরী-মুকরী হয়ে উঠতে পারে সম্ভাবনাময় পর্যটন কেন্দ্র। ভোলা সদরের মেঘনা তীরবর্তী তুলা-তুলি ও বঙ্গোপসাগরের বুক চিরে জেগে ওঠা চর কুক্রী-মুকরী, ঢালচরের তারুয়া সমুদ্র সৈকত, চর মনপুরা ও চরনিজামের কালকিনি সৈকতের সৌন্দর্য উপভোগ করতে প্রতিদিন দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে আসেন অসংখ্য পর্যটক। তবে, প্রকৃতির সৌন্দর্য উপভোগ করতে গিয়ে নানা ঝামেলা পোহাতে হয় তাদের। এসব এলাকায় যাতায়াতে নেই নির্ধারিত নৌ-যান। রিজার্ভ স্পিড বোট, ট্রলার বা ইঞ্জিন চালিত নৌকা ভাড়া করে যেতে হয় পর্যটকদের। পর্যটন সম্ভাবনার কথা বিবেচনা করে বিভিন্ন উদ্যোগ নেয়ার কথা জানিয়েছেন প্রশাসনের এই কর্মকর্তা। এলাকাবাসী বলছে, পর্যটনবান্ধব পরিবেশ তৈরি ও অবকাঠামোগত উন্নয়ন হলে ভোলার স্পটগুলোতে বাড়বে পর্যটকের সংখ্যা; অর্থনীতিতে পড়বে ইতিবাচক প্রভাব।

পিরোজপুরে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ দুই মাদক ব্যবসায়ী নিহত

পিরোজপুরে পৃথক ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ওহিদুজ্জামান (৩৫) ও মিজানুর রহমান (৩৪) নামে দুই মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন। রোববার দিবাগত রাতে পিরোজপুর সদর উপজেলা এবং মঠবাড়িয়া উপজেলায় ‘বন্দুকযুদ্ধের’ এসব ঘটনা ঘটে। নিহত ওহিদুজ্জামান নেছারাবাদ উপজেলার দক্ষিণ কৌরিখাড়া গ্রামের মৃত আ. রহমানের ছেলে বলে জানা গেছে। তার বিরুদ্ধে মাদক, সন্ত্রাসী, অস্ত্র মামলাসহ মোট ৮টি মামলা রয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। এছাড়া নিহত মিজানুর রহমানের বিরুদ্ধে ডাকাতি ও মাদকের ছয়টি মামলা রয়েছে। পিরোজপুর জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জিএম আবুল কালাম আজাদ জানান, রোববার দুপুরে ওহিদুজ্জামানকে পিরোজপুর ডিবি পুলিশের একটি দল গ্রেফতার করে। তার দেওয়া তথ্যানুযায়ী রাত পৌনে ১টার দিকে সদর উপজেলার কলাখালী ইউনিয়নের টোনা ব্রিজ সংলগ্ন কৈবর্তখালী গ্রামে অবৈধ অস্ত্র ও মাদক উদ্ধারে গেলে ওহিদুজ্জামানের সঙ্গীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে কয়েক রাউন্ড গুলি ছুড়ে। পরে ডিবি পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। এসময় মাদক ব্যবসায়ী ওহিদুজ্জামান পালাতে গেলে গুলিতে ঘটনাস্থলেই নিহত হন। ঘটনাস্থল থেকে একটি পাইপগান, ৫ রাউন্ড গুলি, দুটি বগি দা, ১৭৫টি ইয়াবা ট্যাবলেট, ৫০ গ্রাম গাঁজা, অস্ত্র তৈরির সরঞ্জাম ও মাদক সেবনের সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন পুলিশ সুপার। এদিকে মঠবাড়িয়া থানার ওসি গোলাম ছরোয়ার জানান, রোববার দিবাগত রাতে মঠবাড়িয়া উপজেলার বড়মাছুয়া গ্রামের হাওলাদার বাড়ি এলাকায় ডাকাতির প্রস্তুতির খবর পেয়ে থানা-পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থলে যায়। এ সময় ডাকাতেরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়লে পুলিশও পাল্টা গুলি ছোড়ে। এতে মিজানুর রহমান গুলিবিদ্ধ হয়ে ঘটনাস্থলে নিহত হন। ঘটনাস্থল থেকে দেড় কেজি গাঁজা, ৫৫ পিচ ইয়াবা বড়ি ও চারটি ধারালো অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন ওসি। একে//  

ব‌রিশালে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ সন্দেহভাজন ডাকাত নিহত

ব‌রিশাল সদর উপজেলার শায়েস্তাবাদে মহানগর গোয়েন্দা (ডি‌বি) পু‌লিশের সঙ্গে ‘বন্ধুকযুদ্ধে’ অজ্ঞাত প‌রিচয় এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। পুলিশের দাবি নিহত যুবক ডাকাত দলের সদস্য।রোববার ভোরে শায়েস্তাবাদ ইউ‌নিয়নের দ‌ক্ষিণ চরআইচা গ্রামের বটতলা বাজার সংলগ্ন এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।ব‌রিশাল মেট্রোপ‌লিটন পু‌লিশের কাউ‌নিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ও‌সি) নুরুল ইসলাম পি‌পিএম জানান, কয়েক‌দিন আগে দ‌ক্ষিণ চরআইচা গ্রামের আ. হক হাওলাদারের বা‌ড়িতে ডাকা‌তি হয়। ওই ঘটনায় কাউ‌নিয়া থানায় এক‌টি মামলা হয়, যা তদন্ত করছে মহানগর গোয়েন্দা (ডি‌বি) পু‌লিশ। তিনি জানান, ইতিপূর্বে ‌বেশকিছু ডাকা‌তির ঘটনা ঘটেছে। পাশাপা‌শি আরও ডাকাতির ঘটনা ঘটতে পারে এমন গোপন সংবাদের ভি‌ত্তিতে শায়েস্তাবাদ এলাকায় পু‌লিশি নজরদারি বাড়ানো হয়। শনিবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে শায়েস্তাবাদ সংলগ্ন নদীতে আলো ‌দেখতে পেয়ে ডি‌বি পু‌লিশের এক‌টি টিমের সন্দেহ হয়। তারা কাছাকা‌ছি এ‌গিয়ে গেলে ডাকাত সদস্যরা পু‌লিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। এ সময় ডি‌বি পু‌লিশ পাল্টা গুলি চালায়। এক পর্যায়ে ডাকাত সদস্যরা পালিয়ে যায়।পরে ঘটনাস্থল থেকে অজ্ঞাত পরিচয় ওই যুবকের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। নিহত ব্যক্তির বয়স আনুমা‌নিক ৩৮ বছর। ঘটনাস্থল থেকে ১টি পাইপগান, ১টি রামদা, ১টি চাপা‌তি ও ৮ রাউন্ড গু‌লির খা‌লি কার্তুজ উদ্ধার করা হয়েছে বলেও জানান ওসি নুরুল ইসলাম।বন্দুকযুদ্ধে ডি‌বি পু‌লিশের এসআই দেলোয়ার, কনস্টেবল র‌ফিক ও হা‌ফিজ আহত হয়ে হাসপাতালে ভ‌র্তি রয়েছেন বলেও জানান তিনি।এসএ/  

খুলনার নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে চাচ্ছে বিএনপি: তোফায়েল

খুলনা সিটির অবাধ, নিরপেক্ষ ও সুষ্ঠ নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে বিএনপি নানান অপতৎপরতা চালচ্ছে বলে মন্তব্য করছেন আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য ও বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ । শনিবার দুপুরে ভোল সদর উপজেলার ইলিশা ইউনিয়নে ভিজিএফ (মৎস্য) কর্মসূচির আওতায় জেলেদের মধ্যে চাল বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন। অনুষ্ঠানে ৩২’শ জেলের মাঝে বিনামূল্যে প্রত্যেককের মাঝে ৪০ কেজি করে চাল বিতরণ করা হয়। এসময় তিনি আরও বলেন, বিএনপি কোন নীতি নেই। সদ্য সমাপ্ত খুলানা সিটি নির্বাচন প্রক্রিয়াকে সারা দেশের মানুষ প্রশংসা করেছে। শুধুমাত্র বিএনপি প্রশ্নবিদ্ধ করার চেষ্টা করছে। বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, বিএনপির চারিত্রিক বৈশিষ্ট হচ্ছে ভালোকে খারাপ বলা আর খারাপকে ভালো বলা। বর্তমান নির্বাচন কমিশন দক্ষতার সাথে রংপুর সিটি কর্পোরেশন, ব্রাহ্মণবাড়ীয়া, গাইবান্ধা উপ-নির্বাচনসহ সকল নির্বাচন সফলতার সাথে সম্পন্ন করেছে। কোন স্থানে প্রশ্ন উঠেনি। তোফায়েল বলেন, বিএনপি স্বপ্ন দেখে এই দেশে আবার তত্তাবধায়ক সরকার হবে। এটা স্বপ্নই থেকে যাবে কোনদিন বাস্তবায়ন হবেনা। আগামী সংসদ নির্বাচন হবে সংবিধান অনুসারে এই সরকারের অধীনে। সরকার প্রধান থাকবেন বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। নির্বাচন পরিচালনা করবে নির্বাচন কমিশন। আওয়ামীলীগের প্রবীণ এই নেতা আরো বলেন, নৌকা মার্কা আমাদের স্বাধীনতা দিয়েছে। নৌকা দেশে উন্নয়ন দিয়েছে। আজকে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট আকাশে উড়েছে। এর মাধ্যমে আমরা বিশ্বের বুকে আরো মর্যাদাশীল দেশ হিসাবে প্রতিষ্ঠা লাভ করেছি।  টিআর/টিকে

পটুয়াখালীতে সাড়ে চারশ’ কোটি টাকার মুগ ডাল উৎপাদন (ভিডিও)

পটুয়াখালীতে এবার প্রায় সাড়ে চারশ’ কোটি টাকার মুগ ডাল হবে বলে জানিয়েছে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর। জেলার সর্বত্র কৃষকরা এখন ব্যস্ত মুগ চাষে। আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে যাবে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা। দেশে উৎপাদিত মুগ ডালের প্রায় অর্ধেক হয় উপকূলীয় জেলা পটুয়াখালীতে। কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের তথ্য মতে, এবার পটুয়াখালীতে ৮২ হাজার ৯শ’ ৪০ হেক্টর জমিতে মুগ চাষের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হলেও আবাদ হয়েছে আরো বেশি। কম খরচ ও পরিশ্রমে বেশি ফসল পাওয়ায় মুগ চাষে ঝুকছেন চাষীরা। আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে পটুয়াখালীতে উৎপাদিত মুগ ডাল দেশের গন্ডি পেরিয়ে রপ্তানী হচ্ছে বলে জানালেন এই কৃষি কর্মকর্তা। উৎপাদন খরচ কম হওয়ায় মুগ চাষে আর্থিকভাবে লাভবান হচ্ছেন চাষীরা।

বরগুনার সংরক্ষিত বন কেটে উজাড় (ভিডিও)

সংরক্ষিত বনের গাছ কেটে উজাড় করে ফেলা হচ্ছে বরগুনার টেংরাগিরি বনাঞ্চলে। অভিযোগ উঠেছে, অর্থের বিনিময়ে চোরাকারবারীদের গাছ কাটতে সহায়তা করছে বনবিভাগ। তবে গাছ কাটার কথা অস্বীকার করেছেন বিট কর্মকর্তা। আর দিনের পর দিন ঘুরেও দেখা মিলেনি জেলা বনবিভাগের কোন কর্মকর্তা বা কর্মচারীর। বঙ্গোপসাগরের তীর ঘেঁষে বরগুনার তালতলীর টেংরাগিরি সংরক্ষিত বনাঞ্চল ও ইকোট্যুরিজম পার্ক। এলাকাবাসীর অভিযোগ, সংরক্ষিত বনের গেওয়া, কেওড়া, পশুর ও সুন্দরীসহ কয়েক প্রজাতির গাছ প্রতিনিয়তই কেটে নিচ্ছে বনদস্যুরা। পরিবেশ আন্দোলনের নেতারা বলছেন, বনবিভাগ কোনো আইনি ব্যবস্থা না নেয়ায় বেপরোয়া হয়ে উঠেছে বনদস্যুরা। তবে সংরক্ষিত বনের গাছকাটার কথা অস্বীকার করেন বিট কর্মকর্তা। এ বিষয়ে জেলা বনবিভাগের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সাথে যোগাযোগ করলেও তাদের দেখা পাওয়া যায়নি। এদিকে বনদস্যুদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দিয়েছেন জেলা প্রশাসক। সংরক্ষিত বনের গাছ বাঁচাতে উদ্যোগী হবে প্রশাসন, এটাই প্রত্যাশা বরগুনাবাসীর।  

বরিশালে অবৈধভাবে বালু তুলছে প্রভাবশালীরা (ভিডিও)

বরিশালে কীর্তনখোলা ও সুগন্ধা নদী থেকে অবৈধভাবে বালু তুলছে প্রভাবশালীরা। এতে ভাঙ্গছে নদীতীর। হুমকির মুখে পড়ছে আবদুর রব  সেরনিয়াবাত ও ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সেতু। দেশের দক্ষিনাঞ্চলে নদী ভাঙ্গন রোধে প্রতি বছরই ব্যয় হচ্ছে কোটি কোটি টাকা। কিন্তু পাওয়া যাচ্ছে না কাংখিত সুফল। স্থানীয়রা বলছেন, বালুখেকোদের দৌরাত্বে কোন পরিকল্পনাই কাজে আসছেনা। বালু উত্তোলনকারিদের দৌরাত্বে ভাঙ্গছে জনপদ। ঝুঁকিতে দুইটি সেতু। স্থানীয়দের অভিযোগ, তবুও টনক নড়ছেনা প্রশাসনের। প্রভাবশালীদের আশ্রয়-প্রশ্রয়ে অপরিকল্পিত ড্রেজিং চলছেই। নদী বন্দর কর্তৃপক্ষ বলছে, অবৈধভাবে বালু যারা তুলছে তাদের ব্যবস্থা নেয়া হবে। অনুমোদন ছাড়া যারা বালু তোলা বন্ধ না হলে যেকোন সময় বড় ধরণের বিপর্যয়ের আশংকা করছে নদী তীরে বসবাসকারিরা।

শ্রেণিকক্ষে হঠাৎ অসুস্থ ১০ ছাত্রী

পিরোজপুরে একটি স্কুলে হঠাৎ ১০ ছাত্রী অসুস্থ হয়ে পড়ে। তারা জ্ঞান হারায়। তাদের উদ্ধার করে পিরোজপুর সরকারি হাসপাতাল ও খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। চিকিৎসকেরা বলছেন, ওই ছাত্রীরা গণমনস্তাত্ত্বিক অসুস্থতায় আক্রান্ত হয়েছে।ঘটনাটি ঘটেছে আজ শনিবার সকালে পিরোজপুর সরকারি বালিকা উচ্চবিদ্যালয়ে। প্রথমে এক ছাত্রী শ্রেণিকক্ষে হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়ে। জ্ঞান হারায়। এরপর একে একে ১০ ছাত্রী অসুস্থ হয়ে পড়ে। হাসপাতাল ও বিদ্যালয় সূত্রে জানা গেছে, সকাল নয়টার দিকে নবম শ্রেণীর সামিয়া আক্তার (১৪) হঠাৎ শ্রেণিকক্ষে অসুস্থ হয়ে পড়ে। এরপর সে চেতনা হারিয়ে ফেলে। এর কিছুক্ষণ পর একই শ্রেণির জান্নাতুল ফেরদৌস (১৪) ও লামিয়া আক্তার (১৪) অসুস্থ হয়ে পড়ে। এ সময় অসুস্থ ছাত্রীদের দেখতে এসে সপ্তম শ্রেণির রূপসা আক্তার (১২), মিথিলা (১২), জাহিদা সুলতানা (১২), পঞ্চম শ্রেণির সানজানা হক (১০), তাহারিন (১০) ও ঐশী (১০) অসুস্থ হয়ে পড়ে। এরপর সকাল সাড়ে ১০টার দিকে সায়মা আক্তার (১৪) নামের নবম শ্রেণির আরেক ছাত্রী অসুস্থ হয়ে পড়ে। অসুস্থ ছাত্রীদের পিরোজপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য সামিয়া ও লামিয়াকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।স্কুলের শিক্ষক মিজানুর রহমান বলেন, সকালে ক্লাস শুরুর পর নবম শ্রেণির এক ছাত্রী অসুস্থ হয়ে পড়ে। এরপর তা দেখে অন্যরা অসুস্থ হয়। অসুস্থ ছাত্রীদের দ্রুত হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।পিরোজপুর সদর হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা (আরএমও) ননী গোপাল রায় প্রথম আলোকে বলেন, অসুস্থ ছাত্রীরা গণমনস্তাত্ত্বিক অসুস্থতায় আক্রান্ত হয়েছে। এ রোগে একজন আক্রান্ত হলে তা দেখে অন্যেরাও আক্রান্ত হয়। সাধারণত মেয়েরা এ রোগে আক্রান্ত হয়। এতে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই। চিকিৎসা দেওয়ার পর রোগীরা সুস্থ হয়ে ওঠে।পিরোজপুর সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রূপসা আক্তার বলে,‘নবম শ্রেণির এক আপু অসুস্থ হয়ে পড়ার কথা শুনে তাকে দেখতে যাই। এরপর আমার মাথা ঘুরাতে থাকে। তারপর আর কিছু মনে নেই।’/ এআর /

ভোলায় স্বাস্থ্য ক্লিনিকে শত শত সাপ

ভোলায় একটি কমিউনিটি স্বাস্থ্য ক্লিনিকের মেঝে থেকে শত শত বিষধর সাপ বের হওয়ার পর কর্তৃপক্ষ ক্লিনিকটি সাময়িক ভাবে বন্ধ করে দিয়েছে। এ ঘটনায় পুরো এলাকা জুড়ে বিরাজ করছে চরম আতঙ্ক। জেলার লালমোহন উপজেলার চর উমেদ ইউনিয়নের বাসিন্দারা বলছেন, পাঙ্গাশিয়া কেরামতিয়া কমিউনিটি ক্লিনিকের আশপাশ থেকে তারা গত কয়েকদিনে কয়েকশো বিষধর সাপ এবং সাপের বাচ্চা হত্যা করেছে। উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আব্দুর রশিদ বিবিসিকে জানান, গত কয়েক সপ্তাহ ধরে ক্লিনিকটির ভেতরে ও বাইরে সাপের আনাগোনা দেখার পর তারা ভবনটি বন্ধ করতে বাধ্য হন এবং অন্যত্র স্বাস্থ্যসেবা দেওয়ার ব্যবস্থা করেন। ক্লিনিকটির মেঝের নীচে বড় ধরনের সাপের বাসা রয়েছে বলে তিনি সন্দেহ করছেন। ক্লিনিকের ভেতরে কার্বলিক অ্যসিড ছিটিয়ে দেওয়া হয়েছে। এলাকাবাসীদের উদ্ধৃত করে স্থানীয় গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, বেশ কিছু বড় সাপ এখনও মারা সম্ভব হয়নি। তাই ক্লিনিকের আশেপাশের এলাকায় বাসিন্দারা আতঙ্কে রয়েছেন। সূত্র: বিবিসি একে//

কুয়াকাটায় বাস টার্মিনাল নির্মানের দাবী (ভিডিও)

কুয়াকাটায় বাস টার্মিনাল না থাকায় রাস্তা দখল করে চলছে গাড়ি পাকিং। এ কারনে চরম ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে পর্যটকসহ সাধারন মানুষকে। ঘটছে দূর্ঘটনাও। জরুরী ভিত্তিতে কুয়াকাটায় একটি আধুনিক বাস টার্মিনাল নির্মানের দাবী জানিয়েছেন পর্যটক ও স্থানীয়রা। পৃথিবীতে একইজায়গায় দাঁড়িয়ে সূর্যোদয় ও সূর্যাস্ত দেখার যে কয়েকটি স্থান রয়েছে তার মধ্যে সাগরকন্যা কুয়াকাটা অন্যতম। ১৯৯৮ সালের এপ্রিলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কুয়াকাটাকে পর্যটন কেন্দ্র ঘোষনা করেন। দ্বিতীয়বার প্রধানমন্ত্রী হবার পর ২০১০ সালের ১৫ ডিসেম্বর কুয়াকাটাকে পৌরসভায় উন্নীত করেন তিনি। পরে সরকারী-বেসরকারীভাবে বিপুল পরিমান বিনিয়োগ হলেও আজ পর্যন্ত এখানে নির্মান করা হয়নি একটি বাস টার্মিনাল। প্রতিনিয়িত রাস্তা দখল করে বাসগুলো দাঁড়িয়ে থাকায় ভোগান্তিতে পড়ছেন দূর দূরান্ত থেকে আসা পর্যটকসহ স্থানীয়রাও। বাস টার্মিনাল না থাকায় ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানালেন সিকদার রিসোর্টের এই কর্মকর্তা। এদিকে আগামী দুই-তিন মাসের মধ্যে বাস টার্মিনাল নির্মানের টেন্ডার হবে বলে জানালেন পৌর মেয়র। কুয়াকাটায় আধুনিক বাস টার্মিনাল নির্মানের মধ্য দিয়ে পর্যটকসহ স্থানীয়রা যাতায়াতের সুন্দর পরিবেশ ফিরে পাবেন- এমনটাই প্রত্যাশা সকলের।

বরগুনায় সূর্যমুখীর চাষে ব্যাপক সাড়া

সূর্যমুখী চাষে কোন ঝুঁকি নেই। ভোজ্য তেল ও সব ধরণের সবজির সঙ্গে খাওয়া যায়। পুষ্টিমান অনেক বেশি। কোলেস্টেরলমুক্ত তেল। এ অঞ্চলের কৃষকের কাছে লাভজনক কৃষি ফসল হিসেবে সূর্যমুখী চাষ ব্যাপক সাড়া ফেলেছে। আমতলী উপজেলার পূর্বচিলা গ্রামে আউশ ও আমন ধানের চাষ ছাড়া কৃষকরা কোন অর্থকরী ফসল ফলানোর চিন্তা মাথায় নেয়নি। কৃষকের কাছে বিকল্প কোন চাষযোগ্য ফসলও ছিল না। কয়েক বছর আগে উন্নয়ন সংস্থা ব্রাক তাদের বিকল্প হিসেবে সূর্যমুখী চাষ করার সুযোগ তৈরি করে দেয়। এ সূর্যমুখী চাষের সুবাদে দুই ফসলি জমি তিন ফসলিতে পরিণত হয়েছে। গত কয়েক বছরের ধারাবাহিকতায় বরগুনা জেলায় এ মৌসুমে ১৫৩২ হেক্টর জমিতে সূর্যমূখীর চাষ করেছেন জেলার প্রায় ৩ হাজার কৃষক। এর মধ্যে আমতলী উপজেলাতেই ৭ শ ৩০ হেক্টর চাষের আওতায় এসেছে। কম পরিশ্রম ও কম অর্থ বিনিয়োগ করে বাণিজ্যিক ভিত্তিতে সূর্যমুখী ফুলের চাষ করে কৃষকরা লাভবান হচ্ছেন। সূর্যমুখী চাষ কৃষি অর্থনীতিতে সমৃদ্ধির মাত্রা বাড়িয়ে দিচ্ছে বলে কৃষক ও কৃষিবিদরা জানিয়েছেন। জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর ও উন্নয়ন সংস্থা ব্রাকের পরামর্শ ও সহযোগিতায় সূর্যমুখী চাষ এ অঞ্চলে জনপ্রিয় হয়েছে। কৃষক ও কৃষিবিদেরা জানিয়েছেন, সূর্যমুখীর চারা রোপণের ১১৫ দিনের মধ্যে ফসল পাওয়া যায়। মূলত প্রোটিনের চাহিদা মেটাতে সূর্যমুখীর চাষ করা হচ্ছে। সূর্যমুখী ফুলের দানা থেকে ভোজ্যতেল উৎপাদন করা হয়। এছাড়া সর্ষে বাটার মতো করে সূর্যমুখী ফুলের দানা খাওয়া যায়। সূর্যমুখী গ্রামের মানুষের খাদ্যাভ্যাসে পরিবর্তন আনছে। এক একর জমিতে সূর্যমুখী চাষে খরচ পড়ে প্রায় ১২ হাজার টাকা। একরে সূর্যমুখী উৎপাদন হয় ৩৩-৩৫ মণ। একমণ সূর্যমুখী ফুলের বীজের বাজার মূল্য প্রায় ১৩-১৪ শ টাকা। একর প্রতি উৎপাদন খরচ বাদ দিয়ে কৃষকের প্রায় কমবেশি ১২ থেকে ১৫ হাজার টাকা লাভ থাকে। সূর্যমুখী ফুলের বীজ সংগ্রহ করার পর বিশাল বিশাল গাছগুলো জমিতে পচিয়ে জৈব সার হিসেবে ব্যবহার করা যায়। এতে জমির জৈবসারের ঘাটতি পূরণ হয়। অনেক কৃষক পরিবার তার দৈনন্দিন জীবনে রান্নার কাজের জ্বালানি হিসেবে সূর্যমুখীর খড়ি ব্যবহার করে থাকে। এতে করে জ্বালানি কাঠের ওপর নির্ভরশীলতা হ্রাস পাচ্ছে। জেলা কৃষি বিভাগের কর্মকর্তা বদরুল হোসেন জানান, নতুন লাভজনক ফসল চাষে কৃষককে প্রেরণা যোগাতে মাঠ পর্যায়ে কাজ চলছে। মানুষের খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করা যায় এই লক্ষ্যকে সামনে নিয়ে মাঠ পর্যায়ে দু’ফসলি জমিতে কীভাবে বছরে ৩টি অর্থকরী কৃষি ফসল খাদ্য শষ্য চাষ করা যায় তা নিয়ে নানা পরীক্ষা-নিরীক্ষা চলছে। সফলতাও এসেছে। বরগুনা জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক শাহী নূর আজম খান জানান, সূর্যমুখী চাষে কৃষক পরিবারগুলো ব্যাপক সাড়া ফেলে দিয়েছে। সূর্যমুখী চাষ গ্রামীণ অর্থনীতিকে শক্তিশালী করবে। কৃষক পরিবারগুলো ফুলচাষে লাভের মুখ দেখায় সূর্যমুখী ফুল চাষে ঝুঁকে পড়েছে। সূর্যমুখী চাষ অর্থনৈতিকভাবে খুবই লাভজনক। সূত্র : বাসস এসএ/

রাজীবের নামে সড়ক ও স্কুল নির্মাণ করা হবে: চীফ হুইপ

পটুয়াখালীর বাউফলে রাজীব হোসেনের নামে একটি স্কুল নির্মাণ করবেন বলে জানিয়েছেন জাতীয় সংসদের চীফ হুইপ ও বাউফল আসনের সংসদ সদস্য আ স ম ফিরোজ। অপরদিকে তার বাড়ির সামনের আধাপাকা সড়ক পুরো পাকা, রাজীবের নামে নামকরণ এবং বাড়িতে গভীর নলকূপ স্থাপনের ঘোষণা দিয়েছেন বাউফল উপজেলা চেয়ারম্যান এবং দাসপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান। রাজীবের খালা জাহানারা বেগম একুশে টেলিভিশন অনলাইনকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। বুধবার দুই দফা জানাজার পর পারিবারিক কবরস্থানে রাজীবকে সমাহিত করে তার পরিবার। এর আগে ঢাকায় হাইকোর্ট মসজিদে রাজীবের প্রথম জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। বুধবার সকাল ৯টায় বাউফল সদরের পাবলিক মাঠে দ্বিতীয় জানাজার নামাজ অনুষ্ঠিত হয়। জানাজায়  রাজীবের ছোট দুই ভাই মেহেদি ও আবদুল্লাহ, বাউফলের সংসদ সদস্য আ স ম ফিরোজ, পটুয়াখালীর জেলা প্রশাসক মো. মাসুমুর রহমান, পু‌লিশ সুপার মো. মাঈনুল হাসনসহ স্বজনরা উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া জানাজায় অংশ নেন, স্থানীয় উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তা বিভিন্ন পেশাজীবী, রাজনৈতিক, সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতা-কর্মীরা। জানাজার আগে চীফ হুইপ গণমাধ্যমকে জানান, ‘রাজীবের মৃত্যুর ঘটনায় পুরো জাতি মর্মাহত।সরকার রাজীবের পাশে ছিলো, ভ‌বিষ্যতেও তার পরিবারের সদস্যদের পাশে থাকবে।রাজীবের দুই ভাইকে সরকার সর্বোচ্চ সহায়তা করবে। এরপর সকাল ১০টায় দাসপাড়া গ্রামে রাজীবের নানা বা‌ড়িতে তৃতীয় নামাজে জানাজা অনু‌ষ্ঠিত হয়। রাজীবের তৃতীয় জানাজার নামাজ পড়ান তার ছোট ভাই হাফেজ মো.মেহে‌দি হাসান এবং মোনাজাত করান আরেক ছোট ভাই মো. আব্দুল্লাহ। এরপর রাজীবের নানা-নানীর কবরের পাশে তার দাফন সম্পন্ন হয়। উল্লেখ্য, গত ৩ এপ্রিল রাজধানীর কারওয়ান বাজারের সার্ক ফোয়ারার কাছে দুই বাসের চাপায় ডান  হাত বিচ্ছিন্ন হয়ে যায় তিতুমীর কলেজের মাস্টার্সের ছাত্র রাজীব হোসেনের। দুই সপ্তাহ ঢাকা মেডিকেলের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন থাকা অবস্থায় ১৬ এপ্রিল সোমবার রাত পৌনে একটায় মৃত্যুবরণ করে রাজিব। কেআই/ টিকে

বরগুনায় বেড়েছে ডায়রিয়ার প্রকোপ (ভিডিও)

গরম বাড়ার সাথে সাথে বরগুনায় বেড়েছে ডায়রিয়ার প্রকোপ। ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়ে গত দুই সপ্তাহে সদর হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে ৩৪৮ জন । হঠাৎ রোগী বেড়ে যাওয়ায় সেবা দিতে হিমশিম খাচ্ছেন চিকিৎসকরা। বরগুনা সদর হাসপাতালে প্রতিদিন বাড়ছে ডায়রিয়া আক্রান্ত রোগী। তাদের অধিকাংশই নারী ও শিশু। ওয়ার্ডগুলোতে রোগীদের স্থান সংকুলান না হওয়ায় অনেকে মেঝে ও বারান্দায় শয্যা পেতে চিকিৎসা নিচ্ছে। পরিস্থিতি সামাল দিতে বেগ পেতে হচ্ছে বলে জানান চিকিৎসকরা। পরিস্থিতির জন্য অতিরিক্ত গরম ও বিশুদ্ধ পানির অভাবকেই দায়ী করছেন, সিভিল সার্জন। ডায়রিয়া প্রতিরোধে নিরাপদ পানি ব্যবহার এবং আক্রান্তদের পর্যাপ্ত স্যালাইন খাওয়ার পরামর্শ চিকিৎসকদের।

নতুন বছরকে বরণ করতে বরগুনায় ব্যাপক প্রস্তুতি (ভিডিও)

৩৭ বছরের ঐতিহ্য লালন করে এবারও বাংলা নতুন বছরকে বরণ করে নিতে বরগুনায় নেওয়া হয়েছে ব্যাপক প্রস্তুতি। সরব হয়ে উঠেছে সাংস্কৃতিক সংগঠনগুলো, চলছে মহড়া। ৫দিন ব্যাপী মেলা উদযাপনে শিমুলতলায় চলছে মঞ্চ আর স্টল তৈরির কাজ। বর্ষবরণের সব অনুষ্ঠানে নিরাপত্তা নিশ্চিত করা কথা জানিয়েছে প্রশাসন। বরগুনায় বর্ষবরণ উৎসব আর বৈশাখী মেলা উদযাপন শুরু হয়েছিল ১৯৮১ সালে। এবারও সূর্যোদয়ের সাথে সাথে নানা আনুষ্ঠানিকতায় নতুন বছরকে বরণ করা হবে। প্রভাতী অনুষ্ঠানের জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছেন সাংস্কৃতিক সংগঠনগুলোর সদস্যরা। গত কয়েকদিন ধরেই মহড়ায় ব্যস্ত তারা। আয়োজনে থাকছে পাঁচ দিনের বৈশাখী মেলা। ঐতিহ্যবাহী শিমুলতলায় চলছে মঞ্চ ও স্টল তৈরির কাজ। সার্বিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে কাজ করছে প্রশাসন। সবার অংশগ্রহণে শান্তিপূর্ণভাবে অনুষ্ঠিত হবে সব অনুষ্ঠান ও সম্প্রীতির বৈশাখী মেলা, এ প্রত্যাশা বরগুনাবাসীর।

ভোলায় আলু ক্ষেতে পোকার আক্রমণ(ভিডিও)

পোকার আক্রমণে ভোলায় ক্ষেতের আলু নষ্ট হওয়ায় ক্ষতির মুখে পড়েছেন কৃষক। সেইসাথে বাজার দর পড়ে যাওয়ায় দিশেহারা তারা। এদিকে মুন্সিগঞ্জে বাম্পার ফলন হলেও দাম না পাওয়ায় বিপাকে চাষীরা। হিমাগার কম থাকায় সংরক্ষণও করা যাচ্ছেনা। বিগত কয়েক বছর বাম্পার ফলনে এ মৌসুমেও ৭ হাজার ১০০ হেক্টর জমিতে আলু লাগিয়েছিলেন ভোলার কৃষক। মৌসুমের শুরুতে টানা বৃষ্টিতে ক্ষেতে পানি জমে নষ্ট হয় আলু বীজ। দ্বিতীয় দফায় লোন করে নতুন বীজ বোনার পর পোকায় আক্রান্ত হয় আলু ক্ষেত। সার-কিটনাশক দিয়েও ফল মেলেনি। বিগত বছরে প্রতি কেজি আলু ১২ থেকে ১৪ টাকায় বিক্রি হলেও এবার সর্বোচ্চ দর ৬ থেকে ৭ টাকা। কৃষকরা বলছেন, বাজার দর কম হওয়ায় ক্ষতি পুষিয়ে খরচ তোলায় দায়। আলুর মড়ক ঠেকাতে আগামীতে কৃষকদের সঠিক নিয়মে সার দেয়ার পরার্মশ কৃষি বিভাগের। এদিকে মুন্সীগঞ্জের ৬টি উপজেলার আলুর বাম্পার ফলন হলেও আকার ছোট হওয়ায় ভালো দাম পাওয়া নিয়ে শঙ্কায় আছেন কৃষক। এ বছর জেলায় ১৩ লাখ ৬৯ হাজার মেট্রিকটন আলু উৎপাদন হবে বলে জানিয়েছে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর। এদিকে মুন্সীগঞ্জে ৭৬টি হিমাগারের ধারণক্ষমতা সাড়ে ৪ লাখ টন। বাড়তি আলু ২ থেকে ৩ মাস পর্যন্ত বাড়িতে মাচা করে সংরক্ষণের পরামর্শ কৃষি কর্মকর্তাদের। ক্ষতি পুষিয়ে নিতে আলু রপ্তানির পাশাপাশি নায্য দাম নির্ধারণের দাবি কৃষকদের।  

দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে সৌরবিদ্যুতের গ্রিড

স্ট্যানফোর্ড থেকে জার্মানি হয়ে ঢাকায় এসেছেন সেবাস্টিয়ান গ্রো সলশেয়ার নামের একটি স্টার্টআপ শুরু করার জন্য৷ উদ্দেশ্য, প্রত্যন্ত অঞ্চলের স্থানীয় ব্যবসায়ীদের একক সোলার প্যানেলগুলোকে জুড়ে সৌরবিদ্যুতের গ্রিড সৃষ্টি করা৷ বাংলাদেশের দক্ষিণাঞ্চলে রাঙ্গাবালী দ্বীপ। এটি পটুয়াখালীতে অবস্থিত। এখানে বিদ্যুতের তারের চাহিদা খুব বেশি, কেননা সরকারি বিদ্যুৎ এখনও এখানে এসে পৌঁছায়নি৷ অপরদিকে বাজারের বহু স্থানীয় ব্যবসায়ী দোকানের মাথায় সোলার প্যানেল বসিয়েছেন৷ সলশেয়ার কোম্পানি সেই একক প্যানেলগুলোকে জুড়ে গোটা মোল্লার বাজার এলাকার জন্য একটি গ্রিড সৃষ্টি করতে চায়৷ সলশেয়ার-এর হেড অফ অপারেশনস আজিজা সুলতানা বলেন, ‘আমাদের দেখতে হবে, কোথায় সোলার হোম সিস্টেমগুলির সংখ্যা বেশি৷ শুধু সেখানেই গ্রিড সৃষ্টি করা সম্ভব। প্রযুক্তিগত পরিস্থিতি জানার পরেই আমরা অগ্রণী হতে পারবো।’ একটি স্থানীয় গ্রিড থেকে ব্যাপারীদের অনেক সুবিধা হবে। তারা তাদের সোলার প্যানেলগুলো একসঙ্গে চালু করে বিদ্যুৎ কেনাবেচা করতে পারবেন, প্রতিবেশীর কাছ থেকে বিদ্যুৎ কিনতে পারবেন ও সেই বিদ্যুৎ দিয়ে আরও বেশি যন্ত্র চালাতে পারবেন। সলশেয়ার কোম্পানি সেজন্য একটি বিশেষ পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউটর বের করেছে, যা বিদ্যুৎ দেওয়া বা নেওয়ার বিশদ হিসেব রাখতে পারে৷ এই ডিস্ট্রিবিউটরগুলোর নাম রাখা হয়েছে সলবক্স। জানা গেছে, মোল্লার বাজারের ১৫০ জন ব্যাপারী শিগগিরই একটি গ্রিডে একত্র হবেন। গোটা বাংলাদেশে এ ধরনের গ্রিডের ব্যাপক সুযোগ আছে। কেননা সারা বিশ্বে এদেশেই বেসরকারি মালিকানার একক সোলার প্ল্যান্টের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি, সব মিলিয়ে ৪০ লাখের বেশি। সলবক্স বাংলাদেশেই তৈরি করা হয়। স্টার্টআপটি এখনও মুনাফা করতে পারছে না বটে, কিন্তু তাদের এশীয় উন্নয়ন ব্যাংক কিংবা জার্মান আন্তর্জাতিক সহযোগিতা সংস্থা জিআইজেড-এর মতো পৃষ্ঠপোষক আছে। সলবক্সের প্রধান এককালে ইনভেস্টমেন্ট ব্যাংকার ছিলেন৷ সলশেয়ার-এর সিইও সেবাস্টিয়ান গ্রো বলেন, “আমরা চিরকাল এখানে উৎপাদন করিনি। গোড়ায় আমরা স্ট্যানফোর্ড থেকেই আমাদের পণ্যটির বিকাশ ঘটানোর চেষ্টা করেছি। পরে সে কাজে বার্লিনে বাসা গেড়েছি। কিন্তু তাতে কোনও কাজ হয়নি। আমরা প্রথম সাফল্য পেয়েছি এখানে উৎপাদন শুরু করার পর। এখানে তৈরি করে তারপর দেখা, পণ্যটা কীভাবে বাস্তবে কাজে লাগানো হচ্ছে– সত্যিই দারুণ৷’ তাঁর কোম্পানির জন্য গ্রো জার্মানি থেকে বাস উঠিয়ে ঢাকায় এসেছেন। এদেশে ব্যবসা করার ধরণ-ধারণ শিখেছেন ও কাজ চালানোর মতো বাংলাও শিখেছেন। গ্রো-র সমস্যা হল, সরকারি গ্রিডে বিদ্যুৎ দিয়ে কোনও দাম পাওয়া যায় না। আগামী বছরের শেষে নির্বাচন, কাজেই তার আগে এক্ষেত্রে কিছু বদলাবে বলেও মনে হয় না। ওদিকে সরকার আণবিক চুল্লি তৈরির সপক্ষে জনমত সৃষ্টি করতে সচেষ্ট। অথচ গ্রো দেখছেন, বাংলাদেশে অবিশ্বাস্য রকমের ঘন জনবসতি। আবার দূরত্বগুলোও খুব বেশি নয়। ইলেক্ট্রোমোবিলিটি বা ব্যাটারি-চালিত গাড়ির জন্য এর চাইতে ভালো পরিস্থিতি হতে পারে না। পরিবহণের ক্ষেত্রে সারা দেশে ইতিমধ্যেই প্রায় আট লাখ ইলেক্ট্রো রিকশা চলেছে, যেগুলো চার্জ করার কাজে সলশেয়ার সংশ্লিষ্ট হতে চায়। সলশেয়ার পরীক্ষা করে দেখছে, স্থানীয় সৌরশক্তির গ্রিড থেকে এই রিকশাগুলির ব্যাটারি রি-চার্জ করা যায় কি-না। গ্রো বলেন, ‘আমাদের লক্ষ্য হল, গ্রামগুলোর বিকাশ ঘটবে। বর্তমানে ওরা সৌরশক্তি থেকে পাওয়া বিদ্যুতের আদান প্রদান করছেন। ফলে বিদ্যুতের ব্যবহার আরও কার্যকর হচ্ছে। কিন্তু গ্রামের আমদানি বাড়ানোর জন্য বাইরে থেকে টাকা আসা প্রয়োজন। রিকশা চালকরা যদি ব্যাটারি চার্জ করার জন্য বাইরে থেকে গ্রামে আসেন, তাহলে উন্নয়নের আরও একটা রাস্তা খুলে যাবে।’ সূত্র: ডয়চে ভেলে একে//টিকে

সাড়ে ৭ মণ শাপলা মাছ

ভোলা জেলার চরফ্যাশন উপজেলা সংলগ্ন মেঘনা নদী থেকে জেলেদের জালে ধরা পড়েছে সাড়ে ৭ মণ ওজনের শাপলা পাতা মাছ। পরে বিশাল আকারের এ মাছটি বরিশাল নগরের বেসরকারি মৎস্য অবতরণ কেন্দ্রে নেওয়া হয়। গত শুক্রবার রাতে জেলেদের জালে ধরা পড়া মাছটি আজ রোববার সকালে কেটে ভাগা দিয়ে বিক্রি করছেন মাসুম বেপারী নামে এক মৎস্য ব্যবসায়ী। জানা গেছে, গতকাল শনিবার মাছটি বরিশালের মৎস্য অবতরণ কেন্দ্রে নেওয়া হলে সেখানে জেলেদের কাছ থেকে সাড়ে ৭ মণ ওজনের ওই মাছটি ক্রয় করেন রনি ফিস নামের মৎস্য আড়ত মালিক। আজ রোববার সকালে মাছটি সেখান থেকে কিনে ৫০০ টাকা করে ভাগা দিয়ে বিক্রি করছেন বলে জানিয়েছেন মাসুম বেপারী নামে ওই মৎস্য ব্যবসায়ী। ব‌রিশাল মৎস্য কার্যালয়ের কর্মকর্তা (হিলসা) বিমল চন্দ্র দাস জানান, এ মাছের ইংরেজি নাম লিওপার্ড ‍স্টিংগ্রে। এটির স্থানীয় নাম শাপলাপাতা, হাউস, সানকুস, চিত্রা হাউস। এ মাছ গু‌লো উপকূলীয় অগভীর নদী, ম্যানগ্রোভে পাওয়া যায়। একে// এআর

© ২০১৮ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি