ঢাকা, শনিবার   ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, || আশ্বিন ৬ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

ইউএনও নাম্বার ক্লোন করে জালিয়াতি 

প্রকাশিত : ১৫:৪১ ৩ জুলাই ২০১৯

দিনাজপুরের হাকিমপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার সরকারি নাম্বার ক্লোন করে বিভিন্ন মাদ্রাসা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের নিকট থেকে কম্পিউটার প্রদানের কথা বলে টাকা আদায়ের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় হাকিমপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আব্দুর রাফিউল আলম থানায় সাধারণ ডায়েরি করেছেন। 

হাকিমপুর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসের অফিস সহকারি আশরাফুল ইসলাম বলেন, আজ সকালে ০১৯৪৮৮৭৫৫৫৪ নাম্বারের একটি বাংলালিংক নাম্বার থেকে আমাকে ফোন করে বলা হয় আপনি কি আশরাফুল ইসলাম বলছেন। পরে তার পরিচয় জানতে চাইলে সে বলেন হাকিমপুরে চাকরি করেন আর ইউএনও নাম্বার চিনেন না। তখন আমি বলি চিনবো না কেন? ইউএনওর নাম্বার তো আমার কাছে রয়েছে কিন্তু এই নাম্বার তো সেটি না তখন সে কেটে দিয়ে আবারও ইউএনওর সরকারি নাম্বার থেকে ফোন করেন। তখন আমি বুঝতে পারি উনি ইউএনও। পরে তিনি বলেন, হাকিমপুরে ৯টি মাদ্রাসা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রয়েছে, আপনি তাদেরকে আমার এই ব্যাক্তিগত নাম্বারে কথা বলতে বলেন। পরে আমি সবকটি মাদ্রাসার সুপারকে সেই নাম্বারটি দিয়ে তার সঙ্গে কথা বলার জন্য বলি। পরে এক সুপার কম্পিউটার দিবে মর্মে বিকাশে ইউএনওর ৭ হাজার টাকা চাওয়ার বিষয়টি বললে আমি তাকে বলি টাকা বিকাশে না দিয়ে যখন কম্পিউটার নিবেন তখন ক্যাশ দিবেন। সেই সঙ্গে অপর একজন মাদ্রাসার সুপার আমাকে ফোন দিয়ে জানান আমি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার সরকারি যে নাম্বার রয়েছে সেই নাম্বারে ফোন দিয়েছি তো তিনি বিষয়টি জানেন না বলে জানিয়েছেন। তখন প্রতারণার বিষয়টি বুঝতে পেরে সঙ্গে সঙ্গে বিষয়টি ইউএনওকে অবহিত করি। সেই সঙ্গে সব মাদ্রাসার সুপারকে ফোন করে সেই নাম্বারে টাকা দেওয়ার কথা নিষেধ করি। তবে ইতোমধ্যেই নাকি ৪জন সেই নাম্বারে ৭ হাজার করে টাকা প্রদান করেছেন।  

হিলির বিশাপাড়া দাখিল মাদ্রাসার সুপার মাওলানা রোস্তম আলী সরকার বলেন, আজ সকালে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসের অফিস সহকারি আশরাফুল একটি নাম্বার দিয়ে তা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার ব্যক্তিগত নাম্বার বলে তার সঙ্গে কথা বলার জন্য বলেন। পরে ওই নাম্বারে ফোন দিলে সে নিজেকে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বলে মাদ্রাসায় কম্পিউটার প্রদান করা হবে মর্মে তার নাম্বারে ৭ হাজার টাকা বিকাশ করতে বলেন এবং বিকেলে উপজেলা অফিসে গিয়ে ল্যাপটপ নিয়ে আসার কথা বলেন। সে মোতাবেক মাদ্রাসার পরিচালনা কমিটির সভাপতির সঙ্গে আলোচনা করে সেই নাম্বারে ৭ হাজার টাকা প্রদান করি।  

হাকিমপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আব্দুর রাফিউল আলম বলেন, আমার সরকারি নাম্বার (০১৭৬১৪৯৩৫৩৫) যেটি ক্লোন করে বিভিন্ন জায়গায় ফোন করে টাকা পয়সা চাচ্ছে একটি প্রতারক চক্র। আমি ইতিমধ্যেই থানায় জিডি করেছি। এছাড়াও আমার ফেসবুক পেজে এ সংক্রান্ত পোস্ট দিয়ে এ বিষয়ে কাউকে কোনও টাকা পয়সা প্রদান না করার জন্য সবাইকে সতর্ক থাকার পরামর্শ দিয়েছি।

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি