ঢাকা, বুধবার   ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

খরতাপে পুড়ছে চা-গাছ, উৎপাদন ব্যাহত (ভিডিও)

বিকুল চক্রবর্তী, মৌলভীবাজার থেকে

প্রকাশিত : ১২:৪৫, ১৯ এপ্রিল ২০২৩

তাপদাহে মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলসহ সিলেট অঞ্চলে ব্যাহত হচ্ছে চা উৎপাদন। তাপে চা-গাছের কুঁড়ি বৃদ্ধি পাচ্ছে না। কোথাও জ্বলে গেছে গাছ। এ অবস্থায় সেচ দেয়ার কথা বলছেন চা গবেষকরা। 

দেখে বোঝার উপায় নেই এটি একটি কুঁড়ি দুটি পাতার গাছ। খরতাপে পুড়ে গেছে চা-গাছ।

খরায় থেমে গেছে পাতার বৃদ্ধি। শ্রমিকরা পড়েছেন বিপাকে। আগে যেখানে ২৫ থেকে ৩০ কেজি উঠাতে পারতো, এখন সারাদিন তাপদাহের মধ্যে কাজ করে ১০ থেকে ১২ কেজির বেশি পাতা তুলতে পারছে না তারা।

শ্রমিকরা জানান, বৃষ্টি হয়না পাতাও বড় হয় না। আমরা নিতে পারছিনা। রোদের মধ্যে পাতা তেমন একটা হয়না, বৃষ্টি হলে নতুন পাতা হবে। গরমে চারা গাছের বৃদ্ধি ঘটছেনা।

চা-বিজ্ঞানীরা জানান, চায়ের জন্য ২০ থেকে ২৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা উত্তম। ২৯ ডিগ্রির বেশি তাপ চা-গাছ সহ্য করতে পারে না। কিন্তু মৌলভীবাজারে এখন তাপমাত্রা তার উপরে।

শ্রীমঙ্গল পিডিইউ পরিচালক ড. রফিকুল হক বলেন, “বৈশ্বিক আবহাওয়া পরিবর্তনের কারণে তাপমাত্রা বৃদ্ধি পেয়েছে। যা চায়ের উপর প্রভাব ফেলেছে। এ থেকে মুক্তি পেতে বাগানগুলোকে সেচ ও মালচিং ব্যবস্থা এবং সঠিক সেডের পরামর্শ দিয়ে যাচ্ছি।”

চা গবেষণা কেন্দ্রের কর্মকর্তারা যাচ্ছেন বিভিন্ন বাগানে। এই তাপদাহে চা গাছ রক্ষায় দিচ্ছেন নানা পরামর্শ। 

শ্রীমঙ্গল বাংলাদেশ চা গবেষণা কেন্দ্রের পরিচালক ড. ইসমাইল হোসেন বলেন, “একটা কঠিন সময় আমরা অতিবাহিত করছি। এই খরা মোকাবেলায় আমাদেরকে সমন্বিত ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। চা বাগারে যদি অপটিমাম সেড থাকে তাহলে ৬ থেকে ১০ ডিগ্রি পর্যন্ত তাপমাত্রা কমানো সম্ভব।”

খরা দীর্ঘায়িত হলে উৎপাদন ঘাটতি দেখা দিতে পারে বলে আশঙ্কা সংশ্লিষ্টদের।

এএইচ


Ekushey Television Ltd.


Nagad Limted


© ২০২৪ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি