ঢাকা, রবিবার   ১৬ মে ২০২১, || জ্যৈষ্ঠ ১ ১৪২৮

অতিরিক্ত খরায় মুগডাল চাষীরা বিপাকে (ভিডিও)

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১২:৩৪, ১৯ এপ্রিল ২০২১

অতিরিক্ত খরায় এবার পটুয়াখালীতে পুড়ে গেছে ৫শ’ কোটি টাকার মুগডাল। ফলে বিপাকে পড়েছেন হাজার হাজার চাষী। সরকারি প্রণোদনা না থাকা, করোনা মহামারীর লকডাউন এবং শ্রমিক সংকট থাকায় ৪০ শতাংশ ফসল কম হওয়ার আশংকায় কৃষি বিভাগ।

সারাদেশের প্রায় ৬০ ভাগ মুগডাল চাষ হয় উপকূলীয় জেলা পটুয়াখালীতে। স্বল্প সার-ওষুধ এবং স্বল্প পরিশ্রমে বেশি ফসল পাওয়ায় মুগচাষে আগ্রহী হচ্ছেন চাষীরা। চলতি বছর লক্ষ্যমাত্রার চেয়েও বেশি জমিতে মুগডালের আবাদ হয়েছে। কিন্তু মার্চ ও এপ্রিল মাস জুড়ে খরার কারণে কৃষকের স্বপ্ন হতাশায় পরিণত হয়েছে। বৃষ্টি না হওয়ায় ক্ষেতেই পুড়ে গেছে অধিকাংশ ফসল।

স্থানীয় মুগচাষী জানান, বৃষ্টির জন্য গাছ শুকিয়ে গেছে। ফলন অনেক কম হয়েছে। গেল বছর যে ডাল হয়েছিল এবছর তার অর্ধেক। বৃষ্টি নাই খরার কারণে মুগের ফলন হয়নি।

করোনার লকডাউনে শ্রমিক সংকট রয়েছে। তবে অবিরাম খরার কারণে ডালের ফলন ৩০ থেকে ৪০ শতাংশ কম হবে বলে আশংকা কৃষি কর্মকর্তার।

পটুয়াখালী কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক একেমএম মহিউদ্দীন বলেন, অবিরাম খরার কারণে এবং কৃষকদের যথেষ্ট সেচ সুবিধা না থাকার কারণে আমাদের মুগ ফসল কিছুটা সংকটাপন্ন। আমরা আশা করছি, একেবারে গতবারের মতো এবার ফলনটা পাবো না এবং এবার ফলনের কিছুটা কমতি হবে।

পটুয়াখালীতে এবার ৯৭ হাজার ৪৪০ হেক্টর জমিতে মুগডাল চাষ করা হয়েছে যা লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে প্রায় ২১ হাজার হেক্টর বেশি। মুগডাল আবাদে সরকার সহযোগিতার হাত বাড়াবে, এমনটাই প্রত্যাশা সকলের।
দেখুন ভিডিও :

এএইচ/এসএ/

 


Ekushey Television Ltd.

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি