ঢাকা, বুধবার   ০৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৩

করুণদশা বিবি মরিয়মের সমাধির (ভিডিও)

বিমল রায়, নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ১৬:৪৬, ১৭ জানুয়ারি ২০২৩ | আপডেট: ১৬:৪৮, ১৭ জানুয়ারি ২০২৩

মুঘল সম্রাট আওরঙ্গজেবের আমলে ১৬৬৪ থেকে ১৬৮৮ সাল পর্যন্ত বাংলার সুবেদার ছিলেন শায়েস্তা খান। তার দুই মেয়ে- তুরান দখত, যিনি বিবি মরিয়ম নামে পরিচিত ছিলেন আর ইরান দখত, যাকে সবাই জানত যিনি পরী বিবি নামে।

শায়েস্তা খানের কন্যা বিবি মরিয়ম চিরনিদ্রায় শায়িত আছেন নারায়ণগঞ্জের হাজীগঞ্জের কেল্লারপুলে। 

বিশিষ্ট প্রত্নতত্ত্ববিদ, ইতিহাসবিদদের মতে, বিবি মরিয়মের সমাধিসৌধটি সুবাদার শায়েস্তা খায়ের আমলেই নির্মাণ করা হয়। মরিয়মের নামে সেখানে নির্মাণ করা হয়েছে মসজিদ ও বিবি মরিয়ম বালিকা উচ্চবিদ্যালয়। 

সমাধিসৌধের পশ্চিম পাশে রয়েছে তিন গম্বুজ বিশিষ্ট বিবি মরিয়ম মসজিদ। সমাধিসৌধটি সুউচ্চ প্রাচীর দিয়ে ঘেরা একটি আয়তাকার প্রাঙ্গণের মধ্যখানে ভূমি থেকে উঁচু ভিতের উপর নির্মিত। বর্গাকার ইমারতটিতে একটি গম্বুজ দেখা যায়। এছাড়াও ভবনের চারদিকে খিলান ছাদ বিশিষ্ট বারান্দা ঘিরে রয়েছে। সমাধিসৌধটির কেন্দ্রস্থলে চতুষ্কোণ কক্ষে রয়েছে তিন ধাপ বিশিষ্ট সমাধি। সমাধিটি শ্বেত পাথরে নির্মিত ও লতা পাতার নকশা অঙ্কিত।
 
রক্ষণাবেক্ষণের অভাবে হারিয়ে যেতে বসেছে প্রাচীন এ নিদর্শনটি। বিবি মরিয়মের সমাধির দেয়াল থেকে খসে পড়ছে ইট-সুরকি। 

সমাধির চারদিকের প্রাচীর ঘেঁষে গড়ে উঠেছে দোকানপাট। আশপাশে আলোর ব্যবস্থা না থাকায় সন্ধ্যা হলেই সমাধিসৌধটি ভুতুড়ে এলাকায় পরিণত হয়। এসব কারণে এখন তেমন দর্শনার্থীও আসে না। 

ঐতিহাসিক স্থাপনাটি সংস্কার করে জাদুঘর করার দাবি জানিয়েছেন দর্শনার্থী ও স্থানীয়রা।

এএইচএস


Ekushey Television Ltd.

© ২০২৩ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি