ঢাকা, রবিবার   ১১ এপ্রিল ২০২১, || চৈত্র ২৮ ১৪২৭

গোলপাতার গুড়ের বাণিজ্যিক সম্ভাবনা (ভিডিও)

পটুয়াখালী প্রতিনিধি

প্রকাশিত : ১৩:৫৬, ৬ মার্চ ২০২১

কুয়াকাটার গোলপাতার গুড়। প্রসারমান এই কৃষিপণ্যটি স্থানীয় চাহিদা মিটিয়ে, পর্যটকদের হাত ধরে যাচ্ছে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে। কোন রাসায়নিক ছাড়াই স্থানীয় লোকজন এ গুড় তৈরি করেন। এর বাণিজ্যিক সম্ভাবনাকে কাজে লাগাতে প্রয়োজন যথাযথ সহায়তা।  

উপকূলের কৃষকরা পাম গোত্রের উদ্ভিদ গোলগাছের রস থেকে গুড় তৈরি করেন কেবল নিজেদের প্রয়োজন মেটাতে। চাহিদা থাকায় এই পণ্যটির সীমিত বাণিজ্যিক উৎপাদন শুরু হয়েছে। 

বাণিজ্যিকভাবে গুড় উৎপাদনের জন্য গোলপাতার চাষ করেছেন উপকূলের কৃষকরা। নিজেদের বাগান থেকেই রস সংগ্রহ করে গুড় উৎপাদন করেন তারা। গোলপাতা গুড়ের পুরোপুরি বাণিজ্যিক উৎপাদনের জন্যে সরকারি-বেসরকারি পৃষ্ঠপোষকতার দাবি করেছেন স্থানীয় কৃষকরা।

স্থানীয় গুড় উৎপাদনকারী কৃষক ও ক্রেতারা জানান, যেভাবে পরিশ্রম করি সেভাবে এটার ফলাফল আমরা পাচ্ছি না। কারণ বাজারে এই গুড় ১২০ করে বিক্রি করতে হয় তাতে আমাদের খরচায় পোষায় না। এর মূল্য তেমন একটা পাওয়া যায় না, এরপর খাজনাও দিতে হয়। তবে সরকারি সহযোগিতা পেলে আমাদের উপকার হতো।

উপকূলে জাগছে নতুন নতুন চর। এসব চরে গোল বাগান সৃষ্টি করতে বন বিভাগকে অনুরোধ করা হয়েছে বলে জানিয়েছে জেলা 
প্রশাসন। 

পটুয়াখালী জেলা প্রশাসক মো. মতিউল ইসলাম চৌধুরী বলেন, গোলপাতার গুড়ের প্রতি লোকাল এবং ঢাকা থেকে আগত পর্যটকদের চাহিদা বেড়েছে। এটা আওতায় আমরা যাচ্ছি, স্থানীয় মানুষদের উদ্বুদ্ধ করে গোলপাতার বাগান বাড়ান এবং তাদের অর্থনৈতিক আয়ের একটা পথ হিসেবে দেখা।

যথাযথ সহায়তা পেলে গোল গুড় হতে পারে একটি ব্যতিক্রমী রপ্তানি পণ্য।
দেখুন ভিডিও :


এএইচ/এসএ/
 


Ekushey Television Ltd.

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি